Thursday 18th of July 2019 03:15:26 PM

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ আজ জৈন্তাপুর পল্লীতে যুবতী আত্মহত্যা করে৷ পুলিশ ঘটনাস্থল হতে যুবতীর লাশ উদ্ধার করে ৷
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায় ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকাল অনুমান ৩টায় জৈন্তাপুর উপজেলার বাউরভাগ দক্ষিন কুচারাই গ্রামের তারন্য বিশ্বাসের মেয়ে কৃষ্ণা বিশ্বাস (১৭) পরনের ওড়না পেছিয়ে বসত ঘরের তীরের সাথে আত্মহত্যা করে ৷ কি কারনে সে আত্মহত্যা করেছে পরিবারের লোকজন বলতে পারছেনা ৷
এদিকে আত্মহত্যার সংবাদ পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার এস আই প্রদীপ রায় ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে নিহতের সুরহাল তৈরী পূর্বক অধিকত্বর তদন্তের জন্য সিলেট এম.এ.জি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন৷
এস আই প্রদীপ রায় জানান- সংবাদ পেয়ে নিহত কৃষ্ণা বিশ্বাসের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রস্তুত করি, অধিকত্বর তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করি৷ প্রাথমিক তদন্তে এটি আত্মহত্যা বলে ধারনা করা হচ্ছে৷ এবিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে ৷

“গ্যাসের মূল্য বাড়িয়ে বাজেটে পণ্যমূল্য না বাড়ার যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে তা ভঙ্গ করা হয়েছে। কেবল তাই নয়, বাজেট অনুমোদনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে বিইআরসি সংসদকেও অপমান করেছে। সংসদে বাজেট আলোচনায় আমিসহ এ বিষয়ে বাজেট পরবর্তী অধিবেশনের দিনগুলোতে আলোচনা করার প্রস্তাব দিয়েছিলাম। অন্যরাও কথা বলেছিলেন। সে সব কথার যে মূল্য নেই তা বোঝা যাচ্ছে। সংসদে খোলাখুলি আলোচনায় গ্যাসের মূল্য সমন্বয়ের বিষয়টি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়া যেত। এতে না সংসদ, না সরকার, কার কল্যাণ হল।”
আজ ৪ জুলাই বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা সদরে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির বাবুগঞ্জ উপজেলা কমিটি ও প্রতিটি ইউনিয়নের শাখা সম্পাদকদের এক যৌথসভায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি একথা বলেন। মেনন বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে কেবল গৃহস্থালী খরচই বাড়বে না, কৃষকের সার, সেচের বিদ্যুত, পোশাক ও সূতাকল শিল্প, পরিবহনসহ অর্থনীতির সকল খাতের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। এতে কতখানি মূল্যস্ফিতি ঘটবে তা নিরূপনের বিষয়। কিন্তু সাধারণ মানুষ একে ভালভাবে নেয়নি।
মেনন বলেন, চৌদ্দ দলের দায়িত্ব হবে সরকার ও তার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের কাজের বিরোধিতা করা। আর শরীক দল হিসেবে এ ধরনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ওয়ার্কার্স পার্টি জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন করবে। তার জন্য পার্টির সক্ষমতা বাড়াতে পার্টি কংগ্রেসকে সামনে রেখে বাবুগঞ্জের প্রতিটি ইউনিয়নে পার্টিকে আরও দৃঢ়ভিত্তির উপর সংগঠিত করবে।
ওয়ার্কার্স পার্টির বাবুগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কমরেড শাহজাহান তালুকদারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বরিশাল জেলা সভাপতি কমরেড অধ্যাপক নজরুল হক নিলু, সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য কমরেড এ্যাড. টিপু সুলতান, উপজেলা কমিটির সদস্য কমরেড অধ্যাপক গোলাম হোসেন, মতিউর রহমান কালু মাস্টার, খলিলুর রহমান, চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজ, শাহীন হোসেন, জামাল উদ্দিন ও শাখা সম্পাদকগণ।

এস এম সুলতান খান চুনারুঘাট থেকেঃ গাছের উপর পেরেক মেরে পোষ্টার,সাইনবোর্ড  ব্যানার লাগিয়ে বাণিজ্যিক ও সাংগঠনিক  প্রচারণার কাজ চলছে পুরো দেশে অথচ প্রশাসনের নাকের ডগায় এই চিত্র দেখা গেলেও কোন এক অজানা মন্ত্রের বলে তা কারো চোখে পরছেনা।
দেশের অন্যান্য এলাকার মত চুনারুঘাটেও নির্বিচারে চলছে গাছের উপর পেরেক মেরে পোষ্টার, সাইনবোর্ড ও ব্যানার লাগিয়ে বাণিজ্যিক প্রচারণার কাজ। এ ধরনের বেআইনী কাজে ঘটছে পরিবেশ দূষণ। সবুজ উদ্ভিদ রক্ষাসহ পরিবেশ সুনির্মল রাখতে এ ধরনের কাজ বন্ধে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন এলাকার সচেতন মহল।
অথচ বাংলার বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসুই সারাবিশ্বের সামনে প্রমান করেন-গাছেরও প্রাণ আছে; তারাও আঘাত পায়, অনুভূতিতে সাড়া দেয়। কিন্তু সেই বিজ্ঞানীর দেশেই সমানে চলছে বৃক্ষ-নির্যাতন।চুনারুঘাট উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার পাশের গাছ-গাছালির উপর পেরেক মেরে সাইনবোর্ড, ব্যানার-পোষ্টার লাগিয়ে প্রচারণার নামে একশ্রেণীর স্বার্থান্বেষী মানুষ চালাচ্ছে নির্যাতন।পাশাপাশি নষ্ট হচ্ছে পরিবেশও।এ ধরনের নিষ্ঠুরতা বন্ধে শাস্তি ও জরিমানা
পরিবেশের রক্ষায় এসব ধংসাত্মক কাজে নিষেধাজ্ঞা দিতে জরুরী পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সচেতন নাগরিক সমাজ।
গাছে পেরেক মেরে এর স্বাভাবিক বিকাশ রুদ্ধ করে এগুলোকে রোগাক্রান্ত ও মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে।
গাছ নানাভাবে মানুষকে রক্ষা করে। তাই বৃক্ষ-নির্যাতন বন্ধে, এর সামাজিক সংরক্ষণে সবাইকে সচেতন ও সোচ্চার করতে বন বিভাগকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান উপজেলার সচেতন নাগরিক সমাজ।

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌরশহরে ব্যাটারি চালিত টমটম ও রিক্সা ভাড়ার নৈরাজ্য কিছুতেই থামছে না। এবিষয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের ভাড়া নির্ধারণ কোন পদক্ষেপ না থাকায় দ্বিগুণের বেশীও ভাড়া আদায় করছে চালকরা। বিশেষ করে  ব্যাটারি চালিত টমটম ও রিক্সা লাইসেন্স বিহীন পৌরশহরে চলাচাল করছে।
টমটম ও রিক্সা চালকরা সাধারণ যাত্রীদের সাথে ভাড়া নিয়ে প্রতিনিয়তই ঝগড়াঝাঁটি করতে দেখা যায়।

সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র জানায়, সাবেক পৌরসভার মেয়র মহুরম মোহাম্মদ আলী থাকাকালীন পৌরশহর এলাকার জন্য প্রথম ব্যাটারি চালিত টমটম ও রিক্সা ভাড়া নির্ধারণ করেন। পৌরশহরের উত্তর বাজার একচেঞ্জ অফিস হইতো বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত, এবং একচেঞ্জ অফিস থেকে বাল্লা রোডের শেষ পর্যন্ত টমটম ভাড়া ৫ টাকা ওা রিক্সা ভাড়া ১০ টাকা। পৌরশহরে টমটম – রিক্সা চালক ও যাত্রীদের স্বস্থি ফিরে আসলেও তা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। ক্রমেই বাড়তে থাকে চালকদের দৌরাত্ম। নির্ধারিত ভাড়া কার্যকরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তদারকীর অভাবে সর্বমহলে প্রশংসিত এ উদ্যোগ অল্প সময়ে ভেস্তে যায়।

পরবর্তী মেয়র নাজিম উদ্দিন শামসু সিএনজি, ব্যাটারি চালিত টমটম ও রিক্সা চালক-মালিকদের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করে যানজট নিরসন করেন। কিন্তু যানজট নিরসন হলেও পৌরশহরে টমটম ও রিক্সা চালকরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। পৌর মেয়র মহুরম মোহাম্মদ আলীর তৎকালীন সময়ও এনিয়ে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে আলোচনা হলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এনিয়ে প্রতিনিয়ত চালকদের সাথে যাত্রীদের বাকবিতন্ডা এমনকি হাতাহাতি নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা ছাড়াও স্বল্প আয়ের মানুষ দারুন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।

জুলেখা খাতুন নামে এক মহিলা জানান, পৌর এলাকার একচেঞ্জ অফিসের পাশ থেকে রিক্সা জোগে উপজেলা গেইট পর্যন্ত যাই। রিক্সা চালক আমার কাছে ৪০ টাকা দাবি করেন। আমি বাধ্য হয়েছে ৪০ টাকা ভাড়া দিয়েছি। কলেজ পড়ুয়া ছাত্র জুনায়েদ মিয়া, এমরান মিয়া, জুবায়ের আহমেদ, মোঃ শাহিন মিয়া জানান, পৌরশহর হইতে পৌরশহর পর্যন্ত টমটম উঠানামা করতে ১০ টাকা ও রিক্সা ২০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। এতে আমরা প্রতিনিয়ত দূর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছি। যাত্রী হয়রানী বন্ধে প্রশাসনের কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহন করা উচিত।

অন্যদিকে পৌরশহরে যেখানে – সেখানে বড় ট্রাক আটকিয়ে চাঁদা আদায়ের ফলে পৌরশহরে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সে দিকে ও পৌর কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া অতি জরুরী। চুনারুঘাট পৌরসভা মেয়র মোঃ নাজিম উদ্দিন শামসু বলেন, ব্যাটারি চালিত টমটম ও রিক্সা ভাড়া নির্ধারন ও যানজট নিরসনের জন্য ইতিমধ্যে মালিক-চালকদের সাথে পৌর মেয়রের বৈঠক হয়েছে। শীঘ্রই তা কার্যকর করা হবে বলে তিনি জানান।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জে তাহিরপুর উপজেলায় দুঃস্থ ও হতদরিদ্রের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। এ-উপলক্ষ্যে উপজেলা পরিষদ চত্তরে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার ৪২জন নারীর মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণ সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খালেদা বেগম,উপজেলা প্রকৌশলী সাইফুল্লাহ মিয়া,উপজেলা আ,লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম,উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন পলাশ,উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবুল বাসার,সাধারণ সম্পাদক তানসেন তালুকদার তুষার,  উপজেলা পরিষদ সিএ জহির উদ্দিন ,নোয়াজ আলী,হেনা আক্তার মেম্বার সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের মেম্বার ও উপকার ভোগী নারীগন প্রমুখ।
এসময় তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণ সিন্ধু চৌধুরী বাবুল বলেন,দেশের উন্নয়নের স্বার্থে ও নারী জাতিকে এগিয়ে নিতে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবোর্চ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তার এই প্রচেষ্টায় এই উদ্যোগ নিয়েছেন। এই সেলাই মেশিনটি দিয়ে আপনারা নারীরা নিজেদের কে কর্মমুখী কাজে নিয়োজিত করুন। বতর্মান সরকার খুবেই আন্তরিক আপনাদের কে সাভলম্বী করতে চেষ্টা করছেন সেই চেষ্টার সাথে আপনারাও হত মিলিয়ে এগিয়ে আসুন। তাহলে এই দেশ এগিয়ে যাবে অনেক দুর।

আবু তাহির,ফ্রান্স: ফ্রান্সের বাংলাদেশী কমিউনিটিতে অত্যন্ত জনপ্রিয় প্রাচীনতম সামাজিক সংগঠন বিয়ানীবাজার উপজেলা সমাজ কল্যাণ সমিতি ফ্রান্সের অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। প্যারিসের পান্তা হলে ব্যাপক আয়োজনে অনুষ্ঠিত ২০১৮ ও ২০১৯ সালের কার্যকরী কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান বাংলাদেশীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

সংগঠনের সফল ১১ বছর উদযাপনের পাশাপাশি বিগতদিনের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড এবং আগামীদিনের পরিকল্পনা তুলে ধরেন অনুষ্ঠানে বক্তারা। এসময় তারা কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে শুভেচ্ছা দেয়ার পাশাপাশি ঐক্যবদ্ধভাবে সংগঠনকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় জানান।

সংগঠনের সভাপতি সোহেল আহমদ এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন ও সহসাধারণ সম্পাদক মুকিত আহমদ এর যৌথ পরিচালনায় এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা সুনাম উদ্দিন খালিক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাপ্তাহিক পূর্ব সিলেট নিউজ২৪,কম এর সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি এম মাসুদ আহমদ ,৫২বাংলা টেলিভিশনের সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম অভি , সুনামগঞ্জ জেলা সমিতির সভাপতি নুরুল আবেদীন ,ফ্রান্স আওয়ামী লীগ এর উপদেষ্টা সালেহ আহমদ চৌধুরী।

এসময় আরো বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি বাবর হোসেন , মনোন উদ্দিন ,সম্মানিত সদস্য হেলাল আলী বুরহান ,জবরুল ইসলাম লিটন ,সুমন আহমদ , , কোষাধক্ষ সায়েক আহমদ ,সাংগঠনিক কলিম উদ্দিন ,সহসাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেইন, সহসমাজকল্যান সম্পাদক সাঈদ উদ্দিন ,সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল খালেক ,সহযোগাযোগ সম্পাদক শাহ শামুল আহমদ ,সহআন্তর্জাতিক সম্পাদক সাহেদ আহম, ইমরান আহমদ, সহমহিলা সম্পাদক নাদিয়া চৌধুরী।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা আব্দুর রাজ্জাক , আবু বক্কর সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা .অনুষ্ঠানের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সম্মানিত সদস্য জবরুল ইসলাম লিটন।

এসময় সংগঠনের সকল সদস্যদেরকে পরিচয় করিয়ে দেন সাবেক সভাপতি হেলাল আলী বুরহান।

ব্রিটেনের বাংলাদেশী কমিউনিটিতে বিয়ানীবাজারের কৃতিসন্তান হিসাবে ভূমিকা রাখায় সাপ্তাহিক পূর্ব সিলেট নিউজ২৪,কম এর সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি এম মাসুদ আহমদ ,৫২বাংলা টেলিভিশনের সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম অভি কে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজানুর রহমান ও সহসভাপতি বাবর হোসেইন এর প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় লন্ডনের জনপ্রিয় দুই শিল্পী নুরজাহান , বাংলাদেশী কুমারসানু ও প্যারিসের সুমা দাস গান পরিবেশন করেন।

সংগঠনকে শক্তিশালী করতে এবং অনুষ্ঠান বাস্তবায়নে বিশেষ ভূমিকা রাখায় সংগঠনের সহসভাপতি মনন উদ্দিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক কলিম উদ্দিনকে ক্রেষ্ঠ প্রদান করা হয়।

আতাউর রহমান মিটন: হায় রে আমার দেশ, এখানে মানুষ এখন মানুষকে কোপাচ্ছে! বরগুনায় স্ত্রীর সামনে কুপিয়ে হত্যা করছে স্বামীকে। সিরাজগঞ্জের উল্লপাড়ায় এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য ও তার মাকে, নারায়ণগঞ্জ এক স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ফেনীর নুসরাত হত্যার বিচার হতে না হতেই নরসিংদীতেও একটি মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। শেষ পযন্ত নরসিংদীর সেই মেয়েটিকেও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রাণ দিতে হয়েছে। ঠাকুরগাঁও-এ মেয়েদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় এক নার্স দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন এবং পরে হাসপাতালে মারা গেছেন। প্রতিদিন সড়কে ঝরে যাচ্ছে যে প্রাণগুলো সেগুলোর কথা বাদ দিলেও খুন, ধর্ষণ, অপঘাতে মৃত্যুর সংখ্যা বিবেচনা করলে দেশটাকে যেন একটা মৃত্যু উপত্যকা মনে হচ্ছে! সবার মনে প্রশ্ন এমন হচ্ছে কেন? মানুষ এত অস্থির কেন? এটা কি কেবলই আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি নাকি এর বাইরেও কোন কারণ রয়েছে? আমি এই প্রশ্ন নিয়ে অনেকের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেছি। নানা জনের নানা মত।

 কেউ বলছেন, দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি বৃদ্ধি পাওয়ায় অপরাধ প্রবণতা বেড়েছে। মানুষের মধ্যে হিং¯্রতা অতীতেও হয়তো ছিল কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি মনে হচ্ছে বেপরোয়া। অপরাধ এর সাথে জড়িতদের রাজনৈতিক আশ্রয়-প্রশ্রয় পাওয়া এবং অবশেষে সাজা থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার দৃষ্টান্ত মানুষের মধ্যে অপরাধের প্রবণতা বাড়াচ্ছে। মানুষ কি কেবল অস্ত্র দিয়েই একজন আরেকজনকে কোপাচ্ছে? কেউ কেউ বলছেন, ‘ভাই আমরা তো কতভাবেই কোপানোর শিকার হচ্ছি। আপনার যদি ক্ষমতা না থাকে তাহলে এই সমাজে আপনি সর্বত্রই কোপের শিকার হবেন’! অফিসগুলোতে ঘুষের কোপের শিকার হচ্ছে সেবা প্রাথীরা, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির কোপানলে ক্ষত-বিক্ষত সাধারণ মানুষ, বেকারত্বের লাঞ্ছনা-গঞ্জনার কোপে জীবনের প্রতি বীতশ্রদ্ধ দেশের যুব সমাজ, সংসারের অভাবের কোপে জর্জরিত নারীদের জীবন, বাবা-মায়ের শাসনের কোপে গুড়ো গুড়ো হয়ে যাচ্ছে সন্তানের ডানা মেলে ওড়ার স্বপ্ন, ধানের দাম না পাওয়ার কোপে সর্বস্বান্ত হয়ে গেছে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক! ভাপসা গরমে অতিষ্ঠ জীবন! প্রকৃতির এই গরম বেড়ে যাওয়া যেন আমাদের মেজাজ ও সু-শাসনের সামগ্রিক অভাবের প্রতিফলন হয়ে দেখা দিয়েছে। এর থেকে মুক্তির উপায় কি?
যুগে যুগে আমাদের সঠিক পথে পরিচালনার জন্য বিভিন্ন মনীষীরা আসেন এবং আমাদের পথ দেখান। বর্তমানের পরিস্থিতিতে এক উৎসুক যুবকের প্রশ্ন, দেশে কি এখন হেদায়েত করার মত মনীষীদের আগমন বন্ধ হয়ে গেছে? এই প্রশ্নের জবাবে সঙ্গের আরেকজন যুবক সাথে সাথে বলে উঠলেন, ‘আকাশে প্লেন ওড়ে কিন্তু যেখানে সেখানে প্লেন ইচ্ছেমত নামতে পারে না। প্লেন নামার জন্য উপযুক্ত এয়ারপোর্ট এর প্রয়োজন হয়। ঠিক তেমনি কোন সমাজে যখন গুণীর কদর কমে যায় তখন সেই সমাজে গুণীর জন্ম হয় না বা কমে যায়। আমরা যদি মানুষের মনে সততা, ভালবাসা, বিশ্বাস ও পরমত সহিষ্ণুতার এয়ারপোর্ট না বানাতে পারি তাহলে রহমতের বা বরকতের প্লেনটা নামতে পারবে না!
যুবকটি বলে চলেছে, ‘আধুনিক বিজ্ঞানের মতে শিশুরা মায়ের পেটে থাকতেই শিক্ষাগ্রহণ শুরু করে। শিশুর মস্তিষ্কের গঠন ও বৃদ্ধি মায়ের পেটে থাকাকালীন থেকে শুরু করে ৩ বছর বয়স পর্যন্ত হয়ে থাকে। তাই শিশুর ভাল লাগা, মন্দ লাগা, রুচি, আদর্শ ইত্যাদি অনুভূতিগুলো তৈরিতে পরিবার ও মায়ের ভূমিকা বিশেষভাবে প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে, মায়ের পেটে থাকাকালে শিশুরা মায়ের আনন্দ ও বেদনা, জীবনবোধ, আদর্শ ইত্যাদি থেকে শিক্ষা নেয় এবং পরবর্তিতেও সেইভাবেই প্রভাবিত হয়।’ যদিও তার অর্থ এটা নয় যে, খুনী ছেলেটি তার মায়ের কাছ থেকে খুন করা শিখেছে। এখানে খুনী ছেলেটির মানসিক নেপথ্য প্রভাব এর কথা বলা হচ্ছে। মায়ের জীবনে ঘটে যাওয়া বঞ্চনা, কষ্ট, বেদনা ও আত্মবিশ্বাসের অভাব শিশুর জীবনকেও প্রভাবিত করে সেটাই এখানে বলা হচ্ছে। অনেক বেদনা, অনেক কষ্ট কিংবা সীমাহীন লোভ অনেক সময় সন্তানের মধ্যে নেতিবাচক চাহিদা ও জিঘাংসার জন্ম দেয়। সন্তান প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে ওঠে এবং নিজের অবচেতন মনেই সে অন্যকে আঘাত করতে আনন্দ পায়। মায়ের পেটে থাকা অবস্থায় কিংবা মায়ের কোলে থাকা অবস্থায় পাওয়া ব্যথাতুর ও বিকৃত এই অনুভূতিগুলো সন্তানদের জীবনকে প্রভাবিত করে।

বলা হয় শিশুরা পরিবেশ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে। এই পরিবেশ এর শুরু কোথা থেকে? মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এই পরিবেশ এর শুরু মায়ের পেটে থাকার সময় থেকে বিবেচনা করতে হবে। এবার আমরা যদি আমাদের নিজেদের জীবন ও আমাদের চারপাশের পরিবারগুলোর দিকে তাকাই তাহলে নিজেরাই বুঝতে পারব আমাদের মায়েরা কতখানি সুন্দর ও আনন্দময় পরিবেশ এর মধ্যে আছে। গর্ভবতি মায়েদের অবস্থা আরও ভয়ঙ্কর। অনেক পরিবারে গর্ভবতি নারীদের কম খেতে দেয়া হয়। অনেক পরিবারে গর্ভবতি নারীদের পর্যাপ্ত বিশ্রাম হয় না, তারা কঠোর পরিশ্রম করতে বাধ্য হয়। অনেক গর্ভবতি নারী স্বামীর আদর ও ভালবাসা থেকে বঞ্চিত হয়। সেদিন গ্রামের নারীদের নিয়ে আয়োজিত এক কর্মশালায় শুনলাম দারিদ্র্যপীড়িত পরিবারগুলোতে গর্ভবতি নারীদের বাবার বাড়িতে চলে যেতে বাধ্য করা হয় যাতে করে তাদের খাবার ও চিকিৎসার জন্য স্বামীর পরিবারের সদস্যদের কোন বাড়তি খরচ করতে না হয়। একই কর্মশালায় একটি মেয়ে কাঁদতে কাঁদতে আমাকে বলেছে, খাবারের অভাবে অনেক গর্ভবতি মা বিভিন্ন আত্মীয়দের বাড়ি বাড়ি বেড়ায় যাতে করে তাদের একটু ভাল খাবারের বন্দোবস্ত হয় কারণ স্বামীর বা বাবার পরিবারে তাদের জন্য একটুখানি ভাল খাবার, নিদেনপক্ষে পেট ভরে খাবারের সুযোগ ঘটে না। কি নির্মম, কি নিষ্ঠুর এই অভিজ্ঞতা! তাহলে কল্পনা করুন, যে সন্তান পেটে থাকতেই মায়ের এই কষ্ট অনুভব করছে এবং নিজের মধ্যে পুষে রাখছে সেই সন্তান পরবর্তিতে বড় হয়ে হিং¯্র মানুষ হয়ে ওঠার সম্ভাবনা আছে না কি নেই ?
আমরা অনেক কিছু করি, আমাদের আচরণের নেপথ্যে কি প্রভাব রয়েছে তা অনেক সময় আমরা নিজেরা ব্যাখ্যা করতে পারি না। কিন্তু মনোবিজ্ঞানীরা জানেন, আমাদের বর্তমানের সকল আচরণই অতীত জীবনের নানা ধরনের ঘটনা দ্বারা প্রভাবিত। সে কারণেই বলা হয়, আমি বর্তমানে যা তা হচ্ছে আমার অতীতের কর্মফল! একই সূত্রে বলা হয়, আমার আগামী কেমন হবে তা নির্ভর করছে আমি বর্তমানে কি করছি তার উপর। আমাদের বর্তমান সমাজটা যদি আমরা ঠিক করতে না পারি, আমরা যদি সচেতন না হই, আমরা যদি পারস্পরিক শ্রদ্ধা, সৌহার্দ্য এবং আন্তরিকতায় শান্তিময় পারিবারিক ও সামাজিক জীবন গড়তে না পারি তাহলে আমাদের আগামীদিন আরও বর্বর ও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে! আমরা কি সেটা চাই?
নেপোলিয়ন একদা বলেছিলেন, আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাকে একটি শিক্ষিত জাতি দেব। এই কথার দ্বারা বোঝা যায় মায়ের উপর নির্ভর করে একটি জাতি কিভাবে গড়ে উঠবে। বিভিন্ন ধর্ম ও দর্শনেও নারীদের প্রতি সদয় হওয়ার তাগিদ রয়েছে। কেউ কেউ বলেন, একটি সুন্দর সমাজ গড়ে তোলার জন্য সমাজের নারীদের, বিশেষ করে মায়েদের দিকে নজর দিতে হবে। মেয়েদের ও মায়েদের জন্য সুন্দর ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করতে পারলে, তাদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে পারলে এবং তাদের সাথে সব সময় সদাচরণ করা হলে আমরা একটি সুন্দর সমাজ গড়ে তুলতে পারব। পবিত্র কোরান শরীফে সুরা নাহল – এ সংক্রান্ত একটি আয়াতই নাযিল করা হয়েছে। হাদিসে বলা হয়েছে, যে ব্যক্তি কন্যা সন্তানের প্রতি সদয় থাকবে এবং তাদের প্রতিপালন করবে তাদের জন্য তিনটি পুরস্কার নির্ধারিত রয়েছে। এক, জাহান্নাম থেকে মুক্তি, দুই. জান্নাতে প্রবেশের নিশ্চয়তা এবং তিন. জান্নাতে রাসুল (সঃ) এর সঙ্গী হওয়ার সৌভাগ্য।

আলোকিত সমাজ গড়ে তোলার জন্য আমাদের সন্তানদের মধ্যে আলো ছড়াতে হবে। তাদের মধ্যে নারীর প্রতি শ্রদ্ধা ও সমাজের প্রতি দায়িত্বশীলতা গড়ে তোলার শিক্ষা দিতে হবে। এটা খুবই দুর্ভাগ্যের বিষয় যে, আজকের বাবা-মায়েদের একটা বড় অংশ সন্তানদের সফল হিসেবে দেখতে চান। তাদের সব সময় শেখান, সফলতার সূচক হচ্ছে ধন সম্পদের প্রাচুর্যময় জীবন! তাদের কাছে রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, সুভাষ বসু, মহাত্মা গান্ধী, হাজী মুহম্মদ মহসিন, বিদ্যাসাগর, আরজ আলী মাতুব্বর প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ কোন আদর্শ নয়। আমরা আমাদের সন্তানদের স্বার্থপর হতে শেখাই, দেশ ও সমাজের কল্যাণে নিবেদিত হতে শেখাই না। এই স্বার্থপরতা ও হীনতা ও ক্ষুদ্রতা আমাদের ভবিষ্যতকেই ক্ষতিগ্রস্ত করবে। আমরা যেন নিজেদের দিকে তাকাই এবং একটি সুন্দর সমাজ গড়ে তোলার জন্য নিজেদের চিন্তা ও কর্মের মধ্যে সমন্বয় সাধনের চেষ্টা করি। আমাদের ভবিষ্যত আমাদেরই গড়তে হবে। আমাদের সার্থকতা ওটাই যা আমরা আমাদের সন্তানদের শিখিয়ে যাচ্ছি।

আমরা যেন আমাদের সন্তানদের কেবল গাদ গাদা বই পড়তে এবং পরীক্ষায় ভাল ফল করার জন্য চাপ না দেই। আমরা যেন ওদের উদ্বুদ্ধ করি জীবন সম্পর্কে সচেতন হতে। আমরা যেন তাদেরকে সত্যিকারের আলোর সন্ধান দিতে পারি। আমরা যেন তাদেরকে শেখাই, সত্যের জন্য সবকিছু ত্যাগ করা যায় কিন্তু কোন কিছুর জন্যই সত্যকে ত্যাগ করা যায় না! আমাদের সন্তানদের টাকা কামানোর মেশিন বানানোর আগে আমরা যেন মনে রাখি, আমাদের সার্থকতা কোথায়। বগুড়ার সাবেক পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক এর ফেসবুক ওয়াল থেকে আমি নীচের ঘটনাটা জেনেছি। আমার বক্তব্যের স্বার্থে আমি সেটা আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

কিরজেইডা রডরিগুয়েজ নামের একজন বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার শরীরে ক্যান্সার নিয়ে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে লিখেছেন, “পৃথিবীর সবচেয়ে দামী ব্রান্ডের গাড়িটি আমার গ্যারাজে পড়ে আছে। কিন্তু আমাকে বসে থাকতে হয় হুইল চেয়ারে। সব রকমের ডিজাইনার কাপড়, জুতো, দামি জিনিসে আমার গৃহ ভরপুর। কিন্তু আমার শরীর ঢাকা থাকে হাসপাতালের দেয়া সামান্য একটা চাদরে। প্রাসাদের মতো আমার বাড়ি কিন্তু আমি শুয়ে আছি হাসপাতালের টুইন সাইজের একটা বিছানায়। ব্যক্তিগত জেট প্লেনে আমি যেখানে খুশি সেখানেই উড়ে যেতে পারতাম। কিন্তু হাসপাতালের বারান্দায় যেতেও এখন আমার দুজন মানুষের সাহায্য নিতে হয়। পৃথিবীব্যাপী ভরপুর নানা খাবার আর পানীয় থাকলেও দিনে দুটো পিল আর রাতে সামান্য  স্যালাইন আমার খাবার। আমার চুলের সাজের জন্য সাতজন বিউটিশিয়ান ছিলো-আজ আমার মাথায় কোনো চুলই নেই। এই গৃহ, এই গাড়ি, এই জেট, এই আসবাবপত্র, এতো এতো ব্যাংক একাউন্ট, এতো সুনাম আর এতো খ্যাতি এগুলোর কোনো কিছুই আমার আর কোনো কাজে আসছেনা। এগুলোর কোনো কিছুই আমাকে একটু আরাম দিতে পারছেনা। শুধু দিতে পারছে- প্রিয় কিছু মানুষের মুখ, আর তাদের স্পর্শ।সুতরাং আমরা যদি সুখী হতে চাই, সুন্দর সমাজ চাই আর নিরাপদ ভবিষ্যত গড়ে তুলতে চাই তাহলে আমাদের লোভাতুর চিন্তায় পরিবর্তন আনতে হবে। মায়া, মমতা, ভালবাসা, পারস্পরিক নির্ভরশীলতায় আমাদের বাঁচতে শিখতে হবে। আমাদের সন্তানদের মধ্যে স্বার্থচিন্তার চাইতে পরার্থপরতার প্রেরণা জাগিয়ে তুলতে হবে। ছোট্ট শিশুর কোমল হৃদয়ে আমরা যেন হিংসার বিষবৃক্ষ না লাগাই। সকলের মঙ্গল হোক। সুন্দর ও নিরাপদ হোক আমাদের আগামী।দৈনিক করতোয়া
লেখক : সংগঠক-প্রাবন্ধিক
miton2021@gmail.com
০১৭১১-৫২৬৯৭৯

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে উপজেলা পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় কমলগঞ্জ সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে টুর্ণামেন্টের আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক এর সভাপতিত্বে এবং প্রধান শিক্ষক মোশাহিদ আলী ও গাজী সালাউদ্দিনের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রামভজন কৈরী, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. হেলাল উদ্দিন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোশারফ হোসেন, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয়কুমার হাজরা প্রমুখ।
টুর্ণামেন্টের উদ্বোধনী খেলায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে (বালকদের) দেওড়াছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ট্রাইব্রেকারে ৩-০ গোলে গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে এবং বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে (মেয়েদের) কুমড়াকাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩-২ গোলে পতনঊষার বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিক্ষা অফিস, কমলগঞ্জ আয়োজিত এই টুর্ণামেন্টে নয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মিলিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ১০টি দল ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ টুর্ণামেন্টে ১০টি দল অংশগ্রহণ করে।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: বেকারত্ব দূরীকরণ ও মৎস্য উৎপাদনের লক্ষে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় মৎস্যজীবি সমিতির লিজকৃত একটি খামারে ২শ’ কেজি কার্প জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের মাধ্যমে বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের তিলকপুর পুকুরে এসব মাছের পোনা আনুষ্ঠানিকভাবে অবমুক্ত করা হয়।
জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প, মৎস্য অধিদপ্তর বাংলাদেশ এর আওতায় কমলগঞ্জ উপজেলার ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে পুণ:খননকৃত তিলকপুর পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক ও মৌলভীবাজার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. ইমদাদুল হক। কমলগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আসাদ উল্ল্যার সভাপতিত্বে মৎস্যজীবিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উত্তরা মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সভাপতি মো. মেন্দি মিয়া। অনুষ্ঠানে ২০০ কেজি কার্প জাতীয় মাছের পোনা ও ২ মে.টন মাছের খাবার বিতরণ করা হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান বলেন, মাছ আমিষের চাহিদা পূরণ করে। মানুষের শরীর গঠনে মাছ খাওয়া অতি প্রয়োজন। কথায় বলে আমরা ভাতে-মাছে বাঙালি। মাছ আমাদের সবার প্রিয় খাদ্য। স্বল্প ব্যয়ে মাছ চাষ করে অধিক আয় করা সম্ভব। মৎস্য চাষ করে সাবলম্বী হতে হলে সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা প্রয়োজন।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানে এক চা শ্রমিক ও সিএনজি অটোরিক্সা চালকের বাসার কলাপসিবল গেইট ও দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে নারী পুরুষ সবাইকে বেধে রেখে এক শিশুর গলায় দা ধরে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকতাদল ঘরের সব কিছু তছনছ করে নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কারসহ ৩ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে। মঙ্গলবার (২ জুলাই) দিবাগত রাত দেড়টা থেকে আড়াইটার মধ্যে শমশেরনগর ৬ নম্বর শ্রমিক বস্তিতে এ ঘটনাটি ঘটে। অপর ঘটনাটি মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টায় পাশ্ববর্তী কানিহাটি চা বাগানে নারায়ন বীনের বাসায় একইভাবে ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। পুলিশ ও জনপ্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
ডাকাত আক্রান্ত শমশেরনগর সিএনজি অটোরিক্সা চালক অন্তর রাজভর বলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বাসার সবাই ঘুমিয়ে পড়লে রাত দেড়টার দিকে ১৬ থেকে ১৭ জনের মুখোশপরা সশস্ত্র একদল ডাকাত প্রথমে বাসার কলাপসিবল গেইট ভাঙ্গে। পরে তারা ঘরের সামনের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। এসময় তিনি ঘুম থেকে উঠে পড়লে তাকে ও তার বাবাকে এক রঁশিতে বেধে ফেলে। তার মাসহ ঘরের নারীদেরও বেঁধে এক পর্যায়ে একটি শিশুর গলায় লম্বা একটি দা ধরে ঘরের আলমারী ভেঙ্গে তছনছ করে। সে সময় পরিবারের তিন সদস্যের কষ্টের সঞ্চিত নগদ ৩০ হাজার টাকা, আড়াই ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ৫টি মুঠোফোন, একটি ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি, সিলিন্ডারসহ গ্যাসের চুলা ও একটি ডিভিডি লুটে নেয় ডাকাতদল। ডাকাতদল ঘরের আইপিএস সংযোগ খুলে নিলেও বাসার বাইরে ফেলে যায়। সব মিলিয়ে ৩ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে। অন্তর রাজভর আরও বলেন ডাকাতদলের দুই এক জনের হাতে পিস্তল ও বাকিদের সবার হাতে লম্বা দা ছিল।
কানিহাটি চা বাগানের নারায়ন বীনের ছেলে সঞ্জীব বীন বলেন, একইভাবে ডাকাতদল এ বাসারও দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে বাসার সবাই বেধে রেখে ডাকাতি করেছে। তারা ব্যবসার নগদ ৬০ হাজার টাকা, ৩ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ব্যবহারীসহ বিক্রির জন্য রাখা ১৫টি মুঠোফোনসহ প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে।
কানিহাটি চা বাগনের ওয়ার্ড ইউপি সদস্য সীতারাম বীন বলেন, একইভাবে পাশাপশি দুটি চা বাগানে ডাকাতি ঘটনায় সাধারণ চা শ্রমিক পরিবারে আতঙ্ক বিরাজ করছে। গত সপ্তাহেও আলীনগর চা বাগানে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছিল।
শমশেরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ বলেন, যেভাবে ডাকাতি হয়েছে তাতে বাঁধা দিলে বাসার লোকজন হতাহত হতেও পারতেন। ঘটনাটি পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।
শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) অরুপ কুমার চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

অনুজকান্তি দাশ,শ্রীমঙ্গল থেকেঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় উন্মুক্ত বাজেট অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্প্রতি শ্রীমঙ্গল পৌরসভার মেয়র মহসিন মিয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, চলতি জুলাই/২০১৯ হতে জুন ২০২০ অর্থ বছরের জন্য এই পৌরসভায় ৩২ কোটি ৭৮ লক্ষ টাকার আয়-ব্যায়ের সম্ভাব্য বাজেট ঘোষনা করা হয়। এর আগে বিভিন্ন সময়ে উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদে পৃথক র্পথক ভাবে বাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে।

এতে স্ব-স্ব ইউপি চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ১নং মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ২৭ লক্ষ ৬৫ হাজার, ২নং ভূনবীর ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ১৭ লক্ষ ৭৮ হাজার ৫০০, ৩নং শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ৮১ লক্ষ ২৫ হাজার ৮৮৫, ৪নং সিন্দুরখান ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ১২ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৬৬ , ৫নং কালাপুর ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ৯০ লক্ষ ৩১ হাজার ৪০৯, ৬নং আশীদ্রোণ ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ১৮ লক্ষ ৪৬ হাজার ৫০, ৭নং রাজঘাট ইউনিয়ন পরিষদে ৮৮ লক্ষ ৫৩ হাজার ২২৫, ৮নং কালীঘাট ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ৩৫ লক্ষ ৪৪ হাজার ৭৪৫ ও ৯নং সাতগাঁও ইউনিয়ন পরিষদে ১ কোটি ৭ লক্ষ ১৬ হাজার ৪৫ টাকার সম্ভাব্য বাজেট প্রস্তাবিত হয়।

ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে আ’লীগ সভাপতি ও তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলির মামলায় ৯ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার বেলা ১১টা ৫৭ মিনিটে পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রুস্তম আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এ ছাড়া রায়ে ২৫ জনের যাবজ্জীবন, ১২ জনের ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের সিনিয়র আইনজীবী গোলাম হাসনায়েন ও আহাদ বাবু বিষয়টি জানান।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন- মাহবুবুর রহমান পলাশ, শামছুল আলম, মোখলেছুর রহমান বাবলু, একেএম আখতারুজ্জামান, জাকারিয়া পিন্টু, মোস্তাফা নুরে আলম শ্যামল, শহিদুল ইসলাম অটল, শামসুজ্জামান ও মুজিবুর রহমান। গত সোমবার পাবনার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-১ এ মামলায় কারাগারে থাকা বিএনপির ৩০ নেতা-কর্মীর উপস্থিতিতে উভয়পক্ষের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি তুলে ধরেন।

উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারক রোস্তম আলী এ মামলার রায়ের জন্য  বুধবার দিন ধার্য করেন। এদিকে মামলার রায়ের আগে পলাতকদের মধ্যে হুকুমদাতাসহ আরও দু’জন গত মঙ্গলবার আত্মসমর্পণ করেন। তারা হলেন- ঈশ্বরদী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি মকলেছুর রহমান বাবলু এবং বিএনপি নেতা আবদুল হাকিম টেনু। পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক রুস্তম আলীর আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে তিনি জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর খুলনা থেকে ট্রেনে ঈশ্বরদী হয়ে সৈয়দপুরের দলীয় কর্মসূচিতে যাচ্ছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলের নেত্রী শেখ হাসিনা। তাকে বহনকারী ট্রেনটি ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে প্রবেশের মুহূর্তে ওই ট্রেন ও শেখ হাসিনার কামরা লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুর্বৃত্তরা। স্টেশনে যাত্রাবিরতি করলে আবারও ট্রেনটিতে হামলা চালানো হয়।

এ ঘটনায় পরবর্তীতে দলীয় কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করে শেখ হাসিনা দ্রুত ঈশ্বরদী ত্যাগ করেন। পরে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জিআরপি থানার ওই সময়কার ওসি বাদী হয়ে তৎকালীন ছাত্রদল নেতা ও বর্তমানে ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুসহ সাতজনকে আসামি করে মামলা করেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর পুলিশ মামলাটি পুনঃতদন্ত করে। তদন্ত শেষে নতুনভাবে স্থানীয় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীসহ ৫২ জনকে এ মামলার আসামি করা হয়।

এদিকে মামলা করার পর ওই বছর কোনো সাক্ষী না পেয়ে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ। কিন্তু আদালত ওই প্রতিবেদন গ্রহণ না করে অধিকতর তদন্তের জন্য তা সিআইডিতে পাঠান। পরে তদন্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে সিআইডি।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc