Wednesday 19th of December 2018 02:13:30 AM

এম ওসমান,বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শার নাভারন এলাকায় অর্থনৈতিক লেনদেনকে কেন্দ্র করে জাহিদুল ইসলাম জাহিদ (২৮) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শার্শা নাভারন উপজেলার কাজীরবেড় গ্রামে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে কাজীরবেড় গ্রামের একটি কলাবাগান থেকে সিএন্ডএফ কর্মচারীর বস্তাবন্ধী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সিএন্ডএফ কর্মচারী জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বেনাপোলের পোড়াবাড়ী নারায়নপুর গ্রামের আব্দুর জব্বার তরফদারের ছেলে এবং সেজুতি এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার।

এলাকাবাসী জানান, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বিদেশ যাওয়ার জন্য ৪ লাখ টাকা দেয় ঝড়ু দালালের স্ত্রী বিউটি খাতুনকে। পরে বিদেশ না পাঠিয়ে তাল-বাহনা শুরু করে। এ ঘটনায় সর্বশেষ বুধবার রাতে টাকা দেওয়ার কথা বলে বাসাবাড়ীতে ডেকে নেয় জাহিদকে। পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে বিউটি যশোর থেকে ৪জন ভাড়াটে কিলার এনে বাসায় সাউন্ডবক্সে গানবাজনা শুনতে থাকে। পরে জাহিদকে বাথরুমে নিয়ে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে লাশটি বস্তাবন্ধী করে পাশের একটি কলাবাগানে ফেলে দেয়। জাহিদের বাড়ীর লোকজন খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে বিউটির বাসায় এসে জানতে চাইলে লাইট অফ করে দিয়ে বলে জাহিদ আসেনি।

ঘটনাটি সন্দেহ হলে শার্শা থানা পুলিশকে অবহিত করে। থানা পুলিশ এসে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারে তাকে খুন করা হয়েছে। পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করেছে। এ খুনের ঘটনায় শার্শা থানা পুলিশ জড়িত থাকার অপরাধে ৬ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হল ঝড়–ও স্ত্রী বিউটি খাতুন (৪৭), মেয়ে সুমী খাতুন (২৯), মুক্তার আলীর স্ত্রী রহিমা বেগম (৬৫), খালিদের স্ত্রী ফেরদৌসী (৩৭) ও ছেলে আল-আমিন (১৮)। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ খুনের আলামত উদ্ধার করেছে।
শার্শা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম মশিউর রহমান বলেন, প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি তারা ভাড়াতে কিলার দ্বারা সিএন্ডএফ কর্মচারী জাহিদুল ইসলাম জাহিদকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমরা এব্যাপারে ৬ জনকে আটক করেছি এবং অন্যান্যদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাই উপজেলার পূর্ব দুর্গাপুর এলাকা থেকে ফারজানা খাতুন (১৯) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘরের তীরের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।
নিহত ফারজানা খাতুন উপজেলার পূর্ব দুর্গাপুর গ্রামের এরশাদ আলী মোল্লার স্ত্রী।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, নিহত ফারজানা খাতুন বুধবার (৫ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় পরিবারের সবার অজান্তে নিজ শয়ন কক্ষের তীরের সাথে রশি পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে সে আত্মহত্যা করে। পরিবারের তার ঘরের দরজা দীর্ঘ সময় বন্ধ দেখে তাকে ডাকতে থাকলে তার কোন সাড়া না পেলে দরজা খুলে দেখে সে গলায় রশি পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
এ ব্যাপারে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোবারক হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি জানার পর পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লাশ মর্গে প্রেরন করা হবে এবং একটি ইউডি মামলা রেকর্ড করা হবে বলেও জানান তিনি। এবং বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

“বিদ্যুৎ বিভাগের দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে ‘শেখ হাসিনার উদ্যোগ-ঘরে ঘরে বিদ্যুত” নামের এই মহান উদ্যোগটি অনেক স্থানেই প্রশ্নের সম্মুখীন”

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: ছাতকে ১৩টি ইউনিয়ন ও এক‌টি পৌর সভাসহ ১৪টি ইউ‌নিয়‌নে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। খুঁটির দূরত্ব বেশী হওয়ায় সঞ্চালন লাইন ঝুলে আছে বিপদজনকভাবে নীচু অবস্থায়। অনেক ক্ষেত্রেই নিরাপদ খাম্বার পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়েছে বাঁশের খুটি, সুপা‌রি ও কদম গা‌ছে। ফলে ঝুঁকির মধ্যে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছেন ১৩টি ইউনিয়নের ২০ হাজার গ্রাহক। ‌এসব বিদ্যুৎ লাই‌নে দীর্ঘ‌দি‌নে পুরাতন লাইন ঝড় বৃ‌ষ্টি‌তে প‌ড়ে শিক্ষক ,‌শিশু,যুবক,কৃষক, মা‌ঝি সহ ১২ ব্যক্তি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হ‌য়ে মৃত বরন ও তিন শতা‌ধিক ছাগল গরু ম‌হিষ বিদুৎ স্পৃষ্ট খু‌টিঁ থে‌কে কা‌রেন্ট মা‌টি‌তে নে‌মে যাবার ফ‌লে এসব ঘটনা ঘ‌টে। বিদুৎ লাই‌নের একা‌ধিক ঘটনা ঘট‌লে ও তা‌দের খোজ খবর কেউ নি‌চ্ছেন না । ৩০বছ‌রের পুরা‌নো ঝু‌কিঁপুন বিদুৎ লাই‌নের পুনসংস্কা‌রের দা‌বি ক‌রে আস‌ছে অর্ধশতা‌ধিক গ্রামবা‌সি ।

ইসলামপুর, নোয়ারাই ও কালারুকা ইউনিয়‌নে আ‌বেদন নি‌বেদনের প‌রি‌প্র‌ে‌ক্ষি‌তে সংস্কা‌রের কাজ চল‌ছে । ও কো‌নো সুরাহা পা‌চ্ছেন না ২০হাজার বিদুৎ গ্রাহকরা । এসব প্র‌তি‌নিয়ত দুঘটনা থে‌কে রক্ষা চায় ছাতকবাসী। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পাকা খুঁটির পাশাপাশি বাঁশের খুঁটি দিয়ে বিদ্যুতের লাইন টানা হচ্ছে। কোন-কোন গ্রামের গাছে পেছিয়ে বিদ্যুত লাইন এক স্থান থেকে অন্যস্থানে সঞ্চালন করা হয়। বাঁশের খুঁটি ও গাছ ব্যবহার করে বিদ্যুত লাইন টানার ফলে মারাত্মক দুর্ঘটনার ঝুঁকিতে রয়েছেন মানুষ। পিডিবি মিটার রির্ডার পদে কিছু খন্ডকালীন লোক নিয়োগ দেয়ার পর সাময়িক বিলের কাগজে কিছুটা বৈধতা ফিরে আসলেও বর্তমানে কোন কিছু তোয়াক্কা না করে ডিজিটাল মিটারের অযুহাত দেখিয়ে ভালই দিন কালাতিপাত করছেন তারা । আর এতে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার সাধারণ গ্রাহকরা। লাভবান হচ্ছেন বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারিরা।

জানা য়ায়,নিয়ম অনুযায়ী যে খুটিতে এলটি লাইন থাকে সেই খুটি থেকে ১০০ফিট পর্যন্ত আশেপাশের লোক জন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসতে পারে। বাঁশের খুটি ব্যবহারের কোন নিয়ম নেই। ১৩টি ইউ‌নিয়‌নের ১শ’২৭‌টি ওয়ার্ডে ২ হাজার বাঁশের খুঁটি রয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। দুর্নীতির মাধ্যমে স্থানীয় একটি মহলের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন সরকারের বরাদ্ধকৃত টাকা ভাগবাটোয়ারার মাধ্যমে আত্মসাৎ করে পাকা খুঁটির পরিবর্তে বাঁশ ও গাছের খুঁটিতে বিদ্যুৎ লাইন দিয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ ক‌রেন।

ভৌগোলিক বিবেচনায় ইসলামপুর ইউনিয়ন একটি জটিল জনপদ হলেও শিক্ষা ও ব্যবসার ক্ষেত্রে উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়ন থেকে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে এ ইউনিয়নের মানুষ। ছোট-বড় টিলা বেষ্টিত সীমান্ত অঞ্চল হওয়ায় ইউনিয়নের ৪টি ওয়ার্ডে এখনো বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ চল‌ছে। ভৌগোলিক জটিলতার কারণেই এ ইউনিয়ন যোগযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে অনেকটা পিছিয়ে রয়েছে। বর্ষা মৌসুমে ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থার একমাত্র মাধ্যম হয়ে উঠে নৌকা। বর্ষায় ঝুলে থাকা বিদ্যুতের তার হয়ে উঠে এ ইউনিয়নের মানুষের জন্য দুর্ঘটনার কারণ।

ফলে বিগত দিনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে ১২জ‌নের বেশী লোক। রাতের আঁধারে নৌকা চলাচলের সময় বেশীর ভাগ দুর্ঘটনা ঘটে থাকে বিদ্যুৎজনিত কারণে। কোন-কোন স্থানে পানির উচ্চতা থেকে ঝুলন্ত বৈদ্যুতিক তারের উচ্চতা ৫-৭ ফুটের মধ্যে এসে পড়ে। নৌকার লগিতে লেগে প্রতিবছরই এখানে বিদ্যুতের তার ছেঁড়ার ঘটনা ঘটে থাকে অবা‌ধে।

ছাতক বিদ্যুৎ দপ্তরের আওতাধিন আলমপুর,মান‌জিহারা,‌মোহন পুর, তেরাপুর,বলারপীরপুর,‌নোয়াগাও ,তাজপুর,মামনপুর, গড়গাও, বেরাজপুর,‌গিলাছড়া, ত‌কিরাই, মৈশাপুর ,রাজার গাও, শৌলা,লম্বাহা‌টি, ভরাংপার, সু‌ফিনগর,নুরুল্লাপুর, শেখকা‌ন্দি,আলাপুর, মোল্লাআতা,কটালপুর, আইলকা‌ড়ি,‌সেওরপাড়া,‌বোকাভাঙ্গা ,জাতুয়া,‌চেচান,ধনপুর, বাউর, চৌকা ,খারগাও, চানপুর, খারাই ,ধনপুর, রাতগাও, বাউর,প‌রেশ পুর,আ‌গিজাল,রায়ত, আকুপুর,খরছকা‌লি,খাইরগাও,রাজাপুরসহ অর্ধশতা‌ধিক গ্রামে পাকা খুঁটির পাশাপাশি বাঁশের খুটি ও বিভিন্ন জা‌তের গাছ ব্যবহার করা হচ্ছে এল‌টি লাইন ।

এসব লাই‌নের গড়গাওঁ গ্রা‌মে একজন শিক্ষক তার ছিট‌কে প‌ড়ে হা‌ফিজ হা‌মিদুর রহমান না‌মে ব্য‌ক্তি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট মারা যান ।‌ একই এলাকার বেরাজপুর গ্রা‌মে দুই শিশু তার লে‌গে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট মারা গে‌ছে।
বিদ্যুৎ বিভাগের দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে দেশের প্রধান মন্ত্রী “শেখ হাসিনার উদ্যোগ” ঘরে ঘরে বিদ্যুত” নামের এই মহান উদ্যোগটি অনেক স্থানেই প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে। ছাতক উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ১০-১২ গ্রামের মানুষ বিদ্যুতজনিত দুর্ঘটনার আশংকায় রয়েছেন। এসব গ্রামে বিদ্যুৎ লাইন টানতে খাম্বার পাশাপাশি বাঁশের খুঁটি ও গাছ ব্যবহার করেছে বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন। প্রতিবছর এখানে বিদ্যুতজনিত দুর্ঘটনা ঘটছে। তারা বাঁশের খুটি অপসারণ করে বিদ্যুৎ বিভাগের সরকারী খুঁটি স্থাপনের দাবি ক‌রেছেন উপ‌জেলা প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল।
দাহারগাওঁ গ্রা‌মে মোহাম্মদ আলী, খছরু মিয়া ও আলমপুর গ্রা‌মে বি‌শিষ্ট সাংবা‌দিক ছাতক প্রেসক্লা‌বের সাধারন সম্পাদক আ‌নোয়ার হো‌সেন র‌নি জানান, ৪ শতাধিক বাঁশের খুটিতে ঝুকিপূর্ণ বিদ্যুৎ লাইন দেয়া হয়। এ বিষয়টি একাধিকবার জানালেও বাঁশের খুটি বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজনের নজরে পড়ছে না। দুর্নীতি আড়াল করতেই বিষয়টি তারা আমলে নেননি। বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছেন বলে জানিয়েছেন।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার ক‌রে ব‌লেন,সরকার শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনসহ বিদ্যুৎ সামগ্রী পর্যাপ্ত পরিমাণে সরবরাহ করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে দুর্নীতি-অনিয়ম সহ্য করা হবে না।১৩‌টি ইউ‌পির ম‌ধ্যে তিনটি ইউ‌পির পুরাতন লাইন সংস্কা‌রের কাজ চল‌ছেন। এসব গ্রা‌মের ঝু‌কিঁপুন গ্রা‌মে বাঁশের খুটি অপসারণ করে সরকারী খুঁটি দ্রুত প্রতিস্থাপন করা হউক, এটাই তার কাম্য। লাইন মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজে জরুরী ভিত্তিতে মালামাল বরাদ্ধের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে তি‌নি আবেদন করা হয়।

এ উপ‌জেলায় বি‌ভিন্ন গ্রা‌মে অনেক জায়গায় বিদ্যুতজনিত ঝু‌কিঁপুন লাই‌নে বাঁশের খুঁটি ও কদমগা‌ছে বিদুৎত লাইন পরিবর্তন করেননি পিডিবি কর্মকর্তারা, আ‌মি সেই বাঁশের খুটির পরিবর্তে নিরাপদ বিদ্যুৎ লাইন চাই। সেটা যেন পিডিবি কর্মকর্তারা দ্রুত সমাধান করার ল‌ক্ষে গ্রামবা‌সি একা‌ধিক আ‌বেদন ক‌রে‌ছেন ব‌লে তি‌নি জা‌নি‌য়ে‌ছেন।

এ ব্যাপারে ছাতক পিডিবি’র নিবার্হী প্রকৌশলী আব্দুল আল মামুন সরদার ও সহকা‌রি প্র‌কৌশলী আলা উ‌দ্দিনের সাথে আলাপকালে দীর্ঘ‌দি‌নের পুরাতন লাইন সংস্কা‌রে তিন‌টি ইউ‌নিয়‌নের কাজ চল‌ছে। বাশের খুটির ব্যাপারে চীপ ইঞ্জিনিয়র, মূখ্য সচিব ম‌হোদ‌য় ও সি‌লেট বিভা‌গের শ্রেষ্ট চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল স‌ঙ্গে আলাপ ও আ‌লোচনার মাধ্য‌মে সংস্কা‌রের ব্যাহত র‌য়ে‌ছেন। কিছুদিনের মধ্যেই বাশের খুটি পরিবর্তনের নানা উ‌দ্দ্যোগ গ্রহন করা হয়।

চুনারুঘাট প্রতিনিধি: চুনারুঘাট উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের আসামপাড়া দিঘিরপাড় গ্রামের আক্তার (বাদশা মিয়া)’র স্ত্রী পান্না আক্তার (২৫) দেবর ও বাসুরের দায়ের কূপে গুরুতর আহত হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, গতকাল দুপুরের দিকে পান্না আক্তার নিজ বসত বাড়ীতে এ ঘটনাটি ঘটে। আহত পান্না আক্তার জানায়, দীর্ঘদিন যাবত ধরে বিভিন্ন বিরোধ চলে আসছিল। আসামপাড়া দিঘিরপাড় গ্রামের মৃত নূর হোসেনের পুত্র শাকিল মিয়া, ফয়সল মিয়া, জামাল মিয়া দেবর ভাসুরের সাথে এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি হলে ভাসুর জামাল মিয়া উত্তেজিত হয়ে তার হাতে থাকা দা দিয়ে পান্না আক্তারের মাথায় কুপিয়ে গৃহবধু গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।

পান্না আক্তারের আত্মচিৎকারে স্থানীয় এলাকাবাসীরা উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চুনারুঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পান্না আক্তারের মাতা আছিয়া খাতুন বাদী হয়ে ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আহত পান্না আক্তার ভাসুর দেবরের নির্যাতনে এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে। পান্না আক্তারের স্বামী এলাকায় দিনমজুরী করে পরিবার চালাচ্ছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc