Thursday 20th of September 2018 10:16:03 AM

রায়ের পর সহিংসতা সৃষ্টির চেষ্টা করলে একবিন্দুও ছাড় দেয়া হবে নাঃডিএমপি

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭ফেব্রুয়ারিঃ   ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় হওয়ার পর কেউ সহিংসতা সৃষ্টির চেষ্টা করলে একবিন্দুও ছাড় দেয়া হবে না।

আগামীকাল (৮ ফ্রেবুয়ারি) জিয়া অরফানেজ মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বুধবার (৭ ফ্রেবুয়ারি) দুপুরে ডিএমপি কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৮ ফ্রেবুয়ারি) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করবেন বিশেষ জজ ড. মো: আখতারুজ্জামান। এ মামলার অন্যতম আসামী খালেদা জিয়া।
অন্য আসামীরা হলেন- বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

এই রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে রাজনীতিতে টানটান উত্তেজনা চলছে।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, কেউ যদি যান চলাচলে বাধা না দিয়ে এবং জনগণের ভোগান্তি সৃষ্টি না করে গণতান্ত্রিক কর্মসূচি ও রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করে, তাহলে বাধা দেয়ার প্রশ্নই আসে না। তবে রাস্তার ওপর প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে কোনো ধরনের সমাবেশ বা মিছিল করা যাবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ঢাকা মহানগর পুলিশের প্রধান আরো বলেন, ‘আমরা অবশ্যই দেশের আইন ও বিধি মেনে কাজ করব। আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী, কারো ওপর অন্যায় আচরণ আমাদের দায়িত্ব নয়। তবে সহিংসতা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একবিন্দুও ছাড় দেওয়া হবে না।’

দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ সাতজনের বিরুদ্ধে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ১৯৯১ সালে খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকা কালে এতিম তহবিল নামে নতুন একটি হিসাব খোলা হয় এবং বিদেশ থেকে সাড়ে চার কোটি টাকা আসে ওই হিসাবে। পরে ওই তহবিল থেকে দুই কোটি ৩৩ লাখ টাকা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে স্থানান্তর করা হয়। অভিযোগ আনা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে সেখান থেকে আসামীরা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন।

মামলা দায়েরের ১৩ মাস পর ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট ছয় জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন-অর-রশিদ।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭ফেব্রুয়ারি,ডেস্ক নিউজঃ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘিরে যেকোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত আছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।
বিএনপির চেয়ারপারসন বলেছেন, তিনি কোনো দুর্নীতি করেননি। ন্যায়বিচার হলে তিনি বেকসুর খালাস পাবেন।

খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আগামীকাল আমার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলার রায়ের দিন ধার্য আছে। এ রায়কে কেন্দ্র করে সরকারই অধিক পরিমাণ ভীত হয়ে পড়েছে। চরম অস্থিরতায় ভুগছে সরকার।’

বুধবার (৭ জানুয়ারি) রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন খালেদা জিয়া। সংবাদ সম্মেলন শুরু হয় বিকেল ৫টার দিকে।

আগামীকাল (৮ জানুয়ারি) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য আছে। ওই মামলার প্রধান আসামী খালেদা জিয়া। এর আগের দিন আজ (৭ জানুয়ারি) সংবাদ সম্মেলন করলেন খালেদা জিয়া।

দেশবাসীকে উদ্দেশ্য করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলায় আগামীকাল (৮ জানুয়ারি) রায় হবে। এই রায়কে কেন্দ্র করে শাসক মহল আমাদের চেয়ে বেশি অস্থির ও ভীত হয়ে পড়েছে। জনগণের চলাচলের অধিকার, প্রতিবাদের অধিকার, সভা-মিছিলের সাংবিধানিক অধিকার, প্রশাসনিক নির্দেশে বন্ধ করা হচ্ছে। ভিত্তিহীন ও মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে জনগণের প্রতিবাদের ভয়ে ভিত হয়ে এ হীন পথ খুঁজে নিয়েছে সরকার। সারা দেশে তারা বিভীষিকা ও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। জনগণের প্রতিবাদের সম্ভাবনাকে তারা এতটাই ভয় পায়!’

সাবেক প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আদালত রায় দেওয়ার বহু আগে থেকেই শাসক মহল চিৎকার করে বলে বেড়াচ্ছে, আমার জেল হবে। যেন বিচারক নন, ক্ষমতাসীনরাই রায় ঠিক করে দিচ্ছে। প্রধান বিচারপতিকে চাপের মুখে পদত্যাগ ও দেশত্যাগে বাধ্য করার পর কোনো আদালত শাসকদের ইচ্ছের বিরুদ্ধে ন্যায়বিচার ও ইনসাফ কায়েম করতে সাহস পাবে কি না, তা নিয়ে সকলেরই সন্দেহ আছে।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি যেকোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তত। জনগণ আমার সঙ্গে আছে। এ সরকার খালি মাঠে গোল দেওয়ার জন্য এসব করছে। তাদের খায়েস পূরণ হবে না।’

এ সময় পরিবারের কথা বলতে গিয়ে আবেগ প্রবণ হয়ে যান তিনি। বলেন, ‘এর আগে কারাবন্দী থাকার সময় মাকে হারিয়েছি। পরের বার বন্দী থাকার সময় এক সন্তানকে হারিয়েছি। আরেক সন্তান পঙ্গু অবস্থায় বিদেশে চিকিৎসাধীন।’

তিনি জনগণকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, অনেক ফাঁদ পাতা হবে। ষড়যন্ত্র হবে। সবাই সতর্ক থাকবেন। বুঝে শুনে কাজ করবেন।’ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি তিনি বলেন, জনগণের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দেবেন না।

নির্বাচন নিয়ে আলোচনার প্রত্যাশা জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, এখনো আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হতে পারে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের মধ্যে শুভ বুদ্ধির উদয় হোক। দেশ এখন বৃহত্তর কারাগার। জনগণের শাসন কায়েম করে দেশকে মুক্ত করতে হবে।
তিনি বলেন, ‘আসুন আলোচনার মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচন করি। আমাদের বয়স হয়েছে। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য সুন্দর দেশ গড়ে যাই।’

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc