Monday 25th of March 2019 10:15:43 AM

সাদিক আহমেদ,স্টাফ রিপোর্টারঃ  আসন্ন শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন আফজল হক।আজ বৃহস্পতিবার জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে তিনি আনারস প্রতীক বরাদ্দ পান।এসময় তার সাথে উপজেলা কৃষকলীগ নেতৃবৃন্দসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য,আফজল হক ৩ নং শ্রীমঙ্গল সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।চেয়ারম্যান থাকাকালীন ইউনিয়নের প্রত্যেকটি এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন সাবেক এই চেয়ারম্যান এমনটাই বলছেন অত্র এলাকার ভোটাররা।তিনি ক্ষমতা থাকাকালীন শ্রীমঙ্গল ইউপি এলাকায় চুরি,ডাকাতি ও অসামাজিক কর্মকাণ্ড গুলি প্রায় শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছিলো বলে এলাকার ভোটারদের মুখে প্রায়ই শোনা যায়।তাছাড়া একজন ন্যায়পরায়ণ বিচারক হিসেবে শ্রীমঙ্গলে বেশ কদর রয়েছে আফজল হকের।অভাবনীয় সাফল্যের জন্য ১৯৯৮ ইংরেজির সিলেট মিডিয়ায় শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান পদকে ভূষিত হোন সাবেক এই চেয়ারম্যান।
বর্তমানে তিনি শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।এছাড়া তিনি সিলেট বিভাগীয় বৃহত্তর গণদাবী পরিষদের আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকেই তিনি মুজিব আদর্শের সৈনিক হিসেবে আওয়ামী পরিবারের একজন বিশ্বস্ত রাজনীতিবিদ হিসেবে রাজনীতিতে এখন পর্যন্ত আছেন।আওয়ামীলীগ রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকায় বেশ অনেকবারই প্রতিপক্ষের নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন আওয়ামীলীগের এই নেতা।বরাবরই তিনি আওয়ামীলীগের জন্য নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন।কর্মগুণে ইতিমধ্যেই তিনি শ্রীমঙ্গলের প্রতিটি মানুষের অন্তরে ঠাঁই করে নিয়েছেন বলে অনেকেই মনে করেন।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) মহাপরিচালক ময়মনসিংহের কৃতি সন্তান শাহ আলমগীর ইন্তেকাল করেছেন।
বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ। এক শোক বার্তায় শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম পত্রিকার প্রধান সম্পাদক আনিছুল ইসলাম আশরাফী , সিনিয়র সহ সভাপতি মো: ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, সহ সভাপতি শেখ জামান, সাধারণ সম্পাদক মুন্সুর আহমদ,যুগ্ন সম্পাদক আব্দুল মজিদসহ প্রেসক্লাবের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বিশেষ করে, আবুল হাসনাত মারুফ,মকবুল হাসান ইমরান,আবুল কালাম আজাদ,রোমান আহমদ চৌধুরী শিপুল,মকবুল হোসেন, সাদিক আহমদ ইমন, রমা রঞ্জন দেব, ফারুক আহমদ, এনিমেটরস বাংলা মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক ধন মিয়া, রফিকুল ইসলাম, এমদাদুল হক  প্রমুখ নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবার বর্গের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ বলেন- সাংবাদিক শাহ আলমগীরের নীতি ও আদর্শ  দেশের সকল সাংবাদিকদের জন্য অনুস্মরণীয়। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের মিডিয়া জগৎ একজন অভিবাবককে হারাল।মহান আল্লাহ  যেন তাকে জান্নাত নসিব করেন।প্রেস বার্তা

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: ধলাই নদী থেকে বালু তোলার ড্রেজার (বোম্বা) মেশিনের শব্দ দুষনের কবলে পড়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌরসভাধীন আলেপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় দেড় শতাধিক কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠগ্রহন ও পাঠদানে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ করেছেন শিক্ষা প্রতিষ্টানের প্রধান শিক্ষক। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় সরজমিন ধলাই নদী ঘেষা আলেপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয় থেকে ৫০ গজ অদূরে ধলাই নদী থেকে ড্রেজার (বোম্বা) মেশিনের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।

আর এ মেশিনটির বিকট শব্দে বিদ্যালয়সহ আশপাশের এলাকাটি ভারী হয়ে উঠেছে। এদিকে পৌর এলাকার কুমড়াকাপন গ্রামেও একই অবস্থা। অবাধে বোমা মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। শব্দদুষনের ফলে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মারাত্মক বিঘœ ঘটছে। দেখার যেন কেউ নেই।
এবিষয়ে অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমারের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, প্রায় দু’বছর থেকে কিছু প্রভাপশালী মহল বিদ্যালয়ের নিকটেই ধলাই নদী থেকে ড্রেজার (বোম্বা) মেশিনের মাধ্যমে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বালু উত্তোলন করে যাচ্ছেন। আর এর ফলে আমাদের বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করাতে চরম বিগ্ন সৃষ্টি করছে। শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ক্ষুন্ন করছে প্রতিনিয়ত। এ ব্যাপারে আমরা সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্তৃপক্ষসহ সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক এর কাছে অভিযোগ করেও কোন ফল পাইনি।
আলেপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর অভিভাবক সইদুন বেগম, মন্নান মিয়া জানান, ড্রেজার (বোম্বা) মেশিনের শব্দ দুষনের কারণে আমাদের শিশুরা বিদ্যালয়ে যেতে চায়না।
কমলগঞ্জ বহুমুখী মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর অভিভাবক নুরুল ইসলাম জানান, মেশিনের শব্দ দুষনের কারণে আমাদের ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া নষ্ট হচ্ছে। দিন নেই, রাত নেই আজ দু’তিন বছর যাবৎ একটি প্রভাবশালী মহল এখান থেকে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছেন কোন বাধা নিষেধও মানছেনা। স্থানীয় এলাকাবাসী বদরুল ইসলাম, মনাই মিয়া, নাজমুল ইসলাম জানান, “এ মেশিনের শব্দের কারনে বাড়ীতে থাকা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।
এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক জানান, বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি, আমরা সরজমিনে গিয়ে প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এম ওসমান,বেনাপোল: যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান অভিযান চালিয়ে ৪লক্ষ হুন্ডির টাকাসহ আরিফুর রহমান রয়েল (২৭) নামে এক হুন্ডি পাচারকারীকে আটক করেছে। সে বেনাপোল পোর্ট থানার মানকিয়া গ্রামের আকরাম আলীর ছেলে।
বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২ টার দিকে সীমান্ত থেকে তাকে আটক করা হয়।
যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর নজরুল ইসলাম জানান, নিজস্ব গোয়েন্দার (এফআইজি) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি একজন হুন্ডি পাচারকারী বিপুল পরিমাণ হুন্ডির টাকা নিয়ে বেনাপোল বাজারের দিকে যাচ্ছে।

এমন সংবাদের ভিত্তিতে আইসিপি ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা বেনাপোল চেকপোষ্টের সাদিপুর মোড়ে অভিযান চালিয়ে আরিফুর রহমান রয়েল নামে একজন হুন্ডি পাচারকারীকে ৪ লক্ষ টাকাসহ আটক করা হয়।
বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েব সুবেদার আবুল কাশেম হুন্ডির টাকাসহ পাচারকারী আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ।

বিশিষ্ট সাংবাদিক ও প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশের (পিআইবি) মহাপরিচালক শাহ আলমগীরের ইন্তেকালে শোক প্রকাশ করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রপতি আলহাজ্জ মো. আবদুল হামিদ। আজ বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতির এক শোকবার্তায় শাহ আলমগীরের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তিনি বলেন, ”তার ইন্তেকালে সাংবাদিকতার অঙ্গনে অপূরণীয় ক্ষতি হলো’।

ওই শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ”শাহ আলমগীরের আদর্শ ও নৈতিকতা সংবাদকর্মীদের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে”। রাষ্ট্রপতি মরহুমের রুহের শান্তি ও মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। এর আগে তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিশিষ্ট সাংবাদিক ও পিআইবি মহাপরিচালক শাহ আলমগীর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ১০ মিনিটে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ডায়াবেটিকসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি গত ২১ আগস্ট হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক কন্যা এবং আত্মীয়স্বজন ও অসংখ্য শুভাকাক্সক্ষী রেখে গেছেন।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ বৈরী আবহাওয়ায় কারণে শিলাবৃষ্ঠি ও ঝড়ে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানার পানিপাড়া গ্রামের “অরুনিমা রির্সোট এন্ড গলফ ক্লাব ,অরুনিমা ইকো পার্কে হাজার হাজার অতিথি পাখি মারা গেছে।
“অরুনিমা রির্সোট গলফ ক্লাব ,অরুনিমা ইকো পার্কে এর সত্ত্বাধিকারী ইরফান আহম্মেদ জানান, সারাদেশের ন্যায় নড়াইলেও ২৫ ফেব্রুয়ারী থেকে শুরু হয়েছে ঝড়ো হাওয়া ও ভারি বৃষ্টি। ২৫ তারিখ ও ২৬ তারিখ রাতে ভারি বৃষ্টির সাথে শিলা বৃষ্টি হয়। আর এই শিলা বৃষ্টিতে এই পার্কে অবস্থানরত ২৫ থেকে ৩০ হাজার দেশি ও অতিথি পাখি মারা যায়।
পার্কে কর্মরত শ্রমিক দিয়ে মারা যাওয়া পাখি গুল একত্রিত করা হচ্ছে। পরবর্তীতে এই পাখি মাটি খুড়ে পুতে রাখা হবে।
নড়াইলের কালিয়া উপজেলার “অরুনিমা রির্সোট গলফ ক্লাব ,অরুনিমা ইকো পার্কে -এর চেয়ারম্যান খবির উদ্দিন আহমেদ বলেন, ২০০৪ সাল থেকে প্রতি বছরই শীত মৌসুমসহ বছরের ৮ মাস বিভিন্ন প্রজাতির পাখির কলতানে মুখরিত হয় এই পার্কটি। এবছরও মৌসুমের শুরুতেই (অক্টোবরের প্রথম থেকে) অতিথি পাখির কলতানে মুখরিত হয়ে উঠেছে গ্রামটি। পাখি সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করায় একযুগ আগে থেকেই এলাকাটির পরিচিতি পাখি গ্রাম নামে। এখানে বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন বিকালে গাছের ঢালে বসতে থাকে এসব পাখি। রাত যত গভির হয় পাখিদের আগমন বাড়তে থাকে। সারারাত পাখির কলতানে মূখরিত থাকে পুরো এলাকা। গত ২দিনের বৈরী আবহাওয়ায় যে ক্ষতি হয়েছে সেটা অপুরনিয়।
এখানে প্রায় ৬০ একর এলাকা জুড়ে গড়ে উঠেছে দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির পাখির কয়েক হাজার বাসস্থান। এখানে বক, হাঁসপাখি, পানকৌড়ী, শালিখ, টিয়া, দোয়েল, ময়না, মাছরাংগা, ঘুঁঘু, শ্যামা, কোকিল, টুনটুনি, চড়ঁ–ই সহ দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির পাখির রাজত্ব।
এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার পাখির প্রজনন ঘটছে। ডিম থেকে ফুটছে বাচ্চা। বর্তমানে দেশের একমাত্র এই কৃষি পর্যটন কেন্দ্রটি পরিনত হয়েছে পাখির অভয়ারন্যে।

মৃত পাখির স্তূপ
এভাবেই মরে পরে আছে

নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় রেলের জায়গা দখল করে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে রেলওয়ে পশ্চিমা ল পাকশির বিভাগীয় ভূসম্পত্তি কর্মকর্তা ইউনুস আলী ও আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছানাউুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ এ অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করে।

এ সময় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও বিপুলসংখ্যক জিআরপি দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশন এলাকায় রেলের জায়গা দখল করে বিপুলসংখ্যক অবৈধ স্থাপনা গড়ে তোলা হয়। এতে করে একদিকে যেমন রেলের সরকারি জায়গা বেদখল হয় তেমনি যাত্রীরাও হন চরম দুর্ভোগের শিকার। অবৈধ এসব স্থাপনা হটিয়ে নিতে রেলের পক্ষ থেকে বার বার নোটিস দেয়ার পরও তা কার্যকর না হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে স্টেশন এলাকার প্রায় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

উচ্ছেদ অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন, আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মোবারক হোসেন, সান্তাহার জিআরপি থানার (ওসি) মো: মনিরুল ইসলাম, আত্রাই প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক রুহুল আমিন, আত্রাই থানার এস আই মোস্তাফিজুর রহমান প্রমূখ।

বেনাপোল থেকে এম ওসমান:  যশোরের শার্শায় মৌসুমের আকস্মিক ঝড়-বৃষ্টিতে আম চাষিদের ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। গত দু’দিনে থেমে থেমে বৃষ্টিপাতের সাথে ঝড় ও মুসল ধরে শিলা বৃষ্টির কারণে অধিকাংশ গাছের মুকুল ঝরে মাটিতে লুটিয়ে পড়ায় মাথায় হাত উঠেছে এই এলাকার আম চাষিদের।
গত সোমবার ভোর থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি ও ঝড় সাথে শিলাবৃষ্টি বুধবার সকাল পর্যন্ত স্থায়ী হয়। সাথে হয়েছে বজ্রপাতও। এর সাথে আবার থেমে থেমে হয়েছে দমকা ঝড় ও বৃষ্টি।
এছাড়া সারাদিন গুড়িগুড়ি বৃষ্টি তো লেগেই ছিলো। এতে করে আমের মুকুলের ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। আর বৃষ্টি শুরুর পর থেকেই পুরো উপজেলার এলাকার বিদ্যুৎ সরবরাহ ত্রুটি দেখা দিয়েছে। যা স্বাভাবিক হতে লাগবে অনেকটা সময়।  
এদিকে শিলাবৃষ্টির আঘাতে শার্শা বাগআঁচড়া, নাভারন, গোগা, কায়বা, উলাশিসহ পাশ্ববর্তী শংকরপুর অঞ্চলে আমের মুকুলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।ঝরে পড়েছে গাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে মুকুল। তবে আমের মুকুলের ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা না গেলেও এই ক্ষতি পুষিয়ে ওঠা সম্ভব নয় বলে দাবি করেছেন স্থানীয় আম চাষি ও ব্যবসায়ীরা।
গত ২ দিনের বৃষ্টি, ঝড় ও শিলাবৃষ্টির আঘাতে আমের মুকুল ঝরে পড়ায় চরম লোকসান গুণতে হবে বলে জানালেন স্থানীয় আমচাষী বাবলুর রহমান।তিনি জানান আম গাছে মুকুল যে পরিমাণ এসেছিল, তাতে অন্যান্য বছরের লোকসান অনেকটা পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হতো। কিন্তু হঠাৎ বৃষ্টির কারণে অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। 
উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায় গত মৌসুমে শার্শা উপজেলায় ২৫০হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছিল যা এবার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিলো ৩৭০ হেক্টর জমিতে। 
সূত্র আরও জানা যায়, শার্শায় গতবারের চেয়ে এবার আমের বাগানের সংখ্যা ছিলো আরও বেশি। বাগানে আমের মুকুল দেখে খুশিতে মন ভরে গিয়েছিল চাষীদের । মনে অনেক স্বপ্ন আর বুকভরা আশা জেগেছিল তাদের মনে। কিন্তু অসময়ের শিলাবৃষ্টিতে আমের মুকুলের সাথে সাথে ঝরে গেছে সেই স্বপ্ন আর আশা।
শার্শা উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের কর্মকর্তা  সৌতম কুমার শীল জানান, শিলাবৃষ্টি ও হালকা ঝড়ো বাতাসে আমের মুকুলের পাশাপাশি এই এলাকার কুল, গম, ডাল, সরিষা, নাবিজাতের আলুর ক্ষতি হয়েছে। তবে এ বৃষ্টি বোরো ধানের জন্য আশীর্বাদ। শিলা বৃষ্টির কারণে আমের মুকুল শতকরা ৩০ ভাগ নষ্ট হয়েছে।

মৃত সভাপতির স্বাক্ষর জাল করে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) সংবাদদাতাঃ সিলেটের জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরীর নিয়োগ অবৈধ হলেও তিনি এ পদে বহাল রয়েছেন। ২০০৮ খ্রিস্টাব্দে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা টিম অধ্যক্ষের নিয়োগ অবৈধ বলে প্রতিবেদন দেয় এবং নিয়োগ প্রাপ্তির পর থেকে এমপিও বাবদ উত্তোলিত সমুদয় অর্থ সরকারি কোষাগারে ফেরত দেয়ার নির্দেশ প্রদান করে।

কিন্তু মন্ত্রণালয়ের এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজশে নির্দেশনাটি ধামাচাপা দিয়ে অধ্যক্ষ পদে বহাল থাকছেন মফিজুর রহমান। গত ১৯ বছরে মাত্র একবারের অভ্যন্তরীন অডিটে নানা আর্থিক অনিয়ম ও কেলেংকারির চিত্র ফুটে উঠে। কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ৭বৎসর পূর্বে মারা যান, সেই সভাপতির জাল প্রতিস্বাক্ষর দেখিয়ে ইতো মধ্যে ২জন শিক্ষক নিয়োগ এমপিও ছাড় করেন এবং আরও কয়েকজন শিক্ষক নিয়োগোর পর এমপিও ছাড় করানোর প্রক্রিয়া রয়েছেন।
সম্প্রতি বিভিন্ন দপ্তরে অধ্যক্ষ মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে পাঠানো অভিযোগ অনুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত কলেজটির প্রতিষ্ঠাকালীন অধ্যক্ষ ছিলেন লোকমান হোসেন। তিনি কর্মরত থাকা অবস্থায় সম্পূর্ণ অবৈধ পন্থায় ভুয়া নিয়োগ কমিটির মাধ্যমে ২০০০ খ্রিস্টাব্দের ২০ জুলাই মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরী অধ্যক্ষ পদে অবৈধ ভাবে নিয়োগ লাভ করে। নিয়োগ প্রক্রিয়াকে বৈধ করার জন্য মন্ত্রণালয়ের অসাধু কর্মকর্তার মাধ্যমে ২০০২ খ্রিস্টাব্দের ৩১ অক্টোবর পুনরায় অবৈধ ভাবে নিয়োগ লাভ করেন। নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরী নিজেই দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া, ২০০০ খ্রিস্টাব্দে কলেজে অধ্যক্ষ পদে যোগদান দেখালেও ২০০২ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত পূর্ববর্তী প্রতিষ্ঠান তৈয়ব আলী কারিগরি কলেজ থেকে সরকারি বেতন-ভাতা গ্রহণ করেন তিনি। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নিরীক্ষা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরী ভুয়া অভিজ্ঞতা সনদ দেখিয়ে নিয়োগ লাভ করে। তিনি এইচএসসি ও বিকম তৃতীয় শ্রেণী এবং মাস্টার্স পূর্ব ভাগে তৃতীয় শ্রেণী ডিগ্রীধারী। অর্থাৎ তার একাধিক তৃতীয় বিভাগ রয়েছে। নিয়োগকালে ভুয়া তথ্য প্রদান করেছেন এবং কাম্য অভিজ্ঞতা না থাকায় মন্ত্রণালয়ের নিরীক্ষা প্রতিবেদনে অধ্যক্ষের নিয়োগ সম্পূর্ণ অবৈধ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। অধ্যক্ষ মফিজুর রহমান চৌধুরী এ প্রতিবেদনের জবাব দাখিলের পর ২০১২ খ্রিস্টাব্দের ১৪ নভেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় ব্রডশিট জবাব অনুমোদনে অনেক গুলো সিদ্ধান্ত প্রদান করে। ব্রডশিট জবাবে দেখা যায়, অধ্যক্ষ মফিজুর রহমান চৌধুরীর নিয়োগ বিধি সম্মত না হওয়ায় উত্তোলিত সমুদয় বেতন ভাতার সরকারি অংশের অর্থ ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে জমা দিতে বলা হয় তাকে। এমনকি অর্থ জমাদানের চালানের সত্যায়িত ছায়ালিপি পত্র জারির ৩০ দিনের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে অধ্যক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়। ব্রডশিটে অধ্যক্ষ মফিজুর রহমান চৌধুরী তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজে যোগদানের পর তৈয়ব আলী কারিগরি কলেজ থেকে অতিরিক্ত উত্তোলিত টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দানের নির্দেশও দেয়া হয়েছিল। এদিকে, কলেজের অভ্যন্তরীণ অডিটেও অধ্যক্ষের নানা অনিয়ম ও আর্থিক কেলেঙ্কারীর চিত্র ফুটে উঠে। গত ১৯ বছর ধরে তিনি অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করলেও তার মেয়াদকালে কলেজের অভ্যন্তরীণ অডিট হয়েছে মাত্র একবার। অভিযোগ উঠেছে, অধ্যক্ষ কলেজের গভর্নিং বডিকে ব্যবহার করে এসব অনিয়ম করে যাচ্ছেন। সূত্র জানায়, ভুয়া অভিজ্ঞতা সনদ দেখিয়ে নিয়োগসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ২০০৫ খ্রিস্টাব্দে কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক সভাপতি মরহুম রশিদ হেলালী অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। কিন্তু, অধ্যক্ষের সহোদর ও রাষ্ট্রপতির তৎকালীন প্রেস সচিব মোখলেছুর রহমান চৌধুরীর সুবাদে তিনি ঐ যাত্রায় নিজেকে রক্ষা করেন।
নিজের অবৈধ নিয়োগের পথ অবলম্বন করে তার অত্যান্ত দূরদর্শী ও আস্থাভাজন ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক শফিকুর রহমানের সমন্বয়ে জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রি কলেজে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে কয়েক জন তৃতীয় শিক্ষকের নিয়োগ দেখানো হয়। গত জানুয়ারি মাসের এমপিও শীটে ঝিনাইদহ জেলার লিটন কান্তি রায় ও মোহাম্মদ শাহ জাহান নামে দুই জন প্রভাষক ডিগ্রি শাখার তৃতীয় শিক্ষক হিসেবে বেতন প্রাপ্ত হন।

আগামী এমপিওতে তৃতীয় শিক্ষক হিসেবে আরো কয়েক জনের বেতন প্রাপ্তির বিষয়টি প্রক্রিয়াধিন বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। এসকল শিক্ষক নিয়োগ বিষয়ে বর্তমান গর্ভানিং বড়ি কিছুই জানে না, জানেন শুধু অধ্যক্ষ মুফিজুর রহমান চৌধুরী ও ইসলামের ইতিহাসের আদালত কর্তৃক ৬মাসের সাজা ভূক্ত শিক্ষক শফিকুর রহমান।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী পরিচালক প্রতাপ চৌধুরী জানান, জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমানের নিয়োগ বিধি সম্মত নয় মর্মে তারা একটি অভিযোগ পেয়েছেন। কলেজের শিক্ষক প্রতিনিধির ওই অভিযোগ প্রাপ্তির পর তারা সংশ্লিষ্ট অভিযোগকারী এবং অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষের বক্তব্য গ্রহণ করেছেন। উভয় পক্ষের বক্তব্য গ্রহণ করে তারা এ বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে মন্ত্রণালয়ে পত্র দিয়েছেন। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে বলে জানান এ কর্মকর্তা।
কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরী এ মন্ত্রণালয়ের নিরীক্ষা প্রতিবেদনে তাঁর নিয়োগ অবৈধ ঘোষণা করার কথা স্বীকার করলেও এসব আপত্তি পরবর্তীতে নিষ্পত্তি হয়েছে বলে জানান। তবে নিস্পত্তির কোন ডকুমেন্ট দেখাতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে তিনি এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন। এ ব্যাপারে কলেজের শিক্ষক বৃন্দ নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, অধ্যক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরীর নিয়োগ সম্পূর্ণ অবৈধ হিসেবে উল্লেখ করে ইতিপূর্বে গ্রহণকৃত বেতনের টাকা ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে ফেরত দানের নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়। কিন্তু, মন্ত্রণালয়ের এ আদেশ উপেক্ষা করে তিনি দীর্ঘদিন ধরে বহাল তবিয়তে রয়েছেন।
অপরদিকে ৭বৎসর পূর্বে মারা যাওয়া সভাপতির প্রতি স্বাক্ষর জাল করে অর্থের বিনিময়ে অবৈধ্য শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে এমপিও ছাড় করাচ্ছেন। যে দুই জন শিক্ষক ইতোমধ্যে এমপিও ভূক্ত হয়েছেন তারা কখনো এই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করেননি। অনুসন্ধানে শিক্ষকদ্বয়ের নাম কোন ছাত্র/ছাত্রী, কর্মরত শিক্ষক কর্মচারিরা শুনেনি এবং দেখে নাই। গায়েবী এই শিক্ষক নিয়োগটি জানতে পেরে তাৎক্ষনিক ভাবে তাদের বেতন ভাতা বন্ধ করে দেয় বর্তমান গভানিং বড়ি। বিশ্বস্থ সূত্র দাবী তুলেছে টাকার কোন সমস্যা নাই, শিক্ষক নিয়োগ বাবত প্রাপ্ত অর্থ এবং তাদের বেতন ছাড় করাতে ভাগ বন্টন করার জন্য দফা রফার চেষ্টা চলছে অধ্যক্ষের বিশ্বস্ত আদালত কর্তৃক সাজাপ্রাপ্ত প্রভাষক শফিকুর রহমান।
বর্তমান শিক্ষক প্রতিনিধি সহকারি অধ্যাপক খসরু নোমানের সাথে আলাপকালে তিনি প্রতিবেতককে জানান, আমরা দীর্ঘ দিন থেকে শিক্ষকতা করে আসলেও এরকম অবৈধ্য নিয়োগ কোথাও দেখিনি। প্রতিষ্ঠানে কাজ না করে হাজিরা না থেকে এমনকি পাঠদান না করে শিক্ষকদের নিয়োগ হয়ে এমপিও ভূক্ত হয়ে যায়। বিষয়টি কৌতুহলের, আমরা গভানিং বড়িকে জানালে তাৎক্ষনিক ভাবে তাদের বেতন বন্ধ করা হয়েছে।
বর্তমান গভানিং বড়ির সভাপতি এটিএম বদরুল ইলামের সাথে আলাপকালে তিনি জানান- অধ্যক্ষে নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়টি আমার পূর্ববর্তী কমিটির সভাপতিরা জানেন কি করে তিনি নিয়োগ পেলেন। হঠাৎ করে দুইজন শিক্ষকের বেতন এমপিও শীটে আসা এবং আলাদা ভাবে উত্তোলনের বিষয়টি ধরা পড়ায় আমি তাদের বেতন বন্দ করে দিয়েছি। পুরো নিযোগ প্রক্রিয়াটি যাচাই বাছাই করে দেখে যদি অসংগতিপাই তাহলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহক করা হবে।
এবিষয়ে জানতে ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক শফিকুল ইসলামের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন- ২০০০ সনে তাদের নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। তৃতীয় শিক্ষক নিয়োগ মন্ত্রনালয়ের বন্দ থাকায় এতদিন তাদের এমপিও ভূক্ত হয়নি। সম্প্রতি তৃতীয় শিক্ষকদের এমপিও ছাড় হওয়ায় তারা বৈধ ভাবে এমপিও ভূক্ত হয়েছেন। তারা প্রতিষ্ঠানে আসেনি এমনকি অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ ও শিক্ষকপ্রতিনিধি, কিংবা গভানিং বড়ি বিষয়টি জানেন না প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন সদুত্তর না দিয়ে ফোন রেখে দেন।
এবিষয়ে জানতে অধ্যক্ষ মফিজুর রহমান চৌধুরীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে গত দুদিন থেকে কয়েক দফা মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এম ওসমান,বেনাপোল: যশোর-৪৯ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি)’র বেনাপোল আইসিপি ক্যাম্পের সদস্যরা বুধবার রাতে সাদিপুর সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ভারত থেকে পাচার হয়ে আসা ৪ লক্ষ টাকা মুল্যের বিভিন্ন প্রকার ওষুধ উদ্ধার করেছে । তবে অভিযানের সময় কোন পাচারকারীকে আটক করতে পারেনি বিজিবি ।
যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর নজরুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি চোরাচালানীরা ভারত থেকে বিপুল পরিমান ওষুধের চালান এনে যশোর নেওয়া জন্য সীমান্তের সাদিপুর পাকা রাস্তার উপর অপেক্ষা করছে ।
এমন সংবাদে আইসিপি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আবুল কাশেম, ল্যান্স নায়েক নজরুল ইসলাম, সিপাহী সিদ্দিকুর রহমান ও সিপাহী মিন্টু সঙ্গী ফোর্স নিয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে ভারত থেকে পাচার হয়ে আসা ৪ লক্ষ টাকা মুল্যের বিপুল পরিমাণ ভারতীয় ওষুধ উদ্ধার করেন ।
এসময় বিজিবির উপস্তিতি টের পেয়ে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। উদ্ধারকৃত ওষুধগুলো বেনাপোল কাস্টমসে জমা দেওয়ার হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবি ।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বালিয়াঘাট ও চাঁরাগাঁও সীমান্তে জামাই ও শ্বশুরের জমজমাট মাদক ও চাঁদাবাজি বাণিজ্যসহ লাউড়গড় সীমান্তে উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে পরিবেশ নষ্টকারী ডিজেল চালিত পাওয়ার টিলার ইঞ্জিন মেশিন দিয়ে সীমান্তের ১২০৩নং পিলার সংলগ্ন যাদুকাটা নদীর জিরো পয়েন্ট ও ভারত সীমান্তের ভিতরে প্রায় ৫শতাধিক অবৈধ মৃত্যুকুপ নামের কোয়ারী নির্মান করে প্রতিদিন হাজারহাজার মেঃ টন পাথর উত্তোলন করে কোটিকোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য ১টি প্রভাবশালী মহল জোর তৎপরতা চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসী জানায়,বর্তমানে জেলহাজতে থাকায় ইয়াবা ব্যবসায়ী সোর্স কালাম মিয়ার চাচা শ্বশুর চিহ্নিত চোরাচালানী রহমত আলী তার মেয়ের জামাই আইয়ুব আলী সোর্স কালাম মিয়া জেলে থাকার কারণে বালিয়াঘাট সীমান্তের লালঘাট ও লাকমা এলাকার দায়িত্ব নেয় এবং তাদের সহযোগী চাঁদাবাজি মামলার জেলখাটা আসামী দুধেরআউটা গ্রামের জিয়াউর রহমান জিয়া,কয়লা পাচাঁর মামলার আসামী লালঘাট গ্রামের জানু মিয়া ও লাকমা গ্রামের বাবুল মিয়া,বিজিবির ওপর হামলার মামলার আসামী লালঘাট গ্রামের আব্দুর রউফ ও আব্দুল আলী ভান্ডারী,টেকেরঘাট গ্রামের অস্ত্র ও চাঁদাবাজি মামলার আসামী ইয়াবা ব্যবসায়ী ল্যাংড়া বাবুল,লালঘাট গ্রামের বিজিবি ও বিএসএফের সোর্স পরিচয়ধারী রমজান মিয়া,নুর জামাল,ইসব আলী,সোহেল মিয়া ও বুঙ্গড়াছড়া গ্রামের ফিরোজ মিয়া, বড়ছড়া গ্রামের কামাল মিয়াকে নিয়ে সিন্ডিকেডের মাধ্যমে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে লাকড়ি ও কাঠের সাথে মদ,গাঁজা ও ইয়াবা পাচাঁর করে লালঘাট ও লাকমা গ্রামের বিভিন্ন স্থানে মজুত করে। পরে এসব অবৈধ মালামাল সপ্তাহের ২দিন শুক্রবার ও সোমবার হাটবারে বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন নতুনবাজার ও দুধেরআউটাসহ বানিয়াগাঁও,কলাগাঁও,রজনীলাইন গ্রামে নিয়ে ওপেন বিক্রি করে।

এজন্য পাচাঁরকৃত মালামালের মধ্যে ১টি ফালী (ভারতীয় কাঠ) থেকে ১২০টাকা,এক ঠেলাগাড়ি লাকড়ি থেকে ৩০০টাকা নেওয়াসহ মদ,গাঁজা ও ইয়াবা পাচাঁরের জন্য সপ্তাহে ৫ থেকে ২০হাজার টাকা চাঁদা বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্পের নামে নিচ্ছে শ্বশুর রহমত আলী,জামাই আইয়ুব আলীসহ তাদের সহযোগী জিয়াউর রহমান জিয়া,ফিরোজ মিয়া,আব্দুর রাজ্জাক ও আব্দুল আলী ভান্ডারী। এব্যাপারে বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার হাবিলদার হান্নান বলেন,আমাদের ক্যাম্পের সোর্সের দায়িত্ব কাদেরকে দেওয়া হয়েছে তা সঠিক ভাবে বলতে পারবনা,খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে।

সুনামগঞ্জ ২৮ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক মাকসুদুল আলম বলেন,সীমান্ত এলাকায় বিজিবি কোন সোর্স নাই, চোরাচালান ও চাঁদাবাজির সাথে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ট্রাস্ট ব্যাংক শাহজালাল উপশহর শাখার দায়ের করা মামলায় মাননীয় আদালত ৬মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে। আদেশ জারীর পর থেকে তিনি পুলিশের খাতায় পলাতক রয়েছেন। অপরদিকে তিনি সাজাপ্রাপ্ত আসামী হয়ে কর্মস্থলে নিয়মিত উপস্থিত থেকে বেতন ভাতা উত্তোলন করছেন।
মামলার রায় সূত্রে জানাযায়- কুমিল্লা জেলার ব্রাক্ষণপাড়া থানার সাজঘর গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে মোঃ শফিকুল ইসলাম বর্তমান জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক শফিকুল ইসলাম ১লা ডিসেম্বর ২০১০ সনে ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড শাহজালাল উপশহর শাখা হতে ঋণ সুবিদা ভোগ করেন। পরবর্তীতে তিনি খেলাপী হওয়ায় ট্রাস্ট ব্যাংক এন.আই এ্যাক্ট-১৮৮১ এর ১৩৮ ধারায় ৮লক্ষ ৬৫হাজার ৪০৮ টাকার চেক ডিজওর্নার মামলা করে। মামলার নং- সিলেট-মেট্রো সি,আর ২৫১/২০১৩, তারিখঃ ০৮/১০/২০১৩ইং পরবর্তীতে দায়রা মামলা নং-৫২৪/২০১৪, যারা আদেশ নং-১৪, তারিখ- ২৪/০৬/২০১৫ইং।

শুনানী শেষে মাননীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদলতের বিচারিক মোহাম্মদ ইফতেখার বিন আজিজ এর আদালত মামলা রায় ঘোষনা করেন এবং দন্ডাদেশ কার্যাকরণার্থে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী করেন যাহার ডকেট/প্রসেস নং ২৭৪৬, তারিখ ৯ আগষ্ট ২০১৫। এছাড়া মাননীয় আদালতের রায়ে বলা হয় অত্র মামলার পলাতক আসামী মোঃ শফিকুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ১৮৮১ইং সালের এন.আই,এ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারা মোতাবেক প্রনীত অভিযোগ রাষ্ট্রপক্ষ সমর্থিত সাক্ষ্য দ্বারা সন্দেহাতীত ভাবে প্রমান করিতে সমর্থ হওয়ায় তাহাকে ০৬ (ছয়) মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও চেকে উল্লেখিত টাকা ও জরিমানা আদায়ের শাস্তি প্রদান করা হইল। আসামী সেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পন অথবা পুলিশ কর্তৃক ধৃত হওয়ার তারিখ হইতে আরোপিত দন্ডাদেশ কার্যকর হইবে।
এবিষয়ে জানতে জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক শফিকুল ইসলাম বলেন- আমি ব্যাংকের সাথে লিয়াজের মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করেছি।
এবিষয়ে ট্রাষ্ট ব্যাংকের উপশহর শাখায় যোগাযোগ করা হলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিবেদককে বলেন- ব্যাংক বিধি মোতাবেক মামলা করছে। আদালত রায় দিয়েছেন, যদি অভিযুক্ত ব্যক্তি টাকা পরিশোধ করে আদালতের কাছে আমরা বিষয়টি অবহিত করব। তবে এখন পর্যন্ত টাকা জমা হয়নি।
জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের প্রিন্সীপাল মুফিজুর রহমান চৌধুরীর সাথে একাধিক বার মোবাইল যোগযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
জৈন্তাপুর তৈয়ব আলী ডিগ্রী কলেজের গর্ভানিং বডির সভাপতি এটিএম রদরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান- ইসলামের ইতিহাসের শিক্ষক প্রভাষক শফিকুল ইসলাম তার ব্যক্তিগত একটি মামলা রয়েছে শুনেছি আদালতের কাছ হতে আমরা কোন নির্দেশনা পাইনি।
এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ মাইনুল জাকির বলেন- ট্রাষ্ট ব্যাংকের একটি কপি পেয়েছি এটা দিয়ে কাউকে আটক করা যায় না। কুমিল্লা জেলার ব্রাক্ষণপাড়া হতে কোন গ্রেফতারি পরোয়ানা আসেসি। তারপর কয়েক দফা যোগাযোগ করা হলেও গ্রেফতারী পরোয়ানা না আসায় শিক্ষককে গ্রেফতার করা যায়নি। গ্রেফতারি পরোয়ানা পেলে ব্যবস্থা নিব।

ভারতীয় ২ যুদ্ধ বিমানকে ভূপাতিত করেছে পাকিস্তানের বিমানবাহিনী। এছাড়া একজন পাইলটকে আটক করা হয়েছে। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিতের খবর নিশ্চিত করেছেন। তবে পাকিস্তানের এমন দাবি অস্বীকার করেছে ভারত। এমন খবর জানিয়েছে একাধিক সংবাদমাধ্যম।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র আসিফ গাফুর জানান, বুধবার পাকিস্তান সীমান্তে প্রবেশ করেছে এমন দুইটি ভারতীয় যুদ্ধ বিমান ভূপাতিত করেছে পাকিস্তানের সেনা বাহিনী। এছাড়া এসময় একজন পাইলটকে আটক করা হয়েছে।

অন্যদিকে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বুধবার ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে পাকিস্তানের তিনটি যুদ্ধবিমান ভারতে প্রবেশ করে। তবে ভারতীয় বাহিনীর তোপের মুখে ফিরতে বাধ্য হয়েছে এসব বিমান।

এদিকে জম্মু, কাশ্মীরে সহ শ্রী নগরের সকল বিমান বন্দর অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে ভারত। এছাড়া সীমান্ত জুড়ে জারি করা হয়েছে রেড এলার্ট।

মঙ্গলবার ভোররাতে ‘লাইন অব কন্ট্রোল’ অতিক্রম করে পাকিস্তানের সীমানার ভেতরে বালাকোটে হামলা চালিয়েছে ভারতীয় সেনা। ভারতের দাবি, হামলায় ৩০০ জঙ্গি নিহত হয়েছে।

কিন্তু ভারতের দাবি অস্বীকার করে পাকিস্তান জানায়, হামলায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বরং তাড়া খেয়ে পালিয়েছে ভারতের বিমান বাহিনী।

তবে পাকিস্তানি অংশে প্রবেশ করে ভারত যে ‘আগ্রাসন’ চালিয়েছে তার কড়া জবাব দেওয়া হবে হুমকি দিয়েছে পাকিস্তান। জানিয়েছে, যেকোন সময় ভারতে হামলা জন্য প্রস্তুত সেনাবাহিনী।

এনিয়ে দেশ দুইটির মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। তথ্য সূত্র: এনডিটিভি, এএফপি, টাইমস অব ইন্ডিয়া, আল-জাজিরা, ডনসহ অনলাইন।

ছবি সংগৃহীত

নড়াইল প্রতিনিধি: তৃতীয়ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নড়াইলের তিনটি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ২৬ জন এবং ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা পদে ১৫ জন মনোনয়নপত্র জমাদেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৯ জন এবং মহিলা পদে ৪ জন। লোহাগড়ায় চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৯ এবং মহিলা পদে ৬ জন। কালিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৮ জন এবং মহিলা ৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিন মঙ্গলবার নড়াইলের তিনটি উপজেলায় মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থীসহ স্বতন্ত্রপ্রার্থীরা। নড়াইল সদর উপজেলায় আওয়ামীলীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী নিজাম উদ্দিন খান নিলু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার আলমগীর হোসেনর কাছে। এ সময় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ সুবাস চন্দ্র বোস, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, অ্যাডঃ সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পৌর মেয়র মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ্বাস, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ অচিন চক্রবর্র্তীসহ জেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়া মিলন মল্লিক জাতীয় পার্টির ও এনপিপির নুরুল ইসলাম এবং স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে বিপ্লব বিশ^াস বিলো মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।
ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে যুবলীগ নেতা মাফুজুর রহমান মাফুজ, সাবেক জেলা ছত্রলীগের সভাপতি তোফায়েল মাহমুদ তুফান,সাবেক পৌর কাউন্সিলর কালু সাহা,মীর্জা রন্টুসহ ৯ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জাতীয় মহিলা সংস্থা নড়াইলেরর চেয়ারম্যান সালমা রহমান কবিতা, জেলা মহিলা আওয়মীলীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইসমত আরা, রানু বেগমসহ ৪ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন।
লোহাগড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী রাশিদুল বাশার ডলার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শিকদার আব্দুল হান্নান রুনু, সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান সৈয়দ ফয়জুল আমির লিটু, মারুফ হোসেন ও আসাদুজ্জামান জামান স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।
ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৯ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন।
কালিয়া উপজেলায় আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী কৃষ্ণপদ ঘোষ, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে বর্তমান চেয়ারম্যান খান শামীমূর রহমান ওছি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হারুন অর রশিদ এবং নূর আলম।
ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৮ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন প্রার্থীদের সাথে।

এস এম সুলতান খান চুনারুঘাট থেকে: চুনারুঘাট উপজেলার ময়নাবাদে লন্ডন ট্রেডিশনের কর্ণদার, সমাজসেবক মোঃ মামুন চৌধুরী প্রতিষ্ঠিত মফিজ উদ্দিন চৌধুরী মাদ্রাসায় জঙ্গীবাদ বিরোধী জন সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল  মঙ্গলবার দুপুরে মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চুনারুঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কে.এম আজমিরুজ্জামান। মাদ্রাসার সুপার মাওঃ কাউছার আহমদের সভাপতিত্বে ও প্রভাষক এহতেরামুল হক সোহাগ আহমেদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান তালুকদার, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এড. মোস্তাক আহাম্মদ বাহার, সাংবাদিক এসএম সুলতান খাঁন, আব্দুর রাজ্জাক রাজু, চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক রায়হান আহমেদ, নুর উদ্দিন সুমন, রেজাউর রহমান চৌধুরী।
অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক মাওঃ আবুল কাশেম, স্বপন মিয়া, মাওঃ মইনুল হাসান, মাওঃ খিজির আহমদ  সহ আরো অনেকে। সভায় বক্তারা জঙ্গীবাদ, মাদক ও ইভটিজিং এর কুফল বর্ণনা করেন এবং এই ব্যাধি থেকে উত্তরণের জন্য দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। অফিসার ইনচার্জ কে.এম আজমিরুজ্জামান এসব সামাজিক ব্যাধি সমাজ থেকে দূর করতে সর্বোচ্চ সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc