Tuesday 11th of August 2020 03:36:45 AM

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার যাদুকাটা নদীর ঘাগড়া ঘাটে বৈধ ইজারাদার শেখ শফিক মিয়া হামলার শিকার হয়েছেন। স্থানীয় সংঘবদ্ধ প্রভাবশালী চাঁদাবাজরা তাকে ও তার ছোট ভাই শেখ আলমগীর হাসানসহ পাচঁজনকে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে এসিল্যান্ড,তাহিরপুর ও বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির সদস্য তাদের উদ্ধার করে। এঘটনায়  ইজারাদার শেখ শফিক মিয়া ৯ই জানুয়ারী তাহিরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানায়ায়,বুধবার বিকালে সরকারী নিয়ম নেমে টোল আদায় করার সময় ১৩-১৪জনের স্থানীয় সংঘবদ্ধ একটি চাঁদাবাজ ঘেরাও করে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে চাঁদা দাবী করে টেবিলের উপর কালেকশনের ৬০হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় বাধা দিলে শফিক মিয়া ও তার ছোট ভাই আলমগীর হাসানসহ ৫ জনকে বেধরক পিঠিয়ে আহত করে। হামলার বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও তাহিরপুর সহকারী কমিশনার ভূমি কে জানালে সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টায় তাহিরপুর সহকারী কমিশনার(ভূমি),তাহিরপুর ও বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির সদস্য তাদের উদ্ধার করেন। পরে রাতে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা গিয়ে তারা চিকিৎসা নেয়।
আরো জানাযায়,উপজেলার ঘাগড়া ঘাট হতে লাউড়েরগড় পর্যন্ত যাদুকাটা নদীর দু-তীরে বালি পাথর ভর্তি কার্গো,স্টীলবডি ও দেশীয় নৌকা উঠানামার ঘাটটি ৩৩লক্ষ ৫০হাজার টাকা রাজস্ব দিয়ে গত ৭ মার্চ তাহিরপুর ইউএনও অফিস স্মারক নং ০৫,৪৬.৯০৯২.০০০.০৮.০৬৭.১৯২৮৫এর স্মারক মূলে ১লা বৈশাখ ১৪২৬ বাংলা সনের ত্রিশ চৈত্র পর্যন্ত এব বছর লিজ বন্দোবস্ত গ্রহন করেন শেখ শফিক মিয়া। এরপর থেকে সরকারী নিয়ম নেমে টোল আদায় করলেও ১৩-১৪জনের স্থানীয় সংঘবদ্ধ একটি চাঁদাবাজ চক্র র্দীঘ দিন ধরেই চাদাঁদাবী করছে আসছে। এবং একাধিক বার জোড়পূর্বক ঘাট দখল করে বালি পাথর ভর্তি কার্গো,স্টীলবডি ও দেশীয় নৌকা থেকে চাঁদা আদায় করে। এতে করে বৈধ ইজারাদার সরকারী নিয়ম অনুযায়ী টোল আদায় করতে না পারায় ক্ষতির সম্মুখিন হয়।
এর পূর্বেও একাধিক বার ঘাট দখলের লিখিত ভাবে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দায়ের করলেও চাদাঁবাজদের বিরোদ্ধে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিয়ে নিরব ভূমিকা পালন করায় স্থানীয় সংঘবদ্ধ প্রভাবশালী চাঁদাবাজরা জোড়পূর্বক ঘাট দখল করে বালি পাথর ভর্তি কার্গো,স্টীলবডি ও দেশীয় নৌকা থেকে টোল টোল আদায় করায় ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে বলে জানান,ইজারাদার শেখ শফিক মিয়া। তিনি জানান,আমি প্রশাসনের নিকট জীবনের নিরাপত্তা ও চাঁদাবাজদের বিরোদ্ধে প্রয়োজনীয় আইননানুগ ব্যবস্থা নেবার দাবী জানাচ্ছি।
এ বিষয়ে তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আতিকুর রহমান জানান,এবিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

 

 

সোলেমান আহমেদ মানিক,শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে অর্থ মন্ত্রনালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের আয়োজনে ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার (১১জানুয়ারি) সকাল ১১টায় ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রাটি শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়।

বক্তব্য রাখছেন উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি,পাশে দাঁড়িয়ে আছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম

 

 

আনন্দ শোভাযাত্রায় আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব স¤পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুব লীগ, ছাত্র লীগ,মৎস্য লীগসহ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।

শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে নেতৃবৃন্দের একাংশ,সাথে রয়েছেন সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

 

 

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অনুমিত হিসাব স¤পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান রণধীর কুমার দেব, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুল হাসান মামুন, শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অর্ধেন্দু কুমার দেব, সাধারণ সম্পাদক  শহীদ হোসেন ইকবাল প্রমুখ।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়া উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের চালিতাতলা গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আসলাম গাজী (৪৪) নিহতের ঘটনায় প্রতিপক্ষের বাড়িঘর ভাঙচুর লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে বুধবার ( জানুয়ারি) রাত ১০টার দিকে ঘটনা ঘটে 

ক্ষতিগ্রস্থরা জানান, আসলাম গাজী হত্যাকান্ডের জের ধরে প্রতিপক্ষের বাদশা গাজী ইদ্রিস গাজীর নেতৃত্বে তাদের লোকজন বুধবার রাতে প্রতিপক্ষ বাবুল শেখের দুটি পাকাঘর ভাংচুর করে তচনচ করে করেছে পাশাপাশি সাতটি গরু অনেক হাঁসমুরগি লুটে নেয় ভয়ে বাড়িঘর ছেড়ে পরিবারের ১৫ সদস্য অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে এছাড়া ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার আনিসুর রহমানের মুদি দোকান লুটপাট করে তারা দোকানে প্রায় ৬০ হাজার টাকার মালামাল ছিল 

এদিকে শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাবুল শেখের পাকাবাড়ির ইট, জানালা, দরজা, আসবাবপত্রসহ অন্যান্য মালামাল ভেঙ্গে চুরমার করা হয়েছে ঘরে বসবাসের অবস্থা নেই সুনশান নিরবতা বিরাজ করছে প্রতিবেশিরা জানান, বুধবার রাতে ব্যাপক ভাঙচুরের শব্দ শুনে তারা আতঙ্কে উঠেন ভয়ে এগিয়ে আসার সাহস হয়নি তাদের 

অন্যদিকে অভিযুক্ত গাজীরহাট এলাকার বাদশা ইদ্রিস গাজী দাবি করে বলেন, আমরা কোনো বাড়িঘর ভাঙচুর লুটপাট করেনি নিজেরা ভাঙচুর করে আমাদের ওপর দোষ চাপাচ্ছে কালিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বাড়িঘর ভাঙচুরের কথা স্বীকার করলেও লুটপাটের কথা অস্বীকার করেন এছাড়া আনিসের বোন কাজলের সঙ্গে কোনো খারাপ আচরণ করা হয়নি বলে জানান তিনি

জানা যায়, গত জানুয়ারি সকালে খালে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের চালিতাতলা গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আসলাম গাজী নিহত এবং উভয়পক্ষের অন্তত ১৪ জন আহত হন হন ঘটনায় নিহত আসলামের ভাই ইসমাঈল গাজী বাদি হয়ে ৪৩ জনের নাম উল্লেখ করে কালিয়া থানায় মামলা দায়েরন করেন   

স্থানীয়রা জানান, কালিয়ার চালিতাতলা গ্রামের কাদের মোল্যা ইদ্রিস গাজী সমর্থকদের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত আধিপত্যের লড়াই চলে আসছে নিহত আসলাম ইদ্রিস গাজীর ছেলে

সিলেটে সর্বাধুনিক ব্যবস্থপনায় ও নতুন আঙ্গিকে উন্নতমানের এক মিনি ফুটবল খেলার মাঠ ‘ফুটসাল’ উদ্বোধন করা হয়েছে। নগরীর শাহজালাল উপশহরের শিবগঞ্জ এলাকায় শুক্রবার বিকেলে ‘ক্রসবার হোম অব ফুটসাল’ নামে এ মাঠের উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক হেক চৌধুরী। এ ক্রসবার’র উদ্যক্তারা হচ্ছেন নাহিদ মাহমুদ, ফারহান উদ্দিন খান, সুলতান আহমেদ শাফি, আহমেদ নেওয়াজ ও আকরাম ইবনে ফয়েজ প্রমূখ।
দুপর্বের উদ্বেধনী অনুষ্টানের শেষান্তে কেক ও ফিতা কেটে এ হোম ফুটসালের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন,‘ক্রসবার হোম অব ফুটসাল’-এর উদ্যোক্তারা খেলার জগতে এক নতুন দিগন্তের সূচনা করেছেন। ঝড়বৃষ্টির মধ্যেও খেলা চলতে পারে, এমন ফুটসাল মাঠ খেলার জগতে এই প্রথম। তিনি এই মাঠের উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে ‘ক্রসবার হোম অব ফুটসাল’-এর উন্নয়নে সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
এর আগে প্রথম পর্বের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন সিলেট-এর সিনিয়র সদস্য ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী সদস্য বিজিত চৌধুরী বলেন- সিলেটের ক্রীড়ামোদী ও খেলোয়াড়দের দীর্র্ঘদিনের প্রত্যাশা ছিল অলটাইম খেলার অনুকুল পরিবেশের একটি ফুটসাল মাঠ।‘ক্রসবার হোম অব ফুটসাল’ ক্রীড়ামোদিদের দীর্ঘদিনের এ প্রত্যশা পূরণ করেছেন। এটাকে সিলেট উন্নয়নের এক বিরাট অঙ্গ আখ্যায়িত করে বিজিত চৌধুরী ‘ক্রসবার-এর উন্নয়নে সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন এবং উদ্যোক্তাদের আন্তরিক সাধুবাদ জানান ।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দৈনিক বিজয়ের কণ্ঠ’র সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি ও মেট্রোসিটি উইমেন্স কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ মোঃ মোসলেহ উদ্দিন খান বলেন-আমরা অতি আনন্দের সাথে এ উদ্যোগকে গ্রহণ ও সাধুবাদ জানাই। একা কারো পক্ষে এমন উদ্যোগ ও পরিচালনা সমম্ভব নয়, এর জন্য প্রয়োজন সর্বমহলের সমন্বয়ী সহযোগিতা। প্রয়োজনে এ ফুটসাল পরিচালনায় ভূমি দিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।
বিশেষ অতিথি দৈনিক সিলেটের ডাক-এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ওয়াহিদুর রাহমান ওয়াহিদ প্রচার, প্রসারসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ‘ক্রসবার হোম অব ফুটসাল এর সার্বিক সহযোগিতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলোর আব্দুর রকিব তুহিন, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সালেহ আহমেদ সেলিম । এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দৈনিক বিজয়ের কণ্ঠ সম্পাদক ও প্রকাশক জে.এ.কাজল খান, সিলেট ডায়েবেটিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান, সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাহাত তরফদার প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে সিলেটের বিশিষ্ট সামাজিক সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক,শিক্ষাবিদ ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মুক্তিপন না পয়ে লাশ পাঠিয়েছে আপহরনকারীরা 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় তোফাজ্জল হোসেন নামে সাত বছরের শিশু  নিখোঁজের পর শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোর ৫ টায় উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বাঁশতলা নিখোঁজ শিশুর বাড়ির পাশের বাড়ি থেকে লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দু জনকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের নাম জানা যায় নি।
তোফাজ্জল হোসেন উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বাশঁতলা গ্রামের জুবেল হোসেনের ছেলে এবং বাঁশতলা হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্র।
০৮ জানুয়ারি বুধবার বিকাল ৫টার সময় থেকে দুইদিন ধরে নিখোঁজ হয় ।এ বিষয়ে নিখোঁজ তোফাজ্জলের দাদা জয়নাল আবেদীন ০৯ জানুয়ারি  বৃহস্পতিবার দুপুরে তাহিরপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেন। জিডি নং ২৬০।
তাহিরপুর থানার ওসি মোঃ আতিকুর রহমান এ ঘটনার সত্যতা  নিশ্চিত করেন।
স্থানীয় ও শিশুটির পারিবারিক সূত্রে আরো জানা যায়,নিখোঁজের পর অজ্ঞাত অপহরণ কারীরা ঐ শিশুটি কে ফেরৎ নিতে ৮০ হাজার টাকা দাবী করে একটি চিঠি পাঠায় সাথে শিশুটির কাপড় ও জুতা পাঠায়। এরপরেই শিশুটির পরিবার থেকে তাহিরপুর থানার একটি নিখোঁজ জিডি করেন। এ নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে আজ শিশুটির বস্তা বন্ধী লাশ পাওয়া যায়।
থানার জিডি সূত্রে জানা যায়,গত ০৮ জানুয়ারি বুধবার বিকাল ৫ টার সময় নিখোঁজ তোফাজ্জল তার দাদা জুবেল হোসেনের বাড়ী থেকে হঠাৎ নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর থেকে প্রতিবেশী,তাদের আত্মীয় স্বজন ও তোফাজ্জলের বন্ধুদের বাড়ীতেও তার কোন সন্ধান মেলেনি ।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বাদাঘাট আইডিয়াল কিন্টার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষক কর্তৃক নবম শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীকে অপহরন করার অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষকের নাম নজরুল ইসলাম (২৫)। তিনি উত্তর বড়দল ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের শামসুল হকের ছেলে ও একই স্কুলের পরিচালক কামরুল ইসলামের চাচাত ভাই। এই বিষয়ে ঐ ছাত্রীর বাবা তাহিরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ঐ স্কুলটি উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রামে অবস্থিত।
লিখিত অভিযোগে জানা যায়,তাহিরপুর উপজেলায় বাদাঘাট আইডিয়াল কিন্টার গার্ডেন স্কুলের নবম শ্রেনীতে পড়ুয়া ঐ ছাত্রীকে বিভিন্ন সময়ে নজরুল ইসলাম কু প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তার প্রস্থাবে রাজি না হওয়ায় নিজ বাড়িতে রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গেলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা নজরুল ইসলাম তার সহযোগীদের নিয়ে তাকে অপহরন করে নিয়ে যায়। ঐ ছাত্রী ফিরে আসতে দেরী হলে পরিবারের লোকজন বাড়ির আশপাশে খোজাঁ খোজির পর বিভিন্ন স্থানে থাকা আতœীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজা খোজিঁ করে, না পেয়ে জানতে পারেন নজরুল ইসলাম ঐ ছাত্রীকে অপহরন করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গেছে। যার জন্য এখন পর্যন্ত তার কোন খোঁজ পাওয়ায় যাচ্ছে না।

ঐ শিক্ষকের আপন ভাই নুর আলম একই স্কুলে শিক্ষকতা করার সময় তার এক সহকর্মী শিক্ষিকাকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে পালিয়ে নিয়ে বিয়ে করার অভিযোগ রয়েছে।

ছাত্রীর বাবা জানান,আমার অল্প বয়সী মেয়েকে আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক নজরুল ইসলামকে অপহরন করেছে। আমি আমার মেয়েকে পেতে আইনের আশ্রয় নিয়েছি।
তাহিরপুর থানার ওসি আতিকুর রহমান জানান,এই বিষয়ে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc