Tuesday 20th of November 2018 07:10:42 PM

বিক্রমজিত বর্ধনঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ছাগল খেতে লোকালয়ে এসে জনতার হাতে ধরা পড়েছে বিশাল আকৃতির একটি শিকারী অজগর।আজ বুধবার বিকেলে শ্রীমঙ্গলের ভানুগাছ রোডে  লিচুবাড়ি এলাকা থেকে অজগরটি প্রথমে আটক করে পরে বন্য প্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন এটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লিচুবাড়ি এলাকায় একটি ছাগলের চিৎকার শুনে এলাকাবাসী গিয়ে বিশাল আকারের একটি অজগর দেখতে পান।অজগরটি ছাগলটিকে খাওয়ার জন্য পেঁচিয়ে ধরেছিল এতে ছাগলটি মারাক্তক ভাবে আহত হয়। এ সময় তারা অজগরটিকে তাড়া করলে ছাগল ছেড়ে পাশের ঝোপে চলে যায় এবং আহত ছাগলটি মারা যায়।
পরে এলাকাবাসী বন বিভাগ ও বন্য প্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনকে খবর দিলে তারা অজগরটিকে উদ্ধার করে। ১২ কেজি ওজনের ছাগল খেতে এসে ধরা পড়া অজগরটি লম্বায় প্রায় ১২ ফুট এবং ২০ কেজি ওজনের।
বন্য প্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব জানান, প্রাথমিকভাবে সেবা দিয়ে অজগরটিকে লাউয়াছড়া উদ্যানে ছেড়ে দেয়া হবে। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান থেকে খাবার সংকটের কারণে প্রায়ই লোকালয়ে এসে ধরা পড়ছে বিভিন্ন বন্য প্রাণী। কিছুদিন আগেও একই এলাকা থেকে ছাগল খেতে গিয়ে ধরা পড়ে বিশাল একটি অজগর।
উল্লেখ্য,কিছুদিন আগেও আরেকটি ছাগল  ও চারটি হাঁস একই স্থান থেকে অজগরের পেটে চলে গেছে বলে ধারনা করছেন অজগরের হামলায় মৃত ছাগলের মালিক৷

হৃদয় দাশ শুভ নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মৌলভীবাজার ৪ (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) আসনে আবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে যাচ্ছেন পাঁচ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ ৷ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় একাধিক সূত্র থেকে এ ব্যাপারটি নিশ্চিত হওয়া গেছে৷

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সুত্রে জানা গেছে, ” সব কিছু ঠিক থাকলে আবারও উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদই আসছে নৌকার প্রার্থি হয়ে” ।

তাছাড়া  অপর একটি সুত্র আমার সিলেটকে জানান “মৌলভীবাজার এর চারটি আসনের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী জেলার নেতাদের কড়া বার্তা দিয়েছেন, জননেত্রী বলেছেন আমার এমপিদের বিরুদ্ধে যারা কুৎসা রটাবে তাদের ব্যাপারে সাংগঠনিকভাবে ব্যাবস্থা নেয়া হবে ” ৷

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের স্থানিয় নেতৃবৃন্দ প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও  গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদের পক্ষে কাজ করার জন্য জেলা ও শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ উপজেলার নেতৃবৃন্দের কাছে নির্দেশ দিয়েছেন ৷

 

ডেস্ক নিউজঃ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে বিএনপির ২ ঘন্টার প্রতিকী অনশন শুরু হয়েছে। এই কর্মসূচি সারাদেশে একযোগে পালিত হচ্ছে।

আজ বুধবার ঢাকায় রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটশন প্রাঙ্গণে বেলা ১০টায় শুরু হওয়া অনশন চলবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।

অনশনে বিএনপি ও এর বিভিন্ন অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা যোগ দিচ্ছেন। ইতোমধ্যে অনেক কেন্দ্রীয় ও সিনিয়র নেতা উপস্থিত হয়েছেন। নেতৃবৃন্দের মধ্যে- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, আবদুল মঈন খান, কেন্দ্রীয় নেতা মোহাম্মদ শাহজাহান, আব্দুল্লাহ আল নোমান, শামসুজ্জামান দুদু, আহমেদ আযম খান, আমান উল্লাহ আমান, আতাউর রহমান ঢালী, হাবিবুল রহমান হাবিব, খায়রুল কবির খোকন, মীর সরফত আলী সপু সহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী এবং আবদুস সালাম আজাদ।

ওদিকে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনশন করছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি গত ২৯ জানুয়ারি হতে দলীয় কার্যালয়ে কার্যত গৃহবন্দী এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নজরদারিতে রয়েছেন। সেখানে ছোট একটি কক্ষে কাটছে তার সময়। যদিও এই সময়ের মধ্যে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে অন্তত ১০ দিন রাজধানীর একাধিক স্থানে বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্ব দিয়েছেন রিজভী।

এদিকে বিএনপির অনশন কর্মসূচি ঘিরে পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলেছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি র্অথ  আত্মসাৎ মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে বন্দী রয়েছেন খালেদা জিয়া। তার মুক্তি দাবিতে ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে বিভিন্ন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপিসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন। সর্বশেষ তার মুক্তির জন্য গত শনিবার সারাদেশে প্রতিবাদ মিছিল এবং সোমবার সারাদেশে মানববন্ধন করেছে বিএনপি।

ডেস্ক নিউজঃ সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে।আজ বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) ১০ টা ৫৪ মিনিটে এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। প্রায় ১ মিনিট ব্যাপী ভূকম্পন অনুভূত হয়। এতে সিলেটসহ দেশের রাজধানী ঢাকা,চট্রগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, চাঁদপুর, নারায়ণগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ,বি-বাড়ীয়াসহ ফেনীতে একযোগে এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। সুত্র মতে,রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৪। উৎপত্তিস্থল ভারতের আসামে।

তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ক্ষয়-ক্ষতির খবরাখবর এখনো পাওয়া যায়নি। তবে বিভিন্ন স্থানে অনেকেই ভূমিকম্পন অনুভব করে অনেকেই ভয়ে আতঙ্কে ভবন ছেড়ে বাইরে বের হয়ে আসেন।

২ ঘন্টা সিলেট তামাবিল মহা সড়ক অবরোধ

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর অাসামপাড়া এলাকায় বিবু দাসের বাড়ীর সন্নিকটে একটি লাইন ছিড়ে পড়ে থাকে৷ বিবু দাস সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর কার্যলয়ে একাধিক বার ফোন করে বিষয়টি অবহিত করেন এবং সরবরাহ বন্ধ  করার অনুরোধ করেন৷ কিন্তু কর্তৃপক্ষ সংযোগ বন্ধ করেনি৷
এদিকে ১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় বৃষ্টির রাতে বাজার হতে বাড়ী ফিরছিল জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তাপুর ইউনিয়নের অাসামপড়া গ্রামের সুবির দাসের ছেলে ক্যাপ্টেন রশিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনীর ছাত্র সোহাগ দাস(১৪)৷ বৃষ্টির রাতে বাড়ী যাওয়ার পথে পড়ে থাকা  বিদ্যুৎ লাইন দেখতে না পাওয়ায় জড়ীয়ে যায় লাইনে৷ এসময়  চিৎকার দিলে এলাকাবাসীসহ সোহাগের মা দৌড়ে এসে দেখতে পান পল্লী বিদ্যুতের লাইনে সোহাগ অাটকা পড়েছে৷ সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুতে ফোন করা হলে সরবরাহ বন্ধ করা হয়নি৷
এলাকাবাসীর অভিযোগ ঘটনার ২০ মিনিট পর বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করা হয়৷ তখন মৃতদেহ উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়৷ কর্তব্যরত চিকিৎসক সোহাগকে মৃত ঘোষনা করেন৷ এলাকাবাসী অারও জানান মায়ের সামনে ছেলের এমন মৃত্যুর কারনে এলাকায় হৃদয় বিধারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়৷
এমন মৃত্যু কোউ মেনে নিতে পারেনি৷ ফলে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে অাসামপাড়া এলাকায় সিলেট তামাবিল মহাসড়ক  অবরোধ করে রাখে৷
সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে জৈন্তাপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ক্যাপ্টেন রশিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানোজিং কমিটির সভাপতি এখলাছুর রহমান সহ এলাকার গন্যমান্যরা উপস্থিত হয়ে উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করে এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌরিন করিমের সাথে অালোচনা করে ঘটনার সুষ্ট তদন্তের অাশ্বাস দিলে রাস্তার অবরোধ তুলে নেওয়া হয়৷
এবিষয়ে জানতে সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জিএম এর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন রিসিভ হয়নি৷
এ বিষয়ে জৈন্তাপুর ইউপি চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান বলেন বিষটি খতিয়ে দেখে অাইনি ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নির্বাহী অফিসার অাশ্বাস দিয়েছেন৷ মৃত্যুর দায়ভার সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ না নিলে বড় ধরনের দূর্ঘটানা ঘটতে পারে৷
এবিষয় জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ তদন্ত বিদ্যুতের তার জড়ীয়ে এক ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন৷

ভাদ্র মাসের ফল তাল,বিক্রি হচ্ছে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল  উপজেলা শহরের চৌমুহনায় ৷  জানা গেছে প্রকারভেদে প্রতিটি তাল ১০ থেকে  ৪০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে ৷ছবিগুলো গতকাল দুপুরে শ্রীমঙ্গল চৌমুহনা থেকে তোলেছেনঃহৃদয় দাশ শুভ

হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)  শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার আয়োজনে  শ্রীমঙ্গল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এই সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগের সাবেক স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃহরিপদ রায়।

শ্রীমঙ্গল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুধাংশু রঞ্জন দেবনাথ এর সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন , শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল, ওসি (অপারেশন) সোহেল রানা,  নিসচা শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি আমজাদ হোসেন রনি,  সিনিয়র সহ সভাপতি মো. ছালেহ আহমদ প্রমুখ ৷

সেমিনারে সড়ক নিরাপদ বিষয়ক বিভিন্ন দূর্ঘটনা সহ রাস্তাপারাপারের সচেতনতা মূলক ভিডিও প্রামাণ্য চিত্রের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের দেখানো হয়।

এ সময় বিদ্যালয়ের ৩শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল।

যুক্তরাজ্যে এবং ফ্রান্সে বসবাসরত গোলাপগঞ্জের জনগণের মধ্যে ঐক্য ও ভ্রাতৃত্ব সৃষ্টি ও জোরদার করা লক্ষে শিল্প সাহিত্যের লীলাভূমি প্যারিস সফর এর আয়োজন করেছিল যুক্তরাজ্যে ভিত্তিক সামাজিক সংঘটন “গোলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডস ইউকে”।

গত ২রা সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার, ৮৩ সদস্য বিশিষ্ট দুইদিনের এই সফরে নারী, পুরুষ ও শিশু কিশোর এবং বিভিন্ন পেশার লোকজন সহ কমিউনিটির বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দ লন্ডন থেকে সকাল ৬:০০ ঘটিকার সময় আনন্দ উৎসাহের সাতে সড়ক পথে যাত্রা করেন। ফ্রান্সে তাদের স্বাগত জানান গোলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডস ফ্রান্স এবং কমিউনিটির বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দ । সন্ধ্যার দিকে গোলাপগঞ্জ ভিত্তিক ফ্রান্স এর বিভিন্ন সংঘটন এর সাতে মতবিনিময় সভায় যোগদেন দলটির বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ এবং তারা গোলাপগঞ্জ এর উন্নয়ন লক্ষ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

দুইদিনের এই সফরে সদস্যরা প্যারিসের বিভিন্ন ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করেন এবং তারা সভ্যতার বিভিন্ন নিদর্শন ও তার বর্তমান প্রেক্ষাপট আবলোকন করেন। উল্লেখযোগ্য স্থান গুলোর মধ্যে রয়েছে, বিখ্যাত আইফেল টাওয়ার, ইতিহাস খ্যাত ভার্সাই নগরী, পৃথিবীর সব থেকে সুন্দর অ্যামিউজমেন্ট পার্ক ডিজনি ল্যান্ড, শঁজেলিজে, আর্ক দ্য ত্রিয়োম্‌ফ, নটর্ ডেম, ল্যুভর মিউজিয়াম সহ সেইন নদীতে রিভার ক্রুজ এর মাধ্যমে অনেক স্থাপনা তারা ঘুরে ঘুরে ইতিহাসকে খুব কাছে থাকে উপলব্ধি করেন।

রাত্রিযাপন এর জন্য ১৮টি কটেজের বাবস্তা করা হয়েছিল প্যারিসের পর্যটক অধ্যুষিত এলাকা ১৬ অ্যারোঁদিসেমেন্ট । শিশু কিশোর, বন্ধু বান্দব এবং পরিবার নিয়ে পাশাপাশি কটেজগুলোকে মনে হচ্ছিল যেন ইউরোপের বুকে এক টুকরো গোলাপগঞ্জ । সফরসঙ্গীদের মতে এই সফর ছিল শিক্ষণীয় এবং খুবই আনন্দ জনক, এর ফলে প্রবাসে মধ্যে গোলাপগঞ্জ বাসী দের মধ্যে আর সুমধুর সম্পক’ গড়ে উঠেছে। তাই ভবিষ্যতে এরকম আরও উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কে অনুরোধ করেন

সংঘটনের সভাপতি তমিজুর রহমান রঞ্জু এর নেতৃত্বে এই সফরের প্রধান সমন্বয়কারী ছিলেন ক্রীড়া সম্পাদক মোহাম্মদ শামীম আহমেদ । পরিকল্পনা ও সমন্বয় কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক লিটন, সাবেক সভাপতি ও বর্তমান কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ফেরদৌস আলম, সাবেক সদস্য সচিব ও বর্তমান কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুল কাদির, সাবেক কোষাধ্যক্ষ ও বর্তমান কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য বেলাল হোসেন, সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও বর্তমান কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য রোমান আহমদ চৌধুরী, সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও বর্তমান কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য জহুরূল ইসলাম শামুন।

এই সফরে কমিউনিটির বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দ এর মধ্যে অংশগ্রহণ করেন, ইসবাহ উদ্দিন, হাফিজুর রহমান, সায়েদ আহমেদ সাদ, এমদাদ হুসেন টিপু, আনওয়ারুল ইসলাম জবা, সেলিম আহমদ, মাইজ উদ্দিন, বিলাল আহমেদ মিলন, আব্দুল মুছব্বির, মোঃ ফখরুল ইসলাম, সুহেদ আহমদ, নুরুল হুদা চৌধুরী, রুহুল কুদ্দস জুনেদ, দেওয়ান নজরুল ইসলাম, আশরাফ হুসাইন শফি, ইকবাল হুসাইন, আমীর আতাউর রহমান, মোঃ আফরোজ মিয়া, কামাল উদ্দিন, আলতা মিয়া, মোঃ ফয়জুর রহমান, ফরিদ আহমেদ, বাহার উদ্দিন, মিকাইল আহমেদ চৌধুরী, জামাল উদ্দিন, মস্তাক আহমদ, বাবরুল ইসলাম, সালেহ আহমদ, আকতার হুসাইন, জি এম অপু শাহরিয়া, জামিল আহমদ, মুকিতুর রাহমান, সোহেল আহমদ, সালেহ আহমদ, বদরুল ইসলাম, শাহাদাত সায়েম, আমিরুল ইসলাম, লাহিন আহমদ, মোঃ ফয়সাল আহমদ, মোঃ আবুল কালাম, কয়েস আহমদ, পাভেল আহমেদ, টূটূ খাঁন ও জাবের আহমদ খাঁন সোহেল আহমদ, আলী আহমদ, আয়ান আহমদ, আদিয়ান আহমদ, আনিসুর রহমান লাভলু, বুরহান ঊদ্দিন, প্রমুখ।

বিক্রমজিত বর্ধন,নিজস্ব প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সিলেট অঞ্চলের ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর ভাষা.সাহিত্য, সংস্কৃতির বিকাশ ও মাতৃভাষায় প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা চালু এবং শিশু শিক্ষার মান উন্নয়ন বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে কমলগঞ্জে মণিপুরী কালচারার কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে সিলেট আদিবাসি ফোরাম ও বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসি ফোরামের যৌথ উদ্যোগে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর ভাষা সংস্কৃতির বিকাশ ও মাতৃভাষায় প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা চালু বিষয়ে সম্মেলনে মণিপুরী,খাসি, ত্রিপুরী, গারো, ওরাও. মুন্ডা সহ অন্যান ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠী অংশগ্রহন করে এবং তাদের বিভিন্ন সংস্কৃতির অনুষ্ঠান পরিবেশন করে।

পিডিশন প্রধানের সভাপতিত্বে এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এম পি।

উক্ত আলোচনা সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আবদুল আওয়াল বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুর রহমান, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউট এর উপ পরিচালক ড. কানিজ ফাতেমা, ক্ষুদ্র জাতিগোষ্টির প্রতিনিধিসহ অনেকে। এ সময় বক্তারা সিলেট বিভাগের বসবাসকারী ক্ষুদ্র জাতি গোষ্টির ভাষা, সংস্কৃতি সংরক্ষনের দাবী জানান।

এ সময় মন্ত্রী বলেন সংস্কৃতি চর্চাকে তৃনমুল পর্যায়ে নিয়ে যেতে সরকার কাজ করছে। দেশে গত ১০ বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা আগে কখনোই সম্ভব হয়নি। একমাত্র প্রাধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনার কারনেই দেশের এই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc