Thursday 18th of October 2018 12:41:32 PM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,মুন্সী গিয়াস উদ্দিনঃ     ধানের চেয়ে ৫০ গুণ বেশী মূল্যের ফসল যা বাংলাদেশে করা সম্ভব আমার গ্রাম এলাকায় ব্রাম্মনবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি-কৃষকেরা তাদের বাপ-দাদার অনুসৃত পথেই কৃষিকাজ করে যাচ্ছেন। ৪০ বছরেও এ এলাকায় কোন সবিশেষ পরিবর্তন চোখে পড়েনি। তারা ধান, পাট, সরিষা, মূলা, টমেটো, তিল, তিশিতেই সীমাবদ্ধ রয়ে গেছেন। ৩০ বছর আগে থেকে যশোর, সাভারে বাণিজ্যিক ফুলের আবাদ করে কৃষক নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটিয়েছেন।

প্রতিবছর অন্যান্য চাষীর থেকে ৩-৪ গুণ বেশী মুনাফা ঘরে তুলেছেন এবং এখন সেই ফুল এর কারবারে ভাটা পড়তে শুরু করেছে চায়না থেকে আমদানী কৃত কৃত্রিম ফুলের বাজার দখলের কারণে। অর্থাৎ তারা একটি বিপ্লব এর প্রায় পুরোটা ধরতে পেরেছেন। আমার বিশ্বাস যশোর আর ঢাকার সাভারের ফুল চাষীরা আবার নতুন কৃষি-উচ্চ মূল্যের বিদেশী ফল ও ফসলের চাষেও নেতৃত্ব দিবেন। পরিবর্তন একটি কষ্টকর বিষয়, নতুন কিছু মেনে নেয়াটা , গ্রহণ করাটা কষ্টকর, সাহসের প্রয়োজন হয়। আর যারা এই পরিবর্তনকে গ্রহণ করার কষ্ট বরণ করতে আগ্রহী, সাদরে নতুন কিছু গ্রহণ করতে প্রস্তুত আছেন, জগতে তারাই নেতৃত্ব দেন।

বাংলাদেশের নতুন বাণিজ্যিক কৃষিতে তারাই নেতৃত্ব দিবেন। এখন ধান বা অন্য সস্তা ফসলের বিকল্প ফসল আছে অসংখ্য, দেশে ও বিদেশে যার চাহিদার শেষ নেই। এরকম ফসল হচ্ছে ড্রাগন, কাঁচা খাবার উপযোগী খেজুর (Barhee date palm), কফি, Avocado, গোল মরিচ, হাইব্রীড নারিকেল, কাজু বাদাম, মিস্টি ভুট্টা (সুইট কর্ণ) , Industrial pineapple, এসব ফসল আমাদের দেশের সর্বত্র হবে। ড্রাগন, খেজুর, Avocado, হাইব্রীড নারিকেল সারা দেশের সব উঁচু জমিতে চাষ করা যাবে। কাজুবাদাম, কফি, গোলমরিচ, এলাচ বর্তমানে চা হচ্ছে এমন সব জমিতে, যেমন চট্টগ্রাম, সিলেট, ঠাকুরগাঁ , পঞ্চগড়, ভাওয়ালেরগড় সহ বহু এলাকাতে হবে। বর্তমানে বছরে গড়ে ৩ কোটি একর জমিতে আমরা ১/২ বার ধান চাষ করে বছরে ৩.৫ কোটি টন চাউল উৎপন্ন করে সব খেয়ে ফেলে ভুল করছি, তার থেকে ২০-৩০বা ৪০% উঁচু জমিতে এই সব দামী ফসল চাষ করে লাখ লাখ লোক নিজেদের ভাগ্যের সাথে সাথে দেশের ভাগ্য সহজেই বদলিয়ে ফেলতে পারে। আমরা এখন দেখি কোন ফসল চাষ করে কতদিনে কত টাকা আয় করা যাবে।

ড্রাগন ফল একরে ব্যয় হবে ৪ লাখ টাকা, ২য় বছরে ৪, ৩য় বছরে ৭/৮, ৪র্থ বছরে ১২-১৪ লাখ, এর পরে বছরে ২০ লাখ টাকার বেশি আয় হবে ২৫-৩০ বছর ধরে। ফলন হয় একরে ১০-১৪ টন, দাম পাইকারী ১৫০-২০০/-ধরে। বারহী খেজুর একরে খরচ হবে ৫-৬ লাখ টাকা, ৩য় বছর ৫, ৪র্থ বছর ৭/৮, ৫ম বছর ১৫-১৬, ৬/৭ বছর থেকে ২০ লাখ টাকার বেশি আয় হবে একরে ৪০-৫০ বছর। এই খেজুর প্রক্রিয়াজাত করে রেখে পরে কাঁচা ই বিক্রি করা যায়। গোল মরিচ বা Avocado একবারই বেশি বিনিয়োগ করতে হবে কিন্তু এরপর শুধু পরিচর্যা খরচ। Avocado সারা বিশ্বর সব ধনীদেশে প্রচুর চাহিদা। কিন্তু ধনীদেশ ঠান্ডা, এ কারনে তারা কখনও এর চাষ করতে পারবে না। বিশ্ব এর লাখ লাখ টনের চাহিদ। আমাদের দেশে একরে ৫-৭ টন ফলন হবে, অনায়াসে একরে ৭-১০ লাখ টাকার বেশি আয় হবে। গোলমরিচের আয় হবে একরে ৮-১০লাখ টাকা দীর্ঘকাল ।

রোবাস্টা কফি ভিয়েতনাম ১৯৮৬ সালে ১৮০০০টন কফি রপ্তানী করেছিল আর তারা ২০১৬ সালে ১০০ গুন বেশি প্রায় ১৮ লাখটন কফি রপ্তানী করে ৪ বিলিয়ন ডলার আয় করেছে। এদেশের বহুস্থানে খুব সহজে রোবাস্টা কফি চাষ করে বাংলাদেশ বিশ্বে বড় কফির রপ্তানীকারি দেশ হতে পারে। এভাবে সারা দেশে কাজুবাদাম, শিল্পেব্যবহৃত আনারস, মিস্টিভট্টা সহ অসংখ্য দামী ফসল চাষ করে রপ্তানীর মাধ্যমে বিলিয়ন ডলার সহজেই আয় করতে পারি। (আগামী পর্বে-নতুন বাণিজ্যিক কৃষি ছাড়িয়ে যাবে গার্মেন্টস শিল্পকেও)

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ‘শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ’ এর ১ম ব্যাচের পাঠদান কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে।বুধবার দুপুরে কলেজের অস্থায়ী ক্যাম্পাস বিশাল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট মোঃ আবু জাহির।
এতে জেলা শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছাড়াও সর্বস্তরের জনগণ অংশগ্রহণ করেন।
এমপি আবু জাহির বলেন, হবিগঞ্জে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পাঠদান কর্মসূচির উদ্বোধনের দিনটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নামে প্রতিষ্ঠিত এই কলেজেটি যতদিন থাকবে, প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা বলতে পারবেন আমরাই এই কলেজের প্রথম শিক্ষার্থী।
অধ্যক্ষ ডাঃ মোঃ আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে ও সহকারী অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ মুজিবুর রহমান পলাশের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম, যুগ্ম-সচিব মনীন্দ্র কিশোর মজুমদার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম-সচিব মুখলেছুর রহমান, জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমা, সিভিল সার্জন ডা. সুচিন্ত চৌধুরী, জেলা আধুনিক সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. রথীন্দ্র চন্দ্র দেব, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সত্যেন্দ্র চন্দ্র শীল।
বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আ স ম সামছুর রহমান সামস, নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আলমগীর চৌধুরী ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী সাদ মোহাম্মদ আন্দালিব, জেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি শরীফ উল্লাহ, হবিগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মোতাচ্ছিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট আব্দুল আহাদ ফারুক, প্রতিদিনের বাণীর সম্পাদক মোহাম্মদ শাবান মিয়া, জেলা পরিষদ সদস্য এডভোকেট সুলতান মাহমুদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তফা কামাল আজাদ রাসেল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ডাঃ ইসতিয়াক রাজ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মুকিদুল ইসলাম মুকিদ, অভিভাবক আব্দুস সাফুর শাহ আলম, মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী কাজী সুফায়েল রহমান ও আব্দুল্লাহ আল মুশাহিদ চৌধুরী।

 

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,নড়াইল প্রতনিধিঃ   নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মরিচপাশা গ্রামে ১৫ মাসের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত লোকমান সরদারকে (৬০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মরিচপাশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে, ভূক্তভোগী শিশুকে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিচার দাবি করেছেন এলাকাবাসী। লোহাগড়া উপজেলার মরিচপাশা গ্রামে ১৫ মাসের শিশু ফারিয়াকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে মায়ের কাছ থেকে শিশুকে নিয়ে ধর্ষণ করে রক্তাক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে ওই গ্রামের সোবহান সরদারের মেয়ে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মরিচপাশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভূক্তভোগী শিশুর মা ময়ুরী বেগম জানান, তার শিশুকে কোলে করে বাড়ির পাশে গম ক্ষেতে পানি দিচ্ছিলেন। এ সময় প্রতিবেশি লোকমান সরদার তার সন্তানকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে নিয়ে নেয়। কিছু সময় পরে শিশুটির মা গম ক্ষেত থেকে বাড়ির দিকে আসার পথে মরিচপাশা গ্রামের মসজিদের পাশে অভিযুক্ত লোকমানের কাছে কান্নারত অবস্থায় তার সন্তানকে দেখতে পায়। লোকমানের কাছ থেকে বাড়িতে নেয়ার পরে তার মা দেখেন শিশু সন্তানের রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পরে ওইদিন (মঙ্গলবার) বিকেলে শিশুটিকে প্রথমে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

অবস্থার অবনতি হলে তাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন এলাকাবাসী। সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক রাশেদুজ্জামান রাশেদ বলেন, প্রাথমিক অবস্থায় মনে হচ্ছে শিশুটি যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। পরীক্ষা নিরিক্ষার পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এ ঘটনায় লোকমান সরদারকে আসামি করে লোহাগড়া থানা মামলা দায়ের করা হলে রাতেই তাকে (  লোকমান ) গ্রেফতার করেছে পুলিশ । লোহাগড়া থানার ওসি শফিকুল ইসলাম লোকমানকে গ্রেফতারের বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,আলী হোসেন রাজনঃএকাত্তরে মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার দক্ষিণখোলা গ্রামে গণহত্যার দায়ে তখনকার রাজাকার বাহিনীর দুজনকে মৃত্যুদ- এবং আরও তিনজনকে আমৃত্যু কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এতে রাজনগর উপজেলার দক্ষিণখোলা গ্রামে মুক্তিযুদ্ধকালে সংগঠিত গণহত্যার হোতাদের রায়ে শহীদ পরিবার ও এলাকাবাসী আনন্দিত দ্রুত সেই রায় কার্যকর দেখতে চান। ।
এই কলঙ্কিত অধ্যায়ের সমাপ্তিতে মুক্তিযোদ্ধা, প্রগতিশীল আন্দোলন কর্মীসহ জেলার সকল শ্রেণিপেশার মানুষ আনন্দিত। সবার দাবি একটাই দ্রুত রায় কার্যকরের।
রাজনগর উপজেলার দক্ষিণখোলা গ্রামে মুক্তিযুদ্ধকালে সংগঠিত গণহত্যার অন্যতম দুই হোতা ইউনুছ আহমেদ ও ওজায়ের আহমেদ চৌধুরীর সর্বোচ্চ সাজা এবং মামলার অন্য তিনজন সামছুল হোসেন তরফদার ওরফে আশরাফ, মো. নেছার আলী ও মোবারক মিয়াকে আমৃত্যু কারাদ- দেন আদালত। এরমধ্যে সর্বোচ্চ সাজাপ্রাপ্ত দুজন কারাবন্দি আর বাকী বাকি তিনজন পলাতক।
অভিযোগ গঠনের পর ২০১৬ সালের ১৩ অক্টোবর সর্বোচ্চ সাজাপ্রাপ্ত দুই অভিযুক্ত ইউনুছ আহমেদ ও ওজায়ের আহমেদ চৌধুরীকে রাজনগর থানা পুলিশ আটক করে।
২০১৬ সালের ৮ ডিসেম্বর এ মামলার পাঁচ আসামির বিচার শুরু করেন আদালত।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,আলী হোসেন রাজনঃ মৌলভীবাজারে আলোচনা সভা সহ নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে। ১০ জানুয়ারী বুধবার দুপুরে জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে পৌর জনমিলন কেন্দ্রে জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নেছার আহমদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও গণপরিষদ সদস্য আজিজুর রহমান, হুসনে আরা ওয়াহিদ, আজমল হোসেন ফজলুর রহমান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সভায় আওয়ামীলীগ সহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মিরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া সদর উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগ পৃথক আলোচনা সভা করেছে।

দোয়া মাহফিলের মাধ্যমে ব্যতিক্রমি আনন্দ উৎসব পালন

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,চান মিয়া, ছাতক (সুনামগঞ্জ):ছাতকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের পাঠশালায় এক আনন্দ উৎসব ও দোয়া মাহফিল অনুুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার ৯ডিসেম্বর নিজ বসত বাড়ি ইসলামপুর ইউনিয়নের গনেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিজ পাঠশালার মাঠে এ আনন্দ উৎসবের আয়োজন করা হয়। সাবেক রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ নজিবুর রহমান মানিক সিনিয়র সচিব ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মূখ্য সচিব নিয়োগ পাওয়ায় ইসলামপুর ইউনিয়ন যুব ও সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে এ আনন্দ উৎসব ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ছাতক উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল। সংগঠনের সভাপতি মাওলানা আকিক হোসাইনের সভাপতিত্বে ও শিক সাব্বির আহমদের পরিচালনায় অনুষ্টানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ছাতক পৌরসভা মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, মাধ্যমিক শিা অফিসার পুলিন চন্দ্র রায়, সমবায় অফিসার বিজিত রঞ্জন কর, ছাতক বহুমূখি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক মঈনুল হোসেন চৌধুরী, চন্দ্রনাথ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক রশিদ আহমদ, জেলা পরিষদ সদস্য আজমল হোসেন সজল, ইসলামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক আব্দুল গনি, গনেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক তাজুল ইসলাম।

এছাড়া অনুষ্টানে বিশিষ্ট ব্যবসায়ি হাজি ইছাক আলী, হাজি আফাজ উদ্দিন, ফারুক আহমদ, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আফজাল আবেদিন আবুল, এডভোকেট বদর উদ্দিন, আশিদ আলী, হাজি দুদু মিয়া, হাজি নিজাম উদ্দিন, মাওলানা জহির উদ্দিন, মূখ্য সচিবের ভাই শামসুর রহমান সাদিক, মাওলানা আবুল খয়ের, মুহিবুর রহমান, আবুল কালামসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন, ক্বারী আব্দুল বাক্বী। জাতিয় সংঙ্গীত পরিবেশন করে গনেশপুর ও জামুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিার্থীরা। অনুষ্টানের শেষে প্রধানমন্ত্রী ও নব নির্বাচিত মূখ্য সচিবের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন, গনেশপুর মাদরাসার অধ্য মাওলানা শায়খ আব্দুল হান্নান।

পরে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। দোয়া মাহফিলের মাধ্যমে আয়োজিত এ ব্যতিক্রমি আনন্দ উৎসবে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাইস্কুল, মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রী, ইসলামপুর যুব ও সমাজকল্যাণ সংস্থাসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ব্যক্তিবর্গ ও সমাজের সর্বস্তরের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। সভায় প্রধানমন্ত্রী জননেন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে নজিবুর রহমান মানিককে মূখ্য সচিব নিয়োগ করায় তাকে অভিনন্দন জানান।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের শিবজয়নগর এলাকার একটি ডোবার পানির নিচ থেকে অপহৃত ১ম শ্রেনীর স্কুল ছাত্র শাহ পরান (৭) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে সাতপাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীর ছাত্র ও শিবজয় নগরের মোঃ সাবাস মিয়ার ছেলে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় থানার এস.আই মমিনুল ইসলাম লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরন করেছেন। এবং অপহরনের সাথে জড়িত দু’অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়-৬ জানুয়ারী সন্ধ্যায় সাতপাড়িয়া একটি দোকানের সামনে থেকে উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের শিবজয়নগর গ্রামের মোঃ সাবাস মিয়ার ছেলে মোঃ শাহ পরান (৭) কে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায় একই গ্রামের তাউস মিয়ার ছেলে জালাল মিয়া (২৫) ও তার সহযোগি বড়লেখা উপজেলার চাঁন গ্রাম ওরুপে আকুল নগরের মোহাম্মদ আলীর ছেলে রাশেল মিয়া (২৫) ওরুপে কোপা রাশেল।

সন্ধ্যায় শাহ পরান বাড়ী না ফিরলে তার স্বজনরা তাকে খোজাখুজি শুরু করে এবং রাতে জালাল ও রাশেল মোবাইল ফোনে শাহ পরানের মুক্তির জন্য ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। পরবর্তীতে ৭ জানুয়ারী শাহপরানের পিতা সাবাস মিয়া থানায় একটি জিডি করেন। জিডিতে উল্লেখিত মোবাইল ফোন নাম্বার টেকিং করে থানার এসআই মমিনুল ইসলাম মঙ্গলবার ভোররাতে জালাল মিয়া ও রাশেল মিয়াকে বড়লেখা থেকে গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারকৃতদের দেখানো মতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিবজয়নগর একটি ডোবায় পানির নিচে ঝোপজারের ভেতর থেকে শাহ পরানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ব্যপারে শাহ পরানের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

Amarsylhet24.com,10january,Juman Hussan:Social media is a series of websites and applications designed to allow people to share content quickly, efficiently and in real-time. Most people today define social media as apps on their smartphone or tablet, but the truth is, this communication tool started with computers. This misconception stems from the fact that most social media users access their tools via apps. Using social media is the most common practice of today’s younger generation. The Social Media like Facebook, MySpace, Twitter, and YouTube offer youth a portal for entertainment and communication and have grown exponentially in recent years. However, although social media yield positive impacts upon the younger generation, it also causes negative impacts upon them. Most of Bangladeshi Young generation use social media as a way of time pass and they are badly addicted by it. There are some major concern we have to concentrates for betterment of next generation. I will try pinpointing some major points and solution of it.
Problems
• The vastness of social media ensures that there is no control on the scope of information. Such situations can lead to young generation bumping into obscene, harmful or graphic websites that may affect their thinking process.
• Cyber bullying is another growing trend among social media websites. Cyberbullying can have dangerous and potentially fatal effects. It claims many victims each year.
• Waste of time. We agree that social media is good, but ‘too much of a …’ you know how it goes. Spending too much time can also affect your child negatively and often lead to social media addiction. Addiction can manifest itself as various symptoms and may even affect  physical health.
• Too much social media can affect your child’s ability to develop strong interpersonal relationships. Your child is moldable, and the avalanche of information can overwhelm her.
Solutions:
• Inspired young generation to create book reading habits.
• Teach them social-cultural and religious values.
• Involved them on more outdoor games.
• Arrange various cultural programs and try to involve them.
•   Establish friendly environment with them.

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০জানুয়ারী,এনায়েত হোসেন সোহেল,ফ্রান্স থেকে:বিশ্বনাথ উপজেলা এসোসিয়েশন ফ্রান্সের উদ্যেগে মহান বিজয় দিবস,ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা,উপজেলার সম্মানিত ব্যক্তিদের সম্মাননা প্রদান,বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা ও নতুন কমিঠি ঘোষণা উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে। রোববার বিকেলে প্যারিসের গার দো নর্দের ক্যাফে প্যারিজিয়ান হলে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ফ্রান্সে বসবাসরত বিপুল সংখ্যক বিশ্বনাথ উপজেলার প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠনের সভাপতি কানু মিয়ার সভাপতিত্বে ও আতিকুর রহমান ও সাজ্জাদুর রহমানের যৌথ পরিচালনায় এ সময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মফিজ আলী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,সিরাজুর রহমান,হাজি হাবিব,শাহ জামাল ,সুব্রত ভট্টাচার্য্য শুভ,মাহবুবুর রহমান বকুল,মেহেদী হাসান অলি,আশিক আলী,আনসার আলী, কিরণ আহমদ,কামাল মিয়া।

সাইদুর রহমানের পবিত্র কোরান তেলাওয়াতের মধ্যে দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জৈষ্ঠ সহ সভাপতি মনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,ফারুক মিয়া,খসরু মিয়া,খলিলুর রহমান,ফয়সল আহমদ,রিপন দে,আব্দুল আহাদ,সাজিদুল ইসলাম,শাহ সুমন প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, সিলেটের একটি স্বনামধন্য উপজেলা বিশ্বনাথ উপজেলা। এ উপজেলার রয়েছে অতীত ঐতিহ্য ও গৌরবজ্জ্বল ইতিহাস। বাংলাদেশের উচ্চ পর্যায় থেকে শুরু করে  সকল স্তরে এ উপজেলার কর্তা ব্যক্তিদের পদচারণ সর্বত্র। তাই বিশেষ করে শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতি ও মানবাধিকারের দেশ ফ্রান্সের মাঠিতে এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে।

বিশ্বনাথ উপজেলা এসোসিয়েশন ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিভিন্ন কর্মকান্ডে বিশেষ অবদান রাখায় সংগঠনের উপদেষ্ঠা দেলোয়ার হোসেন কয়েস,মফিজ আলীকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এ সময় সভাপতি কানু মিয়া তাঁর পর্ষদের মেয়াদকাল শেষ হওয়াতে পর্ষদ বিলুপ্ত ঘোষণা দেন। পরে উপদেষ্ঠা মফিজ আলী আগামী তিনমাসের মধ্যে নতুন কমিটি ঘোষণার প্রতিশ্রুতি দেন এবং সংগঠনের আগামী কর্ম পরিকল্পনা নিয়ে বিস্তর আলোচনা করেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc