Monday 19th of August 2019 11:54:18 AM

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

“ঈদে যারা ঘরে ফিরবেন, সবাই যেন সতর্ক, সচেতন থাকেন। যাদের মাথাব্যথা করবে, বমি বমি ভাব হবে, খাওয়ার ইচ্ছে থাকবে না, শরীরে জ্বর জ্বর ভাব থাকবে, তারা রক্ত পরীক্ষা করে এলাকায় বা ঘরের দিকে, গৃহযাত্রা করবেন- এটা আপনাদের সকলের কাছে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার আহ্বান”

আসন্ন ঈদ-উল আজহা উপলক্ষে যারা ঢাকা ছাড়ছেন, তাদেরকে রক্ত পরীক্ষা করে ডেঙ্গু রোগ আছে কিনা তা নিশ্চিত হয়ে গ্রামের বাড়িতে যাবার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

টানা ২০ দিনের সফর শেষে আজ (বৃহস্পতিবার) যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরেই প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেছেন বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে ধানমণ্ডিতে এক অনুষ্ঠানে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, “ঈদে যারা ঘরে ফিরবেন, সবাই যেন সতর্ক, সচেতন থাকেন। যাদের মাথাব্যথা করবে, বমি বমি ভাব হবে, খাওয়ার ইচ্ছে থাকবে না, শরীরে জ্বর জ্বর ভাব থাকবে, তারা রক্ত পরীক্ষা করে এলাকায় বা ঘরের দিকে, গৃহযাত্রা করবেন- এটা আপনাদের সকলের কাছে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার আহ্বান।

তিনি বলেন, “আজ গণভবেন বিদেশ থেকে নেমেই যে কথা গুলো বলেছেন, সেগুলোই আমি আপনাদের সামনে বললাম। আমি আশা করি সবাই নিজেদের রক্ষা করব, নিজেদের রক্ষা করার জন্য যা যা করা দরকার করব।”

ওবায়দুল কাদের

সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গভবনে এসে প্রথমেই ডেঙ্গুর কি অবস্থা তার খোঁজ নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আর কোন কাজ নয় এখন একটাই কাজ সেটি হচ্ছে ডেঙ্গুকে প্রতিরোধ জরতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মতো সবাইকে পরিচ্ছন্ন ও ডেঙ্গুমুক্ত বাংলাদেশ করতে সমন্বিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের এ সময় বিএনপির প্রসঙ্গ টেনে বলেন, শুধু সমালোচনা করে দায়িত্ব পালন হয় না। ডেঙ্গু ও এডিস মশা রোধে বিএনপির কোন কার্যকর ভূমিকা নেই। বিরোধী দল হিসেবে তাদেরও ভূমিকা থাকা দরকার।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, “আমি আপনাদের বলব সব সময় রাজনীতি করা ঠিক নয়। আসুন আমরা রাজনীতি না করে সমন্বিতভাবে মানুষের জন্য কাজ করি।“

রুহুল কবির রিজভী

মশার ঘুমের ওষুধ এনেছে সিটি করপোরেশন: রিজভী

ওদিকে, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ডেঙ্গু নিধনে সিটি করপোরেশন ‘মশার ঘুমের ওষুধ’ এনেছে।

আজ (বৃহস্পতিবার) বেইলি রোডে ডেঙ্গু প্রতিরোধে গণসচেতনতা সৃষ্টি লিফলেট বিতরণকালে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এই অভিযোগ করে সিটি করপোরেশন সম্পর্কে অনেক ধরনের কথা বলেছে, তামাশামূলক কথাবার্তা বলেছে। কারণ তাদের হাতে মশা মারার দরকারী ওষুধগুলো ছিল না। তারা কোটি কোটি টাকা দিয়ে যে ওষুধ নিয়ে এসেছে সেটা হচ্ছে- মশার ঘুমের ওষুধ। মশা কিছুক্ষণ ঘুমিয়ে শান্তির মধ্যে থাকবে সেই ওষুধ। প্রকৃতপক্ষে মশা নির্মূল হবে, নিধন হবে সেই ওষুধ নেয়নি।

আজ সকাল ১১টায় জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা-জাসাস নেতৃবৃন্দকে নিয়ে বেইলি রোডে ফুটপাতের দুই পাশের বিপণী বিতান ও সিদ্ধেশ্বরী গার্লস স্কুলের সামনে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের কাছে ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ের ওপর দলের লিফলেট বিতরণ করেন রিজভী।

এ সময় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব প্রশ্ন করেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলছেন যে, ডেঙ্গুর জন্য যথেষ্ট ব্যবস্থা নিয়েছেন। কী ব্যবস্থা নিয়েছেন? আপনার সিটি করপোরেশন কী ব্যবস্থা নিয়েছে?

ডেঙ্গুর মহামারীতে সরকার একেবারে উদাসীন উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ‘গণবিরোধী সরকার এই ধরনের চরিত্র ধারণ করতে পারে। সরকার ডেঙ্গু প্রতিরোধে সমন্বিত উদ্যোগ নেয়নি, বরং এখনো মানুষের জীবন-মৃত্যু নিয়ে খেলা করছে।’

ডেঙ্গু নিয়ে গণমাধ্যম আতঙ্ক ছড়াচ্ছে সরকার প্রধানের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘যারা ব্যর্থ হয় তাদের মিথ্যার আশ্রয় নিতে হয়, যারা জনকল্যাণের মধ্যে থাকে না তাদের অসত্যের ওপর, মিথ্যার ওপর, বিভ্রান্তির ওপর নির্ভর করতে হয়। কারণ নিজেরাই হচ্ছে ভোটারবিহীন একটি সরকার। এই কারণে তারা মিডিয়ার বিরুদ্ধে বলছে।’ পার্সটুডে

নড়াইল প্রতিনিধিঃ “ বিলের কথা চিন্তা না করে আগে হাসপাতালের মেশিন গুলি ঠিক করার ব্যাবস্থা করুন ” নড়াইলে সদর হাসপাতাল পরিদর্শন কালে সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা। আজ বৃহস্পতিবার সদর হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে সদর হাসপাতাল ব্যাবস্থাপনা কমিটির আয়োজনে “সদর হাসপাতাল ব্যাবস্থাপনা কমিটির” সভায় যোগদানের আগে হাসপাতাল পরিদর্শন কালে এ কথা বলেন সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা । সভায় সভাপতিত্ব করেন নড়াইল-২ এর সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন
জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, পুলিশ সুপার মোহম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডাঃ আসাদ উজ জামান মুন্সি, সদর হাসপাতালের তত্ত্বাধায়ক ডাঃ মোঃ শাকুর, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু,পৌর মেয়র মোঃ জাহাঙ্গির হোসেন বিশ্বাস, সদর আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডাঃ মশিউর রহমান বাবুসহ সংশ্লিস্ট কমিটির কর্মকর্তা,সদর হাসপাতালের কর্মকর্তাগন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সংসদ সদস্য সদর হাসপাতাল পরিদর্শন কালে ভেঙ্গু ও অন্যান্য রোগীদের খোজ খবর নেন এ সময় তিনি অতি জরুরি ভাবে শিশু ওয়ার্ডসহ হাসপাতালের বিকল যন্ত্রপাতি ,সচল করার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। তিনি বলেন বিলের কথা চিন্তা করতে হবে না .তার কথা পরে ভাবা যাবে, মেশিন গুলি আগে ঠিক করতে হবে জীবন বাঁচানো আগে । ভেঙ্গু রোগ সম্পর্কে বলেন, বাংলাদেশে ভেঙ্গু নিয়ে ক্রাইসিস চলছে, এর প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।
সভায় হাসপাতালের উন্নয়নের জন্য কি কি করণীয় এবং হাসপাতালের পরিস্কার পরিছন্নতা কর্মিসহ জনবল নিয়োগের বিষয়সহ হাসপাতালের বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

এম ওসমান : সারাদেশে ডেঙ্গুর বিস্তার ঘটলেও যশোরের শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু শনাক্তের বা পরীক্ষা করার কোন ব্যবস্থা নাই।
বৃহস্পতিবার সকালে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ৭/৮ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রন্ত হয়ে এসেছেন। তিন জন যশোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। বাকিদের অন্য হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
যারা ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হলেন, উপজেলার কাজীর গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান উৎস (২০), পাকশিয়া গ্রামের রায়হান (২৬) ও সেতাই গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৩১)। বাকীরা জেলা শহরের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
শার্শা উপজেলা ৫০ বিশিষ্ট হাসপাতালের একমাত্র প্যাথলজিস্ট কবির হোসেন জানান, এ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের পরিক্ষা করার কোন মেডিসিন নাই।
এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অশোক কুমার সাহা বলেন, ডেঙ্গু জ্বর পরীক্ষার কোন কিট হাসপাতালে না থাকায় পরীক্ষা করতে পারছিনা । আমারা চাহিদা চেয়ে পাঠিয়েছি ঈদের আগেই পাবো বলে আশা করছি । ডেঙ্গু জ্বরে আক্রন্তদের জন্য আলাদা ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করছি।

কাশ্মির মুসলমানের উপর নির্যাতন-হত্যার প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে ইসলামী ফ্রন্টের নেতারা বলেন- সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে মুসলিম নিধনের চূড়ান্ত পদক্ষেপ নিল ভারত সরকার। কাশ্মিরে নির্যাতন-হত্যা, লুটপাট নতুন নয় এটা ভারতীয় লুটেরাদের ধারাবাহিক কর্মের চূড়ান্ত পদক্ষেপ। বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ঢাকা মহানগর কর্তৃক আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ আবদুল হাকিমের সঞ্চালনায় সভাপতি অধ্যক্ষ আল্লামা আবু জাফর মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে অদ্য ৮ আগস্ট ২০১৯ বেলা ১২:০০ ঘটিকায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা আরো বলেন-ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা ও ৩৫(ক) ধারা তুলে দেয়ায় কাশ্মীর অঞ্চলের মুসলমানদের নিরাপত্তা বিপন্ন ও নাগরিক অধিকার চিরস্থায়ীভাবে ভুলুণ্ঠিত হয়ে যাবে। বৃহত্তম গণতন্ত্রের দেশ ভারত, সংবিধানে সংশোধন একান্তই তাদের আভ্যন্তরীণ বিষয়।

কিন্তু যখন সংবিধান সংশোধনের সাথে মানবতা, গণতান্ত্রিক রীতিনীতি, ধর্মীয় জাতি ও একটি উপমহাদেশের নিরাপত্তা জড়িয়ে যায় তখন বিষয়টি কোন ভাবেই আর আভ্যন্তরীণ বিষয় থাকে না। ভারতীয় সংবিধান সংশোধনের কারণে বিশ্ব-মোড়লদের দক্ষিণ এশিয়ায় রাজনীতি করার ক্ষেত্র অবমুক্ত করবে যা অদূর ভবিষ্যতে গোটা উপমহাদেশকে অশান্ত ও অস্থিতিশীল করে তুলবে এতে কোন সন্দেহ নেই। শুধুমাত্র একটি অঞ্চলের একটি ধর্মীয় গোষ্ঠী কাশ্মীরী মুসলমানদের উপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার জন্য সংবিধান পরিবর্তন করে ভারতীয় গণতন্ত্রকে গলা টিপে হত্যা করল।

ইসরাইলী সহযোগিতায় সংবিধানের এই পরিবর্তনের মাধ্যমে মুসলমানকে নিশ্চিহৃ করার মিশন শুরু করেছে ভারত এতে মদদ দিচ্ছে বিশ্ব জঙ্গি সংগঠন মোসাদ। কাশ্মিরে যে সব সৈনিক কাজ করছে তারা ই¯্রাইল কর্তৃক অস্ত্র প্রদত্ত এবং প্রশিক্ষিত। ইসলামের চিরশত্রু ইহুদীরা দ্বিগুন উৎসাহিত হয়ে মনস্তাত্বিক চেতনায় মুসলমানদেরকে হত্যা করতে দ্বিধাবোধ করে না যা অতীতের ইতিহাসে প্রমাণিত। প্রধান অতিথি বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সচিব আ ন ম মাসউদ হুসাইন আলকাদেরীসহ বক্তব্য রাখেন-আহমদুর রহমান, মুহাম্মদ ইমরান হুসাইন তুষার, মুহাম্মদ মাসউদ হোসাইন, কাজী মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন নুরী, মুহাম্মদ কবির হোসেন, মুহাম্মদ আল-মিরাজ, হাফেজ মুহাম্মদ জাহিদুর রহমান, আবু ইউসুফ, মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, আমান উল্লাহ্ প্রমুখ।

নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: আসন্ন পবিত্র ঈদুল আয্হা উপলক্ষে নওগাঁর আত্রাইয়ে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবার ও কোন রকম ক্ষতিকর রাসায়নিক প্রক্রিয়া ছাড়াই পারিবারিক ভাবে ছোট-বড় ও মাঝারি খামারে প্রায় ১৭ হাজার পশু কোরবানি বাজারের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। আর এসব কোরবানির পশুর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন স্থাণীয় প্রাণিসম্পদ দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

চলতি বছর আত্রাইয়ের খামারীরা কোরবানির পশু প্রস্তুতে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছেন। এখাকার দেশী জাতের ষাঁড় অন্য এলাকার চাহিদা মেটাতে সরবরাহ করা হবে বলে খামারীরা জানিয়েছেন।

আত্রাই উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় পারিবারিক পর্যায় ও ছোট-বড় খামারে কোরবানির মৌসুমে পুষ্টিকর প্রাকৃতিক খাবারের মাধ্যমে গরু মোটাতাজা করণ করা হয়। বিশেষ করে দেশী জাতের ষাঁড় গরুর প্রতি বিশেষ নজর দেয়া হয়। এছাড়াও গাভী (ফুল বকনা), বলদ, মহিষের চাহিদা মোতাবেক পালন করা হয়। একই সাথে রয়েছে পারিবারিক ও ব্যক্তি পর্যায়ে গরু, ছাগল ও ভেড়া পালন। কোন প্রকার ক্ষতিকারক রাসায়নিক প্রক্রিয়া ছাড়াই সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবারের মাধ্যমে আত্রাইয়ের প্রায় ২’ শ ৯০ জন পারিবারিক ভাবে ছোট-বড় ও মাঝারি খামারে প্রায় ১৭ হাজার পশু কোরবানি বাজারের জন্য প্রস্তুত করেছেন। তবে গ্রামীণ জনপদের বিভিন্ন বাড়িতে উপরোক্ত পশুর যে সংখ্যা তার চেয়ে আরো বেশকিছু দেশী জাতের ষাঁড় রয়েছে যা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে পার্শ্ববর্তী এলাকার চাহিদাও মেটাবে।

খামার মালিকরা জানান, তাদের খামারে কোন প্রকার রাসায়নিক প্রক্রিয়া ছাড়াই প্রাকৃতিক খাবারের মাধ্যমে কোরবানি বাজারে বিক্রিযোগ্য সকল ধরনের গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া পালনে স্থাণীয় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা: মো:রুবাইত রেজা বলেন, খামারিদের রাসায়নিক স্ট্রেরয়েড প্রয়োগ ব্যতীত স্বাস্থ্যসম্মত সুস্থ্য সবল গরু, মহিষ, ছাগল ও ভেড়া পালনে প্রয়োজনীয় সকল ধরণের স্বাস্থ্যসেবা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া খামারিদের নিয়ে প্রতি মাসে সচেতনতা সভা করা হয় উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরে। আবার কোরবানির হাটে যেন অস্বাস্থ্যকর গরু বেচাকেনা না করতে পারে সেজন্য এখন থেকেই প্রতিহাট আমাদের নজরদারিতে রাখা হচ্ছে। বর্তমানে কোরবানির হাট মনিটরিং এবং প্রাণি স্বাস্থ্যসেবা মনিটরিং কমিটি করা হচ্ছে। এছাড়া কৃত্তিম প্রজনন টেকনিশিয়ানসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী কোরবানির ঈদ পর্যন্ত সার্বক্ষণিক ভাবে প্রাণির স্বাস্থ্যসেবায় নিরলস ভাবে দায়িত্ব পালন করে যাবে এবং এখাকার দেশী জাতের ষাঁড় অন্য এলাকার চাহিদাও মেটাবে।

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ  আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শ্রীমঙ্গল থানার উদ্যোগে চুরি,ডাকাতি,গুজব ঠেকাতে এবং সেই সাথে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে শহরে মোটর সাইকেল র‌্যালি করেছে  শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। বুধবার বিকেলে শ্রীমঙ্গল থানা থেকে একটি সুসজ্জিত র‌্যালি বের হয়ে সারা শহর প্রদক্ষিণ করে।

বুধবার (৭ আগস্ট) বিকালে সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) আশরাফুজ্জামান আশিক ও শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো. আব্দুস ছালিক দুলালের নেতৃত্বে মোটরসাইকেল মহড়া বের করে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। পুলিশের এই টিম সব সময় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে যদি কোথাও কোনো সমস্যা দেখা দেয় তারা তাৎক্ষণিক এভাবেই ব্যবস্থা নিবে।

জানা গেছে আইন শৃঙ্খলা ঠিক রাখার স্বার্থে প্রতিদিন শ্রীমঙ্গল উপজেলার সকল এলাকায় পুলিশ টহল দিবে এই টহল কার্যক্রম পবিত্র ঈদুল আযহা ও ১৫ আগস্ট পর্যন্ত নিয়মিত চলবে।

শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুস ছালিক দুলাল আমার সিলেটকে বলেন, “প্রত্যেক ঈদের সময়ে পশুর হাটসহ  ব্যাংক এলাকায় অসাধু জাল টাকার ব্যবসায়ী চক্র ও বিভিন্ন অপরাধিরা সক্রিয় থাকে। অপরদিকে বর্তমানে গুজব দিয়ে সমাজে একটি মহল অশান্তি সৃষ্টি করছে এদের দমন এবং এ সময় শহরে যানজটও লেগে থাকে তা থেকে মুক্ত থাকার সার্বিক চেষ্টা করা হবে।তা ছাড়া আসন্ন জাতিয় শোক দিবস ১৫ আগস্টকে সামনে রেখে যে কোন কুচক্রি মহল থেকে  জনগণকে হেফাজত করতেই আমাদের এই উদ্যোগ।”

জম্মু-কাশ্মিরে তীব্র উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে একশ’র বেশি রাজনৈতিক নেতা-কর্মী গ্রেফতার হয়েছেন। একইসঙ্গে সেখানকার দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আব্দুল্লাহ বর্তমানে গ্রেফতার হয়ে বন্দি অবস্থায় রয়েছেন।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু-কাশ্মিরের জন্য বিশেষ মর্যাদা সম্বলিত ৩৭০ ধারা বাতিল করা এবং রাজ্যটিকে কেন্দ্রীয় সরকার শাসিত দুটি অঞ্চলে বিভক্ত করার পর থেকে সেখানে চাপা উত্তেজনা রয়েছে।খবর পার্সটুডে

কাশ্মির উপত্যাকায় যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থবির হওয়ার পাশাপাশি নিরাপত্তা এজেন্সি রাজনৈতিক নেতা-কর্মীসহ একশ’র বেশি মানুষকে শান্তির জন্য হুমকি হিসেবে উদ্ধৃত করে গ্রেফতার করেছে।

নবভারত টাইমস জানিয়েছে, আজ (বুধবার) রাজ্য সরকারের এক সিনিয়র কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন যে, এখনো পর্যন্ত শতাধিক রাজনৈতিক নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার হয়েছেন।

তিনি বলেন, জম্মু-কাশ্মির পিপলস কনফারেন্সের নেতা সাজ্জাদ লোন ও ইমরান আনসারিকেও গ্রেফতার করা  হয়েছে। কাশ্মির উপত্যকায় তাদের কার্যক্রম থেকে শান্তি ও সম্প্রীতি বিঘ্নিত হওয়ার ভয়ে ম্যাজিস্ট্রেট তাদেরকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছিলেন।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর থেকে কাশ্মির উপত্যকায় উত্তেজনার পরিবেশ রয়েছে। দক্ষিণ কাশ্মিরের সমস্ত জেলায় কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করাসহ ইন্টারনেট ও রেল পরিষেবা এখনও বন্ধ রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রে, নিরাপত্তা এজেন্সির কর্মকর্তারা পরিস্থিতির উপরে একনাগাড়ে নজর রাখছেন।

আজ (বুধবার) এক ভিডিও ক্লিপে শ্রীনগরে রাজ্য সচিবালয় ভবনের মাথায় ভারতের জাতীয় পতাকা ও জম্মু-কাশ্মিরের পতাকা উড়তে দেখা যায়। যদিও খুব শিগগিরি সেখান থেকে জম্মু-কাশ্মিরের পতাকা সরিয়ে দিয়ে সেখানে ভারতের কেবল জাতীয় পতাকাকেই রাখা হবে বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন।

গতকাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় লোকসভায় জম্মু-কাশ্মির পুনর্গঠন সংক্রান্ত বিল পাস হওয়ার পরে জম্মু-কাশ্মির বিধানসভার (সাবেক) স্পিকার নির্মল সিং তার সরকারি গাড়ি থেকে রাজ্যের পতাকা খুলে ফেলেন। তিনি এখন বিজেপি কর্মকর্তা সেজন্য জম্মু-কাশ্মির পুনর্গঠন বিল পাস হতেই রাজ্যের পতাকা খুলে ফেলেছেন বলে সাফাই দিয়েছেন। রাজ্যটি কেন্দ্রীয় সরকারশাসিত প্রদেশে পরিণত হওয়ায় বর্তমান স্পিকার পদ বিলুপ্ত হবে। তিনি এখন থেকে সরকারি গাড়ি ব্যবহার করবেন না বলেও মন্তব্য করেছেন।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মির ইস্যু নিয়ে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমানের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। গত সোমবার ভারতের বিজেপি সরকার জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নিয়েছে এবং রাজ্যটিকে দুই ভাগে বিভক্ত করে ভারতের সঙ্গে একীভূত করার ঘোষণা দিয়েছে।

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, গতকাল (মঙ্গলবার) দু নেতা কথা বলেন। ফোনালাপে তারা কাশ্মির পরিস্থিতি এবং এ ঘটনায় কী ধরনের প্রচেষ্টা চলছে তা নিয়ে আলোচনা করেন। কাশ্মিরের সর্বশেষ পরিস্থিতিও যুবরাজকে জানান ইমরান খান।

কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর পাকিস্তান কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদার করেছে। পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি ও অন্য শীর্ষ পর্যায়ের কূটনীতিকদের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজেই কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করেছেন। ভারতের সিদ্ধান্তের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মাদ এবং তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের সঙ্গে ইমরান খান টেলিফোনে কথা বলেন। মালয়েশিয়া ও তুরস্কের দু নেতাই পাকিস্তানের প্রতি সমর্থন দেয়ার আশ্বাস দেন।

এরদোগান আলোচনায় বসার জন্য ভারত ও পাকিস্তানের প্রতি আহ্বান জানিয়ছেন। তবে তিনি বলেছেন, কাশ্মির ইস্যুতে আংকারা ইসলামাবাদকে দৃঢ় সমর্থন দেয়া অব্যাহত রাখবে।পার্সটুডে

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc