Tuesday 15th of October 2019 07:18:25 AM

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ প্রেম মানে না কোন র্ধম,বর্ন ছেলে মুসলিম আর মেয়ে হিন্দু হওয়ায় পরিবার কিংবা সমাজ এ সর্ম্পক মেনে নিবে না এমন আশঙ্কায় সুখের ঘর বাঁধতে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় অজানা উদ্যোশে। এঘটনায় মেয়ের বাবা মনু বিশ্বাস বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের ক ছেলেররেন। যার প্রেক্ষিতে ছেলেকে সহযোগিতার করার অভিযোগে গত ২৩জুন রাতে ছেলের মা দিলারা বেগমকে পুলিশ আটক করে সুনামগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়। তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন।
ঘটনাটি গঠেছে জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অ ল পাইলগাঁও দক্ষিণপাড়া গ্রামে গত ২২জুন রাতে।
স্থানীয় এলাকাবাসী সুত্রে জানাযায়,উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অ ল পাইলগাঁও দক্ষিণপাড়া গ্রামের মনু বিশ্বাসের স্কুল পড়–য়া মেয়ে ৭ম শ্রেনীর ছাত্রীর(১৪)সঙ্গে একই এলাকার পূর্বপাড়া গ্রামের দরিদ্র সামরস মিয়ার ছেলে জমির আলীর(২২)র্দীঘদিন ধরে প্রেমের সর্ম্পক চলছিল। ছেলে মুসলিম আর মেয়ে হিন্দু হওয়ায় পরিবার কিংবা সমাজ এ সর্ম্পক মেনে নিবে না এমন আশঙ্কায় গত ২২জুন রাতে সুখের ঘর বাঁধতে তারা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় অজানা উদ্যোশে। এঘটনায় মেয়ের বাবা মনু বিশ্বাস বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। যার প্রেক্ষিতে ছেলেকে সহযোগিতার করার অভিযোগে গত ২৩জুন রাতে ছেলের মা দিলারা বেগমকে পুলিশ আটক করে সুনামগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার এসআই কবির উদ্দিন জানান,মামলার প্রেক্ষিতে আমরা স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারীকে ধরতে অভিযান চলছে। আশা করছি খুব তারাতারি ধরা পড়বে। প্রেম নাকি অপহরণ এটি বুঝা যাবে মেয়ে ও চেলেটি উদ্ধারের পর। ছেলেকে সহযোগিতা করার অভিযোগ তাঁর মাকে আমরা গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি এখনও জেল হাজতে রয়েছেন।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে  প্রাথমিক শিক্ষা  সমাপনী  পরীক্ষায় জিপিএ ফাইভ  প্রাপ্ত  কৃতি  শিক্ষার্থীদের  সংবর্ধনা  দেওয়া হয়েছে ।শনিবার  সকাল  সাড়ে এগারোটায়  আদমপুর পাইওনিয়ার কিন্ডারগার্টেন  স্কুলে  এস এম  সি  সভাপতি  সমীজ মিয়ার  সভাপতিত্বে ও  শিক্ষিকা  মুসলিমা সুলতানার  সঞ্চালনায়  সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি ছিলেন  মৌলভীবাজার জেলা  পরিষদের  প্যানেল  চেয়ারম্যান -1 তফাদার রিজুয়ানা ইয়াসমিন  সুমি ।

বিশেষ  অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  বি এন  ভূঁইয়া  বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের  প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  সাব্বির  আহমেদ  ভূঁইয়া,  কমলগঞ্জ  কিন্ডারগার্টেন  এসোসিয়েশনের  আহবায়ক  সাংবাদিক  মুজিবুর রহমান  রঞ্জু ,  কমলগঞ্জ  প্রেস ক্লাবের  সহ সভাপতি  শাব্বির  এলাহী, সাংবাদিক  জয়নাল  আবেদীন,  এম , এ , ওহাব  উচ্চ  বিদ্যালয়ে  প্রধান শিক্ষক  পদ্মমোহন সিংহ,  তেতই গাঁও সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  নুর  উদ্দিন আহমেদ ও আধকানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহ  শিক্ষক  আব্দুল গণি  দুলাল। অন্যান্যদের মধ্যে  বক্তব্য রাখেন  স্কুলের  প্রতিষ্ঠাতা  পরিচালক  সালিক আহমেদ  ভূঁইয়া,  অধ্যক্ষ  শেখ  লতিফুর রহমান,  এস এম সি  সদস্য  রঞ্জিত  অধিকারী, শিক্ষক   মনজুর  আহমেদ  জুবেল ,  রাহেল আহমেদ  প্রমুখ ।

অনুষ্ঠান  পাইওনিয়ার  কিন্ডারগার্টেন  থেকে  এ  বছর প্রাথমিক শিক্ষা  সমাপনী  পরীক্ষায়  জিপিএ ফাইভ  প্রাপ্ত  দশ জন  শিক্ষার্থীকে  সম্মাননা  স্মারক  ও উপহার  সামগ্রী  প্রদান করা হয় । উল্লেখ্য 1999 ইং  সালে  প্রতিষ্ঠার  পর থেকেই  পাইওনিয়ার  কিন্ডারগার্টেন  প্রত্যেক  পাবলিক  পরীক্ষায় সাফল্যের  স্বাক্ষর  রাখছে ।

বিক্রমজিত বর্ধনঃ শ্রীমঙ্গলের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের জানকিছড়া এলাকায় ৫টি প্রানী অবমুক্ত ও একটি বটবৃক্ষের চারা রোপন করা হয়।
এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করেন সুপ্রীম কোর্টের, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি বুরহান উদ্দীন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের মৌলভীবাজাররে সহকারি বন সংরক্ষক আনিসুর রহমান, লাউয়াছড়া বনরেঞ্জ কর্মকর্তা মোনায়েম হোসেন, বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সীতেশ রঞ্জন দেব প্রমুখ।

অমুবক্ত করা প্রাণীগুলো হলো ২টি সবুজ বোড়া সাপ, একটি কালনাগিনী সাপ, একটি সঙ্খিনী সাপ ও একটি লজ্জাবতী বানর।

প্রানী গুলি অবমুক্তি শেষে লাউয়াছড়া বন বিশ্রামাগারের সামনে একটি বটবৃক্ষের চারা রোপন করা হয়।বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব বলেন, এই প্রাণীগুলো বিভিন্ন সময়ে লোকালয়ে ধরা পড়েছিল।

মানুষের কাছ থেকে এগুলো উদ্ধার করে সেবা প্রদান করে প্রাণীগুলোর আবাসস্থলে আবার অবমুক্ত করা হয়।

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ  প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বলেন- যারা কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে প্রবাসে যেতে ইচ্ছুক তারা ভিসার আবেদনের সাথে সাথে প্রশিক্ষণ গ্রহন করা বাধ্যতামূলক। দক্ষ জনশক্তির গড়ার লক্ষ্যে সরকার বিভিন্ন জেলায় প্রশিক্ষণ সেন্টার চালু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সিলেটে দুটি প্রশিক্ষণ সেন্টার রয়েছে। সেখানে প্রশিক্ষনের জন্য বাড়তি কোন টাকা পয়সার প্রয়োজন পড়ে না। যারা অবৈধ এজেন্সীর মাধ্যমে প্রবাসে গিয়ে থাকেন তারা বিভিন্ন সময় নানান ভাবে প্রতারিত হয়ে ঐ দেশেই কারাবরণ করতে হচ্ছে। তাদেরকে সরকার ছাড়িয়ে আনতে নানা ধরনের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। প্রবাশের আইন সে দেশের নিয়ম অনুসারে চলে, সেখানে কে দালাল মাধ্যমে গিয়েছে তা বিবেচিত হয় না। বিদেশে যাওয়া কষ্টের জন্য নয়, নিজেকে ও পরিবারকে প্রতিষ্টিত করার জন্য যাই। কিন্তু প্রতারক চক্রের হাতে পড়ে আমাদের যুব সমাজ প্রবাসে গিয়ে বিভিন্ন সমস্যায় পরছে প্রতিনিয়ত।

তিনি বলেন, সরকার এসব সমস্যা লাগবে এবং দক্ষ শ্রম বাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিটি উপজেলায় সরকার ভাবে প্রশিক্ষণ সেন্টার চালু করার উদ্যোগ গ্রহন করছে। অচিরেই জৈন্তাপুরে মানব সম্পদ উন্নয়নের জন্য একটি আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন প্রশিক্ষণ সেন্টার চালু করা হবে। আপনাদের সহযোগিতা ও সদিচ্ছা না থাকলে কোন কিছুই করা সম্ভব হবে না। তিনি আরও বলেন- বিদেশের বাজারে নার্স, গাড়ী চালক ও সেচ্ছাসেবীদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। এসকল ক্যাটাগরিতে জনশক্তি প্রেরনের জন্য আমার কাছে প্রচুর সুযোগ সুবিধা রয়েছে, শুধুমাত্র আপনারা এগিয়ে আসতে হবে, এছাড়া ভিসা নিশ্চিত হওয়ার পর বিদেশগামীদের সরকার ঋণ প্রাপ্তির বিশেষ সুবিধা দিয়েছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কারিগরি শিক্ষার কোর্স চালু করার আহবান জানান।

গতকাল ৬ জুলাই শনিবার সকাল ১১টায় জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদ হল রুমে, উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত “বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা” “বাস্তব প্রশিক্ষণ গ্রহনের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জনেই নিরাপদ অভিবাসনের একমাত্র উপায় শীর্ষক আয়োজিত সেমিনার সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি এসব কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিত কুমার পালের সভাপতিত্বে ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ সোলাইমান হোসেনের পরিচালনায় সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ, সিলেট কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক অলিউর রহমান।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র এ.এস.পি কানাইঘাট সার্কেল মোহাম্মদ আব্দুল করিম, জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ মাইনুল জাকির, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সিরাজুল হক, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন, পলিনা রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান, শাহ আলম চৌধুরী তোফায়েল, ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াহিয়া, আবুল কাহির, জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি উপাধক্ষ্য শাহেদ আহমদ, গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল ফজলুর হক, জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী কারিগরি কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ হেলাল উদ্দিন, জৈন্তাপুর উপজেলা আ.লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মুহিবুর রহমান মেম, নিজপাট ইউপি আ.লীগের সভাপতি আতাউর রহমান বাবুল, উপজেলা শ্রমীকলীগের সভাপতি মোঃ ফারুক আহমদ, জৈন্তাপুর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম-আহবায়ক কতুব উদ্দিন, শাহিনুর রহমান, যুবলীগ নেতা আমিন আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান সবুজ সহ সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারি বৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রদানগন উপস্থিত ছিলেন।

যারা খাদ্যে বিষ প্রয়োগ করে লক্ষ লক্ষ মানুষকে তিলে তিলে মারছে আবার যারা নকল ঔষধ প্রস্তুত করে পয়জনিং-এর মাধ্যমে ধীরে ধীরে মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে, তারা উভয়ই হত্যাকারী।

শনিবার (৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব চত্বর চ্যারিটি মানব কল্যাণ সোসাইটি অব বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত ‘খাদ্যে ভেজাল ও নকল ঔষধ প্রস্তুতকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি’ নিয়ে করা মানববন্ধন কর্মসূচীতে এমন মন্তব্য করেন লেখক, গবেষক, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবুল মকসুদ বলেন, আজকে সমাজের খাদ্যে ভেজাল ও নকল ঔষধ প্রস্তুতকারীর সাথে যারা জড়িত তারা ফৌজধারী অপরাধে অভিযুক্ত। তাদের বিচারের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড প্রদান করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ ব্যাপারে কঠোর হতে হবে। অন্যথায় এই ধরনের অপরাধ থেকে জাতির মুক্তি অসম্ভব হয়ে পড়েছে। কারণ খাদ্যে ভেজাল ও নকল ঔষধ প্রস্তুতকারী নিজের ব্যক্তিগত মুনাফা লাভের আশায় আজ পুরো মানবজাতিকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে।

মানববন্ধনে প্রধান বক্তা বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, খাদ্যে ভেজাল ও নকল ঔষধ প্রস্তুতকারী ব্যক্তি দেশ ও জাতির শত্রু। তারা ব্যক্তিগত মুনাফার লোভে এই দেশের জনসাধারণকে পয়জনিং এর মাধ্যমে ধীরে ধীরে হত্যায় লিপ্ত আছে। সরকারের উচিত হবে, রাষ্ট্রযন্ত্রগুলোর দক্ষতা বাড়ানোর পাশাপাশি এই ধরনের অপরাধের যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে-এটির মনিটরিং ব্যবস্থা আরও জোরদার করা এবং ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে অপরাধীর মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ড বা ১৪ বছর কারাদন্ডের বিধান নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

শুধু খাদ্যে ভেজালের কারণে দেশে প্রতি বছর প্রায় ৩ লক্ষ লোক ক্যান্সোরে, ডায়াবেটিসে ১ লক্ষ ৫০ হাজার, কিডনি রোগে ২ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। এছাড়া গর্ভবতী মায়ের শারীরিক জটিলতাসহ গর্ভজাত বিকলাঙ্গ শিশুর সংখ্যা দেশে প্রায় ১৫ লক্ষ। কেমিক্যাল মিশ্রিত বা ভেজাল খাদ্যের কারণে পেট ব্যাথা, বমি হওয়া, মাথাঘোরা, বদ হজম, শরীরে ঘামের মাত্রা বেড়ে যাওয়া-কমে যাওয়া, এলার্জী, অ্যাজমা, চর্মরোগ, ব্রেইনস্ট্রোক, কিডনি ফেলিউরসহ মানবদেহে নানাবিধ সমস্যা সৃষ্টি হয় বলে মানববন্ধন থেকে জানানো হয়।

মানববন্ধন সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর, যুগ্ম সম্পাদক আলাউদ্দিন আজাদ।

সংগঠনের সভাপতি এম নূরুদ্দিন খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও কলামিস্ট বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, বিশিষ্ট আইনজীবী মাহবুবুর রহমান, বিএফইউজে’র নির্বাহী সদস্য খায়রুজ্জামান কামাল, সিনিয়র সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম বিলু, বাকশালের মহাসচিব জহিরুল ইসলাম কাঈয়ূম, আসক ফাউন্ডেশনের পরিচালক শাহবুদ্দিন, সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আজিজ মোল্লা, সহ-সভাপতি বোরহান উদ্দিন, শফিকুল ইসলাম পিন্টু, মোহাম্মদ ইলিয়াস, জাকির হোসেন, আকাশ খান, রশিদ ফলান প্রমুখ।

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ  যশোরের নাভারন হাইওয়ে ফাঁড়ির এক সদস্য এক নারীসহ বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে। বেনাপোল পৌর শহরের সানসিটি আবাসিক হোটেল থেকে তাদেরকে আটক করেন বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই আব্দুল লতিফ।

আটক পুলিশ সদস্য রবিউল হোসেন ও তার নারী সঙ্গী সুমি খাতুন (২৪)। সুমির বাড়ি যশোর পুলেরহাট। সে স্বামী পরিত্যাক্ত। এখন থাকে বেনাপোল গাজিপুর গ্রামে।
এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই আব্দুল লতিফ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি বহিরাগত এক যুবক এক নারীসহ বেনাপোল সানসিটি আবাসিক হোটেলের একটি কক্ষে অবস্থান করছে। এমন সংবাদ পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে বিকাল সাড়ে ৫টার সময় হোটেল থেকে রবিউল হোসেন ও সুমি খাতুন নামে দুজনকে আটক করা হয়। আটকের পর যুবক রবিউল নিজেকে পুলিশ সদস্য বলে জানান। আটক রবিউল হোসেন গত জুন মাসের ২৫ তারিখ নাভারন হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে যোগদান করেছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে নাভারন হাইওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ এটিএম রফিক উদ্দিন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনা শুনেছি। বেনাপোলে যেয়ে ঘটনার বিস্তারিত জানতে পারবো। তিনি বলেন আটক পুলিশ সদস্য অপরাধী হলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সালেহ শেখ মাসুদ করিম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা শিকার করেন। তিনি বলেন বিষয়টি উদ্ধর্তন কতৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ ঘটনার বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানান তিনি।

বেনাপোল থেকে এম ওসমানঃ যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের উলাকোল গ্রামের একমাত্র স্বাস্থ্য সেবা ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি পড়ে আছে অযন্ত অবহেলায়। ডাক্তার নেই, নেই ঔষধ, নেই স্বাস্থ্য সেবার কোনচিহ্ন। ফলে দিনে দিনে স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রটি মাদক সেবিদের দখলে চলে গেছে। নোংড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ আর রোগীর উপস্থিতি না থাকায় স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে গড়ে উঠেছে বিষধর শাপ বিচ্ছু ও পোকামাড়ের আবাসস্থল।
তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, ১৯৯৯ সালের ৩০ অক্টোবর উপজেলার উলাকোল বাজার সংলগ্নে তৈরী করা হয় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রটি। হাতের নাগালে সব ধরনের স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ায় খুশি ছিলো এই এলাকার হাজার হাজার মানুষ। কয়েক বছর সঠিক নিয়মে স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি চললেও পরবর্তীতে ধীরে ধীরে অচল হতে থাকে এই সেবা কেন্দ্রটি। হঠাৎই ডাক্তার সংকট, ঔষধ সংকট সহ নানান রকম স্বাস্থ্য সেবার মাধ্যম গুলো সংকটে পড়তে থাকে।

সেই আগের মতো চিকিৎসা সংকটে পড়ে এই এলাকার মানুষ। জরুরি চিকিৎসা সেবা নিতে তাদেরকে যেতে হয় দুর দূরান্তের কোন হাসপাতাল বা সেবা কেন্দ্রে। চরম দুর্ভোগ নেমে আসে এখানকার সুবিধা বি ত গ্রামবাসীর। চালুরত স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রটিতে চিকিৎসা সেবা এবং অবকাঠামো উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে পড়ায় আজ তা ভাঙ্গাচোরা মাংস বিহীন কংকালের মতো দাঁড়িয়ে আছে। ফলে স্থানীয় মাদক সেবীরা আড্ডা দেয় এখানে। পাশাপাশি অপরিস্কার নোংড়া পরিবেবেশের সুবিধা নিতে আবাসস্থল গড়ে তুলেছে বিষধর শাপ বিচ্ছুরা।

ডাক্তারের কক্ষ আছে নেই ডাক্তারের আসা যাওয়া। আছে অপারেশন থিয়েটার যা ধুলা ময়লার স্তুপে চাপা পড়ে আছে ডাক্তার এবং ঔষধ সংকটের সময় থেকে। একটি মাত্র আর্সেনিক যুক্ত নলকুপ আছে যা এখনো বেকার দাঁড়িয়ে আছে। সার্বক্ষণিক একজন ফ্যামিলি প্লানিং ইন্সপেক্টর আছে বর্তমান তিনিও বসতে পারেন না তার কক্ষে। রুম খুলতেই বিষধর শাপেদের ভয়ংকর আনাগোনা ও তাদের অবাধ্য উপস্থিতি থমকে দেয় তার জীবন যাত্রা।

সপ্তাহে দুই জন করে ডাক্তার মাঝে মাঝে আসলেও স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের জরাজীর্ণ অবস্থা, ঔষধ সংকট, শাপ বিচ্ছুদের অবাধ বিচরণে চলে যান তারা। এত সব সমস্যায় জর্জরিত এই সেবা কেন্দ্রটির বিগত ও বর্তমান নিয়ে কথা হয় এই এলাকার জনগন, সার্বক্ষণিক সেবাদানকারী ফ্যামিলি প্লানিং ইন্সপেক্টর, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এবং উপজেলা মেডিকেল অফিসারের সাথে। কেন এত সমস্যায় এই সেবা মাধ্যমটি, কি চাওয়া পাওয়া এবং করনীয় বিষয় নিয়ে কথা বলেন তারা।
এলাকাবাসীরা বলেন, যখন এই সেবা কেন্দ্রটি চালু হয় এখানে আমরা স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে অনেক খুশি ছিলাম। আমরা চাই আবার এই স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রটি চালু হোক যাতে করে আমরা হাতের কাছেই কাঙ্খিত সেবা পাই এবং দূর দূরান্তে স্বাস্থ্য সেবা নিতে গিয়ে কষ্ট আর ভুগান্তিতে পড়তে না হয়। এলাকাবাসী আরো বলেন, উপজেলা মেডিকেল অফিসার সহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তা এবং মাননীয় প্রধান মন্ত্রী এই উপজেলার স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির উপর যেন সু-দৃষ্টি দিয়ে পুনরাই চালু করার ব্যবস্থা করে।
শংকরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নেছার উদ্দিন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত এখানে ডাক্তার নাই। যোগাযোগ করেও কোন ডাক্তার আসেনী। উপজেলা মেডিকেল অফিসারের কাছে একাধিকবার বলা হয়েছে। কিন্তু বলার পরেও উনি কোন সোরাহ করতে পারেননি। তারা বলেন এমনিতেই ডাক্তারের অভাব কোথা থেকে ডাক্তার দেব। প্রতিষ্ঠানটি তৈরীর পরে কয়েক বছর খুব ভাল ভাবে চলেছে কিন্তু বর্তমান প্রতিষ্ঠানটির এই নাজুক অবস্থা। কোন বরাদ্দ নাই এই সেবা কেন্দ্রের।
ঝিকরগাছা উপজেলা মেডিকেল অফিসার শহীদুল ইসলাম তরফদার বলেন, প্রতিষ্ঠানটিতে অনেক জনবল সংকট। বার বার উপর মহলে এক বিষয়ে বলে বলে মুখ ব্যাথা হয়ে গেছে। কোন ভাবেই সংকট কাটিয়ে উঠতে পারিনি। এতদিন ধরে বন্ধ প্রায় সেবা কেন্দ্রের সব সমস্যা কাটিয়ে উঠে আবার চালু হতে সময় লাগবে। আমি অতি দ্রুত পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা সহ শাপ বিচ্ছু তাড়ানোর ব্যবস্থা করছি।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc