Thursday 2nd of April 2020 09:54:57 PM

সিলেট প্রতিনিধিঃ  দেশের সকল হাসপাতালগুলোতে দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করে।

এ নিষেধাজ্ঞা জারির পর থেকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দর্শনার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. ইউনুছুর রহমান।

তিনি বলেন, সরকারি নির্দেশনা আসার পর হাসপাতালে দর্শনার্থী নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এটি প্রায় ৮০ শতাংশ কার্যকর করা হয়েছে। কিছু কিছু জটিল রোগী থাকায় পুরোপুরি কার্যকর হতে সময় লাগবে।

পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে বলে জানান জেনারেল ডা. ইউনুছুর রহমান।

এম ওসমান,বেনাপোল:  ভারত ফেরত প্রত্যেক বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীদের হাতে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার সীল মারছে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত যশোর জেলা পুলিশ।
রবিবার  (২২ মার্চ) সকাল থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে এ সীল মারতে দেখা যায় যশোর জেলা পুলিশকে।
ভারত থেকে আসা পাসপোর্ট যাত্রী মাসুদুর রহমান জানান, এটা একটা ভালো উদ্যোগ। করোনা থেকে নিজেকে যেমন সুস্থ রাখতে হবে। তেমনি নিজের পরিবারের সদস্যদের কথা তথা সমগ্র দেশের মানুষের  স্বার্থে আমাদের স্বেচ্ছায় এ হোম কোয়ারান্টাইন থাকা উচিত। যারা দেশের বাইরে থেকে দেশে ফিরেছেন তারা যেন নিজ স্বার্থ ত্যাগ করে এ কাজটি করেন। অন্যান্য রোগেও তো আমরা অনেকে সপ্তাহ খানেক ঘরে থাকি। তাহলে কেন এ মরণঘাতী করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে ঘরে থাকবো না। সবাইকে কোয়ারান্টাইন মেনে চলার জন্য তিনি অনুরোধ করেন।
বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, মরণঘাতী করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার ধারণ করায়, তা রোধে সমস্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের যেমন ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইন বাধ্যতা মূলক করা হয়েছে, ঠিক তেমনি পরিবারের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে ভারত ফেরত সকল পাসপোর্ট যাত্রীদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার জন্য তাদের হাতে সীল মারা হচ্ছে। কোয়ারান্টাইন যদি মেনে চলা হয় তবে এ ভাইরাস থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সহজ হবে।

সিলেট প্রতিনিধিঃ  সিলেটে প্রবাস ফেরত এক নারী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে গত ২০ মার্চ  তারিখ থেকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ মৃত্যুবরণ করেছে। তবে তিনি করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ছিলেন কিনা এ ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

জানা যায়, সিলেট শামসুদ্দিন হাসপাতালে নিহত ওই নারীর বয়স ছিলো ৬১ বছর। সিলেট শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

এর আগে গত শুক্রবার (২০ মার্চ) জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ওই নারী শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন। গত ৪ মার্চ তিনি যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরেছিলেন। আজ রোববার আইইডিসিআর থেকে লোকজন এসে তার রক্ত পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহের কথা ছিল।

যুক্তরাজ্য ফেরত ওই নারীর বাসা সিলেট নগরীর শামীমাবাদ আবাসিক এলাকায় ছিলো বলে একটি সূত্রে জানা গেছে। নাম প্রকাশে ইচ্ছুক একজন জানিয়েছেন “ওই নারী তার অসুখের কথা গোপন রেখেছিল। এতে যারা তার চিকিৎসক ছিলেন তাদের ও স্বজনদের কোয়ারেনটাইনে থাকা উচিত বলে ওই সূত্র মন্তব্য করেন।

অবশেষে আইসোলেশনে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মৃত নারীর জানাজা ও দাফন দুপুর দেড়টায় সিলেট নগরের মানিকপীর টিলায় সম্পন্ন হয়েছে। নিউজ আপডেট

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা সরকার গোপন করছে। এর একটাই উদ্দেশ্য, গোটাজাতিকে অন্ধকারে রেখে তাদের অবৈধ শাসন পাকাপোক্ত রাখতে চায়। আমরা মনে করি, সরকার অমার্জনীয় অপরাধ করেছে। এই অপরাধের জন্য তাদেরকে অবশ্যই জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

শনিবার (২১ মার্চ) রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর ব্রিফিং করে তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার জনগণের সাথে সম্পূর্ণরূপে প্রতারণা ও বিভ্রান্ত করেছে। তারা মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করেছে। আক্রান্তের সংখ্যা শুধুমাত্র আইইডিসিআরের মাধ্যমে তথ্য দিচ্ছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে বিভিন্ন অনলাইন, পরিচিত চিকিৎসকদের কাছ থেকে শুনতে পাচ্ছি যে আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেশি।

তিনি বলেন, যেসব দেশে এই ভাইরাসের সংক্রমণ বেশি, সেসব দেশ থেকে যারা আসছেন তাদেরকে পরীক্ষা করা জরুরি ছিল। বিমানবন্দর, স্থল বন্দর, সমুদ্র বন্দর দিয়ে যারা এলেন সেই যাত্রীদের পরীক্ষা বেশি প্রয়োজন ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে এ ব্যবস্থা সম্পূর্ণরূপে অপ্রতুল ছিল। কারণ একটিমাত্র স্ক্যানিং মেশিন ছিল ঢাকা বিমানবন্দরে। চট্টগ্রামে আছে বলে জানা নেই। ইতোমধ্যে রিপোর্ট এসেছে গত ৫৫ দিনে প্রায় ৬ লাখ ৫৫ হাজার বিদেশি দেশে এসেছে। এরা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে। অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এদের মাধ্যমে এটা ছড়িয়ে পড়ার অবস্থা ইতোমধ্যে হয়ে গেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত ১১ হাজারের ওপরে মারা গেছে। আক্রান্ত হয়েছে লক্ষাধিক। এটা এমন একটা ভাইরাস যে গোটা পৃথিবী অসহায় বোধ করছে। গোটা পৃথিবীর নেতা-রাজারা পর্যন্ত অসহায় বোধ করছেন। যে ট্রাম্প কয়েকদিন আগেও অনেক অবজ্ঞার সুরে কথাবার্থা বলেছেন। তাকে গোটা জাতিকে উদ্দেশ্য করে বলতে শুনলাম, সবাই সাবধান হও। আমরা ফাইট করব। ইতালিতে মৃতের সংখ্যা চীনকে ছাড়িয়ে গেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ একটা দেশ। এই ঘনবসতিপূর্ণ দেশে যেভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে তাতে একটা ভয়াবহ আকার ধারণ করবে। এটা যদি বন্ধ করা না যায় তাহলে সমাজে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েব। আমরা এখানে সরকারের সীমাহীন অবহেলা দায়িত্বহীনতা দেখতে পারছি। জনগণের প্রতি তাদের দায়-দায়িত্ব কতটুকু তা মন্ত্রীদের কথাবার্তাই বোঝা যায়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, এই চরম দুঃসময়ে পরীক্ষার মাত্র একটি জায়গা। আমরা মনে করি, কমপক্ষে প্রতিটি জেলায় পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকা দরকার। আর ঢাকায় যেহেতু জনসংখ্যা অনেক বেশি তাই ঢাকায় প্রত্যেকটি হাসপাতালে এই পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকা উচিত। সরকারি হাসপাতালগুলোতে যারা চিকিৎসা করবেন তাদের উপযুক্ত ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা দরকার।

করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক জনগণের মধ্যে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, গত দু-তিন দিনে দু’জন মারা গেছে আর ২৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। এতেই ঢাকা শহরের লোকজন কমে গেছে। আমি আজকে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখলাম, সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নিম্ন আয়ের লোকজন। গার্মেন্টর এর বহু অর্ডার বাতিল হয়েছে। ইতোমধ্যে গার্মেন্টস এর মালিকেরা দুশ্চিন্তার মধ্যে আছেন। আমরা মনে করি, এই নিম্ন আয়ের মানুষদের সরকারের তরফ থেকে ভাতা প্রদান করা উচিত। একদিন আয় করতে না পারলে তাদেরকে না খেয়ে থাকতে হবে। আমরা আশঙ্কা করছি সরকার যদি কোনো প্রস্তুতি গ্রহণ না করে, আর একমাস এভাবে চলে তাহলে সাধারণ মানুষ খাবার পাবে না। তার ওপরে জিনিসপত্র, চালের দাম বাড়তে শুরু করেছে। পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। এগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে সরকার সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে।

এর আগে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী দলের বৈঠকে স্কাইপের মাধ্যমে সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বৈঠকে মহাসচিবসহ উপস্থিত ছিলেন, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।পার্সটুডে

জুড়ী (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতাঃ মৌলভীবাজরের জুড়ীতে দূর্বৃত্তের দেয়া আগুনে আগার বাগান পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে । আগুনে পুড়ে প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
জানা গেছে, শুক্রবার উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের পূর্ব চাটেরা,বাহাদুরপুর ও পূর্ব হামিদপুর গ্রামে চৌধরী আয়শা খালিক গার্ডেন, সজ্জাদ আলী ও ইমান আলীর মালিকানাধীন আগর বাগানে দুর্রৃত্তরা আগুন লাগিয়ে দেয়। মুহুর্তেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো বাগানে। নিধন হয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের প্রতীক আতর শিল্পের প্রধান উপকরণ আগর গাছ। এতে পড়েযায় প্রায় ৬০ হাজার গাছ। আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে ছুটে আসেন স্থানীয় এলাকার লোকজনসহ পথচারীরা। পরে কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিসের ১টি ইউনিট প্রায় ৪ ঘন্টা প্রচেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।
স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ৩ টি বাগানের ৪৮ বিগা জমির আগর গাছসহ অন্যান্য গাছ ও বিভিন্ন ধরনের গাছের চারা পুড়েছে।এতে প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন বন্য প্রাণী আগুনে পুড়ে গেছে।
চৌধুরী আয়শা খালেক গার্ডেন সত্ত্বাধিকারী জায়েদ আনোয়ার চৌধুরী জানান, পুর্বশত্রূতার জেরে দূর্বৃত্তরা আগর বাগানে আগুন দিয়ে পালিয়ে গেছে । এ কেমন শত্রুতা !
এ ব্যাপারে জুড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মো: জাহাঙ্গীর আলম সরদার বলেন, থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জুড়ী (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতাঃ অতিরিক্ত মূল্যে পিঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি ও মূল্যতালিকা না রাখায় শুক্রবার মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা শহরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়।
জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অসীম চন্দ্র বনিক এ অভিযান পরিচালনা করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জুড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার ও কামিনীগঞ্জ বাজার কমিটির সভাপতি হাজী কামাল আহমদ।
এ সময় মূূল্য তালিকা না থাকায় ও বেশি দামে পিঁয়াজ বিক্রি করায় দত্ত এন্টারপ্রাইজের ক্ষিতিষ দত্তকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়া অতিরিক্ত মূল্য না রাখা ও মূল্যতালিকা টানিয়ে রাখার জন্য ব্যবসায়ীদের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

স্টাফ রিপোর্টারঃ  ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৮ নং দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কার্তিক চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে অনিয়ম  দূর্নীতির বিরুদ্ধে বরাবর উপপরিচালক,  দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক),সমম্বিত অফিস, দিনাজপুরে অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানাযায় ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে প্রকল্প কমিটি দাখিল ছাড়াই জাল সাক্ষর গ্রহণ পূর্বক এডিপির টাকা উত্তোলন,চৌকিদারী ট্যাক্স উঠানো পরবর্তী অবশিষ্ট ৭৩,২৫১/ টাকার হিসাব না দেওয়া,বনায়নের আওতায় কর্তনকৃত গাছ ইউপি অফিসে জমা হওয়া সত্বেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করা যাহা সংবাদপত্রেপ্রকাশিত, এছাড়াও চাপড়াগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকার গাছ ইউপি অফিসে জমা ও বিক্রির অনিয়ম এছাড়াও অনেক অভিযোগ রয়েছে বলে সদস্যরা জানান।
ঐ ইউনিয়ন পরিষদের ৬ জন ইউপি সদস্য, অভিযোগকারী ইউপি সদস্য গন হলেন ১.তপন কুমার রায় সদস্য ৩ নং ওয়ার্ড ২. আমাসু রায় সদস্য ৮ নং ওয়ার্ড ৩. মোঃ শফিকুল ইসলাম সদস্য ৫ নং ওয়ার্ড ৪. মোছাঃ ইসপিয়ারা মহিলা সংরক্ষিত সদস্য ৬,৭,৮ নং ওয়ার্ড ৫. মনোরঞ্জন রায় সদস্য ৮ নং ওয়ার্ড ৬.শ্রী আসানন্দ রায় ৯ নং ওয়ার্ডের ভুক্তভোগী সদস্যরা গত ২৮/০১/২০১৯ দিনাজপুরের দূর্নীতি দমন কমিশন (দূদক) সমন্বিত অফিসে উপপরিচালক বরাবরে লিখিত  অভিযোগ দায়ের করলে ও এখনো পর্যুন্ত কোন সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচার পাননি বলে ৮ নং দৌলতপুর ইউনিয়নের ভুক্তভোগী সদস্যরা সাংবাদিক কে জানান।
এ বিষয়ে ঐ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কার্তিক চন্দ্র রায় কে জিজ্ঞেস করলে তিনি সাংবাদিক কে জানান ওটা গত বছরে অভিযোগ তুলেছিল এটুকুই জানি।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc