Tuesday 23rd of July 2019 05:36:44 PM

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় বাংলাদেশ প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান। বুধবার সচিবালয়ে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় প্রস্তুতি সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ ভারতের উপকূলে আঘাত হানার পর কিছুটা দুর্বল হয়ে ৪ মে বাংলাদেশে আঘাত হানতে পারে। ঝড় মোকাবেলায় বাংলাদেশে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। দেশের উপকূলীয় ১৯টি জেলায় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ১ মে থেকে অব্যাহতভাবে অফিসে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, ঘূর্ণিঝড়টি এ মুহূর্তে ভারতের উড়িষ্যার দিকে রয়েছে। বুধবার থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারি সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে চার নম্বর স্থানীয় হুশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব ধরনের মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত গভীর সাগরে বিচরণ না করতে পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ভারতের আবহাওয়া অফিস বলছে, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার। এটি দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ায় ২১০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।ইত্তেফাক

আজ ১ লা মে বুধবার, সকাল সাড়ে ৯ টায় রাজধানী ঢাকার পুরানা পল্টন মোড়ে গার্মেন্টস শ্রমিক কেন্দ্রীয় মে ডে-২০১৯ এ সমাবেশ ও বর্ণীল র‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন প্রধান অতিথি কমরেড রাশেদ খান মেনন এম.পি. সভাপতি বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, সভাপতি-সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ।
বিশেষ অতিথি ছিলেন লুৎফুন নেসা খান বিউটি এমপি।র‌্যালীতে ৩ হাজারের অধিক গার্মেন্টস শ্রমিক বাংলাদেশী পতাকা এবং ফেডারেশনের লাল পতাকাসহ অংশগ্রহন করবেন।

এতে সভাপতিত্ব করেন আমিরুল হক্ আমিন, সভাপতি, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন।সঞ্চালনা করেন মিসেস আরিফা আক্তার, সাধারণ সম্পাদক -জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন।
উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নেতা মোঃ ফারুক খান, মিস সাফিয়া পারভীন, মোঃ কবির হোসেন, মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক, মিসেস আলেয়া বেগম, মোঃ ফরিদুল ইসলাম, নাসিমা আক্তার, ইসরাত জাহান ইলা, মোঃ কাশেম, মোঃ হুমায়ুন কবির ও মোঃ সবুজ।এতে সংহতি জানান মোস্তফা আলমগীর রতন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা।

মুল বক্তব্য এবং দাবীসমূহ : সকল করখানায় ঘোষিত মজুরী বাস্তবায়ন করতে হবে।জীবন-যাপন উপযোগী মজুরী নিশ্চিত কর।অগ্নিকান্ড, দূর্ঘটনা, শ্রমিকের মৃত্যু আর নয়—নিরাপদ ও উন্নত কর্মপরিবেশ নিশ্চিত কর শ্রমিকদের নামে দায়েরকৃত ৩৫টি মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার কর।চাকুরীচ্যুত ১১ হাজারের অধিক শ্রমিককে পুনঃবহাল কর।ব্লাকলিষ্টের মাধ্যমে শ্রমিক হয়রানী বন্ধ কর।টার্গেট এর নামে শ্রমিক হয়রানী বন্ধ কর।সোয়েটারে জ্যাকার্ড মেশিন অপারেটরদের ৮ ঘন্টার অতিরিক্ত কাজের জন্য ওভারটাইম ভাতা দিতে হবে।অবিলম্বে ইমপ্লয়মেন্ট ইনজুরি স্কীম চালু কর।বর্তমান বাস্তবতা এবং আইএলও কনভেনশন ১২১ এর আলোকে ক্ষতিপুরন আইন সংশোধন কর।ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের সকল বাধা অপসারন করতে হবে।গার্মেন্টস সহ সকল বে-সরকারী সেক্টরে সরকারী সেক্টরের মত অবিলম্বে মেটর্নিটি ছুটি ৬ মাস বাস্তবায়ন চাই।জাতীয় বাজেটে গার্মেন্টস শ্রমিকদের রেশনিং ব্যবস্থা, নিরাপদ মাতৃত্ব কেন্দ্র, শিশু লালন কেন্দ্র ও বাসস্থানের জন্য বিশেষ বরাদ্ধ চাই।ইপিজেড,এসইজেড, কৃষি এবং ডমেস্টিক ওয়ার্কার্সদের ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার নিশ্চিত কর।১৩. পরিবার, রাষ্ট্র, সমাজ ও কর্মক্ষেত্রে নারীদের সমঅধিকার নিশ্চিত কর।

ভারতের মহারাষ্ট্রে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন মাওবাদীদের হামলায় ১৬ নিরাপত্তাকর্মী নিহত হয়েছেন। খবর এনডিটিভির

শ্রীলংকায় ভয়াবহ হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই আজ বুধবার ভারতের একটি রাজ্যের গাদচিরোলি জেলায় নিরাপত্তা কর্মীদের গাড়িতে শক্তিশালী বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এপ্রিলে লোকসভা নির্বাচন শুরুর পর থেকে জেলাটিতে এ পর্যন্ত তিনবার হামলা করলো মাওবাদীরা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই হামলাকে ‘ঘৃণ্য’ অভিহিত করে বলেছেন, হামলায় জড়িতদের ক্ষমা করা হবে না।

ছত্তিশগড়ের সীমান্তবর্তী এলাকায় পুলিশের গাড়িতে ইমপ্রোভাইস এক্সপ্লোসিভ ডিভাইসের  (আইইডি) বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা। এ এলাকায় মাওবাদীদের শক্ত ঘাঁটি রয়েছে।

পুলিশ কর্মকর্তা শৈলেশ বালকাওয়াদে বলেন, মঙ্গলবার রাতে অন্তত ২৫টি গাড়িতে মাওবাদীরা আগুন ধরিয়ে দেয়। গাড়িগুলো গাদচিরোলির কুরখেদায় রাস্তার পাশে পার্কিং করা ছিল।রাত সাড়ে ৩টার দিকে কেরোসিন ঢেলে গাড়িগুলোতে আগুন ধরানোর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মাওবাদীরা পুলিশের গাড়িতে হামলা করে। এতে চালকসহ ১৬ জন নিহত হয়েছেন।

১ মে মহারাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাদিবস পালিত হচ্ছিল। এরমধ্যেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে মাওবাদীরা।

এনডিটিভি বলছে,  ২০১৮ সালের এপ্রিলে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে মাওবাদীদের ৪০ সদস্য নিহত হয়। এ ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই হামলা চালিয়েছে তারা।

গত ১১ এপ্রিল লোকসভা নির্বাচনে প্রথম ধাপের ভোটগ্রহণের দিন গাদচিরোলিতে এক বুথের পাশে আইইডির বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।তবে এ হামলায় কেউ হতাহত হয়নি।এই হামলার একদিন আগে একই জেলায় আইইডির বিস্ফোরণে সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) এক সদস্য মারাত্মকভাবে আহত হন।

গত ৯ এপ্রিল ছত্তিশগড়ের দানতেওয়াদা জেলায় আইইডি বিস্ফোরণে বিজেপির এক আইনপ্রণেতা ও নিরাপত্তা বাহিনীর চার সদস্য নিহত হয়।

বেনাপোল প্রতিনিধি: ভারতে যাওয়ার চেষ্টার সময় বেনাপোল ইমিগ্রেশনে মিয়ানমারের তিন রোহিঙ্গা নাগরিক ও দুই পাচারকারীসহ পাসপোর্ট  জালিয়াতির  অভিযোগে সাত জনকে আটক   করেছে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়।মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টায় বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ পৃথক পৃথক অভিযোগে তাদের আটক করে।
আটককৃতরা হলেন, (পাচারকারী) মুন্সিগঞ্জের পূর্বা সিয়ালদি মেম্বারবাড়ি গ্রামের হাদের আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম(৪৫) ও ঢাকার কদমতলী ধনিয়া এলাকার মোকলেছুর রহমানের ছেলে জামান খান(৫০)। ভুয়া তথ্য দিয়ে পাসপোর্ট করার অপরাধে আটক রোহিঙ্গারা হলেন- জামান খানের ছেলে  কায়েম খান(১৯), রফিকুল ইসলামের ছেলে সারোয়ার ইসলাম(১৩) ও মেয়ে মরিজান বেগম(১৯)।
এছাড়া পাসপোর্ট জালিয়াতির অভিযোগে আটকরা হচ্ছেন- নোয়াখালীর সোনায়মুরী উপজেলার বারাইনগর গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে ইয়াসিন আরাফাত(২৪) ও একই এলাকার সোলায়মানের ছেলে  মামুনুর রশিদ(২১)।
পুলিশ জানায়, আটক দুই পাচারকারী ঐ তিন রোহিঙ্গা নাগরিককে তাদের ছেলে-মেয়ে সাজিয়ে ভারতে পাচারের জন্য বেনাপোল ইমিগ্রেশনে নিয়ে আসেন। পরে তাদের পাসপোর্টের কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য বই ইমিগ্রেশনে জমা দেন।
তাদের আচারণ সন্দেহজনক হওয়ায় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ধরা পড়েন তারা। এ সময় তারা তথ্য গোপন করে অবৈধভাবে পাসপোর্ট তৈরির কথা স্বীকার করেন। তারা ভাল কাজের প্রলোভন দেখিয়ে তিন রোহিঙ্গাকে পাচার করার চেষ্টা করছিলেন।
বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আবুল বাশার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আটককৃতদের বিরুদ্ধে পাসপোর্ট জালিয়াতি ও পাচার  আইনে পৃথক মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

এম ওসমান, বেনাপোল : আন্তর্জাতিক মে দিবস উপলক্ষে বেনাপোল বন্দরের সঙ্গে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। তবে এ পথে পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।
বুধবার (০১ মে) সকাল থেকে এ পথে শ্রমিকরা কাজ না করায় বাণিজ্য বন্ধ হয়ে পড়ে।
বেনাপোল বন্দর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রাজু আহম্মেদ জানান, মে দিবস উপলক্ষে শ্রমিকদের দাবি আদায়ে নানা কর্মসূচি রয়েছে। এতে তারা কাজ না করায় পণ্য খালাস বন্ধ রয়েছে।
বেনাপোল বন্দর পরিচালক (ট্রাফিক) প্রদোষ কান্তি দাস জানান, বৃহস্পতিবার (০২ মে) সকাল থেকে পুনরায় এ পথে বাণিজ্য শুরু হবে।
বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার জানান, এ পথে আমদানি রপ্তানি বন্ধ থাকলেও পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।
উল্লেখ্য, বেনাপোল বন্দর থেকে ভারতের কলকাতা শহরের দূরত্ব ৮৩ কিলোমিটার। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় এ পথে ব্যবসায়ীদের বাণিজ্যে আগ্রহ বেশি। আমদানি বাণিজ্যে গতি ফেরাতে বর্তমানে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সঙ্গে বেনাপোল বন্দর দিয়ে সপ্তাহে ৬ দিনে ২৪ ঘণ্টা কার্যক্রম সচল থাকে। পণ্য খালাসে এখানে বন্দর, কাস্টমস ও শ্রমিকরা ২৪ ঘণ্টা কাজ করে আসছে। প্রতি বছর এ বন্দর থেকে সরকারের প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়।

এস এম সুলতান খান, চুনারুঘাট থেকে: চুনারুঘাট-উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্টান ডিসিপি হাই স্কুলের সাবেক সহকারী প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা বিএনপি’ র সহসভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সামাদ মাস্টার(৭০) আর নেই, ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।
আজ বুধবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটের সময় ঢাকা সমরিতা হাসপাতাল পান্থপথ চিকিৎসারত অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। মৃতু কালে তিনি ছেলে, মেয়ে নাতী নাতনী সহ আত্তীয় স্বজন রেখে গেছেন। তিনি চুনারুঘাট উপজেলার রহমতাবাদ গ্রামের বাসীন্দা।

জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেট তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুর বৈঠাখাল এলাকায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ১০।এলাকাবাসী সূত্রে যানাযায়- গতকাল ১লা মে বুধবার দুপুর ১২ টায় সিলেট তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুর বৈঠাখাল নামক স্থানে জাফলং থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী দুটি মাইক্রোবাস প্রতিযোগিতা মাধ্যমে একে অপরকে অতিক্রম করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে একটি মাইক্রোবাস (সিলেট-জ-০৪-০০৯৯) দূর্ঘটনায় কবলিত হয়।

ঘটনায়স্থলে ২শিশু নিহত হয় এবং ১০জন আহত হয়। স্থানীয় জনতা দ্রুত এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করে জৈন্তাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরন করে। নিহতরা হল জৈন্তাপুর উপজেলার ফুলবাড়ী গ্রামের শওকত আলীর মেয়ে লুবনা বেগম (১২) ও ছোট বোন অহনা বেগম (৭)।

আহতরা হল গোলাপগঞ্জ উপজেলার মোঃ জাহিদ (২৮) ও সেলিনা বেগম (২৫), সদর সিলেটের নয়াগ্রামের শিফা বেগম (৩৫) ও তার ছেলে শরিফ আহমদ (১৩), নারায়নগঞ্জ জেলার সজিব আহমদ (২৫), নরসিংদী জেলার আলাল মিয়া (১৮), হবিগঞ্জ জেলার শিবলু মিয়া (৩০), জৈন্তাপুর উপজেলার ফুলবাড়ী গ্রামের সোহাগ আহমদ (৩), গোয়াইনঘাট উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের নাঈম মিয়া (১০) ও সাইফুল ইসলাম (২৬)।

আহতদের মধ্যে আশংঙ্কা জনক অবস্থায় সেলিনা, জাহিদ ও সাইফুলকে সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। ঘটনার পর পর স্থানীয় জনতা সড়ক অবরোধ করে রাখে। এঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ ও জৈন্তাপুর মডেল থানার পুলিশ ও এলাকাবাসীর সহায়তায় রাস্তার অবরোধ তুলেনেন এবং নিহতদের লাশ উদ্ধার করে জৈন্তাপুর মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়। এরির্পোট লেখা পর্যন্ত (৩.৩০মিনিট পর্যন্ত) নিহতের লাশ জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খাঁন মোঃ মাঈনুল জাকির বলেন- ঘটনার পর পর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর লোকজন ও পুলিশ সদস্যরা গিয়ে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করেন এবং সিলেট তামাবিল মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করেন।

চুনারুঘাট(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌরসভার উত্তর আমকান্দি গ্রামের হাজী আঃ আওয়াল এর বড় কন্যা মোছাঃ শামসুন্নাহার বাপ্পীর সাথে প্রতারক বিবাহিত মোঃ মামুনুর রশীদের সাথে বিবাহ পন্ড করে অন্য পাত্রের সাথে বিবাহ সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রতারক মামুনুর রশীদ উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের গোবিন্দ পুর গ্রামের মোঃ আব্দুল হাই এর পুত্র। মোছাঃ শামসুন্নাহার বাপ্পী উদ্ভিদ বিদ্যা ২০১৩-১৪ সেশনে বিএস সি অনার্স পাশ করে পাইকপাড়া সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

পাওয়া তথ্য মতে, অজান্তে মোছাঃ শামসুন্নাহার বাপ্পীর পিতা হাজী আঃ আওয়াল প্রতারক মামুনুর রশীদের সাথে বিবাহের সিদ্ধান্ত নেয়। হঠাৎ মামুনুর রশীদের স্ত্রী শাহানাজ পারভীন জানতে পারেন মামুনুর রশীদের বিবাহের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তৎক্ষণাৎ বিভিন্ন মাধ্যমে খবর নিয়ে সদ্য বিবাহ ঠিক হওয়া কন্যা মোছাঃ শামসুন্নাহার বাপ্পীর পরিবারের নিকটে এবিষয়ে অবগত করা হয়। এবিষয়টি জানতে পেরে মামুনুর রশীদ মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেন। তারপর আর যোগাযোগ রাখেনি।

মামুনুর রশীদের স্ত্রী শাহানাজ পারভীন সাংবাদিকদের জানান, ১ এপ্রিল ২০১৬ ইং সনে তাদের বিবাহ হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। শাহানাজ পারভীনের পিতার বাড়ি ১/গ বড়বাগ, মিরপুর, ঢাকা ১২১৬। তিনি সেখানেই থাকেন। তিনি আরোও জানান, মামুনুর রশীদের বিরুদ্ধে স্ত্রী শাহানাজ পারভীন আইনি সহায়তায় উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রচেষ্টায় রয়েছেন।

এবিষয়ে শামসুন্নাহার বাপ্পীর পিতা হাজী আঃ আওয়াল জানিয়েছেন, মামুনুর রশীদ আমাদের সাথে প্রতারণা করে আমার কন্যাকে বিবাহ করতে চেয়েছিলেন। আজ ১লা মে বুধবার ৫ লক্ষ টাকা দেনমোহরে বিবাহের সিদ্ধান্ত হয়। মামুনুর রশীদের প্রতারণার বিষয়টি আমরা জানতে পেরে ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার মিরাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন ও গোবিন্দপুরের মেম্বার ফরিদ মিয়াসহ স্থানীয় মুরুব্বিদের নিয়ে বিবাহ পন্ড করেছি। তিনি আরোও জানান, ১লা মে বুধবার বাদ জোহর কনের নিজ পিত্রালয়ে রানীগাও ইউনিয়নের পারকুল গ্রামের বাসিন্দা মৃত আঃ সাত্তার এর সুযোগ্য পুত্র শায়েস্তাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক এম এ (বি এ অনার্স) মোঃ চুনু মিয়ার সাথে শুভ বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দেশের আইন মোতাবেক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শপথ গ্রহণ না করায় শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে বগুড়া-৬ সংসদীয় আসনটি; ওই আসন থেকেই সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার রাতে সংসদে অধিবেশন চলাকালে স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী বিষয়টি সংসদকে জানান। এর ফলে বগুড়া-৬ আসনটিতে নতুন করে নির্বাচনের উদ্যোগ গ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন।

সংবিধান অনুযায়ী কোনও সংসদ সদস্য নির্বাচনের পর সংসদের প্রথম বৈঠকের তারিখ থেকে ৯০ দিনের মধ্যে শপথ নিতে না পারলে ওই আসন শূন্য হবে। তবে এই ৯০ দিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে স্পিকার যথার্থ কারণে তা বাড়াতে পারবেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর পরের মাসে অর্থাৎ ৩০ জানুয়ারি সংসদের প্রথম অধিবেশন বসে। সে হিসেবে ২৯ মার্চ প্রথম সংসদ অধিবেশনের ৯০ দিন শেষ হয়।

এবারের নির্বাচনে অভাবনীয় বিপর্যয় হয় বিএনপির। ৩০০ আসনের ২৮৩টিতে বিএনপির দুই জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলের প্রার্থীরা ভোট পর্যন্ত টিকে ছিলেন। সব মিলিয়ে আট আসন পায় বিএনপির দুই জোট। বিএনপি ছয়টি, বাকি দুটি গণফোরাম।

একাদশ সংসদে গণফোরামের দুইজন এবং বিএনপির পাঁচজন নির্বাচিত সংসদ সদস্য শপথ গ্রহণ করেছেন। শপথ নিতে বাকি রয়ে যাওয়া মির্জা ফখরুল বলছেন, দলীয় সিদ্ধান্তেই কৌললের অংশ হিসেবে শপথ নিচ্ছেন না তিনি।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc