Monday 25th of March 2019 09:26:37 AM

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে ঘটে গেল ভয়াবহ এক সন্ত্রাসী হামলা। এই হামলায় এখন পর্যন্ত ৪৯ জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

সন্ত্রাসী হামলায় ক্রাইস্টচার্চ শহরের আল নূর মসজিদে ৪১ জন মারা যান। অপরদিকে লিনউড মসজিদে নিহত হন ৭ জন। তবে এই মসজিদের তরুণ এক খাদেমের সহসিকতায় বেঁচে গেছে বহু মানুষের প্রাণ। অন্যথায় আরো মানুষের হত্যাকাণ্ড দেখতে হতো বিশ্ববাসীকে।

নিউজিল্যান্ডের গণমাধ্যম হেরাল্ডকে সেই গল্প শুনিয়েছেন ওই মসজিদ থেকে বেঁচে ফেরা সৈয়দ মাজহারউদ্দিন। তিনি বলেন, তখন মসজিদে ছিলেন ৬০ থেকে ৭০ জনের মত। এ সময় হঠাৎ গুলি শুরু হয়। চারপাশে চিৎকার। ভয়ে লোকজন ছুটোছুটি শুরু করে। আমি তখন লুকিয়ে পড়ার জায়গা খুঁজছিলাম। এ সময় দেখলাম এক লোক মসজিদের গেট দিয়ে ঢুকল।

সৈয়দ মাজহারউদ্দিন ঘটনার বর্ণনা দিচ্ছেন। ছবি: হেরাল্ড

সৈয়দ মাজহারউদ্দিন আরো বলেন, দরজার কাছে কয়েকজন বয়স্ক লোক ছিলেন। ওই হামলাকারী তখন নির্বিচারে গুলি করতে থাকেন। এসময় সুযোগ বুঝে এগিয়ে আসেন মসজিদের খাদেম। সঙ্গে সঙ্গে হামলাকারীর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। আর হামলাকারীর হাত থেকে বন্দুকটা কেড়ে নেন। কিন্তু বন্দুকের ট্রিগারটা খুঁজে পাচ্ছিলেন না হিরো হওয়া এই তরুণ। হামলাকারী তখন দৌঁড়ে মসজিদ থেকে বেরিয়ে যান। আর বাইরে অপেক্ষায় থাকা একটি গাড়িতে উঠে পালিয়ে যান।

শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদ এবং কাছের লিনউড মসজিদে হামলা চালায় দুই ব্যক্তি। তাদের কাছে স্বয়ংক্রিয় শটগান ও রাইফেল ছিল। এর মধ্যে আল নূর মসজিদের হামলার ভিডিও প্রকাশ পায়।

স্বজনদের কান্না। ছবি: সংগৃহীত

সেই ভিডিওতে দেখা যায়, গাড়ির পেছনে রাখা স্বয়ংক্রিয় শটগান ও রাইফেল নিচ্ছেন হামলাকারী। সেটা নিয়ে হেঁটে হেঁটে প্রধান ফটক দিয়ে মসজিদ প্রাঙ্গণে ঢুকেন। এসময় মসজিদের ভেতরে প্রবেশ গেটের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন একজন। প্রথমে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। গেটের সামনেই পড়ে যায় লাশ।

এরপর ভেতর ঢুকে নির্বিচারে গুলি চালাতে থাকেন ওই ব্যক্তি। গুলিতে মানুষের লাশ পড়তে থাকে। বাঁচার জন্য আত্মচিৎকার করতে থাকে মানুষ। মারা যাওয়ার আগে গোঙানির আওয়াজ শুনা যায়। গুলি শেষ হয়ে গেলে আবারো গুলি লোড করেন হামলাকারী।

উপর থেকে নেওয়া লিনউড মসজিদের ভিউ। ছবি: হেরাল্ড

শুধু তাই নয়, ওই হামলাকারী ঘুরে ঘুরে লাশের উপরও গুলি চালাতে থাকেন। গাড়ি নিয়ে রাস্তায় উঠে সেখানেও নির্বিচারে গুলি চালান। নির্বিচারে গুলিতে আল নূর মসজিদে ৪১ জন এবং লিনউডে ৭ জন নিহত হন। হাসপাতালে মারা যান আরও একজন।

গুলি করার সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভে ছিলেন হামলাকারী। ১৭ মিনিট ধরে ওই হামলার লাইভ ভিডিও প্রচারিত হয়। হামলাকারী ক্যামেরাটা তার মাথার সঙ্গে বেঁধে রেখেছিলেন। তার অস্ত্রগুলোর ওপরে সাদা রঙে কিছু লেখাও ছিল।

রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ২য় ধাপের দিন যতই কমে আসছে ততই নির্বাচনের পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। বিএনপি বিহীন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও জৈন্তাপুর তেমন কোন প্রভাব লক্ষ করা যায়নি। ১৮ মার্চের নির্বাচনেকে সামনে রেখে আ.লীগ প্রার্থী ও সতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হড্ডা হড্ডি লাড়াই চলছে। প্রার্থী ও প্রার্থীর সমর্থকরা কাক ডাকা ভোর হতে মধ্য রাত পর্যন্ত তাদের প্রচার প্রচারনা এগিয়ে নিচ্ছে।
সরেজমিনে ভোটারদের সাথে আলাপকালে তারা বলছে বিএনপি বিহীন নির্বাচন হলেও জৈন্তাপুর উপজেলায় নির্বাচন নিয়ে চলছে ভিন্ন লড়াই। প্রার্থীরা শাসকদলীয় হলেও দিন কমে আসার সাথে সাথে এর ভিন্নতা লক্ষ করা যাচ্ছে। উভয় প্রার্থীরা বিএনপি তথা ২০ দলীয় জোটের ভোটকে প্রদান্য দিচ্ছে। বিশেষ করে আ.লীগ মনোনিত প্রার্থী সহ তার সমর্থকেরা বিএনপির ভোট নিজেদের করে পাওয়ার জন্য সর্ব্বোচ্ছ চেষ্টা চালাচ্ছে। ইতোমধ্যে কিছু সংখ্যাক বিএনপি নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে মাঠে রয়েছেন। অপরদিকে সতন্ত্র প্রার্থী পিছিয়ে নেই, তারাও জনগনকে সাথে নিয়ে নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে সর্ব্বোচ্ছ চেষ্টা অব্যহত রাখছে। অনেকেরই ধারনা আসন্ন প ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জৈন্তাপুরে বিএনপির ভোট যেন একটি ষ্ট্যাম্পকার্ডে পরিনত হয়েছে। সাধারণ ভোটাররা মনে করছে কোন প্রকার প্রশাসনিক পক্ষপাতিত্ব না নেন আ.লীগ মনোনিত প্রার্থী ও সতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে ১৮ মার্চ সোমবারের নির্বাচন হবে হড্ডা হড্ডি লড়াই।
৪নং বাংলাবাজার এলাকার আ.লীগ নেতা নজির আহমদ জানান- আমরা জন্ম হতে আ.লীগের রাজনীতি করে আসছি। তাই গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে স্বাধীনতার প্রতীকে কে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রীকে আসনটি উপহার হিসাবে দিয়েছি। উপজেলা পরিষদ একটি স্থানীয় নির্বাচন। দল তৃর্ণমূলের মতামতকে যাচাই না করে প্রার্থী নির্বাচন করেছে এক্ষেত্রে আমরা আমাদের পছন্দনীয় প্রার্থীকে ভোট দিব। তিনি আরও বলেন ১৮ মার্চের নির্বাচনে আমি সতন্ত্রপ্রার্থী কামাল আহমদের ঘোড়া প্রতীকে ভোট দিব। কারন হিসাবে তিনি বলেন ঐ প্রার্থী তৃণমূল হতে আ.লীগের রাজনীতি করে উপজেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হয়েছেন। জৈন্তাপুর বাজারের ব্যবসায়ী কামাল আহমদ বলেন- প্রার্থীদের যোগ্যতা ভিত্তিত্বে দুজন প্রার্থী রয়েছেন, শিক্ষা দ্বীক্ষায় এবং গরিব দুঃখি অসহায় মানুষদের সহযোগিতা যিনি সবার আগে এগিয়ে আসেন সাধারণ জনগন তাকেই নির্বাচিত করবে তিনি জানান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সারীঘাট বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন- নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই ছন্দ পতন ঘটছে। তার পরেও তিনি বলেন এবার প্রর্তীক কোন বিষয় নয় মূলত ব্যক্তি নির্ভর নির্বাচন হচ্ছে। লিয়াকতের চেয়ে কামাল এগিয়ে রয়েছে। উপজেলা আ.লীগের অন্যতম নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন- উপজেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল আহমদ তিনি দীর্ঘ দিন হতে রাজনীতি করছেন কিন্তু বিভিন্ন সময় তিনি বিভিন্ন ভাবে দলের সিদ্ধান্তকে অমান্য করে বার বার বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন যার কারনে তিনি নৌকা প্রতীক পাননি, এজন্য বার বার তিনি পরাজয় বরন করতে হচ্ছে। এবারও তেমন কিছু বুঝা যাচ্ছে না তবে হড্ডা-হড্ডি লড়াই হবে।

দরবস্ত বাজারের ব্যবসায়ী শামীম আহমদ জানান- দল প্রার্থী নির্বাচনে ভূল করলে আমরা ভোট দিতে ভূল করব না। যিনি নির্বাচিত হন না কেন হড্ডা-হড্ডি লড়াই হবে, তার পরও সতন্ত্র প্রার্থী কামাল আহমদ এগিয়ে রয়েছেন। একই ভাবে চারিকাটা, লালাখাল, হরিপুর, ফতেপুর, চিকনাগুল কহাইগড়, ৪নং বাংলাবাজার, আসামপাড়া, শ্রীপুর সহ বিভিন্ন এলাকার ভিবিন্ন ব্যক্তির সাথে আলাপচারিতায়- ভোটারা বলেন বিএনপি বিহীন নির্বাচনে একই দলের দুই প্রার্থী নিজেদের জন্য বিএনপির ভোট টানছেন।

বিএনপির ভোট গুলো উভয়ের জন্য একটি ট্রাম্প কার্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। উভয় নেতারা বিগত দিনের রাজনৈতিক প্রতিহিসংসা সহ নান নির্যাতন ব্যাখ্যা উপস্থাপন করে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন এবং আলোকিত জৈন্তাপুর গড়তে কাজ করারা আহবান জানান। তবে ভোটরা মনে করছে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনটি একটি ভিন্ন মাত্রার নির্বাচন হবে। বর্তমানে আ.লীগ মনোনীত প্রার্থীর চেয়ে সতন্ত্রপ্রার্থী এগিয়ে রয়েছে।

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার থেকে বজলু মিয়া ও ফরিদ মিয়া নামে দু’ই জনকে অপহরণ করা হয়েছে।জানা গেছে,বৃহস্পতিবার দিবা গত মধ্য রাতে জেলা সদরের শমসেরগঞ্জ বাজারের নিকটবর্তি ভিন্নি গ্রাম নামক স্থানীয় এলাকার চিহ্নিত একটি গ্রুপ এই অপহরণ ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে অপহৃতদের বোন জর্না বেগম।পরে অপহৃত বজলু মিয়ার স্ত্রী লোবনার সাথে কথা হলে তিনি জানান “আমরা মৌলভীবাজার থানায় মামলা করতে এসেছি ওসি স্যারের অপেক্ষায় আছি তিনি অফিসের বাইরে আছেন থানায় আসলে ব্যবস্থা নিবেন। বজলু  মিয়া ও ফরিদ মিয়া পরস্পর সহোদর তাদের পিতার নাম মৃত দিলদার মিয়া গ্রাম ভিন্নি গ্রাম।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার সদর থানার ওসি সোহেল আহমদ (অফিসার্স ইনচার্জ) বলেন বজলু একজন ক্রিমিনাল তার বিরুদ্ধে দুটি মার্ডার মামলাসহ ১৫ টি মামলা রয়েছে আমরা তাকে খুঁজছি। বজলু অপহরণ হয়েছে কি না এবং অপহরণ মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি বলেন ”আমার এ বিষয়ে জানা নেই।”

ম্যাচ বাতিল করা হয়েছে ,বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ? উঠেছে।নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছে একটি মসজিদে আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা। লিটন দাস ও নাঈম হাসান ছাড়া বাংলাদেশ দলের সবাই মাঠে অনুশীলনে ছিলেন। অনুশীলন শেষে তাঁরা ওই মসজিদে জুমার নামাজ আদায়ে যান।এখন পর্যন্ত এখানে কোন বাঙ্গালী নিহতের সংবাদ পাওয়া যায়নি।

অপরদিকে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার জেরে বাতিল করা হয়েছে কাল থেকে হ্যাগলি ওভালে শুরু হতে যাওয়া ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট। এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কিছু না জানালেও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (এনজেডসি) এরই মধ্যে টুইট করে বিষয়টি জানিয়ে দিয়েছে।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট শেষেই নিউজিল্যান্ড সফর শেষ হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশে। টেস্ট বাতিল হয়ে যাওয়ায় এখন দ্রুতই ফিরে আসবে বাংলাদেশ দল। কখন তাদের ফেরার ফ্লাইট, সেটি এখনো জানা যায়নি। তবে বিসিবি সূত্র জানিয়েছে, দেশে ফেরার যে ফ্লাইট পাবে সেটিতেই খেলোয়াড়েরা চলে আসবেন। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড টুইট করেছে, ‘এনজেডসি ও বিসিবির যৌথ সিদ্ধান্তে হ্যাগলি ওভাল (ক্রাইস্টচার্চ) টেস্ট বাতিল করা হয়েছে। দুই দলের খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফ সবাই নিরাপদে আছে।’

বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জানালেন, আজ দুপুরে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন সংবাদমাধ্যমকে।

হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছে একটি মসজিদে আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা। লিটন দাস ও নাঈম হাসান ছাড়া বাংলাদেশ দলের সবাই মাঠে অনুশীলনে ছিলেন। অনুশীলন শেষে তাঁরা ওই মসজিদে জুমার নামাজ আদায়ে যান। মসজিদে প্রবেশের মুহূর্তে স্থানীয় একজন তাঁদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। জানান, এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। আতঙ্কিত খেলোয়াড়েরা তখন দৌড়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরত আসেন। খেলোয়াড়দের সবাইকে মাঠের ভেতর থাকতে বলা হয়েছে।

খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রত্যেকে বলছেন, তাঁরা নিরাপদে আছেন। তবে কবে দেশে ফিরবেন, সে বিষয়ে এখনো জানেন না।

উল্লেখ্য, দু’টি মসজিদে সিজদারত অবস্থায় হামলার স্বীকার ৯ মুসুল্লি নিহত, আটক ১ অস্ট্রেলিয়ান সন্ত্রাসীঃআহত অনেক,বাড়তে পারে নিহতের সংখ্যা।

দু’টি মসজিদে সিজদারত অবস্থায় হামলার স্বীকার ৯ মুসুল্লি নিহত, আটক ১ সন্ত্রাসীঃআহত অনেক,বাড়তে পারে নিহতের সংখ্যা।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছে একটি মসজিদে আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা। লিটন দাস ও নাঈম হাসান ছাড়া বাংলাদেশ দলের সবাই মাঠে অনুশীলনে ছিলেন। অনুশীলন শেষে তাঁরা ওই মসজিদে জুমার নামাজ আদায়ে যান।এখন পর্যন্ত এখানে কোন বাঙ্গালী নিহতের সংবাদ পাওয়া যায়নি।বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে ৬,৯ ও ২৭ জনের নিহতের সংবাদ পাওয়া গেলেও এর সংখ্যা অনিশ্চিত।

জানা গেছে মসজিদে প্রবেশের মুহূর্তে স্থানীয় একজন তাঁদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। বলেন, এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। আতঙ্কিত খেলোয়াড়েরা তখন দৌড়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরত আসেন। খেলোয়াড়দের সবাইকে মাঠের ভেতর থাকতে বলা হয়েছে।

হতাহতের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকে  বলেছে বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছে বলে আশঙ্কা করেছেন।অস্ট্রেলিয়ান একজন নাগরিক আটক তার বয়স ২৮। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে নিউজিল্যান্ডের একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যম স্টাফ ডট কো জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বেলা ১টা ৩০ মিনিটে নামাজ শুরু হওয়ার ঠিক দশ মিনিট পর একজন বন্দুকধারী সিজদায় থাকা মুসল্লিদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এরপর জানালার কাচ ভেঙে হামলাকারী পালিয়ে যায়। হামলাকারীর হাতে অটোমেটিক রাইফেল ছিল।

হামলার কারন সম্পর্কে আটক অস্ট্রেলিয়ান সন্ত্রাসী জানান -দেশে বিদেশীদের যারা আবাসন করে আছে তাদের তাড়িয়ে দিতেই এ হামলা।

তবে স্থানীয় মুসলিমদের ধারনা “মুলত মুসলিম অভিবাসিদের প্রতি অস্ট্রেলিয়ানদের হিংসার বহিঃপ্রকাশ এই সন্ত্রাসী হামলা।”
ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভাল মাঠে আগামীকাল বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় টেস্ট হওয়ার কথা থাকলেও এখন তা অনিশ্চিত।

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে আর্তমনবতার সেবায় এগিয়ে আসার জন্য দেশের বিত্তশালীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিত্তশালীরা এগিয়ে এলে দেশের জনগণের আর কষ্ট থাকবে না।

বৃহস্পতিবার কুমুদিনী ট্রাস্ট কমপ্লেক্সে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। খবর বাসসের

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রণদা প্রসাদ সাহা আমাদের দেশের নারী শিক্ষার প্রসার ঘটানোর থেকে শুরু করে মানবতার সেবার যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন সেই দৃষ্টান্ত অনুসরণ করার আমাদের দেশে অনেক বিত্তশালী আছেন, তারাও করতে পারে। তাহলে আমাদের দেশের মানুষের আর কোন কষ্ট থাকবে না।’

জাতির পিতার ছোট মেয়ে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা ব্যাপকভাবে মানুষের জন্য কাজ করেছিলেন, তিনি বিধবাদের জন্য কাজ করেছিলেন। তিনি শুধু মানুষের সেবা করার জন্য এবং মানুষকে মানুষের মত বেঁচে থাকার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য বিরাট এক কর্মযজ্ঞ গড়ে তুলেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রণদা প্রসাদ দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করা সত্ত্বেও পরিশ্রম ও বুদ্ধিমত্তায় তিনি বাংলার অন্যতম ধনী হিসেবে পরিণত হয়েছিলেন। তবে, অর্থ-বিত্তের মালিক হওয়ার পরও তিনি ভোগ-বিলাসে ডুবে যাননি। বরং অর্জিত অর্থ মানবকল্যাণে ব্যয় করেছেন।

নারী শিক্ষার প্রসারে রণদা প্রসাদের ভূমিকা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি একে একে ভারতেশ্বরী হোমস, কুমুদিনী কলেজ এবং পিতার নামে দেবেন্দ্র কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন এবং দেশের বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তিনি আর্থিক সহায়তা দেন।

গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর পক্ষে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানা— পিআইডি

তিনি বলেন, কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পরবর্তী প্রজন্ম প্রতিষ্ঠাতার মানবিক প্রয়াস- প্রান্তিক অসহায় জনপদে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান ও নারী শিক্ষা প্রসারে নিজেদের নিবেদিত রেখেছেন। ট্রাস্টের সেবা কর্মযজ্ঞে যুক্ত হয়েছে কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল ও কলেজ এবং রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়। অনগ্রসর মানুষের কল্যাণের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে কুমুদিনী ট্রেড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট।

কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল (বিডি) ৮৬ বছর কার্যকাল পূর্তি উপলক্ষে চারজন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বকে এ বছরের দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদকে ভূষিত করা হয়। তারা হলেন– গণতন্ত্রের মানসপুত্রখ্যাত তদানিন্তন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী (মরণোত্তর), জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম (মরণোত্তর), ভাষা সৈনিক ও জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ও প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী শাহবুদ্দীন আহমেদ।

সোহরাওয়ার্দীর পক্ষে শেখ রেহানা এবং জাতীয় কবির পক্ষে কবির নাতনী খিলখিল কাজী প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন।

কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্টের পরিচালক ভাষা সৈনিক প্রতিভা মুৎসুদ্দির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা ও পরিচালক শ্রীমতি সাহা। অনুষ্ঠানে রণদা প্রসাদ সাহার জীবন ও কর্মের ওপর একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়।

জাতীয় সংগীত এবং দেশাত্বরোধক গানের মধ্য দিয়ে শুরু এই অনুষ্ঠানে ভারতেশ্বরী হোমসের মেয়েরা বর্ণাঢ্য ডিসপ্লে প্রদর্শন করে।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদের সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সদস্যবৃন্দ, বিশিষ্ট নাগরিকগণ এবং আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের পক্ষে কবির নাতনী খিলখিল কাজী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন— পিআইডি

কুমুদিনী ট্রাস্টের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে পরিচালিত সেবামূলক কাজের তথ্য তুলে ধরে এই ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহার নাম উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজিব এবং ট্রাস্টের যে কোনো উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার জন্য তার দরজা সব সময় খোলা রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমার অনুজ প্রতীম রাজিবের আরও ইচ্ছা আছে এই ট্রাস্টের কর্মকাণ্ডকে সম্প্রসারিত করার। কাজেই সে যা করবে তাতেই আমাদের সহযোগিতা পাবে। জনগণের সেবা করার জন্য কুমুদিনী ট্রাস্টের মাধ্যমে যে কাজগুলো তারা করে যাচ্ছেন তার প্রতি সবসময় আমাদের সহযোগিতা থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, তার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও গুণীজন জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের এবারের রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদকে ভূষিত হওয়ায় তাদেরকে আভিনন্দন জানান। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী’র ছেলে রাশেদ সোহরাওয়ার্দীর তার বাবার পদক গ্রহণের জন্য বাংলাদেশে আসার বিষয়টি চূড়ান্ত হওয়ার পর তার আকস্মিক প্রয়াণে দুঃখও প্রকাশ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এবারের দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদকে যারা ভূষিত হলেন তারা সকলেই নিজ নিজ ক্ষেত্রে উজ্জ্বল নক্ষত্র।’

তিনি রণদা প্রসাদ সাহার পরিবারের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু পরিবারের পারিবারিক যোগসূত্রের কথা স্মরণ করতে গিয়ে ’৭৫-এর বিয়োগান্তক অধ্যায়ও ভাষণে টেনে এনে বলেন, ‘স্বজন হারানোর বেদনা নিয়েই কিন্তু আমার যাত্রা শুরু। আমি বাবা-মা সব হারিয়ে যখন এই মাটিতে ফিরে আসি তখন আমার চারিদিকে ছিল শুধু অন্ধকার। শুধু একটাই আলোক বর্তিকা পেয়েছিলাম, বাংলাদেশের জনগণ। সেই জনগণের আস্থা ও ভালোবাসা পেয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের আস্থা ও ভালোবাসার প্রতিদান হিসেবে বাবার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তেই তিনি কাজ করে যাচ্ছেন।

ভাষা সৈনিক ও জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন— পিআইডি

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, ‘আমার বাবা এই বাংলাদেশকে উন্নত-সমৃদ্ধ করে গড়ে তোলার জন্য সারা জীবন যে ত্যাগ স্বীকার করে গিয়েছেন, তারই পাশে থেকে ত্যাগ স্বীকার করেছিলেন আমার মা (শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব)। তাদের কথা সব সময় মনে রেখেছি যে, আমার বাবা কি করতে চেয়েছিলেন, যা তাকে ঘাতকের বুলেট করতে দেয়নি। তার সেই অসমাপ্ত কাজের একটু যদি করতে পারি তবে সেটাই হবে আমার জীবনের সবচেয়ে বড় সাফল্য।’

‘বাংলাদেশকে আজ আর কেউ দরিদ্র দেশ বলে অবহেলা করতে পারে না এবং করুণার চোখে দেখে না’ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বরং সারাবিশ্ব বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে দেখে।’

তার সরকারের টানা দুই মেয়াদের শাসনে দেশের উন্ননের চিত্র তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘বাংলাদেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে গত ১০ বছরে আমরা এই পরিবর্তন সর্বত্র আনতে পেরেছি। কাজেই এই বাংলাদেশকে আরো অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং এই সমাজ ও দেশকে গড়ে তুলতে চাই।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকের শিশু আগামী দিনে দেশের কর্ণধার হবে। তাদের জন্য একটা সুন্দর জীবন ও ভবিষ্যৎ গড়ে দিতে চাই।’

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারে করে দিনব্যাপী টাঙ্গাইল সফরে মির্জাপুর হেলিপ্যাডে পৌঁছলে জেলা পুলিশ প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে।

পরে প্রধানমন্ত্রী কুমুদিনী কমপ্লেক্স থেকে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে জেলার ৩১টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন এবং দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন।

প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী শাহবুদ্দীন আহমেদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন— পিআইডি

আরপি সাহা নামে পরিচিত রণদা প্রসাদ সাহা ছিলেন একজন প্রখ্যাত ব্যবসায়ী ও জনহিতৈষী ব্যক্তিত্ব। তিনি তার সব সম্পদ দেশ ও মানুষের জন্য দান করেছেন। ভারতেশ্বরী হোমস, কুমুদিনী উইমেনস মেডিকেল কলেজ, কুমুদিনী হাসপাতাল, রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমুদিনী নাসিং স্কুল ও কলেজ, টাঙ্গাইল কুমুদিনী গার্লস কলেজ, মির্জাপুর ডিগ্রী কলেজ, মির্জাপুর এস কে পাইলট বয়েজ অ্যান্ড গার্লস হাইস্কুল, মানিকগঞ্জ দেবেন্দ্র কলেজের মতো অনেক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন আরপি সাহা।

১৯৭১ সালের ৭ মে পাকিস্তানী সেনাবাহিনী আরপি সাহা ও তার একমাত্র ছেলে ভবানী প্রসাদ সাহাকে তাদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। কুমুদিনী পরিবার এই মহান দানবীরের নামে ২০১৫ সালে রণদা প্রসাদ সাহা স্বর্ণপদক প্রবর্তন করে।

অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, সংসদ সদস্যগণ, প্রধানমন্ত্রীর সচিবগণসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

পাকিস্তান-ভিত্তিক সংগঠন জইশে মুহাম্মাদের প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী ঘোষণায় আবারো বাধা দিয়েছে চীন। জাতিসংঘে ভারতের তোলা প্রস্তাবে ফ্রান্স, আমেরিকা ও ব্রিটেন সম্মতি দিলেও ভেটো দেয় বেইজিং।

প্রস্তাবে ভারত দাবি করেছিল, মাসুদ আজহারকে সন্ত্রাসী ঘোষণা দেয়ার পাশাপাশি তাকে জাতিসংঘের কালো তালিকাভুক্ত এবং তার ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ও সম্পদ জব্দ করতে হবে। কিন্তু চীন আগেই বলেছিল, “মাসুদ আজহার ইস্যুতে এমন সমাধান খুঁজতে হবে যা সব পক্ষের কাছেই গ্রহণযোগ্য হয়।”

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার পর বিমান হামলার পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদ দমনে আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইতে শুরু করে ভারত। যার জেরে ২৭ ফেব্রুয়ারি জাতিসংঘের নিষিদ্ধ তালিকায় ফের মাসুদের নাম ঢোকানোর জন্য নতুন করে প্রস্তাব আনে ফ্রান্স, ব্রিটেন ও আমেরিকা। নিয়ম অনুযায়ী সেই দিন থেকে দশ কর্মদিবসের মধ্যে ওই প্রস্তাব নিয়ে ভোটাভুটি হওয়ার কথা। সে অনুসারে গতকাল (বুধবার) ভোটাভুটি হয় কিন্তু চতুর্থবারের মতো ভারতের আনা প্রস্তাবে ভেটো দেয় চীন। ভারত এ ঘটনায় হতাশা প্রকাশ করেছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc