Monday 17th of December 2018 09:09:46 AM

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,ডেস্ক নিউজঃ  গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে যাত্রীবাহী নৈশকোচ খাদে পড়ে ৮ জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২৫ জন। আহতদের ফরিদপুর ও ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বরইতলা নামক স্থানে রোববার ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ৬ জনের মধ্যে দুইজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন- বরগুনা জেলার সদর উপজেলার আমতলী গ্রামের হাসান মিয়া (২৫) ও বরিশালের অসীম মাঝি (৪০)। তবে বাকি নিহতদের নাম-পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

মুকসুদপুর থানার ওসি মোস্তফা কামাল পাশা জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরিশালগামী সুগন্ধা পরিবহনের একটি নৈশকোচ মুকসুদপুর উপজেলার বরইতলা পৌঁছার পর চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাস রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই বাসের ৬ যাত্রী নিহত হন ও কমপক্ষে ২৫ যাত্রী আহত হন।

ওসি জানান, খবর পেয়ে পুলিশ এবং গোপালগঞ্জ, ভাঙ্গা ও মুকসুদপুরের ফায়ার সার্ভিসের চারটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে। আহতদেরকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ ও ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

সকাল ৭টার দিকে উদ্ধার কাজ সমাপ্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে বাসচালক ও হেলপারকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শায় ১ টি ওয়ান শুট্যার গান ও ১ রাউন্ড গুলিসহ মো: নুরুজ্জামান (২২) নামে একজন আসামীকে আটক করেছে শার্শা থানার এস আই জোগেশ কুমার। আটক নুরুজ্জান শার্শা থানার নাভারন উত্তর বুরুজ বাগান গ্রামের মৃত:নওশের সরদার এর ছেলে।

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম মশিয়ার রহমান জানান, রবিবার দুপুর ২টার সময় শার্শার নাভারণ রেল বাজার জামে মসজিদ এর সামনে সে অবস্থান করছিল এমন গোপন সংবাদে সেখানে পুলিশ অভিযান চালায়।
এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসী নুরুজ্জামান পালিয়ে যাওয়ার প্রকল্পে সন্ত্রাসী নুরুজ্জামানকে আটক করা হয়।

পরে তার শরীর তল্লাশী করে ১টি ওয়ান শুট্যার গান ও ১ রাউন্ড গুলি তার মাজায় লুকানো অবস্হায় উদ্ধার করা হয়। তাকে অস্ত্র আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠান হয়েছে বলে জানান, শার্শা থানান ওসি তদন্ত তাসমিম আলম তুষার।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ভৈরবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে সস্ত্রীক, আকস্মিক পরিদর্শনে আসেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অতিরিক্ত সচিব আতিকুল হক, সেবা ও সুরক্ষা বিভাগ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় , মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসের জেলা কর্মকর্তা।

৩১/০৩/২০১৮ ইং শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় সচিব মহোদয় মাদকের কুফল সম্পর্কে উপস্থিত সকল ছাত্রছাত্রিদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন এবং বিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,নিজস্ব প্রতিবেদক,সুনামগঞ্জঃ  সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বালিজুরী হাজী এলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুর আলীর বিরোদ্ধে অর্থ আতœসাতের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও রয়েছে র্দীঘ দিনের নানান অনিয়মের অভিযোগ। এব্যাপারে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মাহমুদ আলী ও আছব্বির খাঁ গত ২৫শে জানুয়ারী শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব,সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান,বিদ্যালয় পরির্দশক,আ লিক উপ-পরিচালক,সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক,জেলা শিক্ষা অফিসার,তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কিন্তু লিখিত অভিযোগের ২মাসেরে অধিক সময় পার হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অভিযুক্তদের বিরোদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেওয়ায় স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী অভিবাবক ও এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোব বিরাজ করছে।
অভিযোগ সূত্রে জানাযায়,বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির অনুমতি ব্যতিত সভাপতি নুর আলী ও সদস্য আজিজুল ৯৭৫কেজি সরকারি বই বিক্রি,স্কুলের গাছ কেটে বিক্রি,ডোবা বিক্রি,সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগে নিয়োগ বাণিজ্য করা,স্কুলের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন বরাদ্ধের টাকা ও স্কুলের তহবিল থেকে টাকা আতœসাত করেছে দীর্ঘ দিন ধরেই।
ঐসকল অনিয়ম=দূর্নীতির কারনে গত বছরের (২০১৭সাল) ৩ই রমজান মাসে উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক সভাপতি ছয়ফুল আলমকে আহব্বায়ক করে সদস্য ফারুক,সাবেক ইউপি সদস্য আবুল,বালিজুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এনামুল,সোহালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলামকে সদস্য করে ৫সদস্য বিশিষ্ট্য তর্দন্ত কমিটি গঠন করেন ছাত্র-ছাত্রী অভিবাবক ও এলাকাবাসী সম্মেলিত ভাবে। শুরু হয় তর্দন্ত।

কমিটি দীর্ঘ একমাস তর্দন্তের পর বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুর আলী ও সদস্য আজিজুলের নামে আনীত অভিযোগের সত্যতা পায়। তদর্ন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলেও সভাপতি ও সদস্য আজিজুল এলাকার প্রভাবশালী হওয়ার কারণে তাদের বিরোদ্ধে কেউ কোন কথা না বলায় এই বিষয়ে কোন সমাধান হয় নি আজও।
একাধিক সূত্রে আরো জানাযায়,ইতিপূর্বে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমানকে তাদের সাথে অপকর্মে সাথে জরিত করতে না পারায় তার ইচ্ছার বিরোদ্ধে জোর পূর্বক ভাবে পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষার করতে বাধ্য করে স্কুল থেকে তাড়িয়ে দেন। ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুর আলী ও সদস্য আজিজুলের অর্থ আতœসাতের কারণে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ফারুক স্বেচ্চায় পদত্যাগ পত্র জমা দেন।
বালিজুরী হাজী এলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মাহমুদ আলী বলেন,আমি বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি। যারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ে ব্যাবসা বাণিজ্য করে। একজন সৎ ও আদর্শ শিক্ষককে জোর পূর্বক ভাবে পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষর করিয়ে স্কুল থেকে তাড়িয়ে দেন তাদের সাথে কি আর চলা যায়।
বালিজুরী হাজী এলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র অভিবাবক শফিউল আলম বলেন,সভাপতি আর সদস্য আজিজুল মিলে স্কুলটিকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। সাবেক প্রধান শিক্ষক (সিদ্দিকুর রহমান)স্যার থাকা অবস্থায় স্কুলে লেখা পড়ার মান যা ছিল এখন তার অর্ধেকও নেই। বালিজুরী হাজী এলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুর আলী তার বিরোদ্ধে আনিত অভিযোগ শুনে বলেন,বই বিক্রি না পরীক্ষার কাগজ,পেপার বিক্রি করে থাকবে। যদিও পুরোনো বই বিক্রি করে থাকে তাহলে স্কুলের কাজেই লাগিয়েছে। অন্য সব বিষয়ে আমি কিছু জানি না। আমি কোন ধরনের অনিয়মের সাথে জরিত না।
উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আজিজুল বলেন,গত বছরের প্রথম দিকে কিছু পুরানো বই ও পরীক্ষার কাগজ বিক্রি করে ৬হাজার টাকা ও একটি গাছ ভেঙ্গে যাওয়ায় ২হাজার টাকা বিক্রি করা হয়েছিল। সেই টাকা দিয়ে স্কুলের ফ্যান কিনা হয়েছিল। অভিযোগ দিলে কি হবে প্রমান ত থাকতে হবে। আমি কোন অনিয়ম করি নাই।
উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক সভাপতি ছয়ফুল আলম বলেন,ঐ সব নিয়মের বিষয়ে আমাকেসহ এলাকাবাসী ৫জনকে দায়িত্ব দিয়েছিল অভিযোগ গুলোর সত্যতা যাচাই করার জন্য সত্যতা পেয়ে এলাকাবাসীকে জানিয়েছি। কিন্তু পরির্বতির্তে এলাকাবাসী কিছু না বলায় এভাবেই আছে।
তাহিরপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার পূনের্ন্দ দেব জানান,এ বিষয়ে খোজঁ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়া উপজেলার যাদবপুর গ্রামে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে সাইদ ভুইয়া নামে একজন নিহত এবং ১০ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনার পর অন্তত ২৫টি বাড়ীঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসীসূত্রে জানাগেছে, যাদবপুর গ্রামের হেমা মুন্সী ও কিবরিয়া গাজী গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শনিবার সকাল ৭টার দিকে দুপক্ষ ঢাল, সড়ককি রাম দা সহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রাদি নিয়ে উত্তরপাড়া ভুইয়া বাড়ি মোড়েসংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে কিবরিয়া গাজী পক্ষের সাইদ ভুইয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে। এসময় হাবি ভুইয়া, রেজ্জাক ভূইয়া সহ দুপক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়।

এদিকে নিহত হওয়ার পর বিক্ষদ্ধ লোকজন প্রতিপক্ষ হেমা মন্সীর পক্ষের অন্তত ২৫টি বাড়িঘর ভাংচুর হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
কালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ শমসের আলী জানান, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc