Saturday 30th of May 2020 03:35:40 PM

আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজার পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে শাহ্জালাল (র.) ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর উদ্যোগে মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ এর কর্মসূচির অংশ হিসেবে সদর উপজেলার উত্তরমুলাইম গ্রামে আলহাজ্ব মো: দিলদার হোসেনর বাড়িতে রান্না করা পনেরশত প্যাকেট ইফতার বিতরণ করা হয়েছে।
সোমবার (১১ মে) দুপুরে ১৭ রমজান বদর দিবস উপলক্ষে শাহ্জালাল (র.) ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর উপদেষ্টা আলহাজ্ব মো: দিলদার হোসেন ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হাফিয আলাউর রহমান টিপুর ব্যবস্থাপনায় দিলদার হোসেনের বাড়িতে ও মৌলভীবাজার শহর এবং বিভিন্ন গ্রামে ইফতারের প্যাকেট পৌছে দেয়া হয়েছে।
এসময় হাফিয আলাউর রহমান টিপু বলেন করোনা ভাইরাসের মোকাবেলা করতে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ । ‘মানব সেবা ও আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য শাহ্জালাল (র.) ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর একমাত্র লক্ষ্য।
করোনা ভাইরাসের লকডাউন এর কারণে দুর্ভোগে পড়া খেটে খাওয়া মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণসহ মাসব্যাপী পবিত্র মাহে রমজানের ইফতার বিতরণ কার্যক্রম চলছে।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ১২০ টি অসহায় মণিপুরি পরিবারের মাঝে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সোমবার সকালে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক এই খাদ্য সামগ্রী গ্রহন করে দুপুওে উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রামে জি কে প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।

এসময় কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবেরসহ সভাপতি শাব্বির এলাহী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, আদমপুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. হেলাল উদ্দীন ও হকতিয়ার খোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সাজ্জাদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

“মসজিদের ইমাম, মোয়াজ্জিন ও মন্দিরের পুরোহিতদের খাদ্য সামগ্রীসহ জীবানুনাশক স্প্রে কিনতে অর্থ সহায়তা প্রদান করলেন   শ্রীমঙ্গল র‌্যাব-৯’র আলোচিত এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম”

জহিরুল ইসলাম.নিজস্ব প্রতিবেদক:  করোনাভাইরাস সৃষ্ট বৈশ্বিক মহামারির মধ্যে মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকার মসজিদ-মন্দিরের ইমাম,মোয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের পাশে দাঁড়িয়েছেন র‍্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।
রোববার (১০মে) সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের হাতে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট তুলে দেন র‍্যাব-৯ এর এই আলোচিত কর্মকর্তা।এ সময় মসজিদ ও মন্দিরগুলো নিয়মিত স্প্রে করার সরঞ্জাম কেনার জন্য নগদ অর্থ সহায়তা দেন তিনি।
গত মার্চের ২৬ তারিখ থেকে তিনি মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল, রাজনগর, কুলাউড়া, কমলগঞ্জ, ,জুড়ি, বড়লেখা ও মৌলভবিাজার সদর উপজেলার,শ্রমজীবী,ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী,খাসিয়া,চা শ্রমিক, হিজড়া,মুচি, রিক্সা চালক এসব মানুষের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিচ্ছেন দিনে ও মধ্যে রাত্রে শুধু তাই নয় মধ্যবিত্ত পরিবারের খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিয়েছেন।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,সরকারের তরফ থেকে সুস্পষ্ট নির্দেশনা না থাকলেও জেলার মসজিদ-মন্দিরসমূহে মুসলিম­পূণ্যার্থীর সংখ্যা বেড়েছে।এপ্রেক্ষিতে গতকাল সারাদিন জেলার বিভিন্ন এলাকার মসজিদ ও মন্দিরের নেতৃবর্গকে সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি তাদের মধ্যে সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালান র‍্যাব কর্মকর্তা এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম।

স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে তিনি ইমাম মোয়াজ্জিনদেরকে বলেন,মসজিদ আল্লাহর ঘর। আর এখানে যারা নামাজ আদায় করতে আসবেন, তারা আল্লাহর মেহমান।তাই নামাজিদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা আপনাদের উপর অর্পিত পবিত্র আমানত।আপনাদের অবহেলার কারনে একজন মুসলিম­ও যদি করোনায় আক্রান্ত হন, তাহলে এর জন্য আপনাদেরকে আল্লাহর নিকট জবাবদিহি করতে হবে।উপস্থিত ইমাম মোয়াজ্জিনদেরকে ৫ ওয়াক্ত নামাজের পর পুরো মসজিদে জীবানুনাশক স্প্রে করা এবং মসজিদে ঢোকার পূর্বে সাবান বা হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখার অনুরোধ জানান মানবিক করোনা যোদ্ধা এ র‍্যাব কর্মকর্তা।

আমার সিলেটের এ প্রতিবেদক কে এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম জানান,”করোনা পরিস্থিতি স্বার্থকভাবে মোকাবিলা করার জন্য ধর্মীয় নেতৃবর্গের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।কারন মসজিদ-মন্দিরগুলোতে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে না চলা হলে তা করোনা বিস্তারে বড় ধরনের হুমকি সৃষ্টি করতে পারে।তাই প্রতি ওয়াক্ত নামাজের আগে ও পরে পুরো মসজিদে স্প্রে করা,মন্দির গুলোতেও পূজা অর্চনার আগে ও পরে অনুরূপ ব্যবস্থা গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি।তাই আমি আমার নিজস্ব উদ্যোগে ইমাম -মোয়াজ্জিন ও পুরোহিতদেরকে সহায়তামূলক খাদ্যসামগ্রী প্রদান ও জীবানুনাশক স্প্রে করার সরঞ্জাম কেনার জন্য অর্থ সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থবিধি মেনে চলতে ওনাদেরকে সচেতন করার এই পদক্ষেপটি গ্রহণ করেছি। এ এসময় সারা দেশের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদেরকেও অনুরূপ পদক্ষেপ গ্রহণ করার আহ্বান জানান তিনি।”

সহায়তাপ্রাপ্ত ইমাম,মোয়াজ্জিন ও পুরোহিতেরাও বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করেছেন।তারা র‍্যাবের এএসপি মহোদয়কে সর্বাত্মক পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে মসজিদ-মন্দির পরিচালনার প্রতিশ্রুতি দেন।একাধিক ইমাম ও মোয়াজ্জিন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,দীর্ঘ চাকুরিকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অফিসার কর্তৃক এধরনের পদক্ষেপ গ্রহণের নজির তারা কখনো প্রত্যক্ষ করেনি। অনেকেই এসে বিভিন্ন পরামর্শ ও আদেশ-নির্দেশের কথা শুনিয়ে যান।কিন্তু ধর্মীয় নেতৃ বর্গের মধ্যে ত্রাণের বস্তা বিতরণ এবং স্প্রে করার সরঞ্জাম কেনার জন্য নগদ অর্থ সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি উদ্বুদ্ধকরণ কার্যক্রম পরিচালনা করার ঘটনা আগে কেহ এমনটি করেনি।

উল্লেখ্য,সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন মানবিক ও পেশাদার কর্মকান্ডের মাধ্যমে দেশব্যাপী আলোচনায় আসেন র‍্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৭২০৮ জনের পরীক্ষা করা হয় 

জহিরুল ইসলাম,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ   সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্তের সংখ্যা ১ হাজার ছাড়িয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১ হাজার ৩৪ জন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন।

 আজ সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে্জেআরোও নানো হয়, গতকালের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১১ জন। তাঁদের মধ্যে পুরুষ পাঁচজন ও নারী ছয়জন। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ২ জন ও রংপুর বিভাগে একজন রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী একজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে চারজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন।

গতকাল মারা গিয়েছিলেন ১৪ জন। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেলেন ২৩৯ জন।

গতকাল রোববার সংক্রমিত মানুষ শনাক্ত হওয়ার সংখ্যা জানােনা হয়েছিল ৮৮৭ জন।

আজকের তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত ১৫ হাজার ৬৯১ জন শনাক্ত হলেন।

আজকের ব্রিফিংয়ে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫২ জন সুস্থ হয়েছেন। এখন পর্যন্ত ২ হাজার ৯০২ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন। ব্রিফিংয়ের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭ হাজার ২০৮ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ২৯ হাজার ৮৬৫ জনের নমুনা। সারা দেশে এখন ৩৭টি ল্যাবে  করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজারঃ করোনা ভাইরাসের কারণে অসহায় হয়ে পড়া মৎস্যজীবী পরিবারের মধ্যে ত্রান বিতরণ করেছেন মৌলভীবাজার আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ।
রোববার সকালে মৌলভীবাজার পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের গোলবাগ বেরীরচর এলাকায় আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ এর সভাপতি মুজাহিদ হোসেন এবং মৎস্য আড়ৎদার ও খুচরা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি দেলওয়ার হোসেন কে সাথে নিয়ে জেলার অসহায় ৪৭৪ জন মৎস‍্যজীবী পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলার চেয়ারম্যান কামাল হোসেন। পরে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ এর নেতা কর্মীরা জেলার ৫ টি ইউনিয়ন কাগাবালা,আমতৈল,নাজিরাবাদ,একাটুনা,ও খলিলপুরের অসহায় মৎস্যজীবীদের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেন।
এসময় সদর উপজেলার চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বলেন লকডাউন অবস্থায় জেলার অসহায় মৎস্যজীবী যারা কষ্টে আছেন তাদের জন্য আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগকে ৩ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে । আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের নেতা কর্মীরা জেলার ৫টি ইউনিয়নে যারা খুব বেশি কষ্টে আছে তাদের তালিকা করে বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিচ্ছেন। শেখ হাসিনা সরকার মৎস্যজীবীদের পাশে আছে এবং থাকবে।
মৎস্য আড়ৎদার ও খুচরা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি দেলওয়ার হোসেন বলেন প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি রয়েছেন দেশের মানুষ। কাজ-কর্ম না থাকায় লকডাউনের শুরু থেকেই খাদ্য সংকটে ভুগতে শুরু করেছে অসহায় মৎস্যজীবী পরিবারগুলো। আজকে অসহায় মৎস্যজীবীদের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী দিছেন জেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ।
মৌলভীবাজার আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি মুজাহিদ হোসেন বলেন জেলা প্রশাষক থেকে আমরা ৩ টন চাল পেয়েছি। সেই ৩ টন চালের সাথে আমাদের পক্ষ থেকে আমরা পেঁয়াজ, তৈল, আলু, ডাল,সাবান, লবন সাথে দিয়ে প্রতিটি প্যাকেট ১১ কেজি করেছি,আর সেগুলো জেলার ৫টি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে অসহায় মৎস্যজীবীদের বাড়িতে পৌছে দিয়েছি।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ নেতৃবৃন্দসহ এলাকাবাসী।

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ   ইউনিভাসিটির এক ছাত্রীকে ধর্ষন ও পনোগ্রাফি ধারণ করার ঘটনায় নিজপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুমি বেগমকে সংগঠন হতে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করেছে দল।

সিলেটের জৈন্তাপুরে ইউনিভাসিটি ছাত্রীকে চায়ের সাথে চেতনা নাশক ঔষধ সেবন করিয়ে স্বামীকে দিয়ে ধর্ষণ এবং পর্নোগ্রাফী ধারন করার ঘটনায় ভিকটিম মামলা দায়ের করে। এঘটনায় থানা পুলিশ ও র‌্যাব সহায়তায় স্বামী-স্ত্রীকে সিলেট শহর হতে আটক করে। আটকের পর পর আওয়ামীলীগের নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘটনাটি ফলাও করে প্রকাশিত হয়।

সংবাদ প্রচারের পর পর বিষয়টি জৈন্তাপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নজরে আসে এবং সংগঠনের ভাবমুর্তি বিনষ্ট হয় মর্মে আলোচনা সমালোচনা হয়। বিষয়টি নিয়ে ১০মে বিকাল ৩টায় জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কার্যালয়ে জরুরী বৈঠকে করে জৈন্তাপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ। সভায় সর্বসম্মতী ক্রমে ১নং নিজপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি পদ হতে সুমি বেগমকে সাময়িক ভাবে সাময়িক বহিস্কারের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে।

জৈন্তাপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জয়মতি রানী প্রতিবেদককে জানান, সংবাদ মাধ্যমে বিষয়টি জানার পর সংগঠনের জরুরী সভায় সুমি বেগমকে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করা হয়েছে এবং বহিস্কারের বিষয়টি জেলা মহিলা আওয়ামীলীগকে অবহিত করা হয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc