Sunday 23rd of September 2018 08:15:11 PM

প্রিতম পাল,শ্রীমঙ্গল থেকেঃ  শ্রীমঙ্গল ফিরে  উপজেলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অনুষ্ঠিত হয়েছে সাংবাদিক সম্মাননা প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের ভানুগাছ রোডস্থ মহসিন অডিটরিয়ামে এই সম্মাননা প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিশিষ্ট কবি ও সাহিত্যিক নৃপেন্দ্রলাল দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, উপজেলা প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা শ্রীমঙ্গল পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান এম.এ রহিম, মুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ্জেম হোসেন ছমরু, মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার জেলা মো. শাহজালাল (বিপি), সাবেক সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হরিপদ রায়, শ্রীমঙ্গল উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রেমসাগর হাজরা, প্রবীণ সাংবাদিক অধ্যাপক নেছার আহমেদ, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ সদস্য মশিউর রহমান রিপন প্রমুখ।

এছাড়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জয়নাল আবেদীন টিটো, মৌলভীবাজার জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. বিনেন্দু ভৌমিক, মুক্তিযোদ্ধা তারা মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আনসার আলী, শ্রীমঙ্গল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. বেলায়েত হোসেন, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি বিশ্বজিৎ রায়, শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. আনিসুল ইসলাম আশরাফী, ইনার হুইল ক্লাব অব শ্রীমঙ্গলের সভাপতি দিলআফরোজ বেগম, শ্রীমঙ্গল কিন্ডারগার্ডেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী আসমা, এম আর খান বাগানের স্বত্বাধিকারী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, নাগরদোলা থিয়েটারের সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম রাজু, ফারিয়ার সভাপতি দেবব্রত দত্ত হাবুল প্রমুখ।

এসময় সিলেটের ঐতিহ্যবাহী দৈনিক যুগভেরী পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গবেষক অপূর্ব শর্মা এবং মৌলভীবাজার জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় সাংবাদিক রজত শুভ্র চক্রবর্তীকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

পরে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এডভোকেট আজাদুর রহমান আজাদের সভাপতিত্বে শহরের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে এক সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় এবং এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করে শ্রীমঙ্গলের স্বনামধন্য নৃত্য সংগঠন নৃত্যাঙ্গন ও শ্রীমঙ্গল নৃত্যালয় এবং গান পরিবেশন করে বর্ণমালা সঙ্গীত বিদ্যালয় ও শ্রীমঙ্গল কিশোরী ক্লাব।

বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের বেনাপোল সীমান্তের শিকড়ি বটতলা নামক স্থান থেকে বৃহস্পতিবার বিপুল পরিমাণ ভারতীয় চোরাই পণ্য উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। উদ্ধারকৃত এসব মালামালের মূল্য ৬৩ লাখ টাকা বলে জানিয়েছে বিজিবি।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র যশোর-৪৯ ব্যাটালিয়নের বেনাপোল ক্যাম্প কমান্ডার নায়েব সুবেদার আমজাদ হোসাইন জানান, চোরাকারবারীরা বিপুল পরিমাণ ভারতীয় চোরাই পণ্য গাতিপাড়া সীমান্ত পার করে বেনাপোলের শিকড়ী গ্রামে অবস্থান করছে এ ধরনের সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি সদস্যরা সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় চোরাকারবারীরা মালামাল ফেলে পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় শাড়ি, কসমেটিক্স, ওষুধ ও আতশবাজি উদ্ধার করা হয়।

যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল হক জানান, উদ্ধারকৃত মালামাল বেনাপোল কাস্টমসের আটক শাখায় জমা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা হয়েছে।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে নড়াইলে বিএনপির ৩ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় ৫টি ককটেল ও এক লিটার পেট্রোল উদ্ধার করেছে।

পুলিশ জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় লোহাগড়ার স্বপ্নবীথি পিকনিক স্পট এলাকায় নাশকতার পরিকল্পনা কালে লোহাগড়া পৌর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের সভাপতি আজাদুর রহমান ও বিএনপি নেতা সদর উপজেলার ফুলশ্বর গ্রামের ফেরদৌস ও খালিদ হোসেনকে আটক করা হয়।

এসময় বেশ কয়েকজন পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে ৫টি ককটেল ও এক লিটার পেট্রোল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় লোহাগড়া থানায় মামলা হয়েছে।

বেনাপোল থেকে এম ওসমান: বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচার হওয়ায় পূর্বে বৃহস্পতিবার বিকালে আমড়াখালী চেকপোস্ট থেকে শিশুসহ ১৮ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষকে আটক করেছে বিজিবি। আটককৃতদের বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করেছেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র যশোর-৪৯ ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর নজরুল ইসলাম জানান, যাত্রীবাহী পরিবহণ যোগে বেশ কিছু রোহিঙ্গা ভারতে যাওয়ার জন্য বেনাপোল সীমান্তের দিকে যাচ্ছে।

এ ধরনের সংবাদের ভিত্তিতে বেনাপোলের আমড়াখালী বিজিবি চেকপোষ্টে অভিযান চালান হয়। বিকাল ৫ টার দিকে যাত্রীবাহি একটি বাস তল্লাশী করে ১৮ জন রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে ৯ জন শিশু, ৫ জন পুরুষ ও ৪ জন নারী রয়েছে। এরা দালালের মাধ্যমে ভারতে যাওয়ার জন্য কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আসছে।

এব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা হয়েছে।

আব্দুস সালাম নামের রোহিঙ্গা বলেন, আমরা দালালের মাধ্যমে ভারতে যাওয়ার জন্য কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে এসেছি। ভালো কাজ দেওয়ার কথা বলে দালাল আমাদের ভারতে নিয়ে যাচ্ছিল।

বেনাপোল থেকে এম ওসমান: দীর্ঘ এক বছর ধরে উন্নয়ন কাজের নামে যশোর-কোলকাতা মহাসড়কের বেনাপাল পর্যটন মোটেল থেকে চেকপোস্ট সাদিপুর পাকা রাস্তার মোড় পর্যন্ত দু’পাশের প্রায় ৬ কিলোমিটার রাস্তার উন্নয়ন কাজে বাধাহীন ভাবে চলছে কাদামাটির মিশ্রণসহ নানা অনিয়মে ঢালাইকরণ কাজ। যা দেখার কেউ নেই বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকার সাধারণ জনগন।
এ বিষয়ে বেনাপোল পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন উন্নয়ন কাজটির প্রথমে পাথর আর বালি দিয়ে রোলার করার কথা জানালেও সরেজমিনে তা দেখাযায় ভিন্নরুপ। নাম্বার বিহীণ ইট আর কাদামাটিসহ দোঁ-আশ মাটির মিশ্রণে প্রথমাবস্থার রোলারের কাজ চলছে। দ্বিতীয়ার্ধে মাটি মিশ্রিত সাদা পাথর আর নি¤œমানের বালু দিয়ে হালকা রডের বোননে সিডিউল পরিপন্থী সিমেন্ট ব্যবহার করে করা হচ্ছে ঢালাইকরণ। যা সহ্য করতে না পেরে বেনাপোলের প্রত্যক্ষদর্শী সচেনত নাগরিকরা বলেন ছবি তুলে লাভ নেই, এখানে সরকারের শতশত কোটি টাকার উন্নয়ন কাজের বরাদ্ধ থেকে নামে-বেনামে ঠিকাদার সেজে বেনাপোল পৌর সচিব রফিকুল ইসলাম পৌরবাসির মাথার উপর কাঁঠাল থুয়ে কোষ তুলে খেয়ে যাচ্ছেন যা স্থানীয়দের মধ্যে দেখার কেউ নেই বলেই মগজ বিহীন বেনাপোল বলে মন্তব্য করেন স্থানীয় সাধারণ জনগণ।
দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোল হওয়ায় এবং ভারতসহ কয়েকটি দেশের পর্যটকদের জন্য এপথটি সর্ববৃহৎ স্থলপথ হওয়ায় প্রতিদিন বেনাপোল বন্দরে জমা হয় দু’দেশের দু’সহ¯্রাধীক ভারী আমদানি-রপ্তানিবাহী ট্রাক ও দূরপাল্লার পরিবহন। সপ্তাহের ৭দিনই ২৪ ঘন্টা বেনাপোল বন্দরের কার্যক্রম সচল থাকায় ব্যস্ততম বন্দর নগরীর রাস্তাথাকে যানযটে ভরা। একদিকে ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য নিয়ে বেনাপোল বন্দরের ঢুকছে শতশত ভারতীয় ৬ চাকা থেকে ৩২ চাকার ভারী পণ্যবাহী ট্রাক। এখানে আনলোড হচ্ছে আবার এখান থেকে বাংলাদেশের ট্রাক পণ্য বোঝাই নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চলে যাচ্ছে। অপরদিকে বাংলাদেশ থেকে পাট ও পাটজাত দ্রব্যসহ বিভিন্ন ধরণের পণ্য সামগ্রী নিয়ে ভারতে রপ্তানির জন্য প্রতিদিন বেনাপোল বন্দর দিয়ে যাচ্ছে শতশত রপ্তানীবাহী ট্রাক।

সেসাথে ভারত-বাংলাদেশসহ বিশে^র কয়েকটি দেশের নাগরিক বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে পাসপোর্টযোগে যাতায়াত করায় সহ¯্রাধীক দূরপাল্লার ও স্থানীয় পরিবহন বেনাপোল পৌর এলাকায় যাতায়াত করে। সেকারণে এখানকার রাস্তা প্রশ^স্ত ও মজবুত করার জন্য পর্যটন মোটেল থেকে চেকপোস্ট (সাদিপুর পাকা রাস্তার মোড়) পর্যন রাস্তার দু’ধারের (৩ +৩) ৬ কিলোমিটার রাস্তার উন্নয়ন কাজের জন্য ইতিমধ্যে সরকার ১১ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয় বেনাপোল পৌরসভার। যা দেখার কেউ না থাকায় রাস্তার দু’ধারের ইটের সলিং তুলে তা খোয়া বানিয়ে ময়লা আবজনা ভর্তি পলিথিন, কাদামাটি, দো-আশ মাটি ও যতসামান্য নি¤œমানের বালু দিয়ে উন্নয়ন করা হচ্ছে প্রথমাবস্থার বেজ।

পরে মাটি যুক্ত সাদা পাথর ও নি¤œমানের বালুর সাথে দেওয়া হচ্ছে সামান্য পরিমাণে মোটা বালি। ঢালাই করা হচ্ছে সিডিউল বহির্ভূত রড ও সিমেন্ট দিয়ে। তাতে আবার শুভঙ্করের ফাঁকি। ঢালাইয়ের দু’ধারে সিডিল মোতাবেক ঢালাই হলেও মাঝখানের ঢালাইগুলো খুবই সরু। বেনাপোলে যে পরিমাণের ভারী যানবাহন চলাচল করে তা সহ্য করার ক্ষমতা এ রাস্তার নেই বলেও মন্তব্য করেন প্রত্যক্ষদর্শীসহ বেনাপোল পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারি ও রাস্তা উন্নয়নে কাজ করা শ্রমিকরা।
সরেজমিন পরিদর্শণকালে বেনাপোল পৌর এলাকা উন্নয়নের কাজ করা মোবারেক আলী নামের এক বয়জৈষ্ঠ্য ব্যক্তি নিজেকে উল্লেখিত কাজের ঠিকাদার তথা বেনাপোল পৌরসভার সচিব রফিকুল ইসলামের নিযুক্ত লেবার পরিচয় দিয়ে বলেন, বালু ও পাথর দিয়ে রাস্তার বেজ ও ঢালাই করার কথা মোতাবেক কাজ করা হচ্ছে। এসময় কাদামাটি আর নাম্বার বিহীন ইটের উপর রোলার করা হচ্ছে তা দেখিয়ে ওই ভদ্র লোককে এগুলো কি বলা হলে তিনি সদুত্তর দিতে পারেনি। বলে, এই কাজের ঠিকাদার তথা পৌরসভার সচিব রফিকুল ইসলাম যেভাবে কাজ করতে বলেছে সেভাবেই করা হচ্ছে।
রোলার চালক জসিম উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি চাকরি হারানোর ভয়ে এ প্রতিবেদকের কাছে কোন তথ্য দিতে রাজি হয়নি। একে একে রাস্তা উন্নয়নের কাজ করা সকল শ্রমিকদের কাছে উল্লেখিত কাজে শুভঙ্করের ফাঁকি ও ভয়াবহতা নিয়ে আলোচনা করলে কিছু সময়ের জন্য হলেও দেশ প্রেম এবং বিবেকের তাড়নায় হাফ ছেড়ে বলেন বেনাপোল পৌর নগরীর এই ৬ কিলোমিটার উন্নয়নের কাজসহ এ এলাকার সকল কাজের পরীক্ষা করলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে।
এ বিষয়ে কথা হয় বেনাপোল পৌর সভার এই উন্নয়ন কর্মকান্ডের ইঞ্জিনিয়ার মোশারেফ হোসেন’র সাথে। তিনি বলেন বেনাপোল পর্যটন মোটেল থেকে চেকপোস্ট (সাদিপুর পাকা রাস্তার মোড়) পর্যন্ত তিন তিন ৬ কিলোমিটার রাস্তাসহ আরো ছোট খাট ৫টি উন্নয়ন কাজে ১১ কোটি টাকার বরাদ্ধ মোতাবেক কাজ করা হচ্ছে।

তবে কাদামাটি, দো-আশ মাটি আর ইটের খোয়ার মাধ্যমে বেজের কাজ নিয়ে তিনি বিষ্ময় প্রকাশ করেন। বলেন, বালু আর পাথরের খোয়া দিয়ে বেজের কাজ হওয়ার কথা। বিষয়টি ক্যামেরা বন্দি করা হয়েছে বলে জানালে তিনি ভালো তথ্য দেওয়া হয়েছে এবং সরেজমিন পরিদর্শণ করবে বলেও জানান তিনি।
এ বিষয়ে বেনাপোল পৌরসভার সচিব রফিকুল ইসলামের মোবাইলে বারংবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়।

নিশাত আনজুমান,জয়পুরহাট প্রতিনিধি: র্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের সদস্যরা পাঁচবিবি উপজেলার আটাপাড়ার উত্তর গোপালপুর এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ১০ জন মাদক সেবীকে গ্রেফতার করেছে। এসময় তাদের নিকট বিভিন্ন প্রকার মাদক সেবনের উপকরণ, গাঁজা ও এ্যাম্পোল পাওয়া যায়।
গ্রেফতার মাদক সেবীরা হলেন ঠাকুরগাঁও জেলার হাজিপাড়া গ্রামের ওবায়দুল হকের ছেলে জুয়েল (৩২), জয়পুরহাট পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার সামছুল হকের ছেলে মাহবুব আলম (৪০), জয়পুরহাট শান্তিনগর এলাকার নুরুলের ছেলে সবুজ (৩২), গাইবান্ধার জেলার পশ্চিম শালুয়ার মোঃ আলীর ছেলে শাহ্ আলম (২৮), লক্ষীপুর জেলার রামগড় এলাকার ছাত্তারের ছেলে সেলিম (৩৫), পাঁচবিবি উপজেলার কয়া গ্রামের ওবায়দুলের ছেলে আইয়ুব হোসেন (৫৫), বগুড়ার জয়পুর এলাকার মৃত মালেকের ছেলে আঃ আলীম (৩৫), একই জেলার শান্তাহারের মৃত হাবিবুরের ছেলে শাহাদৎ (২৫), জয়পুরহাট প্রফেসার পাড়ার কাইয়ুম খানের ছেলে মিঠু খান (৫০), বগুড়ার আদমদিঘীর মৃত ছইমদ্দিনের ছেলে শাজাহান (৪১)।
পরে পাঁচবিবি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিবুল আলমের আদালতে হাজির করলে বিভিন্ন মেয়াদে তাদেরকে সাজা প্রদান করেন।

জয়পুরহাট র্যাব ক্যাম্পের কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আবু খায়ের জানান, গতকাল বুধবার বেলা ২ টার সময় উপজেলার আটাপাড়া সীমান্ত এলাকা উত্তর গোপালপুর গ্রামে মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন স্থানে মাদক সেবনের সময় তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ চুনারুঘাট উপজেলার দেওরগাছ ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের আবুল কালামের পুত্র তারেক মিয়া (১৮) চুনারুঘাট বাল্লারোডস্থ ৯৯ দোকানের মালিককে বাড়ি ফেরার পথে একদল ছিনতাইকারীরা মারপিট করে তারেক মিয়ার প্যান্টের পকেট হইতে নগদ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

জানা যায়, গত রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে চুনারুঘাট উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের জাহির মিয়ার বসতবাড়ির সামনে এ ঘটনাটি। আহত তারেক মিয়ার আত্মচিৎকারে স্থানীয় এলাকাবাসীরা এগিয়ে আশংকাজনক অবস্থায় চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তারেক মিয়াকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করেন।

আহত তারেক মিয়া জানান, গত রোববার রাতে তার মালিকানাধীন চুনারুঘাট বাল্লা রোডস্থ ৯৯ দোকানে তালা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে লক্ষীপুর গ্রামস্থ জাহির মিয়ার বাড়ির সামনে পৌছামাত্রই পূর্ব থেকে ওতপেতে থাকা একই গ্রামের মৃত আইয়ুব আলীর পুত্র জমরুত মিয়া (৫০) ও জমরুত মিয়ার পুত্র রিয়াদ মিয়া ওরফে বাবু (২০) দ্বয় তারেক মিয়াকে পথরোধ করত তাদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র দিয়ে পিটিয়ে তারেক মিয়ার বাম হাত ভেঙ্গে দিয়েছে।

এসময় ছিনতাইকারীরা তারেক মিয়ার প্যান্টের বাম পকেটে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় তারেক মিয়ার পিতা আবুল কালাম বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় লক্ষীপুর গ্রামের মৃত আইয়ুব আলীর পুত্র জমরুত মিয়া (৫০) ও জমরুত মিয়ার পুত্র রিয়াদ মিয়া ওরফে বাবু (২০) দ্বয়ের বিরুদ্ধে একটি ছিনতাইয়ের মামলা দায়ের করেন।

যার মামলা নং- ১৫, তাং- ১১/০৯/১৮, ধারা- ৩৪১/৩২৩/৩২৫/৩০৭/৩৭৯/৫০৬/৩৪ পেনাল কোড। আহত তারেক মিয়া বর্তমানেও হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চুনারুঘাট এস.আই মোহাম্মদ মহিন উদ্দিন।

এ ব্যাপারে আহত তারেক মিয়ার পিতা মামলার বাদী আবুল কালাম সুবিচার পাওয়ার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

হৃদয় দাশ শুভ,শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের তিনটি শিক্ষাপ্রতিষ্টান এর সামনে অবস্থিত শ্রীমঙ্গল পৌরসভার ময়লা আর্বজনা ফেলার ভাগাড়টি স্থানান্তরের দাবীতে মানববন্ধন করেছে ভাগাড়ের সামনে অবস্থিত তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন পরিবেশবাদী ও অভিভাবকদের সংগঠন।
শ্রীমঙ্গলের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শ্রীমঙ্গল সরকারী কলেজে, দি বার্ডস রেসিডেন্সিয়্যাল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং গাউছিয়া শফিকিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদরাসার সামনে অবস্থিত এই ময়লার ভাগারটি সরানোর দাবীতে আবারো প্রতিবাদে নেমেছে সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রীরা।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে শ্রীমঙ্গল কলেজ রোডস্থ ময়লার ভাগাড়ের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করে এলাকাবাসীসহ আন্দোলনরত সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রী,সচেতন নাগরিক এবং অভিভাবকগন।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শ্রীমঙ্গল সরকারী কলেজে, দি বার্ডস রেসিডেন্সিয়্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং গাউছিয়া শফিকিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদরাসার হাজার হাজার ছাত্রছাত্রী প্লেকার্ড, ফেস্টুন হাতে নিয়ে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।
উল্লেখ্য যে, গত দুই-তিন বছর ধরে এই ভাগাড়টি সরানোর দাবিতে ক্রমাগত জোরালো আন্দোলন করে যাচ্ছে শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন পরিবেশবাদী এবং অভিভাবকরা।তার পরেও স্থানীয় পৌর কর্তৃপক্ষ পাত্তা দিচ্ছেন না কোন মানব্বন্ধন ও প্রতিবাদকে এমন অভিযোগ আগতদের।

অষ্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ মুসলিমদের নানা এবাদতের সাথে চান্দ্র সাল জড়িত।ইসলামের ঐতিহাসিক হিজরী নববর্ষ ১৪৪০ আগমন উপলক্ষে “আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত” অষ্টগ্রাম উপজেলা,কিশোরগঞ্জের সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে বুধবার সকাল ১০ টায় হাজারো সুন্নী জনতা ও শতাধিক সুন্নী ওলামায়ে কেরামের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ অডিটোরিয়ামে, হিজরী নববর্ষ উদযাপন কমিটির সমন্বয়ক,সৈয়দ জহুরুল ইসলাম (জুয়েল) এর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট এর কেন্দ্রীয় পরিষদের যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক ও হিজরী নববর্ষ উদযাপন কমিটির সমন্বয়ক,সাবেক ছাত্রনেতা কাজী জসিম উদ্দিন সিদ্দিকী আশরাফীর পরিচালনায় আলোচনা সভা, বর্ণাঢ্য র‍্যালি ও পবিত্র মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে সম্পূর্ণ হয়েছে।

“অনুষ্ঠানে উপস্থিত মুসুল্লিদের একাংশ”

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও অষ্টগ্রাম উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি,ফজলুল হক হায়দারী (বাচ্চু) আশরাফী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অষ্টগ্রাম রোটারি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোজতাবা আরিফ খাঁন। অষ্টগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম (জেমস্)। ও অষ্টগ্রাম উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ কমল।

আমন্ত্রীত অতিথি বৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,৩নং অষ্টগ্রাম সদরের চেয়ারম্যান সৈয়দ ফারুক আহমেদ। ৩নং অষ্টগ্রাম সদরের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ ফাইয়াজ হাসান বাবু।৮নং পূর্ব অষ্টগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ কাছেদ মিয়া। ৪নং বাঙাল পাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এনামুল হক ভূইয়া।সৈয়দ শাহজাদা মিয়া আশরাফী।

পূর্ব অষ্টগ্রামের হযরত রিয়াজত উল্লাহ্ মৌলানা ওরফে (মৌলু) মিয়া দরবার শরীফের খাদেম আসাদুল হক (মোতায়েদ) । মধ্য অষ্টগ্রাম সুফি আব্দুল জব্বার (চিশতী) দরবার শরীফের খাদেম বেনজির আহমেদ (বেনু) আশরাফী ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট কিশোরগঞ্জ জেলার সদস্য সচিব মাওঃ রেদুয়ানুল হক আশরাফী প্রমূখ।

এতে উপস্থিত ছিলেন, অষ্টগ্রাম উপজেলার শতাধিক উলামায়ে কেরাম, সম্মানিত জ্ঞানী গুনি, সুন্নী জনতা এবং বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা, ছাত্রসেনা জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের নেতা কর্মীবৃন্দ।

বিক্রমজিৎ বর্ধন ও হৃদয় দাশ শুভ,যতরপুর-শ্রীমঙ্গল থেকে ফিরেঃ এ যেন বিচ্ছিন্ন এক জনপদ যেখানে নেই বিদ্যুৎ, নেই রাস্তাঘাট। বছরের ১২টি মাসই এই গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম নৌকা। আর গ্রামের এক প্রান্তে একটি মাত্র সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকলেও রাস্তাঘাট না থাকায় অনেক স্কুল পড়ুয়া ছেলে মেয়ে রয়েছে শিক্ষার আলো থেকে দূরে।ইচ্ছে করলেই কোন জরুরী রোগীকে দ্রুত হাসপাতালে প্রেরণ করার কোন সুযোগ নেই।অথচ গোপলা নদীর উপর একটি মাত্র  ব্রীজ এবং গ্রাম প্রতিরক্ষা বাঁধ মেরামত করে তা পাকা করা হলে পাল্টে যেতে পারে এই গ্রামের দৃশ্যপট।
মৌলভীবাজার জেলা শহর থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে শ্রীমঙ্গল উপজেলাধীন মির্জাপুর ইউনিয়নের পাঁচাউন বাজারের পূর্ব পাশে যতরপুর মোল্লাকান্দি গ্রাম। হাইল হাওরের বেশ কিছু অংশ এবং গোফলা নদীদ্বারা গ্রামটি বিভক্ত। শ্রীমঙ্গল উপজেলার প্রায় সব গ্রামেই প্রাইভেট গাড়ী নিয়ে যাতায়াত করতে পারলেও এই গ্রামে গাড়ী নিয়ে যাতায়াতের কোন সুযোগ নেই। গ্রামে পৌছায়নি বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। একটি প্রাইমারী স্কুল থাকলেও রাস্তাঘাট না থাকায় এক-দুই ক্লাস পড়ার পর বন্ধ হয়ে যায় লেখা পড়া। অথচ এই গ্রামের মানুষই জেলার কৃষি ও মৎস্য এই দুই চাহিদা পুরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলছেন।
এদিকে এবারের দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় ও হাওরের ঢেউ তাদের পায়ে হাঁটার পথ মোল্লাকান্দি গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে চলা গ্রাম প্রতিরক্ষা বাঁধটিকে ভেঙ্গে তছনছ করে দিয়েছে। বর্তমানে ঝুঁকি পূর্ণবস্থায় রয়েছে বাঁধটি। আর এর ঠিকে থাকা জীর্ন অংশটি ভেঙ্গে গেলে এই গ্রামসহ তলিয়ে যাবে আসে পাশের আরও প্রায় ৮/১০টি গ্রাম বিনষ্ট হবে কৃষিজ ফসল।
যতরপুর গ্রামের কয়েকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান ” আমাদের গ্রামে রাস্তা নেই,বিদ্যুৎ নেই সৌরবিদ্যুৎ দিয়ে তো আর দৈনন্দিন কাজ চালানো যায় না ৷ একটা ষ্কুল আছে তবে যোগাযোগব্যবস্থা ভালো না থাকায় নিয়মিত পাঠদান হয় না ৷জরুরি কোন রোগী থাকলে হাসপাতালে নেয়ার আগেই অনেক রোগী মারা যায় ৷”
আর এ বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করে গ্রামের মানুষ কয়েকবার মানববন্ধনও করেছে। এদিকে স্থানীয় চেয়ারম্যান জানান, একটি রাস্তা আর গোফলা নদীতে একটি ব্রীজ হলেই এই সকল প্রতিবন্ধকতা দূর হবে।
এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব জানান, বাঁধটি দ্রুত মেরামতের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে তারা চিঠি দিয়েছেন।
অন্ধকারাচ্ছন্ন গ্রামকে আলোয় আনতে সরকার তার উন্নয়ন হস্ত বাড়িয়ে দিবে এ আশায়ই বসে আছে এই গ্রামের তিন/চার হাজার নারী পুরুষ।

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট অভিযান পরিচালনা করে ১টি এস্কেভেটর জব্দ এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অাদায় করেছে অাদালত৷
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় পাহাড় খেকু চক্রের সদস্য দীর্ঘ দিন হতে উপজেলার বিভিন্ন স্থানের পাহাড় টিলা কর্তন করে অাসছে৷ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর বিকাল ৩টায় নিজপাট ইউনিয়নের সারীঘাট ডৌডিক গ্রামে সাবেক নিজপাট ইউপি সদস্য অাব্দুল্লাহ মিয়ার বাড়ীতে পাহাড় কাটা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিত্বে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌরীন করিমের নির্দেশনায় সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্যাট মুনতাসির হাসান পলাশ এর নেতৃত্ব জৈন্তাপুর মডেল থানার এস অাই হাবিব সহ সঙ্গীয় ফৌস নিয়ে অভিযান পরিচালনা করেন৷ এসময় পাহাড় কাটার দায়ে পাহাড় খেকু চক্রের অন্যতম সদস্য হরিপুর এলাকার কালা মিয়ার মালিকানাধীন এস্কেভেটরটি জব্দ করা হয়৷ এসময় পাহাড় কাটার দায়ে কর্তনকারীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়৷
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান কালা মিয়া দীর্ঘ দিন হতে হরিপুর সহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ও টিলা রকম ভুমি এস্কেভেটরের সাহায্যে কর্তন করে মাটি ক্রয় বিক্রয় করে অাসছে৷ এছাড়া তারা অারও বলেন সাবেক ইউপি সদস্য অাইনকে তোয়াক্কা না করে প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘ ২বৎসেরর বেশি সময় নিজবাড়ী ও তদসংলগ্ন এলাকার পাহাড় কেটে পরিবেশর ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছেন৷ এছাড়া প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে চায় না৷ প্রশাসনের অভিযানকে স্বাগত জানান এবং এস্কেভেটেরটি না ছাড়ার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেন৷
এবিষয়ে জানতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অভিযানের কথা স্বীকার করে প্রতিবেদককে জানান গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে অামরা অভিযান পরিচালনা করে পাহাড় কাটায় ব্যবহৃত এস্কেভেটর জব্দ করেন এবং পাহাড় কাটায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন৷

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ সারা দেশের ন্যায় নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় বইছে নির্বাচনের হাওয়া। প্রধান দুই দলের নেতারা মনোনয়ন পাওয়ার আশায় প্রতিনিয়ত চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের নির্বাচনী কার্যক্রম। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ নামে খ্যাত নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনে সংসদ সদস্য পদে আ’লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজসেবক শেখ মো: রফিকুল ইসলাম গনসংযোগ করেছেন। গনসংযোগ উপলক্ষে প্রায় ৩শতাধিক মটোরসাইকেল নিয়ে শোডাউন ও পথ সভা করেছেন।

বুধবার দিনব্যাপী গনসংযোগের সময় আত্রাই আহসানগঞ্জ মেমোরিয়াল হাইস্কুল সামনে থেকে মটোরসাইকেল শোডাউনটি বের হয়ে আত্রাই উপজেলার প্রধান প্রধান স্থান প্রদক্ষিন করে। এসময় প্রতিটি এলাকায় আওয়ামীলীগ কর্মীদের ব্যাপক জনসমাগম ও প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। শেখ রফিকুল ইসলাম ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন।

শোডাউন চলাকালে সর্বসাধারণের কাছে দোয়া, মতবিনিময় ও নিজের পরিচয় তুলে ধরে শেখ মো: রফিকুল ইসলাম সড়কের দুই ধারের জনগনকে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন এবং বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং বর্তমান সরকার প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়ন সংবলিত লিফলেট বিতরন করেন। এ সময় শেখ মো: রফিকুল ইসলামের সঙ্গে আত্রাই উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

শেখ মো: রফিকুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও শেখ হাসিনার উন্নয়ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাওয়ার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করে পথ সভায় নওগাঁ-৬ আসনের জনগণের কাছে বেকারত্ব দূরীকরণ, মাদক, বাল্যবিবাহ বন্ধ, নদীভাঙ্গন রোধসহ বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত আত্রাই-রাণীনগর গড়ে তুলতে চাই। আত্রাই-রাণীনগর এই জনপদের মানুষ আগামী নির্বাচনে নতুন মুখকে চায়। জননেত্রী যদি তৃমূলের জনপ্রিয়তা যাচাই-বাছাই করে আমাকে মনোনয়ন প্রদান করেন তাহলে অবশ্যই আমি এই আসনটি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পারবো। এবং তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার কথা বলেন।

মেয়েদের লোহাগড়া পাইলট স্কুল, ছেলেদের সিঙ্গিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইলে আন্তঃজেলা স্কুল ফুটবল টুর্ণামেন্টের জেলা পর্যায়ের ফাইনাল খেলায় মেয়েদের খেলায় লোহাগড়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন ও ছেলেদের খেলায় সদর উপজেলার সিঙ্গিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) মেয়েদের খেলাটি শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে এবং ছেলেদের খেলাটি সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

মেয়েদের খেলায় লোহাগড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় টাইব্রেকারে ৪-২ গোলে নড়াইল শিব শংকর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়কে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। খেলার উভয়ার্ধে দুই দলই আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ করে খেলতে থাকলেও কোনো দলই গোল করতে পারেনি। ফলে খেলার পরিচালক শ্যামল কুমার ঘোষ টাইব্রেকারের সিদ্ধান্ত নেন।

অপর দিকে ছেলেদের খেলায় সদর উপজেলার সিঙ্গিয়া মাধ্যমিক বিদ্য্লায় ২-০ গোলে বাঁশগ্রাাম বিষ্ণুপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে জেলঅ চ্যম্পিয়ন হয়েছে । খেলার দ্বিতীয়ার্ধে সিঙ্গিয়া দলের শফিকুর ২টি গোল করে দলকে বিজয় নিশ্চিত করেন।

খেলা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্বতার বিতরণ করেন নড়াইল জেলা প্রশাসক মোঃ এমদাদুল হক চৌধুরী ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন পিপিএম, পৌরমেয়র জাহাঙ্গীর বিশ^াস, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আজিম উদ্দিন রুবেল প্রমুখ।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: কমলগঞ্জের সিরাজ হত্যা মামলায় উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় গত বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) মৌলভীবাজারের দায়রা জজ আদালতে হাজিরা দিতে গিয়ে জামিন না মঞ্জুর হলে আদমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদাল হোসেনকে কারগারে প্রেরণ করা হয়েছিল। গত সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) আবার এ মামলার শুনানি শেষে আদালত জামিন দেয় আদমপুরের ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেনকে।

সোমবার শুনানি শেষে জামিন লাভ করে সন্ধ্যায় কারামুক্ত হলে মঙ্গলবার আদমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন এ প্রতিনিধিকে বলেন, আদমপুরের সিরাজ হত্যা মামলায় বাদিপক্ষ তাকে সন্দেহমূলক আসামী করেছিল। ২০১৭ সালের অক্টোবরে এ মামলা থেকে আদালত তাকে অব্যাহতি দেয়। মামলার রায়ের পর বাদিপক্ষ আবার উচ্চ আদালতে মামলাটি রিভিউ করে।

ফলে উচ্চ আদালত নতুন করে মামলার শুনানির নির্দেশনা দেয়। সাথে সাথে তাকে(আবদাল হোসেনকে) পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতে হাজির হতে নির্দেশনা দেয়। তিনি মৌলভীবাজার সাব জজ আদালতে হাজিরা দিলে আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন।

আদালতের প্রতি সম্মান রেখে আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন বলেন, হাজিরার পর আবার নতুন করে শুনানি হওয়ার কথা ছিল।

হাবিবুর রহমান খান,জুড়ী থেকেঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী জাঙ্গীরাই এলাকায় হাজ্বী আব্দুল মজিদ বাণিজ্যিক মাকের্টে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে বিভিন্ন মালামালের ১১টি দোকানের মালামাল পুড়ে ছাঁই হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে। বড়লেখা ও কুলাউড়া দমকল বাহিনী দুই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে এর আগেই মার্কেট ও মালামাল পুড়ে অন্তত অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। মার্কেটের একটি ব্যাটারীর দোকানের সর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

এলাকাবাসী ও দমকল বাহিনী সুত্রে জানা গেছে, জুড়ী উপজেলার জাঙ্গীরাই এলাকায় জাঙ্গীরাই দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন হাজী আব্দুল মজিদ কমপ্লেক্সের (মার্কেট) একটি দোকানে বুধবার ভোরবেলা আগুনের সুত্রপাত ঘটে। মুহুর্তেই আগুন মার্কেটের সবকয়টি দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। এতে মাকের্টের ইজামা এন্ড রোকেয়া স্টোর, বিছমিল্লাহ ফাস্ট এইড ফামের্সী, বিলাল ভেরাইটিজ স্টোর, সাজিয়া ভেরাইটিজ স্টোর, করিম ফার্মেসী, একটি ফার্নিচার মার্ট, কুমিল্লা ট্রেডার্সসহ ১১টি দোকান ভস্মিভুত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় দীর্ঘ চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনায় পার্শবর্তী দোকানগুলো রক্ষা পায়।
জুড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার অসিম চন্দ্র বণিক ও জুড়ী থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বড়লেখা ফায়ার স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফখরুল ইসলাম জানান, কুলাউড়া ও বড়লেখা ফায়ার স্টেশনের দুইটি ইউনিট যৌথভাবে দুইঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে সকাল সাড়ে ৯টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মার্কেটের একটি ব্যাটারীর দোকানের বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট থেকে অগুনের সুত্রপাত হয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc