Wednesday 23rd of October 2019 05:37:41 AM

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ সিলেটের জৈন্তাপুর থানা পুলিশের অভিযানে  এক জন সিএনজি চোরকে আটক করেছে পুলিশ।
জৈন্তাপুর থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে সিএনজি অটোরিক্সা চোর চক্রের সদস্য আটক করে। পুলিশ সূত্রে জানা যায় ১লা অক্টোবর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৪টায় জৈন্তাপুর থানা পুলিশের এস.আই প্রদীপ রায়ের নেতৃত্বে কানাইঘাট উপজেলার সরুফৌদ গ্রামের অভিযান পরিচালনা করে আব্দুল লতিফের বাড়ী হতে সিএনজি অটোরিক্সা চোর চক্রের সক্রিয় সদস্য হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া (সদরঘাট) গ্রামের হিফজুর রহমানের ছেলে রাগিবুর রহমান (২৭) কে সিএসজি অটোরিক্সাসহ আটক করে জৈন্তাপুর থানায় নিয়ে আসা হয়।

আটককৃতের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে ( মামলা নং-০২, তারিখঃ ০২-১০-২০১৯)।

অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক বলেন, সিএনজি অটোরিক্সা চুরি করে পালিয়ে সিএনজি নিয়ে জৈন্তাপুরে অবস্থান করে। বিষয়টি জেলা পুলিশ সুপারের সার্বিক দিক নির্দেশনায় আমার তত্তাবধানে সিএনজিসহ চোর ধরতে পুলিশ অভিযানে নামে, এসময় চোর কানাইঘাট উপজেলায় অবস্থান করে।

পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে তাকে সিএনজিসহ আটক করতে সক্ষম হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পূর্বক আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ সিলেটের জৈন্তাপুরে ১ নারী সহ ৪জনকে আটক করছে টিম জৈন্তাপুর। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

১ অক্টোবর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টায় উপজেলার জৈন্তাপুর বাস ষ্টেশন বাজার এলাকার ডাক্তার আতিকুর রহমানের বিল্ডিংয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে অসামাজিক কাজে জড়ীত থাকার অপরাধে ১নারী সহ ৩জন পুরুষকে আটক করে।

আটককৃতরা হলো উপজেলার মাস্তিংহাটি গ্রামের মৃত কালা মিয়ার ছেলে জুনেদ আহমদ (৩৫), নিজপাট মাহুতহাটি গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে জামাল আহমদ মোরশেদ (৪৪), খারুবিল গ্রামের ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে কবির আহমদ (২৯) এবং লক্ষীপুরে জেলার লক্ষীপুর থানার চৌধুরী বাজার গ্রামের বর্তমান গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার বাসনসড়ক গ্রামের মৃত সিদ্দিক ইসলামের মেয়ে নদী আক্তার (৩২)। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে (মামলা নং ০৩, তারিখ ০২-১০-২০১৯)।

অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। এছাড়া ভারতীয় তীর জুয়া খেলার অপরাধে মাস্তিংহাটি গ্রামের মৃত কালা মিয়ার ছেলে জুনেদ আহমদ, নিজপাট মাহুতহাটি গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে জামাল আহমদ মোরশেদ পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২অক্টোবর বুধবার তাদেরকে আদালতে প্রেরন করা হয়ছে।

সানিউর রহমান তালুকদার, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) থেকে: সুবিধা বঞ্চিত নারীদের সমস্যায় পাশে দাঁড়ান ‘তথ্য আপা’। এমনকি প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি গিয়েও সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন। সাড়া দেশের ন্যায় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় ‘তথ্য আপা’ দিন দিন ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। বিশেষ করে স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার ছাত্রীদের কাছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সরকারের নতুন সেবা ‘তথ্য আপা’। তথ্য আপার কাজ হলো তৃণমূলের নারীদের দোরগোড়ায় তথ্য সেবা পৌঁছে দিতে যেমন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, ব্যবসা, জেন্ডার, আইনসহ এই ছয়টি বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করা। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে নারীদের ক্ষমতায়নের উদ্দেশ্যে এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে জাতীয় মহিলা সংস্থা। নবীগঞ্জ উপজেলা তথ্য কেন্দ্র থেকে জানা যায়, এ উপজেলায় গত চার মাস ধরে কার্যক্রম শুরু করেন ‘তথ্য আপা’।
এ পর্যন্ত অন্তত দেড় হাজার নারী তথ্য আপার কাছ থেকে তথ্য সেবা নিয়েছেন। নবীগঞ্জ উপজেলা তথ্য কেন্দ্র কার্যালয়ে তথ্য সেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) নাহিদা আক্তার, দুই তথ্য সেবা সহকারী শারমিন আক্তার পলি ও লিমা আক্তার এবং এছাড়াও একজন অফিস সহায়ক কর্মরত আছেন। তারা জানান, গত কয়েক মাসে অনেক বাল্যবিয়ে বন্ধ, স্বামী ও দেবর কর্তৃক নারী নির্যাতন সমাধান, যৌতুক নিরোধ ও প্রতি মাসে তৃণমূল নারীদের নিয়ে উঠান বৈঠক করে তাদেরকে সচেতন করছেন।
সরজমিনে তথ্য কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, বেশ কয়েকজন ছাত্রী তথ্য আপার কাছ থেকে সেবা নিচ্ছেন। এসময় শিক্ষার্থী জনি আক্তার ও মরিয়ম আক্তার জানান, ‘এইচএসসি পরীক্ষা পাস করে আমরা বিভিন্ন জায়গায় ঘুরছি, চাকরি খোঁজার চেষ্টা করছি। তথ্য কেন্দ্রে তথ্য আপার কাছে এসে অনলাইনে বিনামূল্যে প্রতিষ্ঠানে আবেদন করেছি।
গৃহবধূ ফারজানা আক্তার নামের একজন জানান, ‘আমার শারীরিক অসুস্থতার কারনে খুব সমস্যায় পড়েছিলাম। এ বিষয়ে তথ্য আপাকে জানানোর পর তারা চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগের ব্যবস্থা করে দেন। আমি তখন ঘরে বসেই চিকিৎসা সেবা পেয়েছি।’ নাদিয়া আক্তার নামের আরেকজন জানান, ‘তথ্য আপারা গ্রামে এসে ইন্টারনেট, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং কৃষি বিষয়ক উঠান বৈঠকের মাধ্যমে আলোচনা করে থাকেন। তাঁরা আমাদের বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেন। আমরা এখন নতুন নতুন অনেক কিছু শিখেছি।’
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এ প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ে সারা দেশে ৪৯০টি উপজেলায় তথ্য আপা সেবা চালু করা হয়। এর আগে প্রথম পর্যায়ে ১৩টি উপজেলায় এ সেবা চালু করা হয়েছিল। নবীগঞ্জ উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) নাদিয়া আক্তার বলেন, ‘আমরা নারীদের সব ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করি, অফিসের পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে উঠান বৈঠক করে ডিজিটাল সেবা কী, কীভাবে সেবা পাওয়া যাবে, এসব বিষয়ে আলোচনা করে থাকি।’ তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে সেবার মান আরো বাড়ানো হবে এবং এ কার্যালয়ে নারীদের সকল ধরনের সেবা বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে। সরকারের এমন মহতী উদ্যোগের কারনে সমাজে পিছিয়ে পড়া নির্যাযিত নারীরা এ সেবার মাধ্যমে নতুন করে স্বপ্ন দেখছে।’ তিনি উপজেলার সকল তৃণমূল পর্যায়ে নারীদের সমস্যা সমাধানে এ কার্যালয়ে সেবা নেয়ার জন্য অফিসে আসার অনুরোধ জানিয়েছেন।
নবীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) তৌহিদ-বিন-হাসান বলেন, ‘সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে নারীদের ক্ষমতায়নের (প্রকল্প-২) জন্য দেশের ৪৯০টি উপজেলায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে নবীগঞ্জের তৃণমূলের নারীদের দোরগোড়ায় তথ্য সেবা পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।
বিশেষ করে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে মা-বোনদের সচেতন করা হয়। পাশাপাশি সরকার মেয়েদের জন্য যে বিনামূল্যে লেখাপড়া সহ সুবিধা দিচ্ছে তা জানান ‘তথ্য আপা’। এছাড়াও উঠান বৈঠকে আমার বাড়ি আমার খামাড় সহ সরকারের সব সুযোগ সুবিধার কথা জানানো হয়।’ এ প্রকল্পের মাধ্যমে নারীরা অনেক সচেতন হবে এবং নিজের ক্ষমতায়ন সম্পর্কে জানবে বলে মনে করে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম বলেন, ‘তথ্য আপার উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারী বিভিন্ন ধরণের সেবা পাচ্ছে।
যেমন নারীদের স্বাস্থ্যগত সমস্যা সর্ম্পকে জানতে পারে। তাদের অধিকার আদায়ের জন্য কী করতে হবে, এ বিষয়টা অনেকেই জানতো না। তৃণমূলের মেয়েরা অনেকেই লজ্জাবোধ করে কী বলতে বা কীভাবে জানবে।
‘তথ্য আপা’ প্রকল্পটি নারীদ্বারা পরিচালিত হওয়ায় তথ্য আপার সাথে সরাসরি কথা বলে যে কোন সমস্যার সমাধান করতে পারে। বিশেষ করে গ্রামে গ্রামে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারীরা অনেক এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন তিনি।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ বিএনপির মির্জা আব্বাস,সাদেক হোসেন খোকা,মোসাদ্দেক হোসেন ফালুর সময় থেকে ক্লাবে জুয়ার প্রচলন শুরু হয়েছে। এবং যারাই এর সঙ্গে জড়িত এরা সবসময় সরকারের আনুকল্য নেয়ার জন্য সরকারী দলের ব্যানার ব্যবহার করতে চায় তাদের অপকর্ম জায়েজ করার জন্য। দেখেছি যারাই এখন পর্যন্ত আটক হয়েছে এই সবগুলোই বিএনপি থেকে আসা।
সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগের উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিনিধি সম্মেলনে যাওয়ার পূর্বে মঙ্গলবার সকালে সুনামগঞ্জ সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এসব কথা বলেন। যেকোন ধরনের অন্যায় দূর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে আছেন যার নেতৃত্বে এই দেশে উন্নয়নের অগ্রগতি জননেত্রী শেখ হাসিনা। কোন দূর্নীতিবাজ দলের নয়,দলের দোহাই দিয়ে কেউ ছাড় পাবে না। যুবলীগ হউক,আ’লীগ হউক আর ছাত্রলীগ হউক বা অন্য দলের হউক যে দূর্নীতিবাজ হউক সে সমাজে ও দেশের চোখে অপরাধী। আর অপরাধীর কোন দল নেই।
তিনি আরো বলেন,যে সন্ত্রাসী সে সমাজের চোখে অপরাধী। এ ধরনের অপরাধীদের চিহ্নিত করা হচ্ছে এবং যাদের বিরুদ্ধে সুর্নিদিষ্ট অভিযোগ প্রমানিত হবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।
তিনি আরো বলেন,ক্যাসিনো হচ্ছে জুয়াড় আসর। এর সঙ্গে ক্লাব জড়িত। এর সঙ্গেকোন রাজনৈতিক দল জড়িত না। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনকভাবে এটাকে দলের উপর চাপানো হচ্ছে। যুবলীগের ২/১জন নেতা এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। কিন্তু এটা তো পুরো যুবলীগের কোন বিষয় না এটা ক্লাবের বিষয়। এখানে যুবলীগ ছাড়াও বিএনপির অনেক নেতাকর্মী জড়িত আছে।

যুবলীগ নেতা সম্রাটকে আটক করা হলে অনেক তথ্য বেরিয়ে আসতে পারে এমন প্রশ্নের উত্তরে হানিফ বলেন,গণ্যমাধ্যম যদি জানে কাউকে আটক করা হলে সকল তথ্য পাওয়া যাবে তাহলে এ বিষয়টা গণ্যমাধ্যম ই বলতে পারবে। গণমাধ্যম যেহেতু এসব বলছে তাহলে নিশ্চই কোন কিছুর উপর ভিত্তি করেই বলেছেন। তবে আমরা আবারো বলছি যে অপরাধী তার কোন দল নেই। তার বিরুদ্ধে আমাদের শক্ত অবস্থান আছে। এবং অপরাধী সে যেখানেই থাকুক না কেনো তাকে ধরা পরতেই হবে। এবং তাকে আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম,কেন্দ্রীয় আ’লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্ধিন সিরাজ,সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিক,মোয়াজ্জেম হোসেন রতন,শামিমা শাহরিয়ার,জেলা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমনসহ আ’লীগ নেতৃবৃন্দ।

চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ  হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার পাইকপাড়া ইউনিয়নের হলহলিয়া থেকে অবৈধ বালু বোঝাই ৩টি ট্রাক্টর আটক করেছে চুনারুঘাট থানা পুলিশ। জানা যায়, গত সোমবার রাত দেড়টার দিকে চুনারুঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মো: আলী আশরাফের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার পাইকপাড়া ইউনিয়নের হলহলিয়া গ্রামে বিশেষ অভিযান চালিয়ে অবৈধ বালু বোঝাই ৩টি ট্রাক্টর সহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

এসময় ট্রাক্টর চালকরা পালিয়ে যায়। আটককৃত ট্রাক্টরের নাম- আদিল, সালমান পরিবহন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে হলহলিয়া গেলানী ছড়া থেকে সম্পূর্ণ অবৈধ ও সরকারের অনুমতি ব্যতিরেকে দেদারছে সিলিকা বালু উত্তোলণ করে পাচার করছে একটি অসাধু সিন্ডিকেট চক্র। জানা যায়, হলহলিয়া গ্রামের ময়না মিয়ার পুত্র রুমান মিয়া, সালমান মিয়া সহ তাদের সহযোগিরা মিলে হলহলিয়া গেলানী ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ করে তাদের নিজস্ব ট্রাক্টর দিয়ে পাচার করে বালুখেকোরা।

এদিকে উজ্জলপুর, হলহলিয়া, হলদিউড়া, সতং ও বদরগাজী গ্রাম সহ ৪/৫ টি গ্রামের লোকজনদের বসতবাড়ি, রাস্তাঘাট ভেঙ্গে বিভিন্ন ভাবে ক্ষতিসাধিত হচ্ছে। চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ নাজমুল হক বালু বোঝাই ৩টি ট্রাক্টর আটকের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে হলহলিয়া গ্রামের গেলানী ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন এলাকার সচেতন মহল।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ “বয়সের সমতার পথে যাত্রা” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে নড়াইলে আন্তর্জাতিক প্রবীন দিবস পালিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দিবসটি পালন উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের আয়োজনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

র‌্যালীটি জেলা প্রশাসকের চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা এতে প্রধান অতিথি ছিলেন।

সমাজসেবার উপ-পরিচালক রতন কুমার হালদারের সভাপতিত্বে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল ইসলাম, রুপগঞ্জ বাজার শিল্প বনিক সমিতির সভাপতি মোঃ রজিবুল বিশ্বাস,অবসর প্রাপ্ত জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আলী আহম্মেদ, সরকারি কর্মকর্তা, প্রবীণ হিতৈষী সংঘের কর্মকর্তাগণ, এনজিও প্রতিনিধি, বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবি সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে ১শত প্রবীনের মাঝে উপহার হিসাবে ১শত মগ বিতরণ করা হয়।

সানিউর রহমান তালুকদার,নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) থেকেঃ হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে আলোচনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চল হিসেবে খ্যাত দিনারপুর পরগণার জনপদ। শুধু তাই নয়, ব্যানার-পেস্টুন ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল।

এ উপ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের অতীত কর্মকা- নিয়ে হিসাব মেলানোর পাশাপাশি ভোটারদের মাঝেও চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। নির্বাচনের দিন তারিখ যতই ঘনিয়ে আসছে রাজনৈতিক সমীকরণ ততই জটিল হয়ে ভেসে উঠছে। সম্প্রতি ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাবেদ আলীর মৃত্যুজনিত কারণে আগামী ১৪ অক্টোবর এ ইউনিয়নে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে মোট পাঁচ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

তারা হলেন, আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মুহিত চৌধুরী (নৌকা) প্রক্ষান্তরে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ সভাপতি ও টানা পাঁচ বারের সাবেক চেয়ারম্যান আ.খ.ম. ফখরুল ইসলাম কালামের (আনারস) এবং একই দলের অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী সদ্য প্রয়াত চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাবেদ আলী পুত্র যুবলীগ নেতা শাহ রিয়াজ নাদির সুমন চশমা প্রতীক নিয়ে বিজয়ের লক্ষে যুব সমাজের একটি অংশ মাঠে সক্রিয়ভাবে কাজ করে আসছেন।

অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট জালাল আহমেদ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে বিজয়ের লক্ষে বিভিন্ন এলাকাসহ গ্রামে-গঞ্জে গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন।

এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাওলানা ফখরুল ইসলাম চৌধুরী (মোটরসাইকেল) প্রতীক নিয়ে ব্যাপক প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। এই পাঁচজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রচার প্রচারণা ও গণসংযোগে মুখরিত হয়ে উঠেছে দেবপাড়া ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামগঞ্জ সহ হাটবাজার। তবে ইউনিয়নজুড়ে ভোটরদের আলোচনায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আ.খ.ম ফখরুল ইসলাম কালাম হবিগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে স্বর্ণপদক লাভ ও একটানা পাঁচবারের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় ভোটারদের নিকট গ্রহণযোগ্য প্রার্থী হিসেবে সর্বোচ্চ আলোচনায় রয়েছেন।

অপরদিকে পিতার অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করতে এবং তার ইমেজকে কাজে লাগিয়ে পুরো ধমে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন সদ্য প্রয়াত চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাবেদ আলীর পুত্র যুবলীগ নেতা শাহ রিয়াজ নাদির সুমন। অপরদিকে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি দলীয় মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মুহিত চৌধুরী (নৌকা) প্রতীক নিয়ে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে বিরামহীন মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদের উদ্যোগে হাঁস-মুরগি ও গবাদিপশু পালন সংক্রান্ত চল্লিশ জন ভিক্ষুক ও বিশ জন হত দরিদ্র মহিলাকে প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষন কর্মশালায় প্রশিক্ষণ প্রদান করেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসার ডা: মো. রুবাইয়েত রেজা।
প্রশিক্ষন শেষে উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলামের সভাপতিত্বে চল্লিশ জন ভিক্ষুক ও বিশ জন হত দরিদ্য মহিলা প্রশিক্ষনার্থীর হাতে নগদ তিনশত করে টাকা তুলে দেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমান।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন,কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা তৈরি হচ্ছে। গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে এই ১০ বছরের মধ্যে অন্য দল থেকে কারা কারা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনে অনুপ্রবেশ করেছে তাদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাদের দল থেকে ঝেঁটিয়ে বিদায় করা হবে। আমরা এদের ব্যাপারে বসে নেই।
অনুপ্রবেশকারীরা কেবল ঢাকার ক্যাসিনোর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়,তারা তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত চলে এসেছে।অনুপ্রবেশকারী, জুয়াড়ি আর অপরাধীদের অপকর্মের দায় আ’লীগ নিতে পারে না। তাদের অপকর্মের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার অর্জন ম্লান হতে দেওয়া হবে না।
আওয়ামী লীগ নেতা হানিফ আরো বলেন,মোহামেডান ক্লাবের লোকমান বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার একজন বিশ্বস্ত অনুচর ছিলেন। তিনি ক্যাসিনো থেকে ৪১ কোটি টাকা অস্ট্রেলিয়ায় পাচার করেছেন। খালেদ ভূঁইয়া ফ্রিডম পার্টি করেছে, যুবদল করেছে, সুযোগ বুঝে নাম লিখিয়ে সে এখন যুবলীগ সেজে গেছে। মির্জা আব্বাসের ক্যাডার টেন্ডারবাজ জিকে শামীম,এখন সে যুবলীগ নেতা সেজে আ’লীগের গায়ে কালিমা লেপন করছে।
আ’লীগ নেতা হানিফ আরো বলেন,ক্লাবগুলোতে জুয়াখেলা,হাউজি খেলা অনেক আগ থেকেই চালু ছিল,এটা ক্লাবের সঙ্গে সম্পৃক্ত; এর সঙ্গে রাজনৈতিক দলের কোন সম্পর্ক নেই। কিন্তু এর সঙ্গে যদি আ’লীগ কিংবা যুবলীগের কেউ জড়িত হয়,তার জন্য সে অপরাধী,দল অপরাধী হতে পারে না। করো ব্যক্তিগত কর্মে দল ভারী করার জন্য আ’লীগ এই সমস্ত কলংকের বোঝা টানতে পারে না।
মঙ্গলবার বিকালে সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগের প্রতিনিধি সভায় জেলা আ’লীগের সভাপতি মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নূরুল ইসলাম নহিদ,আ’ লীগের কেন্দ্রীয় সাংগাঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন,মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ,সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিক,মোয়াজ্জেম হোসেন রতন,জয়া সেনগুপ্তা, শামিমা শাহরিয়ার, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট প্রমুখ।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc