Monday 21st of May 2018 03:47:17 AM

জিরো পয়েন্টের সৌন্দর্য্য বিনষ্ট করে পাথর লোটের অভিযোগ

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ  প্রাকৃতিক কন্যা খ্যাত সিলেটের পর্যটন নগরীর অন্যতম স্থান জাফলংয়ের জিরো পয়েন্টের সৌন্দর্য্য যা ভ্রমন পিপাসুদের আকৃষ্ট করে। সে স্থানটি বিনষ্ট করে যাচ্ছে পাথর খেকু খ্যাত এক শ্রেনীর অর্থ লোভী চক্র। পাথর লোট করতে গিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহীনির কাছে আটক হয় ১২টি নৌকা, বিজিবির ভূমিকা রহস্য জনক।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় বাংলাদেশ পর্যটন নগরী সিলেটের অন্যতম স্থান জাফলং। আর প্রধান আর্কষণ হচ্ছে পাথর ও সচ্ছপানি এবং পাহাড়রাজী। যার ফলে সারা বৎসর এখানে ভ্রমন পিপাসুরা ভিড় লেগেই থাকে। জাফলং ভ্রমন না করলে ভ্রমনের আনন্দটাই পরিপূর্ণতা লাভ করে না পর্যটক প্রেমীদের।

উল্লেখযোগ্য স্থান হল জিরো পয়েন্ট। কিন্তু এক শ্রেনীর পাথর খেকু চক্র স্থানীয় সীমান্তফাড়ির সদস্যদের সহযোগিতায় দিন-রাত সমান তালে জিরো পয়েন্ট ১২৭৩নং মেইল পিলারের ৭এস পিলার সংলগ্ন হতে নৌকা প্রতি ১৫শত টাকার বিনিমনে পাথর লোট করার সুযোগ করে দিচ্ছে চক্রটি। ভারতের মেঘালয় রাজ্যেরে ডাউকী নদীর বুক ছিয়ে বয়ে আসা পানির সাথে নূনিপাথর গুলো প্রকৃতিক ভাবে সাজিয়ে রয়েছে পিয়াইন নদীর উৎস্য মূখে। যাহা ভ্রমন পিপাসুদের আনন্দের প্রধান উৎস। সেই উৎস স্থল হতে পাথর অবৈধ পন্থায় প্রতিনিয়ত পাথর উত্তোলনের ফলে পর্যটকরা মুখ ফিরে নিচ্ছে সিলেটের অন্যতম পর্যটন স্পর্ট জাফলং জিরো পয়েন্ট হতে।

এদিকে গতকাল ২রা মে বুধবার দিবাগত রাত ১১টায় পাথর লোটকারী চক্রের অন্যতম সদস্য হানিফ, মোস্তফা, সাজুল, সহিদ এবং নুরু মিয়ার নেতৃত্বে ২শতাধিক বারকী নৌকা ভারতীয় সীমান্তবর্তী ডাউকী ও বাংলাদেশের পিয়াইন নদীর মিলন স্থলে জিরো পয়েন্টে পাথর লোট করতে গেলে ভারতীয় বিএসএফ হাতে ১২টি নৌকা আটক হয়।

এসময় প্রাণ নিয়ে সাধারণ শ্রমিকরা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে প্রাণ রক্ষা হলেও পাথর উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত নৌকা রক্ষা করতে পারেনি। এসময় ভারতীয় বাহিনী নৌকা ফেরত না দিয়ে ৭টি নৌকা ভেঙ্গে ফেলে পিয়াইন নদীতে ভাসিয়ে দেয় এবং ৫টি নৌকা আটক করে তাদের জিম্মায় নিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাধারণ ব্যবসায়ীরা বলেন আমরা পাথর কোয়ারী হতে পাথর উত্তোলন করে আসছি স্বাভাবিক নিয়মে। কিন্তু একশ্রেনীর পাথর খেকুরা অবৈধ ভাবে সুযোগ বুঝে জিরো পয়েন্ট হতে পাথর সংগ্রহ করার কারনে পাথর ব্যবসায়ীদের সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। আমরা প্রকৃতিক সৌন্দর্য্য রক্ষায় সংশ্লিষ্ট আইন শৃংঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করি।
এবিষয়ে জানতে সংগ্রাম সীমান্ত ফাঁিড়র কমান্ডা নায়েক সুবেদার জয়নালের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ক্যাম্পে না থাকায় কথা বলা যায়নি। তবে ক্যাম্পের বর্তমান হাবিলাদার আলমগীর জানান- জিরো পয়েন্ট হতে ১৫০গজ দূরবর্তী স্থান হতে দরিদ্র শ্রমিকরা পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে বলে তিনি দাবী করেন। নৌকা আটকের বিষয়টি তার জানানেই বলে জানান।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ      হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ ও হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দুই ইউনিয়নের ৩০গ্রামের মাঝখানের খোয়াই নদীর উপর পাকা সেতু না থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন শত শত শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষকে চলাচল করতে হচ্ছে। একটি বাঁশের সাঁকো ও নৌকা দিয়ে চলাচলে একমাত্র ভরসা।

৩০টি গ্রামের শিক্ষার্থী ও সাধারন মানুষের বাঁশের তৈরি সাঁকো দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করেন। দুই ইউনিয়নের  গ্রামবাসীর দুঃখের প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়ে আছে এই সাঁকো।

সরেজমিন দেখা যায়, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়নের চরনূর আহমদ,লেঞ্জাপাড়া, বড়চর, এতবারপুর, কলিমনগর, আলাপুর, জগতপুর, বাতাশর, রতনপুর, হামুয়া, চর হামুয়া, সুদিয়াখলা, বাগুনিপাড়া এবং হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লস্করপুর ইউনিয়নের উত্তর চর হামুয়া, দক্ষিণ চর হামুয়া, হাতির তান, লস্করপুর, মশাজান, শুলতানশী, নোয়াগাও, বাতাশর, বনগাও, সুঘর, চর হামুয়া, হামুয়া,গঙ্গানগর আদ্যপাশা, কটিয়াদি  গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এ বাঁশের সাঁকো ও নৌকা দিয়ে পারাপাড়।

গ্রামের শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিদ্যালয়, কলেজে, মাদরাসায়, যাতায়াত করে। শুধু শিক্ষার্থী নয়, ওই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন দুই উপজেলার দুই ইউনিয়নের হাজার হাজার লোক জীবনের তাগিদে ও দৈনন্দিন কাজে যেমন যাতায়াত করে তেমনি উক্ত দুই ইউনিয়নের কৃষক কৃষি কাজের জন্য সাঁকোটি ব্যবহার করেন।

একদিকে যেমন ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হয় তেমনি প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা স্বীকার হতে হয় এই সাঁকোতে। স্থানীয় জনতা প্রতি বছরই এই সাঁকো মেরামত করে পারাপারের ব্যবস্থা করেন। ব্যবসা-বাণিজ্য, হাট-বাজার, স্কুল-কলেজ এবং দৈনন্দিন কর্মসংস্থানের কারণে সাঁকো পেরিয়েই প্রতিদিন যাতায়াত করতে হয়।

সংশ্লিষ্ট গ্রামগুলোর কৃষকদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য বিক্রিসহ রোগীর জরুরি চিকিৎসার জন্য নড়বড়ে সাঁকোর ওপর দিয়েই যাতায়াত করতে হয়। এলাকাবাসীর প্রাণের  দাবি এমতবস্থায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় এলাকাবাসীর। তাদের দাবি ওই খোয়াই নদীর  ওপর সেতু নির্মিত হলে পাল্টে যাবে নদীর দুই পাড়ের হাজার মানুষের জীবনযাত্রা।

এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন নির্বাচনের সময় জনপ্ রতিনিধিরা প্রতিশ্র্রুতি দিলেও নির্বাচন শেষ হলে তা বাস্তবায়ন করে না। হয়নি তাই এলাকাবাসী বাধ্য হয়ে নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে স্থানীয় লোকদের সহযোগিতায় এই বাঁশের সাঁকো স্থাপন করে। চর হামুয়া  গ্রামের রফিক আলী বলেন, আমাদের চাষাবাদের জমিসহ খোয়াই নদীর ওপারে হওয়ায় এই সাঁকো দিয়ে ফসল আনা-নেয়া করতে হয়। প্রতিদিনই এখান দিয়ে ছোট ছোট ছেলেমেয়ে স্কুলে যাতায়াত করে।

উত্তর চর হামুয়া  গ্রামের শফিক মিয়া জানান, এই বাঁশের সাঁকো দুই ইউনিয়নের ৩০ গ্রামের মানুষ দুঃখ প্রকাশ করেন। ছোটবেলা থেকেই দেখছি খোয়াই নদীতে বন্যার সময় নৌকা পারাপাড় এবং  কম পানিতে বাঁশের সাঁকো ব্যবহার করে চলতে হয়েছে। কবে চরহামুয়া এলাকায় খোয়াই নদীতে ব্রিজ হবে তা জানি না। ব্রিজটি নির্মাণ করা হলে উভয় ইউনিয়নের লোকজনই উপকৃত হবে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নিকটবর্তী চর হামুয়া গ্রামের খোয়াই নদীর চর থেকে অজ্ঞাত এব যুবক(২৮) লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার (৩ মে) শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নিকটবর্তী ভোর সকালে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লস্করপুর ইউনিয়নের চরহামুয়া গ্রামের কেয়াঘাট নামকস্থানে খোয়াই নদীর চরে যুবকের লাশটি পরে দেখে স্থানীয় লোকজন।

পরে এ খবর চড়িয়ে পরলে ৮/১০টি গ্রামের লোকজন এসে যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা জানান, রাতের আধারে যুবককে কেউ হত্যা করে খোয়াই নদীর চরে ফেলে দিয়েছে। গ্রামবাসী হবিগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে লাশটি নিয়ে যায়। সদর থানার ওসি ইয়াছিনূল হক জানান, যুবকের লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাটানো হয়েছে।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। এঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,বিক্রমজিত বর্ধন:   মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পরীক্ষামূলকভাবে আগামী ১৪ই মে শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক চা নিলামকেন্দ্রের কার্যক্রম। টি প্ল্যান্টার্স অ্যান্ড ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টিপিটিএবি) সদস্য সচিব জহর তরফদার এ তথ্য জানিয়েছেন।
শ্রীমঙ্গলে ২০১৭ সালের ৮ ডিসেম্বরে উদ্বোধন হয় দেশের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক চা নিলাম কেন্দ্রের। তবে এ কেন্দ্রে এতদিন কোনো নিলাম অনুষ্ঠিত হয়নি। এবার সেই প্রতীক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে। টি ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টিটিএবি)’র পরিচালনায় এ কেন্দ্রে পর পর তিনটি আন্তর্জাতিক নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত চায়ের আন্তর্জাতিক নিলাম বন্ধ রাখা হবে। টি সেলস কো-অর্ডিনেশন কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরীক্ষামূলক নিলামের পর পর্যালোচনা শেষে দেশের দ্বিতীয় চা নিলামকেন্দ্রের পরবর্তী কার্যক্রম বিষয়ক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশিস বসুর সভাপতিত্বে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ১০ এপ্রিল এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোঃ জাহাঙ্গীর আল মুস্তাহিদুর রহমান, চা বোর্ডের সদস্য (অর্থ ও বাণিজ্য) মো. ইরফান শরীফ, কমিটির সদস্য সচিব ও চা বোর্ডের উপ-পরিচালক (বাণিজ্য) মুহাম্মদ মদহুল কবীর চৌধুরী, টিটিএবির সহসভাপতি মোঃ ইউসুফ এবং শ্রীমঙ্গলে চায়ের নিলাম আয়োজনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান টি প্ল্যান্টার্স অ্যান্ড ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টিপিটিএবি) সদস্য সচিব জহর তরফদার। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর শ্রতিশ্রুতি মোতাবেক এ বছরই শ্রীমঙ্গলের নিলামকেন্দ্রে চায়ের আন্তর্জাতিক নিলাম আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ১৪ মে অনুষ্ঠিত হবে প্রথম নিলাম।
পরের দুটি নিলাম অনুষ্ঠিত হবে ২৬ জুন ও ১৭ জুলাই। এ কারণে চট্টগ্রামে পূর্বনির্ধারিত মৌসুমের ৫, ১০ ও ১৮ নম্বর আন্তর্জাতিক নিলাম অনুষ্ঠিত হবে না। এছাড়া, চট্টগ্রামে প্রথাগতভাবে সপ্তাহের প্রতি মঙ্গলবার চায়ের আন্তর্জাতিক নিলাম অনুষ্ঠিত হলেও শ্রীমঙ্গলে তিনটি নিলাম হবে বুধবারে।এ বিষয়ে টিটিএবির সহসভাপতি মো. ইউসুফ বলেন, ‘শ্রীমঙ্গলের নিলামকেন্দ্রে আন্তর্জাতিক নিলাম আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছে টি প্ল্যান্টার্স অ্যান্ড ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ। এখানে তিনটি আন্তর্জাতিক নিলামের পর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেশের দ্বিতীয় নিলামকেন্দ্রের পরবর্তী কার্যক্রম সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবে চা বোর্ড।
এদিকে, দেশের দ্বিতীয় নিলামকেন্দ্রের উদ্বোধনের পর চা বোর্ডের পক্ষ থেকে মৌলভীবাজারে পাঁচটি ব্রোকার হাউজের লাইসেন্স ইস্যু করা হয়েছে। শ্রীমঙ্গলে চা বিক্রির জন্য অনুমোদিত ব্রোকার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে জালালাবাদ টি ব্রোকার্স, এসটি ব্রোকার্স লিমিটেড, এসটিএলটি ব্রোকার্স লিমিটেড, গ্রেটার সিলেট টি ব্রোকার্স লিমিটেড ও শ্রীমঙ্গল টি ব্রোকার্স লিমিটেড।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,হৃদয় দেবনাথ: নববর্ষের সকালে পান্তা-ইলিশ দিয়ে সকালের খাবার সেরে ছেলেরা পাঞ্জাবী আর মেয়েরা শাড়ি পরে বেরিয়ে পড়ে। রমনার বটমূল-ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে সারাদেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে চলে নতুন বছরকে বরণ করে নেয়ার নানা আয়োজন। নতুন বছর নব আনন্দ নিয়ে হাজির হয় প্রতিটি বাঙালি পরিবারে। বাঙালি সংস্কৃতির ইতিহাস হাজার বছরের।

সমৃদ্ধ এই সংস্কৃতির সাথে বর্ষবরণ উত্সব ওতপ্রোতভাবে জড়িত। বিশ্বায়নের এই যুগে সবকিছুই পরিবর্তনশীল। তাই বলে আবহমানকাল ধরে চলে আসা উৎসবমুখর বাঙালির প্রাণের বৈশাখ বরণের দৃশ্যপটের তারতম্য ঘটেনি কোথাও। বৈশাখ মানে যে শুধু নতুন বছরকে সাদরে বরণ করা, তা নয়। আমার মনে হয় সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাংলা ভাষাভাষী জাতিগোষ্ঠীর এক অপূর্ব মহামিলন উৎসবও বটে।

গান পরিবেশন করছেন নারীরা

বুধবার (দুই মে) বেলজিয়ামের লিয়াজে বসবাসকারী বাংলাদেশীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ উৎযাপন করেছে।বেলজিয়াম প্রবাসী বাংলাদেশিদের উদ্যোগে আনন্দ উল্লাসের মধ্যদিয়ে ‘বাংলা নববর্ষ’ উদযাপন করা হয়।দেশীয় নানান রঙের পোশাক পরে তাদের পরিবারের সদস্যগণ বর্ণিল পোশাকে সজ্জিত হয়ে অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। উপস্থিতি দেখে মনে হয় এযেন প্রবাসের বুকে এক টুকরো বাংলাদেশ। যা বিদেশিদেরও বেশ আকৃষ্ট করেছে। অনুষ্ঠানে দেশীয় নানা রকম খাবার দিয়ে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ণ করা হয়।

দর্শনার্থিদের একাংশ

শতাধিক পরিবারের উপস্থিতি অনুষ্ঠানটিকে আনন্দ-মুখর করে তোলে পাশাপাশি বাংলাদেশে থেকে আগত শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা অন্যরকম এক আনন্দ যোগ করে!সংগীত পরিবেশন করে প্রবাসী দর্শকদের গানে গানে মাতিয়ে রাখেন কোকিল কন্ঠী গায়িকা ক্লোজআপ ওয়ান তারকা পুতুল,ফোক গানের যুবরাজখ্যাত আশিক, এবং মিরাক্কেল খ্যাত অভিনেতা আবু হেনা রনি সাইদুর রহমান লিটনের সভাপতিত্বে হাবিবুল হাসান সোহাগের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটির অন্যতম ব্যাক্তিত্ব ইব্রাহিম খালেদ।

বক্তব্য রাখেন তপন রায়, রানা ফারুক , শরিফুল ইসলাম মঞ্জু ,জসিম উদ্দিন শাহাজান আহমেদ , তসু মিয়া প্রমুখ!অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন বেলজিয়ামের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব চয়ন রায়।

অনুষ্ঠানটির অন্যতম আয়োজক চয়ন রায় বলেন, দেশের আবহমান সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যকে এগিয়ে নেয়া আর সেই সঙ্গে বিদেশের মাটিতে নতুন প্রজন্মকে দেশের আবহমান কালের সংস্কৃতিকে পরিচয় করিয়ে দেয়াই এই ধরনের বর্ষবরণ ও সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মেঃ    রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১ টার দিকে উপজেলা সদরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, শক্তিমান চাকমা তার কার্যালয়ে ঢোকার পথে তাকে গুলি করা হয়। ঘটনা স্থলেই তিনি মারা যান। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,ডেস্ক নিউজঃ ক্ষমতার অপব্যবহার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পুলিশের আলোচিত উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক।

আজ বৃহস্পতিবার (৩মে) সকাল সোয়া ৯ টার দিকে তিনি দুদকের সেগুন বাগিচার প্রধান কার্যালয়ে হাজির হলে সাড়ে ৯ টা থেকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করছেন অভিযোগ তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী।

গত ২৫ এপ্রিল দুদক থেকে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বরাবর চিঠি পাঠিয়ে মিজানুরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়।

ডিআইজি মিজানুর ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গত জানুয়ারির শুরুর দিকে তাকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দফতরে সংযুক্ত করা হয়।

ডিআইজি মিজানুরের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় বিয়ে গোপন করতে নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করে স্ত্রী মরিয়ম আক্তারকে গ্রেপ্তার করানোর অভিযোগ রয়েছে। তাছাড়া নারী নির্যাতনেরও অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এসব অভিযোগের প্রমাণ পায় পুলিশের তদন্ত কমিটি এর পরিপ্রেক্ষিতে তাকে প্রত্যাহার করা হয়।

সর্বশেষ মিজানুরের বিরুদ্ধে প্রাণনাশের হুমকি ও উত্ত্যক্ত করার অভিযোগ তোলেন এক সংবাদ পাঠিকা।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,নড়াইল প্রতিনিধিঃ  নড়াইলের পুলিশের সন্ত্রাস, নাশকতা ও মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে নাশকতা মামলার এক আসামী ও ৬ মাদক ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন মামলা ও অভিযোগে ২৮ জনকে গ্রেফতার করেছে। অভিযানকালে ৪৫ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করেছে।
জেলা পুলিশের কন্ট্রোল রুম সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় জেলার চারটি থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে নড়াইল সদর থানায় নাশকতা মামলার এক আসামী ও তিন মাদক ব্যবসায়ী সহ ৬ জন, লোহাগড়া থানায় দুই মাদক ব্যবসায়ী সহ ১০ জন, নড়াগাতী থানায় এক মাদক ব্যবসায়ী সহ ৫ জন ও কালিয়া থানায় ৭ জনকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃতদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন জানান, সন্ত্রাস, নাশকতা ও মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী সহ অপরাধীদের সম্পর্কে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা কামনা করেছেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মেঃ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাবেক সভাপতি ও দৈনিক শ্যামল সিলেটের প্রধান আলোকচিত্রী ইকবাল মনসুরের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মকসুদ আহমদ মকসুদ।

তারা এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৩মে,চুনারুঘাট প্রতিনিধি: দীর্ঘ প্রতিক্ষা ও সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আবারো চুনারুঘাট উপজেলা তাঁতী লীগের ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়। গত ৩০ই এপ্রিল রোজ সোমবার হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ কার্য্যালয়ে জেলা তাঁতী লীগের সভায়, সভার সর্বসম্মতিক্রমে পূণরায় মোঃ কবির মিয়া খন্দকারকে আহবায়ক ও মোঃ মিজানুর রহমান বাবুলকে সদস্য সচিব করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি জননেতা মুদ্দত আলী, জেলা তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন সরদার, জেলা তাঁতী লীগ নেতা সাজু নাছের চৌধুরী, মাহবুব ছাদিক উজ্জল, মুহিবুল আলম জীবন, সিমন মোল্লা, আহমদ আলীসহ জেলা ও উপজেলা তাঁতী লীগ নেতৃবৃন্দ।

এ সময় হবিগঞ্জ জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি জননেতা মুদ্দত আলী বলেন, আগামী ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের ভ্যানগার্ড হিসেবে তাঁতী লীগকে কাজ করতে হবে। জননেত্রী দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থ বারের মত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিজয়ী করে রাষ্ট্র ক্ষমতায় আনতে হবে। এবং এরই ধারাবাহিকতায় তাঁতী লীগকে কাজ করতে হবে।