Monday 19th of August 2019 12:49:43 PM

কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সরকারিভাবে কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার কথা ও সময়সীমা থাকার পরও তালিকাভুক্ত প্রকৃত কৃষকদের ফিরিয়ে দিয়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে খাদ্য গোদামে ব্যবসায়ীদের ধান গ্রহন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কৃষি বিভাগ ও খাদ্য গোদাম কর্তৃপক্ষ মিলিতভাবেই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সুবিধা গ্রহনে অনিয়মের করে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ধান কিনিছেন বলে বি ত কৃষক ও ইউপি চেয়ারম্যান এ অভিযোগ করেছেন। খাদ্য গোদাম কর্তৃপক্ষ ও কৃষি কর্মকর্তা অনিয়ম করেননি বলে দায়সারা জবাব দিয়েছেন।কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত কৃষক উত্তরভাগ গ্রামের সানুর মিয়া, উত্তর ভানুবিল গ্রামের সুরেন্দ্র সরকার, ভানুবিল গ্রামের মাছিম আলী, মধ্যভাগ গ্রামের আজিজ খান ও কোণা গাঁওয়ের সেলিম রাজা অভিযোগ করে বলেন, ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে সরকারি গোদামে ধান বিক্রির জন্য তাদের ১৮ জনের তালিকা দেওয়া হয়েছিল। তারা ১৮জন কৃষক ১৮ মে:টন ধান কমা করার কথা।
তালিকা অনুযায়ী ১৮ জন আদমপুর ইউনিয়ন থেকে গেলে কমলগঞ্জ উপজেলা সদরের ভানুগাছ খাদ্য কর্র্তপক্ষ এ তালিকা থেকে ঘোড়ামারা গ্রামের কৃষক হেলাল মিয়া, ভানুবিল গ্রামের মুসলিম আলী ও আধকানী গ্রামের শাহাবুদ্দীনসহ মোট ১০ জনের কাছ থেকে ১০৪০ টাকা মন দরে ধান ক্রয় করেন। আর ৮জনকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। কৃষকরা আরও বলেন, ফিরিয়ে দেওয়া ৮ জন কৃষকের বদলে নগদ সুবিধা গ্রহন করে ৮জন ব্যবসায়ীর কাজ থেকে ধান গ্রহন করা হয়েছে।
আদমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন বলেন এবার সারা উপজেলা থেক ১৭৮ মে:টন ধান কেনার টার্গেট দেওয়া হয়েছিল। সে হিসেবে আদমপুর ইউননিয়ন থেকে ১৮ মে:টন ধান কেনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গত ১০ জুলাই তাকে (চেয়ারম্যানকে) পত্র দিয়ে কৃষকের তালিকা দিয়ে ধান জমার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন। তিনি প্রকৃত কৃষকের তালিকা করে মোট ১৮ জনের নাম কৃষি অফিসে পাঠিয়েছিলেন ১৮ জুলাই। ধান ক্রয়ের সর্বশেষ তারিখ ছিল ৩১ আগষ্ট। তালিকাভুক্ত কৃষকরা ২৩, ২৪ ও ২৫ জুলাই ধান নিয়ে ভানুগাছ খাদ্য গোদামে গেলে ১৮ জনের মধ্যে ১০ জনের ধান গ্রহন করে বাকি ৮জনকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। চেয়ারম্যান আবদাল আরও বলেন একটি সিন্ডিকেট করে কৃষি বিভাগ ও খাদ্য গোদাম কর্তৃপক্ষ তার ইউনিয়ন থেকে ৮ মে:টন ধান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কিনিছেন। বিষয়টি নিয়ে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলবেন ও আগামী সমন্বয় সভায়ও উপস্থাপন করবেন বলে জানান।
কমলগঞ্জ খাদ্য গোদাম কর্মকর্তা সবিতা রানী দেব এ প্রতিনিধিকে বলেন, আদমপুরের তালিকাভুক্ত কৃষকরা ধাম জমা করতে বিলম্ব করছিল। খাদ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে যে কৃষকরা আগে আসবে তাদের ধান গ্রহন করা হবে। সে হিসেবে আদমপুরের পিছিয়ে পড়া ৮ জন কৃষকের স্থলে তালিকাভুক্ত আরও ৮ জন কৃষকের কাছ থেকে ৮ মে:টন ধান কেনা হয়েছে। এখানে কোন অনিয়ম করা হয়নি। সময় সীমা ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত থাকলেও কেন তড়িঘড়ি করে আদমপুর ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত ৮ জন কৃষকের ধান গ্রহন না করে নতুন করে চেয়ারম্যানের তালিকার বাইরের ৮জনের কাছ থেকে ধান কেনা হল ? এ প্রশ্নের সঠিক জবাব দিতে পারেনি খাদ্য গোদাম কর্তৃপক্ষ।
অভিযোগ সম্পর্কে কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আনিসুজ্জামান বলেন, ধান ক্রয়ে কোন অনিয়ম হয়নি। তিনি দায়সারাভাবে বলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের ধান গ্রহ্রনের শেষ মেয়াদ ছিল ৩১ জুলাই। আদমপুরের কৃষকরা ধান জমা করতে বিলম্ব করছে দেখে বাদ পড়া ৮ জনের স্থলে নতুন করে ৮ জন কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনা হয়েছে। কৃষকরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ২৩, ২৪ ও ২৫ জুলাই পরপর ৩ দিন খাদ্য গোদামে গেলে কেন কেন তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হলো প্রশ্ন করা হলে কৃষি কর্মকর্তা সঠিক জবাব দিতে পারেননি।
কমলগঞ্জ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাসরিন চৌধুরী বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। এ বিষয়ে আদমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের সাথে তিনি কথা বলবেন বলেও জানান।

২০১৫ সালে পেট্রোল বোমা, আগুনসন্ত্রাস, নতুন করে উগ্র সশস্ত্র জঙ্গিবাদের উত্থানের প্রেক্ষিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বোধসম্পন্ন নাগরিক ও বিভিন্ন সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে গঠিত হয় ‘জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ মোর্চা’। সেই থেকে ধারাবাহিকভাবে জঙ্গিসন্ত্রাসের প্রতিবাদে সভা-সমাবেশ সহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে এই মোর্চা। নিরাপদ সড়ক আন্দোলনকে কেন্দ্র করে দেশে গুজবের যে মহোৎসব শুরু হয়, সে প্রেক্ষিতে গুজব প্রতিরোধে এই মোর্চার উদ্যোগে স্কুল/কলেজ/বিশ^বিদ্যালয় কেন্দ্রিক প্রচার ও ক্লাস ক্যাম্পেইন করা হয়। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে গুজব ও অপপ্রচারে ছেয়ে গেছে। গুজব ছড়িয়ে ও অপপ্রচার চালিয়ে গণপিটুনি, সাম্প্রদায়িক উস্কানি, নারী ও শিশু নির্যাতন, রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে উস্কানি, রাষ্ট্রে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির চেষ্টা হচ্ছে। আবার ডেঙ্গুর মতো চলমান ভয়াবহ সঙ্কটকেও গুজব বলে উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। এসবের ফলে অনিরাপদ হয়ে উঠছে রাষ্ট্র থেকে জনজীবন।
এ প্রেক্ষিতে জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ মোর্চার উদ্যোগে ‘গুজব ও অপপ্রচার রোধে আমাদের করণীয়’ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠক আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ৩ আগস্ট শনিবার বিকাল ৩টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিঞা মিলনায়তনে (ভিআইপি লাউঞ্জ) এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।
এ গোলটেবিল বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক উম্মে ওয়ারা মিশু। সম্মানিত আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, র‌্যাপিড একশন ব্যাটালিয়ান-র‌্যাব এর পরিচালক (লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইং লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোঃ এমরানুল হাসান, সিআইডি’র অরগানাইজড ক্রাইম বিভাগের এসপি মোল্লা নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. এম এম আকাশ, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক ও প্রাক্তন এমপি নাজমুল হক প্রধান, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দায় পাটোয়ারি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য নুর আহমদ বকুল, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খায়ের মাহমুদ, প্রাক্তন সংসদ সদস্য সানজিদা খানম, সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের আহ্বায়ক মোহাম্মদ এ আরাফাত, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের উর্দু বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাওলানা হুসাইনুল বান্নাহ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের প্রাক্তন সভাপতি কাজল দেবনাথ, বাংলাদেশ খ্রিস্টান এসোসিয়েশনের সভাপতি নির্মল রোজারিও, বাংলাদেশ বুড্ডিস্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ভিক্ষু সুনন্দপ্রিয় এবং সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ফারজানা মাহমুদ।
এ কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করবেন জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ মোর্চার আহ্বায়ক ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ।

ভারতীয় সংসদে তাৎক্ষণিক তালাক বিল পাসকে ‘ভারতীয় গণতন্ত্রের একটি কালো দিন’ বলে অভিহিত করল মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বোর্ডের পক্ষ থেকে ওই মন্তব্য করা হয়েছে।

সংসদের উভয়কক্ষে (লোকসভা ও রাজ্যসভা) ট্রিপল তালাক বিল পাসের ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড বলেছে, অবশ্যই এটা ভারতীয় মুসলিম নারীদের বিরোধিতা সত্ত্বেও মোদি সরকার সংসদের নিম্ন ও উচ্চকক্ষে ট্রিপল তালাক বিল পাস করেছে। আমরা লাখো নারীর পক্ষ থেকে ওই পদক্ষেপের নিন্দা জানাচ্ছি।

মুহাম্মাদ নুরুদ্দিন

এ ব্যাপারে জামায়াতে ইসলামী হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সভাপতি মুহাম্মাদ নুরুদ্দিন আজ (বুধবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘অবশেষে ট্রিপল তালাক বিল সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভা ও উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হয়ে গেল। এই বিলের মধ্যে যথেষ্ট অসঙ্গতি, অসম্পূর্ণতা রয়েছে। বিল পাসের মধ্য দিয়ে অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারি মানসিকতা ফুটে উঠেছে। কেন্দ্রীয় সরকার বার বার করে মুসলিম নারীদের সুরক্ষার কথা বলে ট্রিপল তালাক বিল নিয়ে আসার জন্য সাফাই দিয়েছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এটা মুসলিম নারীদের সুরক্ষা নয়, বরং মুসলিম পরিবারগুলোকে ধ্বংস করার একটা ষড়যন্ত্র। কেননা এই বিলে বলা হয়েছে তাৎক্ষণিক ট্রিপল তালাক দিলে সেই তালাক গ্রহণযোগ্য হবে না। অথচ স্ত্রী যদি আদালতে অভিযোগ করে তাহলে স্বামীকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয়া হবে। প্রশ্ন হচ্ছে এই যে, তালাক যখন সংগঠিত হল না, স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক যখন থাকবে তখন স্বামীকে তিন বছর যদি কারাদণ্ডের সাজা ভোগ করতে হয় তাহলে তিন বছর পরে সেই পরিবার আবার কীভাবে সুখের পরিবার থাকবে ও সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে তারা সংসার করতে পারবে?’

তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয়ত, মুসলিম নারীদের সুরক্ষার জন্য মুসলিম যে ধর্মীয় বিধান বা কুরআনের যে শরীয়া ল’ সেই শরীয়া ল’তে তালাকের যে অপশন দেয়া হয়েছে, তালাকের বৈধ-অবৈধ দিকের কথা বলা হয়েছে, কোন তালাক হবে, কোন তালাক হবে না তার উল্লেখ রয়েছে। মুসলিম পার্সোনাল ল’বোর্ড ও মুসলিম পার্সোনাল ল’ ভারতীয় ল’য়ের মধ্যে সংযুক্ত করা আছে। এবং সেই বিধান মুসলিম পরিবারগুলোকে যথেষ্ট শান্তি দিতে সক্ষম হয়েছে এবং হিন্দু ও অন্যান্য সমাজের থেকে মুসলিম সমাজের মধ্যে পারিবারিক শৃঙ্খলা, পারিবারিকা আইন অত্যন্ত সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণ রয়েছে। অথচ আমরা প্রতিবেশি বিশেষ করে হিন্দু বোনদের ও হিন্দু ভায়েদের দেখছি তাদের পারিবারিক জীবনে চরম অশান্তি, নারীদের উপরে চরম অত্যাচার, দৈহিক নির্যাতন, নারীদেরকে পুড়িয়ে মারার ঘটনা, বধূ নির্যাতন অহরহ ঘটছে। কিন্তু তাদের ব্যাপারে সরকার কোনও ভূমিকা গ্রহণ করেনি। সরকার শুধু মুসলিম নারীদের সুরক্ষার জন্য এধরণের বিধান পাস করতে চলেছে। এটা আসলেই একটা ছলনা। ভারতে তারা (বিজেপি) যেহেতু সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে সুতরাং তারা তাদের যে লক্ষ্য, সেই লক্ষ্যে তারা পৌঁছে যেতে চায়। মুসলিম নারী সুরক্ষার  নামে মুসলিম পরিবারগুলোতে ধ্বংস ডেকে আনা এবং মুসলিম সমাজের মধ্যে একটা অশান্তি তৈরি করাই তাদের লক্ষ্য।’

মুহাম্মাদ নুরুদ্দিন বলেন, ‘আমি ভারতীয় মুসলিম সমাজের কাছে আবেদন জানাতে চাই যে, সরকার যে বিধান নিয়ে এসেছে আমরা সর্বোতভাবে এর নিন্দা করি। কিন্তু আমরা যেন কোনোভাবেই সরকারের ওই প্ররোচনায় পা না দিই। আমরা আমাদের পারিবারিক জীবন যদি শরীয়া মোতাবেক চালাই, আমরা আমাদের স্ত্রীদের অধিকার দিই, তাদের সঙ্গে সুষ্ঠু সুসম্পর্ক রক্ষা করি এবং আমাদের পারিবারিক বিবাদগুলো শরয়ী ল’য়ের মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে মীমাংসা করে নেয়ার চেষ্টা করি তাহলে সরকারের ওই ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হবে, তারা মুসলিম পরিবার গুলোতে কোনও অশান্তি সৃষ্টি করতে পারবে না। সেজন্য আমি ওই বিলের বিরোধিতা করার পাশপাশি মুসলিম সমাজের কাছে আবেদন জানাবো তারা যেন নিজেদের ধর্মীয় বিধানে আনুগত্যের মধ্য দিয়ে ওই বিলের প্রতিবাদ করে এবং ওই বিল যেন অকেজো হয়ে যায়।’

সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভায় গত ২৫ জুলাই ট্রিপল তালাক বিল পাস হয়। অন্যদিকে, গতকাল ৩০ জুলাই (মঙ্গলবার) সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিরোধীদের তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও সরকারপক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় বিতর্কিত ওই বিল পাস হয়ে যায়।পার্সটুডে

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল সদর হাসপাতালে সরকারিভাবে ডেঙ্গু সনাক্তকরণে পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যোবস্থা না থাকায় একটি সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ১৫টি কিট (ডেঙ্গু সনাক্তকরণে ডিভাইস) দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০জুলাই) ‘হৃদয়ে নড়াইল’ নামে একটি সংগঠন ফ্রি এ কিটগুল বিতরণ করেছে। নড়াইল সদর হাসপাতালের সভাকক্ষে এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার নিকট এ কিট হস্তান্তর করেন “হৃদয়ে নড়াইল” এর কর্মকর্তা গন। এ সময় সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. মশিউর রহমান বাবু, গনপূর্ত বিভাগ ,নড়াইলের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আহসান হাবিব , ডাঃ মিনা হুমাউন কবির, পৌর কাউন্সিলর ও হৃদয়ে নড়াইলের কর্মকর্তা শরফুল আলম লিটু, জাতীয় মহিলা সংস্থা ,নড়াইলের চেয়ারম্যান ও হৃদয়ে নড়াইলের কর্মকর্তা সালমা রহমান কবিতাসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সোমবার (২৯জুলাই) দুজন ঢাকা থেকে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরে তাদের পরীক্ষা করে দেখা যায় তারা ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত। এ দুজন বর্তমানে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
নড়াইল সদর হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডা. আব্দুস সাকুর বলেন, প্রাথমিকভাবে ডেঙ্গু সনাক্তকরণে এসএনওয়ান,আইজিজি এবং আইজিএম এই তিনটি টেস্ট-এর কিট সরকারিভাবে বরাদ্দ না থাকায় আপাতত স্থানীয়ভাবে ১৫টি কিট সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে একটি জরুরি মেডিকেল টিম এবং কন্ট্রোল রুম করা হয়েছে।
সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. মশিউর রহমান বাবু বলেন, ‘হৃদয়ে নড়াইল’ নামে একটি সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার ফ্রি ১৫টি কিট পাওয়া গিয়েছে । সংগঠনটি আরও ১৫টি কিট বিতরণ করতে চেয়েছে। কিটগুলি ফ্রি পাওয়া গিয়েছে বিধায় এগুলো দিয়ে রোগিদের ফ্রি পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে। হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগিদের জন্য আলাদা একটি কর্ণার করার চিন্তা করা হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

মোঃ জুমান হোসেনঃ  বিভিন্ন উপায়ে কম্পিউটার বিজ্ঞানের বৈচিত্র অতুলনীয়।‘প্রযুক্তি জীবনের এক উপায়’ এবং প্রযুক্তির প্রবেশদ্বার হল কম্পিউটার বিজ্ঞান।মুভি দেখা থেকে শুরু করে গেমস খেলা, গান শোনা, নেট ব্রাউজিং- কী না আমরা কম্পিউটার দিয়ে করি। কম্পিউটার বিজ্ঞান এককভাবে আমাদের জীবনের প্রায় সব ক্ষেত্রেই  প্রভাবকে বিস্তার করেছে। 

এটি একটি জ্ঞাত সত্য যে প্রতিনিয়ত  সাংবাদিকতা বিকশিত হতে থাকে।কম্পিউটার বিজ্ঞান  সাংবাদিকতা পেশাকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে। এখন সাংবাদিকদের কম্পিউটার বিষয় অনেক জ্ঞান রাখতে হয়। মুদ্রণ মাধ্যম ও বৈদ্যুতিন মাধ্যম উভয় ক্ষেত্রেই এখন কম্পিউটারের জন্য অবারিত দ্বার। মুদ্রণ মাধ্যমের ক্ষেত্রে প্রতিবেদন তৈরি করা, ছবির মাপ ঠিক করা, পাতা সাজানো কিংবা বৈদ্যুতিন মাধ্যমে যে কোনও ধরনের অনুষ্ঠান তৈরি ও তার সম্প্রচারের কাজ হয় কম্পিউটারের মাধ্যমে।অনেক সংবাদপত্র কম্পিউটার প্রকৌশলী নিয়োগ দিচ্ছে এই সব কাজের জন্য।
সংবাদ পরিবেশনার ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত পরিবর্তনের বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে বিশ্বের গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর সংস্থা, ইন্টারন্যাশনাল নিউজ মিডিয়া এসোসিয়েশন, ইনমা। ইনমার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, আর্ল জে. উইলকিনসন বলেন, আমি মনে করি, সাংবাদিকতা বিভিন্ন প্লাটফর্মের সঙ্গে, প্রযুক্তির ব্যাপ্তির সঙ্গে সমন্বয় করছে। আপনি জানেন, একটা সময় ছিল, যখন আপনি সাধারণ বর্ণনামূলক লেখা ইত্যাদি লিখতে পারতেন, কিন্তু এখন সেই লেখা টুইটারে ১৪০ বর্ণে, আই-প্যাডে আর কার্যকর নয়।
এ ধরনের বহু প্লাটফর্মে সাদামাটা বর্ণনামূলক লেখা আর কাজ করছে না। কাজেই সাংবাদিকতায় শুধুমাত্র সংবাদ লেখার চেয়ে, ভিডিওচিত্র এবং ধারণকৃত শব্দের মাধ্যমে কীভাবে আমরা গল্পটা বলতে পারি, তা নিয়ে আমি ভাবছি। সাংবাদিকতায় এই পরিবর্তনটাই ঘটছে।

এম ওসমান : যশোরের শার্শা উপজেলার গোগা-কালিয়ানী সীমান্ত থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের (২৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
যশোরের শার্শার বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক (তদন্ত) শুকদেব রায় বলেন, বুধবার সকালে উপজেলার গোগা-কালিয়ানি সীমান্তের খড়ের মাঠ নামক স্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।
শুকদেব রায় বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরি দিয়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে তাকে গুলি করা হয়েছে কিনা পুলিশ সেটা নিশ্চিত করতে পারেনি।
এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত স্থানীয়রা তার পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি।
লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য যশোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত ছাড়া কিছু বলা যাবে না।

মিনহাজ তানভীরঃ কিশোরগঞ্জ জেলার ঐতিহ্যবাহী উপজেলা হাওড় বেষ্টিত অষ্টাগ্রামের সুন্নী মুসলমানদের মধ্যে সিলসিলায়ে আশরাফীয়ার অনুসারীদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন একটি সুন্নি প্রতিষ্টান, আল্লাহর রহমতে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি সাল্লামের নেগাহ ক্রমে এবং তারেকে সালতানাত গাউসুল আলম শাহ সৈয়্যদ মাখদুম আশরাফ জাহাগীর সিমনানী পাকের (রাঃ) নেক নজরে হুজুর কায়েদে মিল্লাত প্রতিষ্টা করলেন অষ্টাগ্রাম উপজেলার মসজিদ জাম এলাকার মৌলভীবাড়ীতে “মাদ্রাসায়ে আশরাফীয়া আহলে সুন্নাত মোখতারুল উলুম”।

গতকাল কায়েদে মিল্লাত আলে রাসুল ﷺ আউলাদে গাউছে পাক শাহ সৈয়্যদ মুফতি মুহাম্মদ মাহমুদ আশরাফ আল আশরাফী আল জিলানী (মাঃজিঃআঃ) এর নির্দেশক্রমে মাখদুম পাকের পবিত্র ফাতেহার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসার আনুষ্ঠানিক ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়।

মাদ্রাসাটি আওলাদে গাওছে পাক,আলে রাসুল ﷺ সৈয়দ মোখতার আশরাফ আল আশরাফী আল জিলানীর (রাঃ) নাম করনে নাম করা হয়েছে।

উক্ত উনুষ্টানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট লেখক ও সিনিয়র সাংবাদিক আশরাফুল হক খুররম আশরাফী, পবিত্র কোরআনুল করীম থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ বায়েজিদ আহমদ খান আশরাফী ,নাতে রাসুল ﷺ পরিবেশ করেন মোহাম্মদ আল আমিন আশরাফি,বক্তব্য রাখেন,আঞ্জুমানে আশরাফীয়ার কেন্দ্রীয় কমিটির জেনারেল সেক্রেটারি সুন্নিয়তের ত্যাগী নেতা মাহবুবুল আলম চৌধুরী আশরাফী, আল জামিয়াতুল আশরাফীয়া ইজহারুল উলুম ঢাকা এর অধ্যক্ষ হাফেজ ক্বারী মুফতি মাওলানা আসাদুল্লাহ আশরাফী, আল জামেয়াতুল আশরাফিয়া ইজহারুল উলুম এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা (মুহতামিম) মুফতি মাওলানা নুহ আলম আশরাফী,অনুষ্টানে সহযোগিতা করেন কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান, অষ্টগ্রাম উপজেলা আওয়ামিলীগ এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব ফজলুল হক হায়দারী বাচ্চু আশরাফী।

অনুষ্ঠানে সাবেক ছাত্রনেতা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, কাজী মাওলানা জসিম উদ্দিন ছিদ্দীকী আশরাফী এর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন,২ নং কাস্তুল ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান সাইফুল হক রন্টি,মাও, রফিকুল ইসলাম ভুইয়া আশরাফী,বেনজির আহমেদ ছিদ্দিকী আশরাফী,সাবেক ছাত্র নেতা মাওলানা রেদওয়ানুল হক আশরাফী,সাবেক ছাত্র নেতা কাজী মাওলানা আব্দুল কুদ্দুছ আশরাফী,হাফেজ আব্দুল মান্নান আশরাফী, মাওলানা রফিকুল ইসলাম আশরাফী,হাবিবুর রহমান রেজভী,পল্লী চিকিৎসক নাসির আশরাফী,পল্লী চিকিৎসক কাউসার আলম আশরাফী,মাওলানা তানভীর আহমদ আল কাদ্বেরী প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ মেজবাহুল হোসাইন শাহজাদা মিয়া আশরাফী,সাবেক সিভিল সার্জন ডা. লুতফুর রহমান খান আশরাফী,ডাক্তার মীর আলগীর হোসেন বাদল,মাওলানা আব্দুল ওয়াহেদ আশরাফী,মাওলানা সাইদুল হক মুতাইত সাদী আশরাফী,মাওলানা সেলিম আশরাফী,মাওলানা মাজহারুল আশরাফী,মাওলানা সুহেল আহমদ আশরাফী,এনায়েত উল্লাহ মেম্বার আশরাফী,ফুল মিয়া মেম্বার আশরাফী,তনজু মিয়া মেম্বার আশরাফী,নুরুল ইসলাম মেম্বার আশরাফী,আতিকুল হক জুনাইদ রিমন আশরাফী ,একরামুল হক সাব্বির,দিদার আশরাফী,নসিম খান আশরাফী,হাবিবুর রহমান হাবিব আশরাফী,মাওলানা আবু সুফিয়ান খান আশরাফী,মাওলানা আজহার আশরাফী,মাওলানা নিজাম উদ্দিন আশরাফী,পল্লী চিকিৎসক ইদ্রিস ভুইয়া আশরাফী,মুহাম্মদ বিল্লাল আশরাফী,,ফয়েজ আশরাফী,মুহাম্মদ জহির আশরাফীসহ আর অনেক  বিশিষ্ট গন্যমান্য স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গ।

পরিশেষে মিলাদ ﷺ কিয়াম ও ফাতেহা আদায় করে সারা দুনিয়ায় মুসলিম উম্মাহসহ বাংলাদেশের সুখ শান্তি কামনা করে মুনাজাত করা হয়।

উল্লেখ্য, উদ্বোধনী মোনাজাত মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন অত্র মাদ্রাসার ভুমি ওয়াকফ দাতা মিসেস রিফাত সুলতানা রিমা আশরাফী এবং উনার পরিবারবর্গ ও স্বজনরা।

এম ওসমান, যশোর:  যশোরে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২১ দিনে জেলায় ৫৫ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে যশোর জেনারেল হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন আছেন ২৬ জন। এদিকে প্রতিদিন রোগী বাড়লেও সরকারি এই হাসপাতালে নেই ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ের কোন ব্যবস্থা। ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ের এনএস-১, আইজিজি ও আইজিএম পরীক্ষার জন্য বেসরকারি ক্লিনিক/হাসপাতালে ছুটতে হচ্ছে রোগীদের। পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলাফল পেতেও বিলম্ব হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রোগী ও তার স্বজনরা। সরকারি হাসপাতালে মিলছে শুধু কমপ্লিট বস্নাড কাউন্ট (সিবি) পরীক্ষা।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (চলতি দায়িত্ব) ডা. আবুল কালাম আজাদ লিটু বলেন, ‘আমাদের  সিবিসি পরীক্ষা করানো যাচ্ছে। রিএজেন্ট না থাকায় ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ের বাকি পরীক্ষাগুলো করা যাচ্ছে না। বাধ্য হয়ে রোগীদের বেসরকারি ক্লিনিকে যেতে হচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে যশোর জেনারেল হাসপাতালের  পুরুষ মেডিসিন ওয়ার্ড ঘুরে দেখা যায়, সাধারণ রোগীদের সঙ্গেই রাখা হয়েছে ডেঙ্গু আক্রান্তদের। সেখানে পা রাখারও জায়গা নেই। বেড ও মেঝেতে রোগীর  ছড়াছড়ি।

যশোরের ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ইমদাদুল হক রাজু বলেন, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত এ জেলায় ৫৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে ২৬ জন যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। বাকিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আক্রান্ত অনেকেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তিনি আরও বলেন, সিভিল সার্জন অফিসে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ সেল খোলা হয়েছে। সর্বস্তরের স্বাস্থ্যকর্মীকে অবহিত করা হয়েছে।

এছাড়াও ডেঙ্গু প্রতিরোধে স্বাস্থ্য শিক্ষা সচেতনতার জন্য জেলা পর্যায়ে তিনটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারাও কাজ করছে। তথ্য অফিসের সহযোগিতায় মাইকিংয়ের
ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গত কয়েকদিনে ১৪ ডেঙ্গু রোগীকে শনাক্ত করা হয়েছে নাটোরে। ডেঙ্গু রোগ শনাক্তকরণের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু সেল খোলা হয়েছে।

মঙ্গলবার ডেঙ্গু সেল খোলার পর থেকে শুরু হয়েছে ডেঙ্গু রোগী শনাক্তকরণের কাজ।

সকাল থেকেই সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু সেলের সামনে ভিড় করতে থাকে আতঙ্কিত অসংখ্য মানুষ। এদের রক্ত পরীক্ষা করে তিন রোগীর শরীরে ডেঙ্গুর জীবাণু শনাক্ত করা হয়। এছাড়া ডেঙ্গু আক্রান্ত এক নারীকে ভর্তি করা হয়েছে নাটোর সদর হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে।

এদিকে নাটোরের বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত ১১ রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।

নাটোর সদর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক ডা. রবিউল আওয়াল জানান, আক্রান্ত সব রোগীই ঢাকা থেকে এসেছেন।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে বিশেষ ক্লাসের নামে চলছে কোচিং বাণিজ্য। মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) সকাল ৮ টায় তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গণিতের শিক্ষক মো: কামাল উদ্দিন এবং ইংরেজি শিক্ষক মো: আবুল কালাম উভয়ে আলাদা দুটি কক্ষে বিশেষ ক্লাসের নামে কোচিং করাচ্ছেন। কোচিং চলাকালীন সময়ে ছবি তুলতে চাইলে কোচিং শিক্ষকরা উপস্থিত সাংবাদিকদের বাধা প্রদান করেন।

কোচিং বানিজ্য সম্পর্কে কোচিং শিক্ষকদের সাথে জানতে চাইলে তারা বিষয়টি এড়িয়ে ক্লাসরুম থেকে দ্রুত চলে যান এবং শিক্ষার্থী ও বহিরাগতদের উপস্থিত থাকা সাংবাদিকদের পিছনে লেলিয়ে দিলে শিক্ষার্থী ও বহিরাগতরা মিলে স্কুলের প্রধান ফটক তালাবদ্দ করে সাংবাদিকদের ধাওয়া করে। পরে প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সাহায্যে সাংবাদিকরা স্কুল থেকে বেরিয়ে আসেন। কোচিং এ আসা কয়েকজন শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপকালে তারা বলে, ‘তেতইগাঁও রশিদউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক মো: কামাল উদ্দিন প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রতিমাসে পাঁচশত টাকা করে কোচিং ফি আদায় করেন একই অবস্থা গণিত শিক্ষকের।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, ‘ইংরেজি ও গণিত বিষয়ের কোচিং না করলে পরীক্ষায় ছাড় দেওয়া হবে না বলে শিক্ষকরা ভয়ভীতি দেখান তাই অনেকেই বাধ্য হয়ে ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে শিক্ষকদের কাছে প্রতি মাসে ১০০০ টাকা করে প্রদান করতে হয়। সপ্তাহের প্রতি ১ দিন পরপর তারা এভাবে ক্লাস করে।’
জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন এ বিষয়ে বলেন, ‘বর্তমানে কোচিং বানিজ্য নিয়ে আমাদের তদারকি অব্যাহত রয়েছে। আমি বিষয়টি নিজে তদন্ত করে দেখবো। তদন্ত স্বাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’
তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বাবু বলেন, ‘আমাদের স্কুলে বিশেষ ক্লাস হয়। কিন্তু যদি বিশেষ ক্লাসের নামে যদি কোচিং বাণিজ্য হয়ে থাকে তাহলে স্কুলকমিটি এব্যাপারে ব্যবস্থা নিবে।’
এ বিষয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার এ এস এম আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, ‘তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা সরকারী নীতিমালা লঙ্গন করে বিশেষ ক্লাসের নামে যদি কোচিং বাণিজ্য করে তাহলে তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ‘নিজ আঙ্গিনা পরিষ্কার রাখি, সবাই মিলে সুস্থ থাকি’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ উপলক্ষে মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) দুপুরে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রামভজন কৈরীর সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মুনিম তরফদার প্রমুখ।এ উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে, সরকারি, বেসরকারি অফিসসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ ও চত্বর পরিষ্কার পরিছন্ন করা।

পৌরসভা ও সকল ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তাঘাট, ড্রেন ও সকল হাটবাজার পরিষ্কার পরিছন্ন করা। সকল মসজিদের ইমামগণের মাধ্যমে জুম্মার নামাজের পূর্বে খুতবায মশক নিধন ও পরিছন্নতা সপ্তাহ পালন কর্মসুচি সম্পর্কে সচেতনতামূলক বক্তব্য প্রচার। সকল চা বাগানের ব্যবস্থাপক, কর্মচারি এবং শ্রমিকগণের বসবাসাধীন এলাকা ও অফিস/কারখানা এর চারপাশ পরিষ্কার পরিছন্ন করা।

সকল মন্দির, গীর্জা ও প্যাগডোতে আগত লোকদের উদ্দেশ্যে মশক নিধন ও পরিছন্নতা সপ্তাহ পালন কর্মসুচি সম্পর্কে সচেতনতামূলক বক্তব্য প্রচার এবং উপজেলার বিভিন্ন কেপিআই জনসমাগমপূর্ণ এলাকায় পরিছন্নতা অভিযান পরিচালনা করা।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ “আইন মেনে চলবো নিরাপদ সড়ক গড়বো”এই স্লোগানকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জ-সিলেট রাস্তার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করা ও বন্যা, অতিবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্থ সুনামগঞ্জ জেলার সকল রাস্তা মেরামত করার দাবিতে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করা হয়েছে।
৩০ জুলাই মঙ্গলবার নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা),সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে পৌর শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক মোশাহিদ আলম মহিমের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন,নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা),সুনামগঞ্জ জেলা শাখার উপদেষ্টা মো.বুরহান উদ্দিন,মনসুর আলম তালুকদার,দৈনিক সুনামগঞ্জের সময়ের সম্পাদক সেলিম আহমদ তালুকদার, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সদস্য সচিব মুমিত ইসলাম,সদস্য রাসেল চৌধুরী, আতিকুর রহমান, আবু হানিফ,মেহেদি হাসান, রায়হান আহমদ, জুয়েল আহমদ, মাহমুদুল হাসান, পাভেল আহমদ,রেজাউল করিম রাহি,শরিফ আহমদ,মাসুক মিয়া,মিলন,ইকবাল হোসেন, আতিকুর রহমান, পাভেল আহমদ প্রমুখ।
ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সুনামগঞ্জ-সিলেট রাস্তার কাজে শুরু থেকেই অনিয়ম লেগে আছে। সুনামগঞ্জ থেকে সিলেট যাওয়ার প্রধান সড়কের কাজে যদি এত অনিয়ম হয় তাহলে সুনামগঞ্জ বাসীর ভোগান্তি আরো বেড়ে যাবে। আমরা এই মানববন্ধন থেকে বলতে চাই,সুনামগঞ্জ-সিলেট রাস্তার কাজে যেন কোন ধরণের গাফিলতি না করা হয় প্রশাসন যেন সেদিকে নজর রাখে।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলে সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে প্রদত্ত ক্যান্সার,কিডনি, লিভার সিরোসিস,স্ট্রোকে প্যারালাইজড ও জন্মগত হৃদরোগীদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়, নড়াইলের আয়োজনে প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা এ চেক বিতরণ করেন।
মোট ৮৬ জন রোগীকে ৩৬ লক্ষ ২৫ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়। এর মধ্যে ৭১ জনকে ৫০ হাজার টাকা করে মোট ৩৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ও ১৫ জনকে ৫ হাজার টাকা করে মোট ৭৫ হাজার টাকার চেক দেয়া হয়।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়, নড়াইলের উপ-পরিচালক রতন কুমার হালদার, নড়াইল চেম্বারের সভাপতি মোঃ হাসানুজ্জামান, বিটিভির নড়াইল প্রতিনিধি এনামুল কবির টুকু, সরকারি কর্মকর্তা,সমাজসেবা কার্যালয়ের কর্মকর্তা,এনজিও প্রতিনিধি,সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ চেকপ্রাপ্তরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বেনাপোল প্রতিনিধি : ভারতের ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির ডাকা ধর্মঘটের কারনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বানিজ্য বন্ধ রয়েছে।
মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) সকাল ৬ টা থেকে দু দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়।
মালিক সমিতির অভিযোগ বেনাপোল স্থলবন্দরে কর্মরত নাইট গার্ড, হ্যান্ডলিং শ্রমিক ও সিএন্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী কর্তৃক বেনাপোল স্থলবন্দরে ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভারদের নিকট থেকে অতিরিক্ত বকশিস আদায়ের নামে তাদেরকে হয়রানী ও নির্যাতন করা হচ্ছে। প্রতিবাদে ও এর প্রতিকারের দাবীতে স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে ।
ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভার শ্যামল চক্রবর্তী বলেন, আমদানি পণ্য নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের পর বেনাপোল বন্দরে বিভিন্ন সংগঠনের কাছে নানান ভাবে হয়রানী হতে হয়। তারা বকসিস এর নামে জোর করে টাকা আদায় করে। এ সব সমস্যা সমাধান না হলে কোন পণ্যবাহি ট্রাক বাংলাদেশে যাবে না বলে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে ।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ এসোসিয়েশনের বন্দর বিষয়ক সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন জানান, ভারতের ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির ডাকা ধর্মঘটের কারনে  মঙ্গলবার সকাল থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বানিজ্য বন্ধ রয়েছে ।

আওয়ামীলীগ সরকারই প্রতিবন্ধি ও অসচ্ছলদের ভাতার আওতায় এনেছে ।

এস এম সুলতান খান,চুনারুঘাট থেকেঃ চুনারুঘাট উপজেলার  প্রতিবন্দী, বিধবা, বয়স্ক , নিগৃহীতা, অনগ্রসর, জনগোষ্ঠী, ক্যান্সার, কিডনি,  লিভার সিরোসিস, ও স্ট্রোকে প্যারালইজড এর কাড বিতরন অনুষ্টানে  প্রধান অতিথির বক্তব্য  রাখেন স্থানীয় সাংসদ ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতি মন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী।
তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার নির্বাচীত হয়েই বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা ও তা অবহেলিত অসচ্ছল ও প্রবিবন্দী, বিধবা ভাতার ব্যাবস্থা করেছিল। তা অব্বাহত থাকবে এবং ভাতার পরিমান আগামীতে আরো বৃদ্ধি করা হবে। দেশ আজ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
সোমবার বিকালে বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক মোস্তফা শহিদ অডিটোরিয়ামে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয় কতৃর্ক বরাদ্দকৃত অনুদানের কার্ড বিতরনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তবে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্ম কর্তা মঈন উদ্দিন ইকবালের সভাপতিত্বে ও উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার বারীন্দ্র চন্দ্র রায়ের পরিচালনায় অনুষ্টিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর, হবিগঞ্জ জেলা সমাজসেবা উপপরিচালক মোঃ হাবিবুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব লুৎফুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা খাতুন।
থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ নাজমুল হক,পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবু তাহির মিয়া,  উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলহাজ্ব লুৎফুর রহমান চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ উপজেলা সভাপতি মোঃ মানিক সরকার, সাধারন সম্পাদক ও ২নং ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবেদ হাসনাত চৌধুরী সঞ্জু, সহ সভাপতি ও চুনারুঘাট প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মোঃ জামাল হোসেন লিটন, ইউপি চেয়ারম্যান শামছুজ্জামান শামীম, আব্দুর রশিদ মাষ্টার, মোঃ রমিজ উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান রিপন, ছাত্রলীগ নেতা সোহেল আরমান প্রমূখ।
তিনি মোট  ১৮৫৭ জন প্রতিবন্দী, বিধবা ও বয়স্কসহ বিভিন্ন স্তরের ভাতা ভোগিদের মাজে ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা বিতরন করেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc