Sunday 5th of July 2020 03:26:42 AM

মৌলভীবাজারের একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশনের অফিস উদ্ভোধন ও খেলোয়ারদের মধ্যে জার্সি প্রদান অনুষ্ঠান

 

বদরুল মনসুরঃ মৌলভীবাজার জেলা সদরের ৬নং একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশন (সি পি এ ) এর অফিস উদ্ভোধন ও খেলোয়ারদের মধ্যে জার্সি প্রদান এবং এক আনন্দ সভা গত ২৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকাল ৩ ঘটিকায় একাটুনা বাজারে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা ও আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্টিত হয়েছে

৬নং একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশন সভাপতি জেলা ক্রিকেট টিমের নিয়মিত খেলোয়াড় মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্তে এবং ৬নং একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশনের সহ সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ ফয়ছল মনসুর এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্তিত ছিলেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ মাওলানা আলাউর রহমান টিপু ও একাটুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চেম্বার এর ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান.

এছাড়া ও অনুষ্ঠানে ইউপি সদস্য ও উপদেষ্টাদের মধ্যে আলিম উদ্দিন হালিম. মুজিবুর রহমান. রনজুল আহমেদ শাওন আহমেদ জুবেল খান. এম শামীম আহমেদ. সিতার আহমেদ ইমন আহমেদ তরফদার সাহাদ আহমেদ আজিজুল হক সেলিম. মোহাম্মদ কামাল মনসুর সহ ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশন সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান ফয়েজ. কোষাধ্যক্ষ রাজন মিয়া. সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম. প্রচার সম্পাদক সাহান আহমেদ. দপ্তর সম্পাদক রুমন আহমেদ. সহ সভাপতি সাজু আহমেদ সহ সভাপতি সুমন আহমেদ. সহ সভাপতিসৈয়দ নাজমুল. সহ সভাপতি মুজাহিদ আহমেদ. সহ সাধারন সম্পাদক মির্জা আহমেদ. সহ সাধারন সম্পাদক রিপন আহমেদ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে হি ইউ সিক্স একাটুনা ইউনিয়নবাসী হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপের পক্ষ থেকে দু ‘সেট জার্সি খেলোয়াড়দের মধ্যে বিতরন করা হয়েছে।

সকল বক্তারা উক্ত দু’সেট জার্সি প্রদানে যারা স্পোন্সার করেছেন সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। এদিকে একাটুনা ইউনিয়ন ডেভোলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন অব মৌলভীবাজার এর প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি ও প্রজেক্ট চেয়ারম্যান একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশন (সি পি এ ) এর উপদেষ্টা কমিউনিটি লিডার মোহাম্মদ মকিস মনসুর.বৃটেন থেকে সংগঠনের সকল ট্রাষ্টি ও সদস্যবৃন্দের পক্ষ থেকে মৌলভীবাজার জেলা সদরের ৬নং একাটুনা ইউনিয়ন ক্রিকেট প্লেয়ার এসোসিয়েশন এর সকল

খেলোয়ারবৃন্দকে আগাম শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন সহ আগামী টুনামেন্টে যাতে সিপিএ বিজয় ছিনিয়ে আনতে পারে এই লক্ষ্যে সবাইকে যার যার পক্ষ থেকে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করার আহবান জানানো সহ আমরাই করবো জয় দেখা হবে বিজয়ের আনন্দ উল্লাসে এই প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেছেন। এছাড়া ও তিনি হি ইউ সিক্স একাটুনা ইউনিয়নবাসী হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপের পক্ষ থেকে দু ‘সেট জার্সি খেলোয়াড়দের মধ্যে বিতরন করায় উক্ত দু’সেট জার্সি প্রদানে যারা স্পোন্সার করেছেন সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

আবুতাহের,ফ্রান্স থেকেঃ  গাজীপুর জেলা সমিতি ফ্রান্সের উদ্যোগে বাংলাদেশ সরকারের  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী  আ ক ম মোজাম্মেল হক,কে প্যারিসে সংবর্ধনা প্রদান  করা হয়েছে। প্যারিসের ক্যাথসীমায় অফিওরা সেন্টারে আয়োজিত এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ফ্রান্সে বসবাসরত গাজীপুর জেলার প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।

গাজীপুর জেলা সমিতির সভাপতি মুক্তিযুদ্ধা জিয়াউল হক নাসির এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ফারুক খানের পরিচালনায় এসময় মন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা আবুল কাশেম।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী  আ ক ম মোজাম্মেল হক ছাড়াও এসময় বক্তব্য রাখেন সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান , ফ্রান্স আওয়ামীলীগ সভাপতি বেনজির আহমদ সেলিম , সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামীলীগ এর সাবেক সহসভাপতি আব্দুল্লাহ আল বাকি , ফ্রান্স আওয়ামী লীগ এর প্রধান উপদেষ্টা নাজিম উদ্দিন আহমদ , গাজীপুর জেলা সমিতি ফ্রান্সের সাবেক সভাপতি মুক্তিযুদ্ধা মনিরুল হক  মনু , ইউরো বাংলা টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু তাহির , গাজীপুর জেলা সমিতি ফ্রান্সের সহসভাপতি কাওসার মোড়ল, জুয়েল আহমদ , সাংগঠনিক সম্পাদক তপন দাস , সিদ্দিক , আমজাদ , আবুল কালাম আজাদ , কৌশিক রাব্বানী।

সংবর্ধনা সভার শুরুতে মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান গাজীপুর জেলা সমিতি , ফ্রান্স বাংলাদেশ প্রেসক্লাব , ইপিবিএ ফ্রান্স শাখা , অফিওরা সেন্টার সহ ফ্রান্সের বিভিন্ন সংগঠন।

এসময় মন্ত্রী তার বক্তব্যে গাজীপুর জেলা সমিতি ফ্রান্সের ভূয়সী করে বলেন দল মতের উর্দ্ধে উঠে ফ্রান্সে  বাংলাদেশকে তুলে ধরতে হবে।  বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে ফ্রান্সের মূলধারায় প্রকাশ করার দায়িত্ব সকল প্রবাসীদের ।

এসময় তিনি বলেন দুর্নীতি বিরোধী অভিযান বাংলাদেশকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছে।  প্রধানমন্ত্রী কাউকে ছাড় দিবেন না।  প্রবাসীদের কল্যানে প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত আন্তরিক।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ “হৃদয়ের টানে সেবা ও কল্যানে” এই স্লোগানকে ধারন করে শ্রীমঙ্গল উপজেলার নানা শ্রেণির মানুষের সেবায় নিয়োজিত  “হৃদয়ে শ্রীমঙ্গল”র উদ্যোগে  অসুস্থতার কারণে ভারতে চিকিৎসাধীন ৩ নং শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের উত্তর ভারাউরা এলাকার মাওলানা এম এ রহীম নোমানীকে চিকিৎসার জন্য আর্থিক অনুদান এবং শহরের পূর্বাশা আবাসিক এলাকার দু’জন দু:স্থ মহিলা নিপা দেব ও ঝর্না সুত্রধরকে একটি করে সেলাই মেশিন বিতরণসহ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের  আসন্ন দুর্গা পুজা উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা  ব্যানার বিতরণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেল ৩টায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে “হৃদয়ে শ্রীমঙ্গল”র এডমিন মোছাব্বির আলী মুন্নার  সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম  তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন,”হৃদয়ে শ্রীমঙ্গল” একটি স্বেচ্ছাসেবী  সংগঠন মানব সেবায় কাজ করার কারনেই আমি আমার হল রোম আপনাদের শুধু মাত্র জন স্বার্থে দিয়েছি আমি আশা করবো সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজে আপনারাসহ সকল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলো  এভাবেইএগিয়ে আসবে।”

দু’জন মহিলার হাতে সেলাই মেশিন তোলে দিচ্ছেন প্রধান অতিথি নজরুল ইসলাম ।

তিনি আরও বলেন,”একটি কথা সবাইকে মনে রাখতে হবে নিজে ভালো থাকতে হলে অন্যকে ভালো রাখতে হবে অর্থাৎ অন্যের কল্যানই হলো নিজের কল্যাণ, কোন মানুষ অন্যের ক্ষতি বা কারো প্রতি হিংসা-বিদ্বেষ করে কখনো সুখী হতে পারে না বা পারবেও না। যাই করেন হিসেব কিন্তু দিতেই হবে সেটা ইহকালেও পরকালেও।

পরে প্রধান অতিথি নজরুল ইসলাম মাওলানা নোমানীর প্রতিনিধিদের হাতে আর্থিক অনুদানের  ব্যাংক চেক তোলে দেন এবং শহরের পূর্বাশা আবাসিক এলাকার দু’জন দু:স্থ মহিলা নিপা দেব ও ঝর্না সুত্রধরকে একটি করে সেলাই মেশিন বিতরণ করেন। এ সময় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের আসন্ন দুর্গা পুজা উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা  ব্যানার বিতরণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও অনুষ্ঠিত হয়।

হৃদয়ে শ্রীমঙ্গল ইউকে এর উপদেষ্টা শেখ ফারুক আহমেদ চৌধুরী,কামরুল হাসান দোলন, প্রতাপ গোয়ালা, বেলাল আহমেদসহ সদস্য বৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। ।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন,আমার সিলেট সম্পাদক আনিছুল ইসলাম আশরাফী,নাট্যকার দেলোয়ার হোসেন মামুন, আব্দুল মজিদ, মকবুল হাসান ইমরান, নিজামুল ইসলাম ,মুশাহিদ আহমদ প্রমুখ স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ।

হোসাইন ইকবাল,স্পেন থেকেঃ বাংলাদেশ এসোসিয়েশন বার্সেলোনার কার্যকরী কমিটির এক জরুরি সভা অনুষ্টিত হয়েছে।গতকাল রাতে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন বার্সেলোনার কার্যকরী কমিটির জরুরি সভা স্থানীয় রেস্টুরেন্ট (শহীদ মিনার চত্বরে) সংগঠনের সভাপতি জনাব মাহারুল ইসলাম মিন্টুর সভাপতিত্বে,  সাধারণ সম্পাদক হীরা আলম ও সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক জনাব হারুন আর রশিদের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন,

এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা নাজমুল ইসলাম মাস্টার, ফাকু মিয়া, সিনিয়র সহ-সভাপতি শফিউল আলম সফি, ময়নুল আবেদীন, মাহভুব আহমদ, মুক্তার,  যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শফিক খান, সহ সম্পাদক আবু তালেব আল মামুন লাভু, তৌফিকুজ্জামন, সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন রশিদ, সহসাংগঠনিক জাকির হোসেন ভূঁইয়া, অর্থ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ দুলাল,  মানব কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শাহাবুদ্দিন, রাসেল আহমদ ,মতিউর রহমান মতিসহ আর অনেকে।

বক্তারা বলেন বাঙ্গালী কমিটিকে সুসংগঠিত, বেগবান এবং বাংলাদেশ এসোসিয়েশন বার্সেলোনাকে  সংস্কার করে একটি সুসংগঠিত সুন্দর সমাজ বিনির্মানে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে, কমিউনিটিতে অসৎ কর্মকান্ড সমর্থন না দেয়ার ও আহবান জানান বক্তারা।

সভা শেষে উপস্থিত অতিথিদের নৈশভোজে আমন্ত্রণের মধ্য দিয়ে সভার কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করেন সংগঠনের সভাপতি জনাব মাহারুল ইসলাম মিন্টু ।

আমার সিলেট ডেস্কঃ আজকের এই ঐতিহাসিক দিনটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩তম শুভ জন্মদিন । তিনি বর্তমানে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগদান উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করলেও আ’লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন দেশে এবং দেশের বাইরে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে তার জন্মদিনটি পালন করছে।

বঙ্গ বন্ধু তনয়া শেখ হাসিনা ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের মধুমতি নদী বিধৌত টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি।

২১ শতকের উন্নয়নে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের প্রবক্তা স্বপ্নদর্শী এই নেত্রী ১৯৮১ সালে আ’লীগের নেতৃত্ব গ্রহণের পর থেকে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে দলকে সুসংগঠিত করেন এবং ১৯৯৬ সালে প্রথম, ২০০৮ সালে দ্বিতীয় এবং ২০১৪ সালে তৃতীয় এবং ২০১৮ সালে চতুর্থ বারের মত নির্বাচনে জয়লাভ করে দলকে দেশের নেতৃত্বের আসনে বসাতে সক্ষম হন।

তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। স্থায়ী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, খাদ্যে স্বনির্ভরতা, নারীর ক্ষমতায়ন, কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গ্রামীণ অবকাঠামো, যোগাযোগ, জ্বালানী ও বিদ্যুৎ, বাণিজ্য, আইসিটি এবং এসএমই খাতে এসেছে ব্যাপক সাফল্য। এছাড়া যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের বিচার, পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি সম্পাদন, একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতিসহ জাতীয় জীবনের বহুক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছেন তিনি।

দাদা শেখ লুৎফর রহমান ও দাদি সাহেরা খাতুনের অতি আদরের নাতনি শেখ হাসিনার শৈশব-কৈশোর কেটেছে মধুমতি নদীর তীরবর্তী গ্রাম টুঙ্গিপাড়ায়। শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রেহানা এবং শেখ রাসেলসহ তারা পাঁচ ভাই-বোন। বর্তমানে শেখ হাসিনা ও রেহানা ছাড়া কেউই জীবিত নেই। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে পিতা বঙ্গবন্ধু এবং মাতা ফজিলাতুন্নেছাসহ সবাই ঘাতকদের নির্মম বুলেটে নিহত হন।

শেখ হাসিনার শিক্ষাজীবন শুরু হয়েছিল টুঙ্গিপাড়ার এক পাঠশালায়। ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়ে পরিবারকে ঢাকায় নিয়ে চলে আসেন। তখন পুরনো ঢাকার রজনী বোস লেনে ভাড়া বাসায় ওঠেন তারা।

বঙ্গবন্ধু যুক্তফ্রন্ট মন্ত্রিসভার সদস্য হলে সপরিবারে ৩, নম্বর মিন্টু রোডের বাসায় তারা বসবাস শুরু করেন। শেখ হাসিনাকে ঢাকা শহরে টিকাটুলির নারী শিক্ষা মন্দিরে ভর্তি করা হয়। এখন এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি শেরেবাংলা গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ নামে খ্যাত। শুরু হয় তার শহর বাসের পালা।

তিনি ১৯৬৫ সালে আজিমপুর বালিকা বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, ১৯৬৭ সালে ইন্টারমিডিয়েট গার্লস কলেজ (বর্তমান বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা মহাবিদ্যালয়) থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করেন। ওই বছরেই তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনার্সে ভর্তি হন এবং ১৯৭৩ সালে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

শেখ হাসিনা ইন্টারমিডিয়েট গার্লস কলেজে পড়ার সময় ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সদস্য এবং রোকেয়া হল শাখার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ছাত্রলীগের নেত্রী হিসেবে তিনি আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন এবং ৬-দফা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু উত্থাপিত ৬-দফা দাবিতে পূর্ববাংলায় এক অভূতপূর্ব জাতীয় জাগরণ সৃষ্টি হয়। শাসকগোষ্ঠী ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে। শুরু হয় প্রচণ্ড দমন-নির্যাতন। আটক থাকা অবস্থাতেই বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠী আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা দায়ের করে। তার জীবন ও পরিবারের ওপর নেমে আসে গভীর বিপদাশংকা ও দুঃসহ দুঃখ-যন্ত্রণা।

এই ঝড়ো দিনগুলোতেই বঙ্গবন্ধুর আগ্রহে ১৯৬৮ সালে পরমাণু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়ার সঙ্গে শেখ হাসিনার বিয়ে হয়।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানের করাচিতে নিয়ে যাওয়ার পর গোটা পরিবারকে ঢাকায় ভিন্ন এক বাড়িতে গৃহবন্দী করে রাখা হয়। অবরুদ্ধ বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের ২৭ জুলাই শেখ হাসিনা গৃহবন্দী অবস্থায় তার প্রথম সন্তান ‘জয়’-এর মা হন। ১৯৭২ সালের ৯ ডিসেম্বর কন্যা সন্তান পুতুলের জন্ম হয়।

১৯৭৫ সালে সপরিবারে বঙ্গবন্ধু নিহত হবার আগে ছোট বোন শেখ রেহানাসহ শেখ হাসিনা ইউরোপ যান। সেখানে অবস্থানকালে তিনি সপরিবারে বঙ্গবন্ধুর নিহত হবার খবর পান। তাৎক্ষণিকভাবে দেশে ফেরার কোনো পরিবেশ না থাকায় তিনি ইউরোপ ছেড়ে স্বামী-সন্তানসহ ভারতে রাজনৈতিক আশ্রয় নেন।

শেখ হাসিনার পরবর্তী ইতিহাস একবিংশ শতকের অভিযাত্রায় তিনি কীভাবে বাঙালি জাতির কাণ্ডারি হয়েছেন তার ইতিহাস। বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখতেন সেই স্বপ্ন রূপায়নের দায়িত্ব নিয়ে বাঙালি জাতির আলোর দিশারী হওয়ার ইতিহাস।

১৯৮১ সালের ১৩ থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে তাকে দলের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। আর ঐ বছরেরই ১৭ মে দীর্ঘ ৬ বছর প্রবাস জীবনের অবসান ঘটিয়ে মাতৃভূমি বাংলাদেশে ফিরে আসেন।

১৯৮৬ সালের সংসদ নির্বাচনে তিনি তিনটি আসন থেকে নির্বাচিত হন। ১৯৯০ সালের ঐতিহাসিক গণআন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। ১৯৯১ সালের সংসদ নির্বাচনের পরে তিনি পঞ্চম জাতীয় সংসদের বিরোধী দলের নেতা নির্বাচিত হন।

১৯৯৬ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়ে সরকার গঠন করে এবং সে বছরের ২৩ জুন দেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়লাভ করে তিনি সপ্তম জাতীয় সংসদে বিরোধীদলের নেতা নির্বাচিত হন। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড নিক্ষেপ করে তাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়। তিনি অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলেও ওই হামলায় ২৪ জন নিহত এবং পাঁচশত’ নেতা-কর্মী আহত হন।

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দুই-তৃতীয়াংশের বেশি আসন নিয়ে বিশাল বিজয় অর্জন করে। এই বিজয়ের মধ্যদিয়ে শেখ হাসিনা দ্বিতীয় বারের মতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।

পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি তৃতীয়বার এবং ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে চতুর্থবারের মত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।

শেখ হাসিনা বর্তমানে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগদান উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। এর আগে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন সম্মানসূচক ডিগ্রি, পদক ও স্বীকৃতি দিয়ে শেখ হাসিনার অসামান্য অবদানকে সম্মানিত করা হয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। টিকা দান কর্মসূচিতে বাংলাদেশের অসামান্য সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরুপ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মর্যদাপূর্ণ ‘ভ্যাকসিন হিরো ’ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে।

সুইজারল্যন্ড ভিত্তিক বিশ্বব্যাপী টিকা দান সংস্থা গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যকসিনেশন এবং ইমিউনাইজেশন (জিএভিআই) ২৩ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় জাতিসংঘ সদর দপ্তরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনাকে এ পুরস্কার প্রদান করা হয় । এর আগে এ মাসেই শেখ হাসিনাকে ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স এ্যাওয়ার্ড পদক প্রদান করা হয়। কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এডভাইজরি কাউন্সিলের প্রধান উপদেষ্টা এ্যাম্বাসেডর টিপি শ্রী নিবাসন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ পদক হস্তান্তর করেন।

র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ক্যাসিনো বন্ধ করার অভিযানে নেমেছে র‌্যাব। সব ক্যাসিনো গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে। তবে ক্যাসিনোর সংখ্যা নিয়ে সংবাদমাধ্যমে অনুমাননির্ভর তথ্য আসছে, যা ঠিক নয়।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর বনানীর হোটেল নরডিকে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে সক্ষমতা বিষয়ে বিশেষ মহড়া শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

র‌্যাব প্রধান বলেন, কেউ বলছেন ঢাকায় ৬০টি ক্যাসিনো আছে, কেউ বলছেন ১৫০, আবার কেউ বলছেন ৬০০। সেই তালিকাটি কোথায়, ভাইয়া ? এ রকম অনুমান নির্ভর, গুজব নির্ভর, গসিপ নির্ভর কথাবার্তা ভালো নয়। দয়া করে কোনো গুজব ছড়াবেন না, আতঙ্ক ছড়াবেন না। দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ভালো করতে গিয়ে দেশ পেছনে পড়ে যাক এটা কাম্য নয়। অনেক অনুমান নির্ভর কথা বলা হচ্ছে, চরিত্র হনন করা হচ্ছে, এগুলো ঠিক নয়।

বেনজীর আহমেদ বলেন, ক্যাসিনো নিয়ে ইতোমধ্যে অনেক আলোচনা হয়েছে। এর আগে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে একটা শুদ্ধি অভিযান হয়েছিল, যা পরে মুখ থুবড়ে পড়ে। এখন একটি শুদ্ধি অভিযান চলছে। সেটা হয়তো আরও প্রসারিত হবে। রাজনীতিবিদ, বড় ব্যবসায়ী, সরকারি দফতরের বর্তমান ও সাবেক প্রকৌশলী-যাদের সাসপেন্ড করা হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। দুদক কাজ করছে।

র‌্যাব এখন একক ভাবে জঙ্গিবিরোধী অভিযান চালাতে সক্ষম কিনা ? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, র‌্যাব সবসময় সক্ষম। যে কোনো সময় যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সক্ষম। ভবিষ্যতেও সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

অন্যান্য কমান্ডো বাহিনীর সঙ্গে র‌্যাবের স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপের পার্থক্য প্রসঙ্গে র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, কোনো ক্যাপাসিটি কোনো ক্যাপাসিটির বিকল্প নয়। বাহিনী গুলোর উদ্দেশ্য হচ্ছে সক্ষমতা বাড়ানো। বাহিনী গুলোর সক্ষমতা যত বাড়বে দেশ তত নিরাপদ হবে।

র‌্যাবের পাশাপাশি অন্যান্য বাহিনীও তাদের সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করছে। প্রত্যেক বাহিনী সর্বোচ্চ দিয়ে দেশসেবার চেষ্টা করে যাচ্ছে। এখানে সংশয়ের কোনো সুযোগ নেই। কোনো বাহিনীর মধ্যে সঙ্গে অপরটির প্রতিযোগিতামূলক মনোভাব সৃষ্টির দরকার নেই।

সাত দিনের রিমান্ড শেষে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিস্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে ১০ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছে আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম দিদারুল আলম অস্ত্র আইনে দায়ের করা মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়া মাদক আইনে দায়ের করা আরেক মামলায় তাকে আরও পাঁচ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়া হয়।

দুই মামলায় র‌্যাব খালেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে।

এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর পৃথক দুই মামলায় খালেদকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয় পৃথক আদালত।

ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে অবৈধভাবে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর গুলশান থেকে ক্লাবের সভাপতি খালেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তার কাছ থেকে তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র এর মধ্যে একটি অবৈধ, গুলি এবং ইয়াবা জব্দ করা হয়।

ক্যাসিনো থেকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ১৪২ জনকে আটক এবং ২৪ লাখ নগদ টাকা, বিদেশি মদ, ক্যাসিনো বোর্ড জব্দ করার পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের দুদিন পর গত ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে খালেদকে বহিষ্কার করা হয়।

র‍্যাব সদস্যদের মাঝে লোকমান হোসেন ভূঁইয়া

এদিকে, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের  ভারপ্রাপ্ত পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে দুই দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার তেজগাঁও থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। পরে  ঢাকার মহানগর হাকিম সারাফুজ্জামান আনসারীর আদালতে লোকমানকে হাজির করে এবং তদন্তের স্বার্থে তার পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ।

বিসিবি লোকমানকে ছাড় দেবে না: পাপন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, লোকমান তাঁর বন্ধু হলেও কোনোদিন জানাননি যে মোহামেডান ক্লাবে ক্যাসিনো আছে। বিসিবি প্রধান স্পষ্ট জানিয়ে দেন, লোকমানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে বিসিবি তাঁকে একচুল পরিমাণও ছাড় দেবে না।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মণিপুরিপাড়ার বাসা থেকে লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব সদস্যরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার বাসা থেকে আরও তিনজনকে আটক করে।

গত ২২ সেপ্টেম্বর মতিঝিলের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব থেকে ক্যাসিনো বোর্ড, কার্ড, জুয়ার বোর্ড এবং মদ উদ্ধারের পর লোকমানের বাসায় এ অভিযান চালানো হয়।পার্সটুডে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ যাদুকাটা নদীর পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষা,অবৈধ বোমা মেশিন, ও নদীর পাড় কাটা বন্ধ এবং শ্রমিকদের বৈধ অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ঘাগটিয়া গ্রামে শুক্রবার বিকালে যাদুকাটা নদীর তীরে একটি সংস্থার উদ্যোগে নদী সংহতি সমাবেশ অনুষ্টিত হয়।

অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ -১ আসনের সংসদ সদস্য,ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণা সিন্দু চৌধুরী বাবুল,ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনতাসির হাসান,ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাহিরপুর থানা মোঃ আতিকুর রহমান,উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি হাজী আলকাছ উদ্দিন খন্দকার,জেলা আ,লীগের সদস্য ও বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন,তাহিরপুর উপজেলা আ,লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি করসহ তাহিরপুর উপজেলা ও বাদাঘাট ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ এবং এলাকাবাসী।

এসময় বক্ত্যগন,যাদুকাটা নদীর পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সেই সাথে যাদুকাটার পরিবেশ রক্ষা করতে সকলকে সাথে নিয়ে সামাজিক ঐক্য গড়ে তুলতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়।

প্রধান অতিথি হিসাবে সুনামগঞ্জ -১ আসনের সংসদ সদস্য,ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি বলেন,নদী না বাঁচলে আমরা স্বচ্ছন্দে বাচতে পারবনা। আসূন সকলে মিলে নদীর পাড় কাঁটা থেকে বিরত থাকি পরিবেশ রক্ষা করি।

তিনি আরও বলেন,যারা নদীর পাড় কাটে তারা যতই শক্তি শালী হউক না কেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা বনগাঁও কোনবাড়ী নামক স্থান থেকে খোয়াই নদী দিয়ে ভেসে আসা প্রায় ২৪লক্ষ টাকার ভারতীয় অবৈধ চা-পাতা ও টায়ার উদ্ধার করেছে বিজিবি। আশপাশের লোকজন মারফতে জানা যায়, ২৭সেপ্টেম্বর ভোররাতে ওই উল্লেখিত স্থানে নিজের বৃক্ষ বাগান পরিদর্শনে যান প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আঃ লতিফ। এ সময় তিনি কয়েকজন অপরিচিত লোকজনকে মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরাফেরা করতে দেখেন। নদীর পাড়ে গিয়ে তিনি পলিথিনে মোড়ানো কি সব আসছে দেখেন। এবং টায়ার দেখে তিনি নিশ্চিত হন এ গুলো ভারতীয় চোরাই পণ্য। তখন তিনি আশপাশের লোকজন ডাকেন এবং ব্যাপারটি থানা সহ কয়েকটি আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীকে অবগত করেন। ততক্ষণে সেখানে বিজিবি পৌঁছে যায়।
বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল এম জাহিদুর রশিদ পিএসসি জানান, ২৭ সেপ্টেম্বর ভোর ছয়টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই স্থানে অভিযান চালায় বিজিবি ৫৫ ব্যাটালিয়ন বাল্লা কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার আলহাজ্ব হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে একদল বিজিবি।

এ সময় আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় খোয়াই নদীতে ভেসে আসা চোরাই চা-পাতা ও টায়ার গুলো উদ্ধার করেন বিজিবি। উদ্ধারকৃত ১৫৮ বস্তায় থাকা ৫২৩০ কেজি চা-পাতার সীজার মূল্য প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা ও ৪৯ টি টায়ারের মূল্য ৮ লক্ষ টাকা। তিনি এ উদ্ধার  কাজে বিজিবিকে সহযোগিতা করার জন্য জনতাকে ধন্যবাদ জানান।

এদিকে উদ্ধার কালে চুনারুঘাট থানার এসআই মোসলিম উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশও ঘটনা স্থলে উপস্থিত ছিলেন বলে জানা যায়।  এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আটককৃত মালামালের আইনি প্রক্রিয়া চলছিল।

আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে থানা পুলিশের অভিযানে ৫লিটার চোলাইমদসহ বিপ্লব হোসেন (৪২) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত বিপ্লব উপজেলার সাহেবগঞ্জ সরদার পাড়া গ্রামের খোদাবক্স প্রামানিকের ছেলে।

শুক্রবার সকালে তাকে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার সাহেবগঞ্জ দক্ষিণপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫লিটার চোলাইমদসহ তাকে আটক করা হয়েছে। এবং তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়োন্ত্রণ আইনে থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে তাকে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

৭ দিনের রিমান্ড শেষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিস্কৃত যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে ১০ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছে আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম দিদারুল আলম অস্ত্র আইনে দায়ের করা মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়া মাদক আইনে দায়ের করা আরেক মামলায় তাকে আরও পাঁচ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়া হয়।

দুই মামলায় র‌্যাব খালেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে।

এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর পৃথক দুই মামলায় খালেদকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয় পৃথক আদালত।

ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে অবৈধভাবে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর গুলশান থেকে ক্লাবের সভাপতি খালেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তার কাছ থেকে তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র এর মধ্যে একটি অবৈধ, গুলি এবং ইয়াবা জব্দ করা হয়।

ক্যাসিনো থেকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ১৪২ জনকে আটক এবং ২৪ লাখ নগদ টাকা, বিদেশি মদ, ক্যাসিনো বোর্ড জব্দ করার পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের দুদিন পর গত ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে খালেদকে বহিষ্কার করা হয়।

র‍্যাব সদস্যদের মাঝে লোকমান হোসেন ভূঁইয়া
এদিকে, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে দুই দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার তেজগাঁও থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। আজ ঢাকার মহানগর হাকিম সারাফুজ্জামান আনসারীর আদালতে লোকমানকে হাজির করে এবং তদন্তের স্বার্থে তার পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ।

বিসিবি লোকমানকে ছাড় দেবে না: পাপন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, লোকমান তাঁর বন্ধু হলেও কোনোদিন জানাননি যে মোহামেডান ক্লাবে ক্যাসিনো আছে। বিসিবি প্রধান স্পষ্ট জানিয়ে দেন, লোকমানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে বিসিবি তাঁকে একচুল পরিমাণও ছাড় দেবে না।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মণিপুরিপাড়ার বাসা থেকে লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব সদস্যরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার বাসা থেকে আরও তিনজনকে আটক করে।

গত ২২ সেপ্টেম্বর মতিঝিলের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব থেকে ক্যাসিনো বোর্ড, কার্ড, জুয়ার বোর্ড এবং মদ উদ্ধারের পর লোকমানের বাসায় এ অভিযান চালানো হয়।

প্রায় এক বছর পর সৌদি প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমান জামাল খাশোগি’র নির্মম হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করলেন। সম্প্রতি মার্কিন টিভি চ্যানেল পিবিএসকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বিন সালমান বলেছেন, যেহেতু ঘটনাটি তার সময়কালে সংঘটিত হয়েছে তাই ওই হত্যাকাণ্ডের সম্পূর্ণ দায়দায়িত্ব তার।

তবে একইসঙ্গে বিন সালমান জোর দিয়ে বলেছেন যে তিনি ওই দুঘর্টনা সম্পর্কে একবারেই জানতেন না। সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বি সাংবাদিক,ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট জামাল খাশোগি ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর প্রশাসনিক কাজে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন। কিন্তু ওই ভবন থেকে আর প্রাণ নিয়ে বেরিয়ে আসতে পারেন নি। সৌদি নিরাপত্তা বাহিনী একটি বিশেষ বিমানে ইস্তাম্বুলে গিয়ে জামাল খাশোগিকে হত্যা করার পর তার মৃতদেহ টুকরো টুকরো করে ফেলে।পার্সটুডে

এই হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে সৌদি সরকার এ পর্যন্ত চারটি কৌশল অবলম্বন করেছে। প্রথম কৌশলটি ছিল এই ঘটনার সাথে যে-কোনো প্রকার সম্পৃক্তি “অস্বীকার” করা।

দ্বিতীয় কৌশলটি ছিল, হত্যাকাণ্ডটি সৌদি নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ঘটালেও এই অপরাধের সঙ্গে বিন সালমানসহ সৌদি কর্মকর্তাদের কোনো হাত ছিল না। আলে-সৌদের ওপর ব্যাপক আন্তর্জাতিক চাপের পরিপ্রেক্ষিতিই কৌশলটি গৃহীত হয়েছিল।

তৃতীয় কৌশলটি ছিল একটা ক্যাঙ্গারু আদালত গঠন করে খুনিদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দেওয়া।

চতুর্থ কৌশলটি স্বয়ং বিন সালমান গ্রহণ করেছেন। তিনি এই প্রথমবারের মতো খাশোগি হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন। এখন প্রশ্ন হল গত এক বছর ধরে যেই বিন সালমান খাশোগি হত্যাকাণ্ডের দায়িত্ব কোনোভাবেই গ্রহণ করেন নি তিনি এখন কেন তা মেনে নিলেন?

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এখন আর ধামাচাপা দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কেননা খাশোগি হত্যার যেসব তথ্যপ্রমাণ প্রকাশিত হয়ে পড়েছে সৌদি আরবের পক্ষে সেগুলো অস্বীকার করার কোনো পথ খোলা নেই। এখানে আসলে নতুন কিছু ঘটে নি। বিন-সালমানসহ সৌদি কর্তৃপক্ষ এর আগেও এই হত্যাকাণ্ডে সৌদি সরকারি কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে, এখনও করছে। তারপরও আনুষ্ঠানিকভাবে এর দায় মেনে নেয়ার একটা সুদূরপ্রসারী উদ্দেশ্য আছে। সেটা হলো, সৌদি আরবের বাদশাহ হতে যাচ্ছেন বিন সালমান। তাই কিছু আর্থিক খেসারত দিয়ে হলেও নিজেকে সৎ ও দায়িত্বশীল হিসেবে প্রমাণ করে তাঁর চেহারাটাকে পূত-পবিত্র ও ভারসাম্যপূর্ণ হিসেবে তুলে ধরতে চান।

আরও একটি কারণ হতে পারে ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান এই বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন যে সৌদি আরবেও অন্যান্য দেশের মতো এমন সব ঘটনা ঘটতে পারে যেসব ব্যাপারে সৌদি কর্মকর্তারা অবহিত নাও থাকতে পারেন।

এক বছর পর এই দায় স্বীকার করার অপর উদ্দেশ্য হলো নিজেকে এবং সৌদি শাসকদেরকে খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নির্দোষ হিসেবে তুলে ধরা। প্রকৃতপক্ষে বিন সালমান এভাবে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারবেন কিনা সন্দেহ রয়েছে। কারণ জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিবেদক আনিস কালামার কয়েক দিন আগেও বলেছেন, বিন সালমানসহ সৌদি সরকারের উর্ধতন কর্মকর্তারা যে জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিল তার অকাট্য তথ্য-প্রমাণ তার হাতে রয়েছে।

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে পূর্ণিমা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে উপজেলার মাড়িয়াপূর্বপাড়া মাঠে আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে আত্রাই পূর্ণিমা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক এস এম হাসান সেন্টু সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপস্থিত ছিলেন আত্রাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেম উদ্দিন।

এসময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আত্রাই প্রেসক্লাবের সভাপতি মো: রুহুল আমীন, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন সেন্টু, মনিয়ারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক আব্দুস ছাত্তার, বিশা ইউনিয়ন ইউপি যুবলীগ নেতা কামরুজ্জামান শিপন, ইউপি সদস্য মো: জাহাঙ্গীর আলম,অজিত কুমার, আব্দুর রাজ্জাক প্রমূখ।

খেলায় আত্রাইয়ে দীঘা ও রানীনগরের রাতোয়াল থেকে আগত ২টি দল অংশগ্রহণ করেন। লাঠি খেলাটি দেখতে কয়েক গ্রামের শত শত দর্শকের সমাগম ঘটে। খেলা শেষে পূর্ণিমার পরিচালক এসএম হাসান সেন্টু‘র লেখা বইয়ের মোড়ক উন্মচন ও বিজয়ী খেলোয়ারদের মাঝে প্রধান অতিথি পুরস্কার বিতরণ করেন।

এম ওসমান,বেনাপোলঃ  যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে ৪ লাখ ৫০ হাজার হুন্ডির টাকাসহ আব্দুল মালেক (৩০) নামে এক হুন্ডি পাচারকারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।
বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে বেনাপোল পোর্ট থানাধীন পুটখালী সীমান্ত থেকে তাকে আটক করা হয়।
আটক আব্দুল মালেক বেনাপোল পুটখালী  উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে।
খুলনা-২১ বিজিবি ব্যাটেলিয়ানের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, গোপন সংবাদে জানতে পেরে পুটখালী বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা মসজিদ বাড়ি পোষ্ট হতে ৪ লাখ ৫০ হাজার বাংলাদেশি  হুন্ডির টাকাসহ আব্দুল মালেককে আটক করা হয় ।
আটককৃতের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশে^র দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী ঘোষনা করায় নড়াইলে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আয়োজনে কলেজ ক্যাম্পাস থেকে একটি আনন্দ মিছিল বের করা হয়।মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়।
নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন ববির সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইম ভুইয়া, সাধারণ সম্পাদক সিদ্ধার্থ সিংহ পল্টু, নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জোবায়ের হোসেন মানিক প্রমূখ।  এসময় সদর উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc