Sunday 12th of July 2020 08:17:16 PM

নূরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জ থেকেঃ  দরিদ্রতা দমাতে পারেনি নবীগঞ্জের বিশ্ব সরকারকে। এক বেলা খেয়ে না খেয়ে বাবার সাথে ঠেলাগাড়ি চালিয়ে এ বছর ইনাতগঞ্জ  উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে।
অদম্য মেধাবী বিশ্ব সরকার হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ  উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের বিধু সরকারের ছেলে। সে ২০১৪ সালে আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিইসি সমাপনী পরীক্ষায় ট্যেলেন্ট পুলে ও ২০১৮ সালে অষ্টম শ্রেনীতে সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি পেয়েছে।
তিন ভাই এক বোনের মধ্যে সবার বড় বিশ্ব সরকার। বাবা কষ্ট করে এক বোন ও এক ভাইকে ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রনীতে ও এক ভাইকে আলীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩য় শ্রেনীতে পড়া-লেখা করাচ্ছেন । জমাজমি বলতে শুধু বসতভিটা। একমাত্র আয়ের উৎস ভ্যান চালানো।

বাবা বিধু সরকার অসুস্থ হলে তার চিকিৎসার অর্থ থাকে না। তখন বাধ্য হয়ে বই কলম খাতা ছেড়ে হাতে নিতে হয় ঠেলাগাড়ি। কখনো বাবার সাথে ঠেলাগাড়ি চালাতে সহযোগিতা করতে হয়। সেখান থেকে প্রতিদিন তিন-চার শ’ টাকা রোজগার হতো। এত কিছুর পরেও থেমে থাকেনি তার লেখাপড়া। দিনের বেশির ভাগ সময় কাজ করলেও রাত জেগে চলত তার লেখাপড়া।

অর্থের অভাবে প্রাইভেট পড়তে পারেনি। তবে তার স্কুলের শিক্ষক জন্মজয় রায় ও মিঠু দেব তাকে পড়া-শুনায় ব্যাপক সহযোগীতা করেছে। অদম্য এই মেধাবী বিশ্ব ভবিষ্যতে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ডাক্তার হয়ে বাবার কষ্ট লাগব করতে চায়।

বিশ্ব সরকার  বাবা বিধু সরকার বলেন, আমার ছেলে লেখাপড়ায় খুবই ভালো। এসএসসিতে জিপিএ ৫ পাওয়ায় আমি খুবই খুশি। সে লেখাপড়া করে অনেক বড় হতে চায়; কিন্তু আমাদের সামর্থ্য নেই। তবু স্বপ্ন পূরণে আমি দিন-রাত পরিশ্রম করে তার লেখাপড়ার খরচ জোগাড়ের চেষ্টা চালাব।

ইনাতগঞ্জ  উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বদরুল আলম ইলাক বলেন,বিশ্ব সরকার একজন মেধাবী ছাত্র। তার পরিবার অত্যন্ত গরিব। আমার পক্ষ থেকে আমি যতটুকু পারি সহযোগিতা করব। তার স্বপ্ন পূরণে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

শ্রীমঙ্গলের ভানুগাছ রোডস্থ ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের সভা অনুষ্ঠিত।  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে প্রশাসনের সাথে ভানুগাছ রোডস্থ ব্যসায়ীদের নবগঠিত কমিটির  আলোচনা সভা  অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার (৯ জুন) বিকেল সাড়ে ৫ টায় শহরের ভানুগাছ  রোডস্থ একটি রেস্টুরেন্টে ভানুগাছ রোডের ব্যবসায়ী কল্যাণ সংগঠনের উদ্যোগে ব্যবসায়ী হাজী সিরাজুল ইসলাম খাঁনের সভাপতিত্বে ও ভানুগাছ রোড ব্যবসায়ী কল্যাণ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান পাঠানের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান (সার্কেল শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ), বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক, ৭ নং ওয়ার্ডের  পৌর কাউন্সিলর (প্যানেল মেয়র-২) মীর এম এ সালাম, ৫ নং পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিল্লাদ হোসেন মিরাশদার ও ১ নং পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর  মো. আলকাছ মিয়াসহ বিভিন্ন  ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি ও আমার সিলেট সম্পাদক আনিছুল ইসলাম আশরাফী।
বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম সোহাগ,জুবায়েরসহ, শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস ছালিক ও প্রধান অথিতি সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান আশিক।
আশরাফুজ্জামান আশিক তার দীর্ঘ বক্তব্যের এক পর্যায়ে বলেন,”শহরে বা গ্রামে যারা চুরি ডাকাতি  করে তাদের চুরি ডাকাতির মালামাল যারা ক্রয় করেন তারাও চোর,নিজের সামান্য লাভের জন্য অপরের কত টা ক্ষতি হচ্ছে তা ঐ সকল ব্যাবসায়ীদের ভাবা উচিত।” তিনি তার বক্তব্যে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে আরও বলেন, এই এলাকায় চুরি,মাস্তানি, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসীদের কোন স্থান নেই,সে কেহই হোক আমাকে খবর দিবেন,সে যত বড় অপরাধীই হোক তার বুকের পাঁটা কত বড় আমরা দেখবো,আপনারা আমাদের সহযোগিতা করুন আমরা আপনাদের সহযোগিতা করতে সর্বদা বাধ্য, এর আগে শ্রীমঙ্গল থানার কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুছ ছালিক তার বক্তব্যে বলেন,এমপি স্যার,এসপি স্যার ও এএসপিস্যারের নির্দেশনা এই এলাকায় অপরাধের জিরো ট্রলারেন্স রাখা,আমরা সেই চেষ্টায় সবসময় আছি এবং থাকবো,সেই সাথে আপনাদের সহযোগিতা কামনা করি।
উক্ত সভায় ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে চুরি ডাকাতি ঠেকানোসহ বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (প্রকিউরমেন্ট এন্ড ওয়ার্কশপ) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) হিসেবে তেজগাঁও বিভাগের দায়িত্ব পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (৯ জুন) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বিপিএম-বার স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ পদায়ন করা হয়েছে।

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) কিশোরগঞ্জ জেলার হাওর অধ্যুষিত মিঠামইন উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের গর্বিত সন্তান।

গত ১৪ মে পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) কে পুলিশ সদর দফতর থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে বদলি করা হয়। 

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) পেশাগত জীবনে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি হিসেবে তিন বার বিপিএম ও দুই বার পিপিএম পদক পেয়েছেন।

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) ২০০৮ সালের ৪ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন।

মাত্র ১০ মাস নারায়ণগঞ্জ জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ছয় বার ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার (এসপি) নির্বাচিত হন।

এছাড়া তিনি গাজীপুর জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালনকালেও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন।

এর আগে মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশেও দায়িত্ব পালন করেছেন।সূত্র:কিশোরগঞ্জ নিউজ

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc