Saturday 30th of May 2020 01:37:41 PM

সোলেমান আহমেদ মানিক, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে নতুন করে আরো একজনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমন ধরা পড়েছে ৷ আক্রান্ত কিশোর শ্রীমঙ্গল সদর ইউনিয়নের ভৈরবথলী নামক এলাকার বাসিন্দা।
শ্রীমঙ্গল উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার সাজ্জাদ হোসেন চৌধুরী এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত ১৬ মে এই কিশোরের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয় আজ (২১মে ২০২০ইং) তার নমুনা পরীক্ষার ফল পজেটিভ এসেছে ৷ আক্রান্ত কিশোর সুস্থ আছেন এবং নিজের বাসাতেই অবস্থান করছেন ৷
এদিকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রীমঙ্গলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুর রহমান ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ আক্রান্ত কিশোরের বাড়ী লকডাউন করেছেন ও প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিয়েছেন বলে  জানিয়েছেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম ৷
এদিকে গত ১মে করোনা সনাক্ত হওয়া শ্রীমঙ্গলের এক ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীর পূনরায় করোনা পরীক্ষায় ফল পজেটিভ পাওয়া গিয়েছে ৷
উল্লেখ্য, আজকের একজন আক্রান্ত সহ শ্রীমঙ্গলে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছয় জন ৷

মাষ্টার আব্দুর রহিম ও মেহেরুন্নেছা চৌধুরী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এই সহায়তা

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি:  সিলেটের জৈন্তাপুরে মাষ্টার  আব্দুর রহিম ও মেহেরুন্নেছা চৌধুরী ফাউন্ডেশন পক্ষে ২ধাপে করোনায় বন্দি অসহায় কর্মহীন পরিবারের মধ্যে প্রায় ১হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ সমাজসেবী অাব্দুল মতিন শাহীন ৷ প্রথম দফায় গত ৫ এপ্রিল হতে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত নিজপাট ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের ৫ শত জন দরিদ্র কর্মহীন পরিবারে সহায়তা প্রদান করেন৷ অপরদিকে গত ৪মে গতে ২১ মে পর্যন্ত ২য় দফায় অারও ৫ শত জনের পরিবারে এই সহায়তা বিতরন করেন ৷

গতকাল মাষ্টার আব্দুর রহিম ও মেহেরুন্নেছা চৌধুরী ফাউন্ডেশন সহায়তা বিতরনের শেষ দিনেব বৃহত্তর জৈন্তা পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুর রবের বাড়ীতে সহায়তা বিতরনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নিজপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি অাতাউর রহমান বাবুল, অাওয়ামীলীগ নেতা হায়দর আলী, জৈস্তাপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারওয়ার বেলাল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহজাহাননকবির খান, জৈন্তাপুর অন লাইন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সদস্য মোঃ রেজওয়ান করিম সাব্বির সহ অন্যান্যরা ৷ সরকারের নির্দেশে সরকারের পাশাপাশি তাদের ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে নিজপাট ইউনয়নের হতদরিদ্র প্রায় ১হাজার পরিবারের মধ্যে ৪লক্ষ টাকার এই সহায়তা বিতরণ করা হয়৷
প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিজপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি অাতাউর রহমান বাবুল বলেন, মাষ্টার অাব্দুর রহিম ও মেহেরুন্নেছা চৌধুরী ফাউন্ডেশন অত্র ইউনিয়নের হত দরিদ্র পরিবার গুলোতে রাত্রিকালীন সময়ে প্রচার প্রচারনা ছাড়াই হতদরিদ্রদের খোঁজে বের করে বাড়ী বাড়ী গিয়ে এই সহায়তা রাগের অন্ধকারে পৌছেদিয়ে উপজেলায় অন্যন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে৷ অামি তাদের এই সহায়তা পেয়ে প্রকৃত কর্মহীন পরিবার গুলো কিছুটা উপকৃত হল, আগামিতে এই ফাউন্ডেশন তাদের সহায়তা নিয়ে দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াবে, তাদের পাশাপাশি অন্যান্যরা এগিয়ে আসার অাহবান জানান ৷

“মৌলভীবাজার জেলায় এ পর্যন্ত করোনা পজিটিভ মোট সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৫ জনে”  

জহিরুল ইসলাম,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মৌলভীবাজারে নতুন করে একদিনে চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ও সাংবাদিকসহ ২২ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২১মে)  বিষয়টি নিশ্চিত করেন মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডা. তাওহীদ।

একই সাথে পুরাতন ৫ পজিটিভ রোগীর দ্বিতীয়বার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। বৃহস্পতিবার ঢাকার পিসিআর ল্যাব থেকে নতুন ২২ জন ও পুরাতন ৫ জনসহ সর্বমোট ২৭ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানা  যায়-শনাক্তদের মধ্যে বড়লেখায় ৩ জন চিকিৎসক, জুড়ীতে ৩ জন নার্স এবং মৌলভীবাজার সদরের একজন স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন।

এছাড়া কমলগঞ্জে একজন সাংবাদিকসহ ১০ জন, রাজনগরে ২ জন, মৌলভীবাজার-২৫০ শয্যা হাসপাতালে ১ জন এবং শ্রীমঙ্গলে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এ নিয়ে মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহ করা পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী জেলার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ জন।

প্রসঙ্গত গত ১৩ এপ্রিল ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান মৌলভীবাজারের শ্রমিক লীগ নেতা সৈয়দ মফচ্ছিল আলী। আইইডিসিআর তাকে মৌলভীবাজারের রোগী হিসেবে তাকে তালিকায় রেখেছে।

এছাড়া এপ্রিল মাসে বড়লেখার এক চানাচুর বিক্রেতা স্থানীয়ভাবে উপসর্গ নিয়ে সিলেট শামসুদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি হলে, সেখানে নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। মৌলভীবাজারের করোনা রোগী হলেও তাকে সিলেটের তালিকায় রাখা হয়েছেএবং এরই মধ্যে তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

শেষ সংবাদ পর্যন্ত মৌলভীবাজার জেলাসহ বিভিন্ন উপজেলাতে করোনা আক্রান্ত পজিটিভ রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৫ জনে।

নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় আত্রাই থানা পুলিশের পক্ষ থেকে নিরলসভাবে কাজ করছে আত্রাই থানা পুলিশ।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে বৃহস্পতিবার ভোররাতে উপজেলার রসুলপুর নামকস্থানে আত্রাই নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়া সহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তাঘাটে গাছের ডালপালা পড়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে সাথে সাথে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোসলেম উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্সসহ  নিরলসভাবে কাজ করে আত্রাই নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কের যানচলাচল স্বাভাবিক অবস্থানে নিয়ে আসেন।

বুধবার সন্ধ্যা থেকেই আস্তে আস্তে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান। ফলে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় আমের ব্যাপক ক্ষতি ও মাটির সঙ্গে নিয়ে পড়েছে।

এ ব্যাপারে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোসলেম উদ্দিন জানান, আম্ফান মোকাবিলায়  থানা পুলিশের পক্ষ থেকে উপজেলার সকল এলাকা মনিটরিং ব্যবস্থা এবং যে এলাকা গুলোতে ঝরে গাছপালার ডালপালা পড়ে রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে রয়েছে সে এলাকা গুলোতে মানুষ যাতে সহজে আসতে পারে তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, করোনার চিন্তা মাথায় রেখে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। এলাকা গুলোতে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি কঠিন হয়ে যাবে। তারপরও আমরা এ বিষয়ে সতর্ক থাকব। আত্রাই  ঘূর্ণিঝড়ের ফলে কোনো জানমালের ক্ষয়ক্ষতি না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে আত্রাই থানা পুলিশ মাঠে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। ফলে মানুষের মাঝে কোনো ভীতি কাজ করছে না।উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে পুলিশ।

নূরুুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকেঃ নবীগঞ্জে টিউবওয়েলের স্থাপনের কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তৈয়ব আলী নামে এক শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (২০ মে) বিকেলে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও টিউবওয়েল এর কাজ করতে আসা অন্যান্য শ্রমিকরা জানান, নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের বদরদি গ্রামে এক বাড়িতে কাজ করতে হবিগঞ্জ থেকে কয়েকজন শ্রমিক আসেন।

বুধবার বিকেলে টিউবওয়েল এর কাজে ইলেক্ট্রনিক মটর মেশিনের বিদ্যুতের লাইন মেরামতের জন্য তৈয়ব আলী (২৭) এগিয়ে যান। এসময় বিদ্যুতের মেইন সুইজ বন্ধ না করে  কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আহত হন শ্রমিক তৈয়ব আলী। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নিহত তৈয়ব আলী হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল গ্রামের আব্দুল মালেকের পুত্র। দীর্ঘদিন ধরে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বড় বহুলা গ্রামে শ্বশুর আয়ূব আলীর বাড়িতে ১ পুত্র সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করতেন। শ্বশুর বাড়িতে তৈয়ব আলী (মোঃ নয়ন মিয়া) নামেই পরিচিত ছিল সবার কাছে।

টিউওবয়েল নির্মাণ শ্রমিক তৈয়ব আলীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারে। এক পুত্র সন্তান নিয়ে মাটিতে পড়ে বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন নিহত তৈয়ব আলীর স্ত্রী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।

সুন্দরবনসহ বাংলাদেশের উপকূলে আছড়ে পড়া সুপার সাইক্লোন আম্পানের প্রভাবে নারী-শিশুসহ সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। পটুয়াখালীতে শিশুসহ দুজন, ভোলায় এক বৃদ্ধ, সাতক্ষীরায় এক নারী, পিরোজপুর এবং বরগুনায় অপর দুই ব্যক্তি মারা যান।অপরদিকে প্রতিবেশী দেশ কোলকাতায় তিনজনসহ বিভিন্ন জেলা মিলিয়ে অন্তত ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বুধবার রাত ৯টা ৮ মিনিটে ঘণ্টায় ১৪৮ কিলোমিটার বেগে সাতক্ষীরায় আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। এর আগে, সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিট থেকে ঘূর্ণিঝড়টি উপকূলে আঘাত হানা শুরু করে। আম্পানের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে অনেক ঘর-বাড়ি ও গাছপালা ভেঙে পড়েছে। বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ছে। কিছু কিছু জায়গায় গাছ পড়ে সড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কাঁচা ঘর ও বিদ্যুৎ সরবরাহের অবকাঠামো। কয়েক ফুট বেড়েছে নদনদীর পানি। অনেক স্থানে নদীর পানি প্রবল বে‌গে আছড়ে পড়ছে বে‌ড়িবাঁধের ওপর।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ রাত সাড়ে ১০টার দিকে জানান, উপকূল অতিক্রমরত ঘূর্ণিঝড় আম্ফান আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে উপকূল অতিক্রম সম্পন্ন করে বর্তমানে সাতক্ষীরা জেলা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে বৃষ্টি ঝড়িয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে বলে তিনি জানান।

নারী-শিশুসহ নিহত ৭

পটুয়াখালী : বুধবার সন্ধ্যায় পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি এলাকায় ঝড়ে গাছের ডাল ভেঙ্গে পরে রাশেদ নামে ছয় বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

অপরদিকে, জনসচেতনতামূলক প্রচারকাজ চালাতে গিয়ে কলাপড়ার ধানখালীর ছৈলাবুনিয়া এলাকায় খালে নৌকাডুবে শাহ আলম নামে দুর্যোগ প্রস্তুতি কর্মসূচির (সিপিপি) এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে।

ভোলা: আম্পানের প্রভাবে সৃষ্ট ঝড়ে ভোলার চরফ্যাশনের দক্ষিণে একটি গাছ ভেঙে চাপা পড়ে ছিদ্দিক ফকির (৭০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২০ মে) দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার প্রধান সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ছিদ্দিক ফকির ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার চর মানিকা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চর কচ্ছপিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

দক্ষিণ আইচা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশিদ জানান, সকালের দিকে ওই বৃদ্ধ বয়স্ক ভাতা আনার জন্য ভাড়া করা মোটরসাইকেলে উপজেলা সদর চরফ্যাশনের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় ঝড়ে একটি গাছ ভেঙে তার ওপর পড়ে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

অপরদিকে, সদর উপজেলার ইলিশা রাজাপুর ঘাটে ট্রলার ডুবে রফিকুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনায়েত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সাতক্ষীরা: ঝড়ের মধ্যে আম কুড়াতে গিয়ে গাছের ডাল ভেঙে সাতক্ষীরা শহরের সংগীতা মোড় এলাকায় করিমুন্নেসা নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নারী শহরের কামালনগর এলাকার বাসিন্দা।

সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্তর কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, ঝড়ের মধ্যে আম কুড়াতে গিয়ে গাছের ডাল ভেঙে পড়ে ওই নারীর মৃত্যু হয়।

পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দেওয়া ধসে শাহজাহান মোল্যা (৬০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাসুদুজ্জামান ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বরগুনা: বরগুনা সদর উপজেলার পরীরখান বাজার এলাকায় জোয়ারের পানিতে ডুবে মো. শহীদ (৬০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে উপকূলীয় এলাকায় প্রায় ৩৩ লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রাত কাটাচ্ছেন বলে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আম্পানে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ৩৩ লাখ মানুষ

বিআরইবি-এর চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) মইনউদ্দিন জানিয়েছেন, আম্পানের কারণে খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, বরিশাল, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও লক্ষ্মীপুরের প্রায় ৩৩ লাখ পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় আছেন। বিদ্যুৎ সংযোগ পুনঃস্থাপনের কাজ চালু থাকলেও, সাতক্ষীরা ও খুলনায় প্রচণ্ড ঝড়ের কারণে সমস্যা হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

এ ছাড়া, বরিশাল শহরসহ বিভাগের প্রায় তিন লাখ গ্রাহক বিদ্যুতবিহীন অবস্থায় আছে বলে জানিয়েছেন পশ্চিম জোন বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলী অমূল্য কুমার সরকার।

বাংলাদেশ থেকে সরে গিয়ে ভারতে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে রাজধানী কোলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের সমুদ্র উপকূলীয় কয়েকটি জেলা। এরমধ্যে দুই ২৪ পরগনা এবং দুই মেদিনীপুর, হাওড়া ও হুগলির অবস্থা ভয়াবহ। কোলকাতা তিনজনসহ বিভিন্ন জেলা মিলিয়ে অন্তত ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

দিল্লির আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিতে অতি মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়টি আছড়ে পড়ে। সে সময় ঘূর্ণিঝড়ের ঘূর্ণনের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় প্রায় ১৫৫-১৬৫ কিলোমিটার। আর সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার ছিল। সন্ধ্যা ৭টা বেজে ২০ মিনিটে কোলকাতায় সেই ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় প্রায় ১৩৩ কিলোমিটার।

একটানা তিন ঘণ্টা আম্পানের তাণ্ডব চলার পর রাত ৯টা নাগাদ নবান্নে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘দুই ২৪ পরগনা ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, বাড়িঘর, নদী বাঁধ ভেঙে গিয়েছে, ক্ষেত ভেসে গিয়েছে। পাথরপ্রতিমা, নামখানা, বাসন্তী, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুর, ভাঙড় থেকে যা খবর এসেছে তা ভয়াবহ।”

মমতা বলেন, “বারাকপুর, বারাসত, বসিরহাট ও গঙ্গাসাগর সাব ডিভিশন, হাওড়া, হুগলি, দুই মেদিনীপুরের অবস্থাও খুব খারাপ। রাস্তাঘাট সবই প্রায় বন্ধ। এখনও আমি ভাবতে পারছি না সবকিছু ঠিক কী করে করব? যা খবর পাচ্ছি তাতে সব কিছু নতুন করে শুরু করতে হবে। এত ঝড় হবে কেউ ভাবতে পারেনি। আবহাওয়াবিদরাও বুঝতে পারেননি।”

ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় সবাই বাংলার পাশে এসে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “সবার কাছে আবেদন করব এই সময়ে বাংলার পাশে এসে দাঁড়ান। দয়া করে এখন রাজনীতি করবেন না। রামকৃষ্ণ মিশন ও ভারত সেবাশ্রমের কাছে ভয়াবহ এই সময়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে অনুরোধ করব। আমাদের সব পঞ্চায়েতগুলিকেও এই কাজে মনোনিবেশ করতে বলব।”

আম্পানের ভয়াবহতা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘আজকে যেটা হল তা ১৯৩৭ সালের কথা মনে করিয়ে দিল। কয়েক হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। আজকে যে তাণ্ডব দেখেছি তাতে খুব আঘাত পেয়েছি। আমরা যেখানে কাজ করছি সেই নবান্নেরও অনেক ক্ষতি হয়েছে। আমি সাধারণ মানুষকে আবেদন করব এখনই রিলিফ ক্যাম্প ছেড়ে কোথাও যাবেন না। সরকারি আধিকারিকদের পরামর্শ মেনে চলুন। পরিস্থিতি সামাল দিতে ১০ থেকে ১২ দিন সময় লাগবে। সেই সময়টা ধৈর্য ধরে থাকুন।”

ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে মমতা বলেন, “আজ যেটা হল, সেটা ধ্বংস। করোনার জন্যে এমনিতেই রাজ্যের আয় বন্ধ। তারপর যা ক্ষতি হল তা হয়তো কয়েক হাজার কোটিতে যাবে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পুরো চিত্র পেতে ৩/৪দিন লাগবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

কোলকাতার মানুষ গত ৫০ বছরে এমন ভয়াবহ ঝড় দেখেনি। শহরের অন্তত ৩০টি জায়গায় গাছ ভেঙে পড়েছে। শত শত গাছ ও বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ায় যোগাযোগ কার্যত বন্ধ। বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে গোটা শহর।পার্সটুডে

সারা দেশে করোনা ভাইরাসের  প্রভাবে শিক্ষা সেক্টরেও স্তবিরতা এসে পড়েছে। তার পরেও অনেক ঝুঁকির মধ্যে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে শিক্ষাবোর্ডগুলো। প্রাক নিবন্ধন কার্যক্রমও শুরু হয়েছে। নতুন ব্যবস্থায় প্রাক নিবন্ধন করা থাকলে অবসান ঘটবে দীর্ঘ অপেক্ষার। দ্রুততম সময়ে মোবাইলেই পৌঁছে যাবে ফল। তবে ঈদের আগে ফল প্রকাশ করা সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক। মঙ্গলবার অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘আমরা প্রস্তুত। তবে করোনার কারণে নতুন ব্যবস্থাই ফল প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নতুন ব্যবস্থায় প্রাক নিবন্ধন করলেই পূর্বের মতো দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হবে না। ফল প্রকাশের সাথে সাথেই শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছে যাবে। তবে ঈদের আগে ফল প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে না।’

সোমবার থেকে গ্রাহকদেরকে এরই মধ্যে এসএমএসের মাধ্যমে সে তথ্য জানানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে। ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট প্রকৌশলী মনজুরুল কবীর বলেন, ‘পরিস্থিতি বিবেচনায় আমরা এবার ব্যতিক্রম একটি উদ্যোগ নিয়েছি। আরও সহজতর করতে আগেই প্রাক-নিবন্ধন শুরু করে দিয়েছি। নতুন ব্যবস্থায় প্রাক নিবন্ধন করা থাকলে দ্রুত সময়ে ফল পেয়ে যাবে শিক্ষার্থীরা। এতদিন যেহেতু ফল প্রকাশের দিন এসএমএস করলে ফিরতি মেসেজে জানিয়ে দেয়া হতো ফল। কিন্তু সেই খুদে বার্তা ফিরতি মেসেজে ফল পেতে বেশ সময় নিত। এবারের এ ব্যবস্থায় আধ ঘণ্টার মধ্যেই ফল পেয়ে যাবে শিক্ষার্থীরা। তবে পূর্বনির্ধারিত নিয়মেও ফল প্রকাশ করা হবে। ফলে স্কুলে গিয়ে ফল আনার নিয়মটা বোধহয় এবার আর থাকছে না।’ ঘরে থেকেই সরাসরি মোবাইলে ফল পেতে প্রাক নিবন্ধনের জন্য যেকোনো মোবাইল অপারেটরের নম্বর থেকে মেসেজ করতে হবে। সেজন্য টাইপ করতে হবে এই নিয়মে: SSC<>Board Name<>Roll<>Year। আর এটি পাঠিয়ে দিতে হবে ১৬২২২ নাম্বারে। প্রতি এসএমএসের জন্য দুই টাকা চার্জ নেয়া হবে।

চলতি বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয় ৩ ফেব্রুয়ারি। তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হয় ২৭ ফেব্রুয়ারি। আর ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৯ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হয় ৫ মার্চ। এবার মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৪ লাখ ২২ হাজার ১৬৮ জন। এরমধ্যে অংশ নিয়েছে ১৪ লাখ ১৬ হাজার ৭২১ জন। করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ ছুটির কারণে নির্ধারিত সময়ে (পরীক্ষার পর ৬০ দিন) ফল প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি। ফলে এই অনিশ্চিয়তায় চলতি মাসের মধ্যেই ফল প্রকাশের লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিয়েছিল শিক্ষা বোর্ড গুলো। ফলে ঈদের পরে ফল প্রকাশ করা হবে।

ঢাকার অদূরে ভৈরবের পুর্বে নরসিংদীর রায়পুরা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। এ সময় পরিকল্পনামন্ত্রীকে বহনকারী একটি পাজেরো গাড়ির সঙ্গে  প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে কেউ হতাহত না হলেও মন্ত্রীর গাড়ির সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রায়পুরা উপজেলাধীন নীলকুঠি বাসস্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরিকল্পনামন্ত্রীর গাড়ি চালক মো. নেসার জানান, প্রটোকলের গাড়িটি সামনেই ছিল। পরিকল্পনামন্ত্রী ত্রাণ দেয়ার উদ্দেশে সিলেট যাচ্ছিলেন। মন্ত্রীর গাড়ি রায়পুরা উপজেলার নীলকুঠি বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছালে ভৈরব থেকে নারায়ণগঞ্জগামী প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মন্ত্রীর গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় মন্ত্রী অক্ষত অবস্থায় গাড়ি পরিবর্তন করে প্রটোকল নিয়ে পুনরায় সিলেট রওনা হন।

এ ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রায়পুরা থানার এসআই শাহীন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এ দুর্ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। মন্ত্রী সুস্থ আছেন এবং তিনি অন্য একটি গাড়িতে করে প্রটোকলসহ সিলেটের সুনামগঞ্জের উদ্দেশ্যে পুনরায় রওনা হয়ে গেছেন। তিনি আরও বলেন, প্রাইভেটকারসহ চালককে আটক করা হয়েছে।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকে: নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সদর ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত স্বাস্থ্যকর্মী নবীগঞ্জ পৌর এলাকার কেলি কানাইপুরের বাসিন্দা জনৈক স্বাস্থ্যকর্মী বুধবার (২০মে) সকালে সিলেটের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ডেলিভারীর সময় মৃত সন্তান প্রসব করেন।

নব-জাতক শিশুর মায়ের করোনা উপসর্গ লক্ষণ থাকার কারনে ডাক্তাররা মৃত সন্তান প্রসবের কারন উদ্ধারের জন্য স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা সন্দেহে নমনু সংগ্রহ করলে তার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। ডাক্তাররা ধারণা করছেন মায়ের করোনা পজিটিভ থাকার কারনেই নব-জাতক শিশুর মৃত্যুর কারন হতে পারে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ডাক্তার প্রিয়াংকা পাল চৌধুরী। এনিয়ে নবীগঞ্জ উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত সংখ্যা ১৯ জন।

নড়াইল প্রতিনিধি: করোনা সংক্রামণ প্রতিরোধে নড়াইলে  করোনায় সম্মুখ যোদ্ধা  গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য ব্যতিক্রমি উদ্যোগ গ্রহন করলেন  নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) বুধবার নড়াইল পুলিশ লাইনস্ হল রুমে ৫০ জন সাংবাদিকের হাতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন তিনি।

সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ মোঃ মাসুদ রানা  (হেডকোয়ার্টার), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ ইমরান (সদর সার্কেল), পুলিশ লাইনস্এর আর.আই মুকুল কুমার ঘোষ, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ এনামুল কবীর টুকু, সহসভাপতি সৈয়দ নাইমুর রহমান ফিরোজ, সাধারণ সম্পাদক শামীমূল ইসলাম টুলুসহ নড়াইল প্রেসক্লাবে সদস্যরাসহ অন্যান্য সাংবাদিকরা সময় উপস্থিত ছিলেন। শুভেচ্ছা উপহারের মধ্যে ছিল মধু মাসের মিষ্ট ফল তরমুজ, বাঙ্গি, লিচু, সেমাই, লাচ্চা সেমাই, চিনি, ডাউল, তেল এবং বিভিন্ন প্রকার মসলা।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হবার পর থেকেই সাংবাদিকরা অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। তাই তাদের সম্মানে সামান্য শুভেচ্ছা উপহার জেলা পুলিশের পক্ষ দেওয়া হলো 

ভরা মৌসুমে কৃষকের চোখে মুখে হাসি ফুটে উঠেছে

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে এবারে বোরো ধানের যেমন ফলন হয়েছে তেমনি দামও পাচ্ছে কৃষকরা। ধান কাটার ভরা মৌসুমে বাজারে ধানের দাম ভাল পাওয়ায় কৃষকদের চোখেমুখে হাসি ফুটে উঠেছে। বিগত কয়েক বছর থেকে বোরো ধানে লোকসানের শিকার হয়ে কৃষকরা হতাশ হয়ে পড়েছিল। এবারে ধানের ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় তারা আর হতাশ নয় বরং তারা কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে।
জানা যায়, গত বেশ কয়েক বছর থেকে আত্রাইয়ে বোরো ধানের চাষ করে কৃষকরা লোকসানের শিকার হচ্ছিল।

ধান পাকার মৌসুমে প্রতিকূল আবহাওয়া, পানিতে ধান ডুবে যাওয়া, শ্রমিক সংকট ও নানাবিধ সমস্যার কারনে বোরো চাষে কৃষকদের অনেক লোকসান গুনতে হয়েছে। যার ফলে এবারে উপজেলার বিভিন্ন মাঠে অনেক জমি অনাবাদি পড়ে থাকতে দেখা গেছে। তারপরও যেহেতু এ আবাদই এলাকাবাসীর একমাত্র ভরসার আবাদ তাই প্রতি বছরই তাদের বোরোচাষ করতে হয়। এবারে বোরো চাষ করে বাম্পার ফলন ও বাম্পার মূল্য পাওয়ায় কৃষকদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে।

উপজেলার শাহাগোলা গ্রামের কৃষক আজাদ আলী সরদার বলেন, বিগত দিনের তুলনায় এবারে আমরা বোরো ধানের সর্বাধিক ফলন পেয়েছি। আমাদের এলাকায় সকলেই জিরাসাইল ধানের আবাদ করে। এ ধানের চাল চিকন, ভাত খুব মজাদার তাই এলাকাজুড়ে এখন এ ধানেরই চাষ করা হয়। আমার এবং আমাদের মাঠে অন্যান্য কৃষকের জমিতে এবারে বিঘা প্রতি ২৫ থেকে ২৮ মণ হারে বোরো ধান উৎপন্ন হয়েছে।
বজ্রপুর গ্রামের কৃষক মেহেদী হাসান রুবেল বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারনে আমরা ধান কাটা নিয়ে আতঙ্কের মধ্যেই ছিলাম। কিন্তু ধান পাকার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী ধান কাটা শ্রমিকদের আসা নিশ্চিত করায় এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন আমাদের পাশে দাঁড়ানোর ফলে আমাদের কোন দুর্ভোগ পোহাতে হয়নি। এবারে আমরা ধানের যে দাম পেয়েছি তাতে বোরো চাষে আমরা লাভবান হয়েছি। বর্তমানে আমাদের এখানে জিরাসাইল ধান ৯৩০ থেকে ৯৫০ টাকা মণ বিক্রি হচ্ছে।
এ বিষয়ে আত্রাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কেএম কাউছার হোসেন বলেন, এবারে বোরো চাষের শুরু থেকেই অনুকূল আবহাওয়া, যথাসময়ে ধানের চারা রোপন, সঠিক পরিচর্যা সবকিছু মিলে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। অন্যান্য বারের তুলনায় এবারে ধান কাটার সময় আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এবং ধানকাটা শ্রমিক যথাসময়ে পৌঁছানো নিশ্চিত করায় কৃষকদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়নি। বর্তমানের বাজারে ধানের যে দাম রয়েছে প্রতি বছর ধানের এমন দাম পেলে কৃষকরা বোরাে চাষে আরও ঝুঁকবে।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন’র শ্রীপুর বাজারে বিকাশ এজেন্ট (এমএস গুরুদেব ভান্ডার) পরিচালক তপন পালের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী,অভিভাবক ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন হয়রানী ও স্কুলের ছাত্রীরা তার লালসার শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ রয়েছে,শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা উত্তোলন,বিকাশ একাউন্ট খুলতে ও মোবাইল সিম রিপ্লেস করতে গিয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছেন পার্সোনাল বিকাশ ও অন্যান্য একাউন্টের গ্রাহকরা। আর শিক্ষার্থীদের নানা ভাবে অঙ্গভঙ্গী করেন বলে অভিযোগ করেছেন ঐ এলাকার শিক্ষার্থীসহ ভুক্তভোগীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়-বিকাশ একাউন্ট ও অন্যান্য একাউন্ট খুলতে নিচ্ছে ৫০-১শ টাকা, মোবাইল সিম রিপ্লেস করতে নিচ্ছে ৩শ টাকা ও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা উত্তোলন করলে হাজারে নিচ্ছে ১শ টাকা এবং মিনিট কার্ড-টাকার কার্ড ক্রয় করতে অতিরিক্ত মূল্য নিচ্ছে। সাধারণ মানুষ নিরুপায় হয়ে বিকাশ এজেন্ট গ্রাহকদের অনিয়ম-দুর্নীতির শিকার হচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। তাদের কথা না মানলে অন্য বাজারে গিয়ে ক্যাশ আউট করে টাকা উত্তোলন করতে হবে,আর সেজন্য যাতায়াত খরচ ও হবে ৫০-৬০টাকা। সে জন্যই বাধ্য হয়ে তাদের অনিয়ম-দুর্নীতি ও লালসার শিকার হতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ গ্রাহকদের। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভুক্তভোগী ও স্থানীয়রা।

ভুক্তভোগী হুমায়ুন,হাবিবুর,শফিকসহ আরো অনেকেই জানান,খাইরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি একটি হারানো সিম রিপ্লেস করে ৩শ টাকা ও সিমে থাকা উপবৃত্তির ১২শ টাকা ক্যাশ আউট করে ১শ টাকা নেন বিকাশ এজেন্ট গ্রাহক এমএস গুরুদেব ভান্ডার’র পরিচালক তপন পাল। তপন পালের মতো আরও অনেক বিকাশ এজেন্ট গ্রাহক সাধারন মানুষদের সরলতার সুযোগ নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতি করে আসছে। আর বিকাশ এজেন্ট গ্রাহকরা,হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা।যেন দেখার কেউ-ই নেই। বিকাশ এজেন্ট গ্রাহক তপন পাল,রফিকুল,সুহেলসহ নজরুলের অনিয়ম-দুর্নীতির ও লালসার বিয়ষ তুলে ধরেন সংবাদকর্মীদের কাছে।

নয়াবন্দ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণি পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী জানায়,আমরা গরিব বলেই সরকার আমাদেরকে উপবৃত্তি দেয়,আর উপবৃত্তির টাকা তুলতে গেলে বিকাশ এজেন্ট গ্রাহকদের অতিরিক্ত টাকা দিতে হয়। আমি গত দু’দিন আগে উপবৃত্তির ৩শ টাকা তপন পাল’র বিকাশ এজেন্ট নাম্বারে ক্যাশ আউট করি,পরে আমার ৩শ টাকা থেকে ২০টাকা রেখে ২৮০টাকা আমার হাতে ধরিয়ে দেয়।

অভিযুক্ত এমএস গুরুদেব ভান্ডার’পরিচালক তপন ও রফিকুল টেলিকমের পরিচালক রফিকুল তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ স্বীকার করে বলেন-এভাবে গ্রাহকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা রাখার কোন নিয়ম নেই। তবে আমরা উপবৃত্তির ৩শ টাকা থেকে ২০-৩০টাকা নেই। সিম রিপ্লেস করলে ২৫০-৩শ টাকা নেই। ১০টাকার মিনিট কার্ড ১২টাকা বিক্রি করি। না হলে আমাদের পোষায় না।

মিজান টেলিকম’র পরিচালক শাবালনূর বলেন-আমরা বিকাশ একাউন্ট ফ্রি খুলে দিচ্ছি,বিকাশ বা অন্যান্য একাউন্ট খুলতেও কোন টাকা লাগে না। উপবৃত্তির টাকা ক্যাশ আউট করলে কাস্টমারের একাউন্ট থেকে খরচ সরারসি কেটে নেওয়া হয়। এজেন্ট গ্রাহকদের কোন টাকা দেওয়া লাগেনা। আর যদিও কেউ টাকা নেয় তা অনিয়ম-দুর্নীতি।

এবিষয়ে জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোদাচ্ছির আলম সুবল বলেন-বিকাশ দোকানীরা শিক্ষার্থীসহ অন্যান্যদের সাথে যে অনিয়ম-দুর্নীতি করছে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ।

এবিষয়ে তাহিরপুর থানার ওসি মোঃ আতিকুর রহমান বলেন-এবিষয়ে কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি, তবে বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখবো। যদি অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc