Tuesday 15th of October 2019 07:00:29 AM

এম ওসমান,বেনাপোল: অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এনডিসি বেনাপোল কাস্টমস হাউজ পরিদর্শন করেন। (রবিবার ০৭ই জুলাই) সকাল ৮ টা ১৫ মিনিটের দিকে বাংলাদেশ বিমান যোগে ঢাকা থেকে যশোর এসে পৌঁছান।  সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এনবিআর চেয়ারম্যান বেনাপোল কাস্টম হাউসে পৌঁছালে কাস্টম কমিশনার বেলাল হোসাইন চৌধুরী তাকে লালগালিচা এবং ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
এনবিআর চেয়ারম্যান পরে কাষ্টম কমিশনারের সাথে করে বেনাপোল চেকপোষ্টে যান এবং রুটিন মোতাবেক পাসপোর্ট যাত্রীদের সুবিধার্থে গ্রহন করা “হ্যান্ড ট্রলি” উদ্বোধন করেন। ট্রলি উদ্বোধন এর ব্যাপারে এনবিআর চেয়ারম্যান সেখানকার হ্যান্ডলিং শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের রুটি-রুজি বন্ধের অভিযোগের ওপর গুরুত্ব রেখে শ্রমিকদেরকে আশ্বস্তের কথা জানিয়ে গেলেন। পরে এনবিআর চেয়ারম্যান লিংক রোড পরিদর্শন ও পণ্য আমদানি উন্মুক্ত করণ প্রক্রিয়া ফিতা কেটে কার্যক্রম চালু করেন। এছাড়াও বেনাপোল বন্দরে কাস্টমস হাউজের বসানো পণ্য আমদানি-রপ্তানির পরিমাপক যন্ত্র এবং পরীক্ষণ যন্ত্রের স্থান গুলো ঘুরে দেখেন।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বন্দর ব্যাবহারকারী সকল সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, এবারের বাজেট বিনিয়োগ বান্ধব ও ব্যবসা বান্ধব হয়েছে। দেশে যাতে বিনিয়োগ বেশী হয় সে জন্য শুল্কহার সমন্বয় করা হয়েছে। কোন কোন ক্ষেত্রে বাড়ানো ও কমানো হয়েছে। দেশে বিনিয়োগ হলে মানুষের কর্ম সংস্থানের ব্যবস্থা হবে, দেশ অর্থনৈতিক ভাবে এগিয়ে যাবে।
এসময় তার সাথে ছিলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য এডমিন খন্দরকার আমিনুর রহমান, বেনাপোল বন্দরের পরিচালক প্রদ্যুত কান্তি রায়,  যশোর কাস্টমস এন্ড ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার মো: শত্তকাত হোসেন, বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শামসুর রহমান, সিনিয়র সভাপতি আলহাজ্ব নুরুজ্জামান, মহসিন মিলন, খাইরুজ্জামান মধু, এনামুল হক মুকুল, নাসির উদ্দিনসহ সিএন্ডএফের আরো অনেকে।
আমদানি- রপ্তানির ক্ষেত্রে কাস্টমসের নেয়া পদক্ষেপের ব্যাপারে বন্দর ব্যবহারকারী আমদানি-রপ্তানিকারক ব্যবসায়ীবৃন্দ সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন এর কর্মকর্তাবৃন্দ এবং সর্বোপরি স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে বিকাল ৩.৩০ মিনিটে মতবিনিময় করেন। সিডিউল অনুযায়ী আজই তিনি ঢাকায় ফিরে যাবেন বলে কাষ্টম হাউজের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সাদিক আহমেদ,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  শ্রীমঙ্গলে পুলিশের কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান আশিক ও শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালেক দুলালসহ পুলিশের একটি দল অভিযান পরিচালনা করে আজ সোমবার সন্ধায় দেশীয় অস্রসহ স্টেপ (স্ট্যাব) সাগর ও তার এক সহযোগীকে আটক করেছে।

প্রসঙ্গত গত ২৭ জুন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শ্রীমঙ্গলে কলেজ রোডের রেবতি স্টলের সামনে নাম ধরে ডাকার জের ধরে একাদশ শ্রেণীর এক শিক্ষার্থী ঈমানী হোসেন অন্তর (১৭) কে ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করা মামলায় (মামলা নং-৩০) প্রধান আসামী শ্রীমঙ্গল থানার শ্যামলী আবাসিক এলাকার মৃত নাছিম উদ্দীনের পুত্র আশিকুর রহমান সাগর ওরফে স্টেপ (স্ট্যাব) সাগর (১৮) এবং তার সহযোগী ক্যাথলিক মিশন রোডস্থ এলাকার বিষ্ণু দেবের পুত্র দ্বীপ সাগর দেবকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ও তথ্যপ্রযুক্তির সাহায্যে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানার তেলিয়াপাড়ায় স্টেপ সাগরের এক আত্নীয়ের বাসা থেকে তাদের আটক করা হয়।

পরবর্তীতে স্টেপ সাগরের স্বীকারোক্তিতে শ্রীমঙ্গল শহরের গুহ রোডস্থ,বনশ্রী নার্সারির ভেতরে একটি টিন সেট ঘরের পাশ থেকে দেশীয় অস্ত্র ও ছোড়া উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ।
আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুস ছালেক দুলাল।

এই ঘটনায় উপজেলার শ্যামলী এলাকার সাগর ও ইমনসহ অজ্ঞাতনামা আরো পাঁচজনকে আসামী করে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে ।

সাদিক আহমেদ,নিজস্ব প্রতিনিধি:মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার সদর ইউনিয়নের শান্তিবাগ এলাকা থেকে বিলুপ্তপ্রায় তক্ষক প্রাণী উদ্ধার করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ।
গতকাল ৭ জুলাই রোববার শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ  আব্দুস ছালেক দুলালের নেতৃত্বে এসআই অনিক বড়ুয়া,এএসআই সাকির হোসেন,এএসআই ইমাম হোসাইনসহ পুলিশের একটি দল অভিযান পরিচালনা করে শান্তিবাগ এলাকার সালাম বাবুর্চির বাসা থেকে তক্ষকটিকে উদ্ধার করে।
এসময় তক্ষকটিকে পাচারের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে ৫ জনকে আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলেন,হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানার অলুয়া গ্রামের মো: আবদাল মিয়ার পুত্র মো:মোশাহিদ মিয়া (৩৫),হবিগঞ্জ সদর উপজেলার  রিচি গ্রামের শামসুল হকের পুত্র মোঃ আলী হাসান মাসুক (৩০),মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল থানার শান্তিবাগ আবাসিক এলাকার মৃত আকবর উল্লার পুত্র মোঃ আব্দুস ছালাম (৫৫),হবিগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার আব্দাবহাই গ্রামের মোঃ ইসমাইল মিয়ার পুত্র মোঃ আফরোজ মিয়া (৩৫),হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সুরাবই গ্রামের আরফিন মিয়ার পুত্র মোঃ কাউসার মিয়া (২৪)।
শ্রীমঙ্গল থানা সুত্রে জানা যায়,উদ্ধারকৃত তক্ষকটির আনুমানিক মূল্যে প্রায় ৮/১০ লাখ টাকা।আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ জৈন্তাপুর পল্লীতে এক শিশুকন্যা আত্মহত্যা নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- ৮ জুলাই সোমবার সকাল ৮টায় জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের কমলাবাড়ী মোকামটিলা গ্রামের মৃত আব্দুল্লাহ মিয়ার মেয়ে সুলতানা বেগম (১২) রঙ্গনের বসত ঘরের টিনের চালের বর্গার সাথে ওড়না জড়িয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এনিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিলে এলাকাবাসী বিষয়টি পুলিশ কে জানায়৷
জৈন্তাপুর মডেল থানার এস.আই প্রদীপ কুমার রায় ঘটনাস্থল হতে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী অধিকত্বর তদন্তের জন্য সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। পুলিশ জানায় নিহত সুলতানা পিতা জীবিত না থাকায় সে তার আত্মীয়র বাসায় থাকত, গত কিছুদিন ধরে সে এখানে বসবাস করছে এবং বাড়ীর কাজ করছে৷ রাতে বেলা কোন এক সময় এ ঘটনাটি ঘটেছে। প্রাথমিক ভাবে আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। এলাকাবাসী এনিয়ে ভিন্ন মত প্রকাশ করে, তারা বলেন এটি পরিকল্পিত হত্যা, শিশু মেয়টি কিছুতেই অাত্মহত্যা করতে পারে না৷ হত্যা পূর্বক কৌশলে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে৷
এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার এস.আই প্রদীপ কুমার রায় বলেন- সংবাদ পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লাশ উদ্ধার করি। সুরতহাল রির্পোট তৈরী করে অধিকত্বর তদন্তের জন্য সিলেট এম.এ.জি ওসমানি হাসপাতালে প্রেরণ করি। প্রাথমিক ভাবে আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। থানায় অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

এস এম সুলতান খান চুনারুঘাট থেকেঃ রক্ষকই যেন বক্ষক, চুনারুঘাটের সাতছড়ী রেঞ্জের রেঞ্জার মাহমুদুল হাসান  অবিনব কায়দায় গাছ পাচার করছেন।  উজার হচ্ছে সরকারী বনসম্পদ। ফলে সরকার হারাচ্ছে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব।
স্থানীয় সুত্র জানায়, উপজেলার সাতছড়ী রেঞ্জের ভারপ্রাপ্ত রেঞ্জ অফিসার মাহমুদুল হাসান  দীর্ঘদিন যাবত সাতছড়ীতে কর্মরত আছেন তিনি। তার যোগসাজশে সুযোগ বুঝে প্রতিনিয়ত সাতছড়ী রেঞ্জের বিভিন্ন বিট তেকে সরকারের মূল্যবান সেগুন গাছ কেটে নিশ্বর্গের সদস্য  মাছুম বিল্লাহ্ নামে এক  চোরা কারবারিসহ অন্যান্যের   নিকট বিক্রি করে আসছেন।
এদিকে গত কয়েক দিন যাবত রেঞ্জার মাহমুদুল হাসান সেগুনসহ নানান প্রজাতির  গাছ পাচারে  ভিন্ন পথ অবলম্বন করে তিনি প্রাইভেটকার যোগে সরকারের বনসম্পদ সেগুন গাছ পাচারে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছেন। এব্যাপারে রেঞ্জ অফিসার মাহমুদুল হাসানকে ফোন করলে তিনি বলেন সাতছড়ী বনবিট রয়েছে এ বিটের দ্বায়ীত্বে আছেন বিট অফিসার তিনিই বলতে পারবেন বনবিটের কোথায় কি হয়, গাছ পাচারের ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না বলে জানান।

এ ভাবেই বনের সেগুন সহ মূল্যবান গাছ ও মুল্যবান প্রানিজ সম্পদ পাচার হচ্ছে।

পরে বিট অফিসার শামছুকে তার মোবাইলে ফোন করলে তিনি  এ এব্যাপারে কোন কথা বলেন নী। এদিকে মাছুম এর মোবাইল নাম্বারটি পাওয়া যায় নী। সরকারের বনসম্পদ রক্ষায় উধ্বতন  কতৃপক্ষের সু দৃষ্ঠি কামনা করছেন এলাকার সচেতন মহল। এদিকে সাতছড়ীতে রয়েছে জাতীয় উদ্যান। এখানে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দর্শণার্তিরা এসে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন।

কিন্তু, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বিনষ্ট করছে সরকারের পোষা বন কর্মকর্তা কর্মচারীসহ প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতারা।
ফলে দিনদিন উজার হচ্ছে সাতছড়ী বনজ সম্পদ। এ যেন দেখার কেহ নেই।

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ  যশোরের ঝিকরগাছার সেলুন কর্মচারীর ছেলে সাহেব আলী জানতেন না  যে সে  তার মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে বাংলাদেশ পুলিশের গর্বিত সদস্য হতে পারবে।  এ বারের পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগে যশোর পুলিশ সুপারের কঠোর পদক্ষেপের ভিত্তিতে সাহেব আলীর মত অনেকে কনস্টেবল পদে নিয়োগ পেয়েছেন।
যশোরের কোতয়ালী, শার্শা, বেনাপোল, ঝিকরগাছা, চৌগাছা, মনিরামপুর, কেশবপুর, অভয়নগর ও বাঘারপাড়া থানার অনেক কৃষক, দিন মজুর, সেলুন কর্মচারী, রিক্সাচালকের ছেলে ও মেয়েরা পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকুরী পেয়েছেন। আর এর সবই সম্ভব হয়েছে যশোর জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক বিপিএম, পিপিএম বার এর নিপেক্ষতা ও সচ্ছতার কারনে। এ জন্য যশোরে জেলা পুলিশ সুপারের সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে জেলার সব থানা গুলোতে।
পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, যশোর পুলিশ লাইনে গত ২২ জুন হতে ২৬ জুন পর্যন্ত ট্রেইন রিক্রুট কনস্টেবল পদে  সাধারন কোটা পুরুষ ১৬০৬ জন, নারী ১৯৩জন, মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুরুষ ৯৯, নারী ১৫ জন, পুলিশ পোষ্য কোটায় ২৫জন, আনসার ও ভিডিপি ৫জন, এতিম কোটা ৭জন সর্ব মোট ১৯৫০জন শারীরিক পরীক্ষায় অংশ নেয়।
এর মধ্যে শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয় ১০৬৯জন।
পরবর্তীতে গত ২৭ জুন  লিখিত ও মোখিক পরীক্ষায় ৩৫৪জন উত্তীর্ন হয়। এর মধ্যে সাধারন কোটায় ১৩৬জন পুরুষ, ৬০জন নারী, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ২১জন পুরুষ  ২জন নারী ও পুলিশ পোষ্য কোটায় ৪ জন পুরুষ তাদের যোগ্যতার ভিত্তিতে বিনা টাকায় প্রাথমিক ভাবে নির্বাচিত হয়।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc