Tuesday 21st of May 2019 08:27:45 AM

নড়াইল প্রতিনিধি: “জেনে বুঝে বিদেশ যাই, অর্থ সম্মান দুটোই পাই ” এ লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে নড়াইলে “বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা” শীর্ষক শিক্ষা ও প্রচারনা মূলক দিনব্যাপী সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের তত্ত্বাবধানে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন জনশক্তি ,কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষন ব্যুরোর অতিরিক্ত মহা- পরিচালক (কর্মসংস্থান) কে ,এম রুহুল আমিন।
জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার সভাপতিত্বে স্থানীয় সরকার বিভাগ, নড়াইলের উপ-পরিচালক মোঃ মনিরুজ্জান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ শরফুদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল আসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মাহবুবুর রশীদ, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিনিধি,আইনজীবি,সাংবাদিক,সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, বিভিন্ন শ্রেনী পেশার ৫০ জন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সেমিনারে প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমানে বাংলদেশের ১ কোটি ২৪ লক্ষ লোক পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ আছে প্রতিটি উপজেলা থেকে এক হাজার দক্ষ প্রমিককে বিদেশে পাঠাতে হবে , সে জন্য জনশক্তি ,কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষন ব্যুরো দেশের প্রায় প্রতিটি জেলায় দক্ষ জনশক্তি গড়ার জন্য কারিগরী প্রশিক্ষন কেন্দ্র তৈরী করে দক্ষ জনশক্তি গড়ার কাজ করছে। অদক্ষ জনশক্তি বিদেশে গেলে কি কি অসুবিধায় পড়তে পারে,সে বিষয়ে আমাদের সকলকে জনসচেতনা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যেতে হবে।

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) সংবাদদাতা:  ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ বাজারে অবৈধ দখলদারদের সরকারি নোটিশ দিতে গিয়ে উপজেলা ভূমি অফিসের চেইনম্যান নুরুল হুদা গত ১৪ মে মঙ্গলবার ৫ টার দিকে কয়েকজন অবৈধ জায়গা দখলদারের হাতে চরম লাি ত হয়েছেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ মে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা ভূমি অফিসের চেইনম্যান নুরুল হুদা ঐতিহাসিক নেকমরদ বাজারে অবৈধ জায়গা দখলদারদেরকে নোটিশ বিলি করতে যান।

প্রায় ২০ টি নোটিশ বিলি করার পর মো: মানিকের ডিশ ক্যাবল দোকানে নোটিশ দিতে গেলে মানিকসহ কয়েকজন দখলদার ক্ষিপ্ত হয়ে নুরুলের উপর চড়াও হয়। হামলা কারিরা নুরুলের হাত থেকে নোটিশ বই কেড়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলে এবং তাকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করে। এসময় হামলা কারিরা নুরুলের গায়ের পাঞ্জাবি টেনে ছিঁড়ে ফেলে এবং তার পকেট থেকে মোট ১২০০০/= (বার হাজার) টাকা হাতিয়ে নেয়। নুরুলকে তারা জোর করে ঐ দোকানে আটকে রাখে।

এসময় নুরুলের চিৎকারে ইউনিয়ন অফিস সহায়ক জ্যোতিষ , ভূপাল ও জহিরুল ছুটে এসে নুরুলকে উদ্ধার করে রাণীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরদিন অসুস্থ নুরুল এনিয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। থানার ওসি আব্দুল মান্নান এ নিয়ে মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে এর প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে সহকারি কমিশনার (ভূমি) সোহাগ চন্দ্র সাহা বলেন, নেকমরদ বাজারের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত আছে।

এস এম সুলতান খান চুনারুঘাট থেকে: প্রবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে প্রতি বছছের ন্যায় এবারও চুনারুঘাটে জি,আর (গিয়াস-রিজিয়া)  ফাউন্ডেশন ইউকে’র উদ্যোগে মিলাদ, দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার উপজেলার কেউন্দা গ্রামের লন্ডনী বাড়িতে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে বিশিষ্ট সমাজসেবক ও দানবীর জিআর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন।
ইফতার মাহফিলের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চুনারুঘাটের বিশিষ্ট সমাজসেবক ও জিএস বাদার্স এর সত্ত্বাধীকারী ও যুক্তরাজ্যস্থ চুনারুঘাট সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব  গাজীউর রহমান গাজী , এটিনএন বাংলার জেলার প্রতিনিধি আব্দুল হালিম, পূবালী ব্যাংক চুনারুঘাট শাখার ব্যবস্থাপক নোমান মিয়া, চুনারুঘাট প্রেসক্লাবের সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক এস এম সুলতান খান,   চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি খন্দকার আলাউদ্দিন, সাবেক সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক রাজু, সাধারণ সম্পাদক রায়হান আহমদ, সাংবাদিক রহমত আলী, মাওলানা লুৎফুর রহমান চুনারুঘাটের ব্যবসায়ী নেতা সাজিদুল ইসলাম সহ স্থানীয় লোকজন অনেকেই। ইফতার মাহফিলে চুনারুঘাটে প্রায় ৭শ’ মানুষ অংশ গ্রহণ করে।

“একাধিক পরকীয়া প্রেমের নায়িকা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার জন্য বিদেশ থেকে ফিরে আসা স্বামীকে দেশে আসার মাত্র ১০ ঘন্টা পর প্রেমিকদের সহযোগিতায় কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগ” 
এম ওসমান,বেনাপোল :  বেনাপোলে একাধিক পরকীয়া প্রেমের নায়িকা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার জন্য বিদেশ থেকে ফিরে আসা স্বামী জামাল হোসেনকে (৩৬) দেশে আসার মাত্র ১০ ঘন্টা পর প্রেমিকদের সহযোগিতায় কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছে নিহতের পরিবার। বুধবার নিজ বাড়ির বেড রুমে স্ত্রী আয়েশা তার স্বামীকে কতিথ প্রেমিক ও নিজ বাবা মায়ের সহযোগিতায় হত্যা করে। এঘটনায় তাৎক্ষনিক পুলিশ আয়েশার মা-বাবা সহ ৩জনকে আটক করেছে।
নিহত জামাল হোসেন বেনাপোল পোর্ট থানার ধান্যখোলা গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে।আটককৃতরা হলো- নিহত জামালের স্ত্রী আয়েশা খাতুন, শশুর রিয়াজুল ইসলাম টুকু ও শাশুড়ী ফুলবুড়ি।
নিহতের বাবা হবিবার রহমান অভিযোগ করে বলেন, তার ছেলে প্রায় ১৫ বছর যাবৎ মালায়েশীয়া থাকে। একই গ্রামের রিয়াজুলের মেয়ে আয়েশার সাথে তার প্রায় ১৫ বছর আগে বিবাহ হয়। আর বিগত এই ১৫ বছরে তার ছেলে মালায়েশীয়া থেকে মাত্র ৩ বার বাড়ি এসেছে। তার বাড়ি না থাকার কারনে স্ত্রী আয়েশা এলাকার বিভিন্ন ছেলের সাথে প্রেম করত। প্রায় কারো না কারো সাথে সে মোটরসাইকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে দুই তিন দিন পর বাড়ি ফিরত। তার ছেলের আলাদা করে বাড়ি যে বিল্ডিং তৈরী করেছে সেই বিল্ডিংয়ে আয়েশা ও তার মা বাবা বসবাস করত। নিহত জামাল গতকাল মঙ্গলবার বেলা ২ টার সময় মালায়েশীয়া থেকে বাড়ি ফিরে আসে। আর রাত ১২ টার সময় তার বুকে পেটে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। তবে কার সাথে প্রেম করত তার ছেলের স্ত্রী এ প্রশ্নে তিনি এলাকার লোকের বাধার মুখে নাম বলতে অস্বীকার করে।
স্থানীয়রা জানায়, স্বামী বিদেশ থাকার সুযোগে আয়েশা একাধিক প্রেম সম্পর্ক গড়ে তোলে এলাকায়। কেউ তাকে ফোন করে ডাকলে সে মোটরসাইকেল ভাড়া ঘরে দুই তিনদিন একাধারে হারিয়ে যেত। এর আগে যখন তার স্বামী বিদেশ থেকে বাড়ি আসে তখন তাকে বিদ্যুতের তার জড়িয়ে হত্যা করার চেষ্টা করে বলে এলকার জনসাধারন অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি (তদন্ত) আলমগীর হোসেন বলেন, হত্যার তদন্তের জন্য ৩জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের সাথে আলাপ চলছে কেবা কাহারা এ হত্যাকান্ডের সাথে কারা জড়িত তদন্ত না করে কিছু বলা যাবে না।

সাদিক আহমেদ,স্টাফ রিপোর্টার: চিরায়ত গ্রামবাংলা,সবুজ প্রকৃতি,হাওড়-বাওড়,নদ-নদীর দেশ বাংলাদেশ।সাম্প্রদায়িক দাঙ্গামুক্ত বাংলাদেশে মিলেমিশে বসবাস করছে মুসলমান,হিন্দু,বৌদ্ধ,খ্রিষ্টানসহ অন্যান্য ধর্মাবলম্বীর মানুষ।গ্রামবাংলার নানান সংস্কৃতিতে ভরপুর চিরায়ত সবুজের এই বাংলাদেশ।ঠিক তেমনি ভাবে গ্রামবাংলার বিভিন্ন সংস্কৃতি ক্রমেই অপসংস্কৃতিতে পরিণত হয়ে কালক্রমে ভয়ংকর রূপ ধারণ করতে যাচ্ছে।
মূলত প্রায় ৯০ শতাংশ মুসলমান এদেশে বসবাস করে।চিরায়ত এই বাংলার একটি অন্যতম প্রাচীন একটি রীতি হচ্ছে পবিত্র রমজান মাসে নববধূর শশুর বাড়িতে ইফতার সামগ্রী পাঠানো।মূলত প্রাচীনকাল থেকেই মেয়ের পরিবার থেকে এসব ইফতার সামগ্রী মেয়ের শশুর বাড়িতে পাঠানোর রীতি চলে আসছে বহুদিন ধরে।একসময় এটি ছিলো একটি আনন্দের ব্যাপার।নিজের সাধ্য অনুযায়ী মেয়ের শশুর বাড়িতে হাসি আনন্দের সহিত ইফতার পাঠানো হতো।যেখানে ছিলো না কোনো বাধ্যবাধকতা।অর্থাৎ এটা ছিলো সম্পূর্ণ নববধুর পরিবারের মর্জির ব্যাপার।
কিন্তু বর্তমান সময়ে বাংলার এই রীতি বা সংস্কৃতিটি রূপ নিয়েছে মারাত্মক এক অপসংস্কৃতিতে।ইদানীংকালে প্রায়ই রমজান মাসে এসব ইফতার সামগ্রী পাঠানো সংক্রান্ত ব্যাপারে নববধূ বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হচ্ছে।যে কারণে অনেকসময় অভাবে জর্জরিত হয়ে বিভিন্ন পরিবার মেয়ের সুখের জন্য তার শশুর বাড়িতে ইফতারি পাঠাতে বাধ্য হচ্ছে।এতে করে ইফতার সামগ্রী পাঠানোর অর্থ যোগার করতে গিয়ে অনেক পরিবারকে পড়তে হচ্ছে চরম সংকটে।মেয়ের শশুর বাড়িতে এসব ইফতার সামগ্রী পাঠাতে গিয়ে অনেকসময় প্রায়ই নিঃস্ব হয়ে পড়ছে কোনো কোনো পরিবার।
অনেকসময় মেয়ের শশুর বাড়ি থেকে জোরপূর্বক এটা আবদার করা হয়ে থাকে।এতে করে হিমশিম খেতে হচ্ছে অনেক পরিবারকে।অর্থের অভাবে নববধূর শশুর বাড়ির চাহিদা অনুযায়ী ইফতার পাঠাতে না পেরে প্রায়ই নববধূ হচ্ছে চরম নির্যাতিত।মেয়ের শশুর বাড়িতে ইফতার পাঠানোর টাকা জোগাড় করতে গিয়ে অনেক বাবাকেই পড়তে হচ্ছে চরম অসহায়ত্বে।কখনো কখনো লজ্জায় অনেক ক্ষেত্রে নববধুরা আত্মহত্যা ও করে থাকে যা পত্র পত্রিকা খুললেই আমাদের চোখে পরে।
এই অপসংস্কৃতি ও কুপ্রথার বিরুদ্ধে সবাই ব্যক্তিগতভাবে সচেতন না হলে অচিরেই ভয়ংকর এক রূপধারণ করবে এই প্রথাটি এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।প্রথাটির প্রচলন বন্ধ করার জন্য সবাইকে সচেতন হবার তাগিদ দেন তারা।
শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাব ও এনিমেটরস বাংলা মিডিয়া গ্রুপের সভাপতি মোহাম্মদ আনিছুল ইসলাম আশরাফী বলেন,”অবশ্যই এটি একটি অপসংস্কৃতি।এটি খুব মারাত্মক এবং ক্ষতিকর রীতি যা লোভ থেকে তৈরি।এটি গরীবদেরকে আরোও অসহায় করে ফেলে।এটার জন্য অনেক শাশুড়িরা মেয়েদের বিভিন্ন কথা বার্তা ও মৌখিক নির্যাতন করার সুযোগ পায় ফলে অনেক সময় পারিবারিক এমনকি সামাজিক ভাঙ্গন তৈরি হয় ।যে পরিবারগুলো অসহায় বা গরীব তারা অনেকসময় ধনাঢ্য পরিবার গুলোর সাথে পাল্লা দিতে গিয়ে সুদের মাধ্যমে টাকা জোগাড় করতে গিয়ে নিঃস্ব হচ্ছে এই প্রথার কারণে”।
এই অপসংস্কৃতি বন্ধ করার জন্য প্রশাসন কতটা ভূমিকা রাখতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ আনিছুল ইসলাম আশরাফি বলেন,”এটা বন্ধ করার জন্য সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে হবে সামাজিক ভাবে,তবে মসজিদের ইমাম ও ধর্মপ্রচারকগনরা ভুমিকা রাখতে পারে। এটি যৌতূকেরই একটি রুপ,  যৌতুক বিরোধী কাজ যেমন সামাজিক ভাবে বয়কট করা প্রয়োজন তেমনি এটিও।আর প্রশাসন তখনই ভূমিকা রাখতে পারে যখন এই ধরণের কোনো ঘটনার কারণে অপ্রত্যাশিত কিছু ঘটে থাকে তখন যদি তাদেরকে (প্রশাসন) জানানো হয়”।
ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ইসলাম ধর্ম বিষয়ক শিক্ষক মাওলানা নুরুল হক বলেন,”ইফতারি দেয়াতে নিষেধ নাই তবে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী।তবে ইফতারি দিতে গিয়ে যদি কোনো পরিবার নিঃস্ব হয়ে যায় বা কোনো পরিবারকে যদি জোরপূর্বক বাধ্য করা হয় তবে সেটা ইসলাম সমর্থন করে না।ইসলাম কারো জন্য কঠিন কোনো নির্দেশ করে না”।
এই অপসংস্কৃতি বন্ধের জন্য আলেম সমাজের কতটা ভূমিকা রাখা প্রয়োজন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,”এর বিরুদ্ধে আলেম সমাজের যথার্থ ভূমিকা রাখা উচিৎ।প্রতি জুম্মার নামাজে যে খুৎবা হয় সেখানে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।খুৎবাতে এই বিষয়টি নিয়েও আলোচনা করা দরকার”।
সর্বোপরি এই কুপ্রথার বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়ানোর জনয তাগিদ দিয়েছন বিশেষজ্ঞরা।নয়তো অচিরেই এই প্রথাটি গ্রাস করে ফেলবে সমাজকে।

 উপ-মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:  বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটিতে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের মেধাবী ছাত্রনেতা মহিউদ্দিন অপু উপ মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। গত সোমবার (১৩ মে) দুপুরে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানি স্বাক্ষরিত তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর আগে পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকাশিত কমিটিতে মহিউদ্দিন অপুকে কেন্দ্রীয় কমিটির উপ মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে এই প্রথম কমলগঞ্জ উপজেলা উপজেলা থেকে স্থান পেলেন তিনি। মহিউদ্দিন অপু কমলগঞ্জ উপজেলার অবসরপ্রাপ্ত জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মো. আব্দুল মতিনের ছেলে।মহিউদ্দিন অপু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং বর্তমান কমিটির সভাপতি-সম্পাদককে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, যারা আমাকে এই মহান দায়িত্ব দিয়েছেন আমি যেন তা যথাযথভাবে পালন করতে পারি ।

এদিকে কমলগঞ্জের মেধাবী ও ত্যাগী ছাত্রনেতা মহিউদ্দিন অপু কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে স্থান পাওয়ায় উপজেলা ছাত্র রাজনীতিতে বইছে আনন্দের বন্যা। কোথাও কোথাও মিষ্টি বিতরণ করে তার সমর্থকরা আনন্দ প্রকাশ করেছেন। কমলগঞ্জ উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দরা বলেন, মহিউদ্দিন অপু আজ সঠিক মুল্যায়ন পেয়েছেন। সেজন্য আমরা গর্বিত।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc