Monday 23rd of July 2018 11:39:13 AM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারী,চান মিয়া,ছাতক (সুনামগঞ্জ):ছাতকে বাংলাদেশ সহকারি শিক্ষক সমিতি ছাতক উপজেলা শাখার উদ্যোগে সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এনামুর রহিম বাবরকে বিদায় সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। রোববার ৭ডিসেম্বর সকালে শিক্ষক মিলনায়তনে এ বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রনব দাস মিটুর সভাপতি ও শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বিদায় সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল। বিদায়ী অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার এনামুর রহিম বাবর।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (চদা) সোনিয়া সুলতানা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মানিক চন্দ্র দাস, রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাকটর মোস্তফা আহসান হাবিব, সমবায় অফিসার বিজিত রঞ্জন কর, সহকারী শিক্ষা অফিসার মাছুম বিলাহ, আসাদুজ্জামান সরকার, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোনায়েম খান, সহকারী শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় সমাজকল্যান সম্পাদক দুলন তরফদার। বক্তব্য রাখেন, বাগবাড়ী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিত্যরঞ্জন দাস, সহকারী শিক্ষক সমিতির সহ সভাপতি মিতালী ভট্টাচার্য্য, বাসবী চৌধুরী লিলি, অমল রঞ্জন তালুকদার, যুগ্ম সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমাদ উদ্দিন মানিক, দপ্তর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, অর্থ সম্পাদক সাইদুল আলম ডালিম, শিক্ষিকা ফারজানা বেগম প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল বলেন, ছাতকে শিক্ষার ক্রমবর্ধমান উন্নয়নে সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এনামুর রহিম বাবরের অবদান অনস্বিকার্য।

তিনি অধিনস্থদের মন জয় করতে পেরেছেন তার কর্মদতার মাধ্যমে। যোগ্যতা বলেই তিনি পদোন্নতি পেয়ে এখান থেকে বিদায় নিয়ে যাচ্ছেন। সভায় শিক্ষক বঙ্কিম আচার্য্য, চিত্তরঞ্জন দাস, সুলতান মাহমুদ, সঞ্জয় কর, চুনি লাল দাস, রাজিব দাস, নির্মল পুরকায়স্থ, ফয়ছল আহমদ, শাহনাজ বেগম, ফাতেমা বেগম, মদন মোহন ধর, সফিকুল ইসলাম, হায়দর আলী, নজরুল ইসলাম, সুমন মিয়া, সিরাজ উদ্দিন, মিসবাহ বেগম, কলি বেগম, কবির আহমদ, মঈনউদ্দিন, রীতা আচার্য্য, আব্দুল মতিন, অধির চন্দ্র দাস, আক্তার হোসেন, আশিষ দাসসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষিকাগন উপস্থিত ছিলেন। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন শিক্ষক মাওলানা নুরুল আলম শাহনুর ও গীতা পাঠ করেন প্রনব চক্রবর্ত্তী।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারী,চান মিয়া,ছাতকঃ   ছাতকস্থ লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট লিমিটেডে পরিবহন শ্রমিকদের চাকুরি পূনর্বহাল ও বকেয়া বেতন ভাতা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গত ২০১৭সালের ২৮ডিসেম্বর চট্টগ্রাম শ্রম আদালত এ রায় প্রদান করেন। জানা যায়, লাফার্জের পরিবহন শ্রমিকদের চাকুরি স্থায়ি করার দাবিতে ২০১৩সালের ৯ডিসেম্বর চট্টগ্রাম ২য় শ্রম আদালতে আইআর মামলা নং ৩০থেকে ৫২/২০১৩ইং মোট ২৩টি মামলা দায়ের করেন। এতে লাফার্জ কর্তৃপ মামলার জবাব না দিয়েই সিভিল প্রসেডিওর কোর্টের অর্ডার নং ৭, রোল- ১১তে মামলা খারিজের আবেদন করেন। পরে মামলার শুনানী শেষে আদালত ২০১৪সালের ১০মার্চ তাদের আবদন নামঞ্জুর করেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে ঢাকা শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনালে লাফার্জ কর্তৃপ আপীল মামলা নং- ৭২ থেকে ৯৪/২০১৪ পর্যন্ত দায়ের করেন।

এতে শ্রমিকদের চাকুরি স্থায়িকরণের বিষয়ে হয়রানীমুলক জটিলতা সৃষ্টি হয়। আপীল চলাকালে মাননিয় আপীল ট্রাইব্যুনাল ২০১৪সালের ১০এপ্রিল শ্রমিকদের বেতন ভাতাসহ যাবতিয় সুবিধা আপীল নিষ্পত্তি পর্যন্ত বহাল রাখার নির্দেশ দিলেও কোম্পানী কর্তৃপ তা- না দিয়ে আবারো ঢাকায় মাননীয় হাইকোর্ট আদালতে একটি রিট মামলা নং ৩৫৩৯/২০১৪ দায়ের করেন। এদিকে আপীল ট্রাইব্যুনালে আপীল শুনানী শেষে ২০১৪সালের ৮সেপ্টেম্বর নি¤œ আদালতের রায় বহাল রাখেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে কোম্পানী কর্তৃপক্ষ মাননীয় হাইকোর্ট বিভাগে আরেকটি রিট মামলা নং ৮৬৭২ থেকে ৪৬৯৪/২০১৪ পর্যন্ত দায়ের করেন। দীর্ঘদিন থেকে শ্রমিকদের এহয়রানীতে আইনী মোকাবেলা করে ২০১৭সালের ৩০মার্চ মাননিয় হাইকোর্ট লাফার্জের দায়েরি রুল ডিসচার্জ করে দেন। এতে চাকুরি স্থায়ীর মামলা দ্রুত নিষপত্তির জন্য চট্টগ্রাম শ্রম আদালতকে নির্দেশ দেন মাননিয় হাইকের্ট।

এদিকে শ্রমিকদের বেতন ভাতার বিরুদ্ধে কোম্পানীর করা রিট মামলা নং ৩৫৩৯/২০১৪ লাফার্জ কর্তৃপ সেচ্ছায় সারেন্ডার করে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেন। এতে শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনালের দেয়া বেতন ভাতার আদেশ বহাল থেকে যায়। কিন্তু শ্রমিকরা বেতন-ভাতা পায়নি। ফলে ২০১৭সালের ২৮আগষ্ট লাফার্জের পরিবহন শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির সভাপতি খালেদ মিয়া বাদী হয়ে ঢাকা শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনালে লাফার্জে বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার কন্ডেম্প মামলা নং ০৪/২০১৭ দায়ের করেন। যাহা এখন বিচারাধিন রয়েছে।

এদিকে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী শ্রম আদালতে বেতন ভাতাসহ চাকুরিতে পূনর্বহালের জন্য আবেদন জানায় শ্রমিকরা। এতে শুনানী শেষে শ্রম আদালতের চেয়ারম্যন ও সিনিয়র জেলাও দায়রা জজ মুক্তার হোসেন ২০১৭সালের ৩১ডিসেম্বর শ্রমিকদের যাবতীয় বকেয়া পরিশোধসহ চাকুরীতে যোগদানের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। শ্রমিক নেতা খালেদ মিয়া জানান, কোম্পানী কর্তৃপ শ্রমিক হয়রানীর সব ধরনের কৌশল অবলম্বন করে যাচ্ছেন। তারা আদালত অবমানাসহ শ্রমিকদের ঘামের বিনিময় দিতে টালবাহানা করে যাচ্ছে। তাই শ্রমিকরা খুবই কষ্টে জীবন-যাপন করছে।

তবুও আইনী লড়াই করে অধিকার আদায়ের আনন্দে লড়াইয়ে কখনও পিছপা হননি বলে জানান। এরসাথে আাদলতের প্রতি সম্মান ও আদালতের নির্দেশ পালনের জন্যে অনুরুধ জানান খালেদ মিয়াসহ পরিবহন নেতৃবৃন্দ।  অন্যথায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সহযোগিতায় কঠোর আন্দোলন-সংগ্রামের হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

 

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারী,কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:কমলগঞ্জ উপজেলা দরিদ্র শীতার্থদের মধ্যে গভীর রাতে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক শনিবার দিবাগত রাতে ভাসমানদের মাঝে শীতবস্ত্র হিসেবে কম্বল বিতরন করেন। রাত সাড়ে ১১ টা থেকে সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত উপজেলার ভানুগাছ ও শমশেরনগর রেলস্টেশনে উপস্থিত হয়ে ভাসমান ও হতদরিদ্র ৮০ জন লোকের মাঝে এসব কম্বল বিতরণ করা হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোক্তাদির হোসেন, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী পনিরুজ্জামান, জাইকার ফ্যাসিলিটেটর সাজেদুর রহমান, সাংবাদিক শাহীন আহমেদ। নির্বাহী কর্মকর্তা স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমিয়ে পড়া লোকজনকে ডেকে তুলে নিজ হাতে গায়ে কম্বল পরিয়ে দেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, এখানে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্টি চা শ্রমিক ও শব্দকর সম্প্রদায় সহ শীতার্থ লোক রয়েছেন। তাই প্রথম দিনের মতো দু’টি রেল ষ্টেশনে ৮০ জনকে এবং পরবর্তীতে শব্দকর ও চা শ্রমিক জনগোষ্টির মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারীঃসিলেট অনলাইনে প্রেসক্লাবের ২০১৮ সালের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের বাছাইয়ে দুই প্রার্থীর প্রার্থীতা বাতিলের পর নির্বাচনী আপিল বোর্ডের কাছে আবেদনের প্রেক্ষিতে আপিল বোর্ড দুই প্রার্থীর প্রার্থীতা বহাল রেখছেন। তারা হলেন- সদস্য পদপ্রার্থী ফারহানা বেগম হেনা ও মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী।

রোববার সন্ধ্যায় আপিল বোর্ডের সভায় শুনানী শেষে এই সিদ্ধান্ত দেন আপিল বোর্ডের প্রধান ও সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের জীবন সদস্য মখলিছুর রহমান কামরান। এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় আপিল বোর্ডের কাছে আপিল আবেদন করেন দুই প্রার্থী।

আপিল বোর্ডের অন্য দুই সদস্য হলেন- সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের জীবন সদস্য ডা. মোস্তফা শাহজামান চৌধুরী বাহার ও মোঃ মুহিবুর রহমান।

এদিকে, রোববার সন্ধ্যায় চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে সিলেট অনলাইনে প্রেসক্লাবের নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনের চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা-

সভাপতি : মুহিত চৌধুরী (বর্তমান সভাপতি)।
সহ-সভাপতি : গোলজার আহমদ হেলাল (বর্তমান সহ সভাপতি)।
সাধারণ সম্পাদক : মকসুদ আহমদ মকসুদ (বর্তমান সাধারণ সম্পাদক)।
সহ-সাধারণ সম্পাদক : এম. সাইফুর রহমান তালুকদার (বর্তমান সহ সাধারণ সম্পাদক) ও তাওহীদুল ইসলাম।
কোষাধ্যক্ষ : মেহেদী কাবুল (বর্তমান কোষাধ্যক্ষ)।
তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক : খন্দকার আব্দুর রহিম (বর্তমান তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক)।
ক্রীড়া ও সাস্কৃতিক সম্পাদক : আব্দুল মুহিত দিদার (বর্তমান কার্যকরি পরিষদ সদস্য)।
সদস্য : ফারহানা বেগম হেনা (বর্তমান কার্যকরি পরিষদ সদস্য), মাসুদ আহমদ রনি, কামরুল আলম, মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী ও জাবেদ আহমদ।

এসময় সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের প্রধান নির্বাচন কমিশনার মোঃ ইরফানুজ্জামান চৌধুরী, নির্বাচন কমিশনার আফতাব চৌধুরী ও সালাহ উদ্দিন আলী আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারী,কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:কমলগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাঘমারা গ্রামে ওয়ারেন্টভুক্ত এক আসামীকে ধরার পর রাতে আসামীর স্বজনরা পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে আসামী ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।শনিবার রাত ২টায় আসামী পক্ষের হামলায় এক এসআই, দুই এএসআই ও এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ সময়ে পুলিশ ২ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছুড়েছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্চে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাঘমারা গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে আব্দুল মতলিব (৩৮) এর উপর বন আইনে ৮টি মামলা রয়েছে। প্রতিটি মামলায় সে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী। ওয়ারেন্টভূক্ত এই আসামীকে গ্রেফতার করতে শনিবার রাত ২টায় কমলগঞ্জ থানার এসআই চম্পক ধাম, এএসআই আব্দুল হামিদ, এএসআই মহসীন সহ পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে আসামী মতলিবকে আটক করে। এসময় মতলিবের হাল্লা চিৎকারে তার স্বজনরা এসে পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে ধৃত আসামী মতলিবকে ছিনিয়ে নেয়। হামলায় এসআই চম্পক ধাম, এএসআই আব্দুল হামিদ, এএসআই সুশেন ও রিজার্ভ পুলিশ সদস্য দীপেন্দ্র দাশ আহত হন। এসময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। রাতেই আহত এক এসআই, ২ এএসআই ও এক সদস্যকে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।
কমলগঞ্জ থানার ওসি মোক্তাদির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি আসামী মতলিবসহ হামলাকারী আসামীদের গ্রেফতারে জোর অভিযান চালানো হবে।

 

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারী,এস,এম,সুলতান খানঃ   চুনারুঘাট উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে একটি ব্রীজের অভাবে হাজার হাজার মানুষের কষ্টের অন্ত ছিল না। তবুও দীর্ঘদিন ধরে কেউ সেখানে একটি ব্রীজ নির্মাণে সঠিক কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় সাধারণের দূর্ভোগ দিনকে দিন বেড়েই চলছিল। সাধারণ মানুষের ভোগান্তি দূর করতে উপজেলার সুলতানপুর গ্রামে পাহাড়ি ছড়ার উপর স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে একটি কাঠের ব্রিজ নিমার্ণ করা হয়েছে।

শনিবার দিনব্যাপী স্থানীয় লোকজনদের নিয়ে নিজ উদ্যোগ, শ্রম ও অর্থায়নে ব্রিজটি একদিনের মধ্যেই নির্মাণ করে দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ও হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের নির্বাহী সদস্য ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার সুলতানপুর গ্রামে ছড়ার পানিতে ভিজে স্থানীয় চা-শ্রমিকসহ প্রতিদিন প্রায় ৮/১০টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ পারাপার হয়। এছাড়াও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ছড়ার পানিতে ভিজে পারাপার হয়। শিক্ষার্থীরা স্কুল-কলেজে যাতায়াত করতে বাড়তি দূর্ভোগ পোহাতে হয়। রাজনৈতিক নেতারা নির্বাচন আসলেই ব্রিজ করে দিবেন বলে আশ্বাস দিলেও তা রয়ে যায় আশার বানী হয়ে। জনসাধারণের ভোগান্তি দূর করতে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের নিঃস্বার্থ উদ্যোগ স্থানীয়দের স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে ভূমিকা নিয়েছে।

ব্রিজ নির্মাণ করার পর চলাচলে সুবিধে হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। চা-বাগান অধ্যূষিত এলাকার মানুষের পারাপারে ছড়াটির উপর দীর্ঘ দিন যাবত ব্রিজ না থাকায় লোকজন সীমাশূণ্য কষ্টে দিন-যাপন করছিল। ব্রীজ নির্মাণ হওয়ায় স্থানীয় জনতাসহ চা-বাগানের বসবাসরত শ্রমিকদের মাঝে ব্যাপক আনন্দ-উদ্দীপনা দেখা গেছে। ব্রিজ নির্মাণকাজে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম চৌধুরী এখলাছ, সমাজসেবক সাইফুল ইসলাম চৌধুরী লিটন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহিন আহমেদ, চুনারুঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ন-আহক্ষায়ক সোহাগ মিয়া, পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি স¤্রাট মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য জুনাইদ মিয়াসহ নেতাকর্মীরা।

এ ব্যাপারে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, এই দেশ আমাদের বাংলাদেশ। এই দেশের মানুষের কষ্ট আমাদের সবার কষ্ট। তাই আমি মনে করি এই কষ্ট আমাদেরই লাগব করতে হবে। আমরা যারা সফল ব্যক্তি আছি তারা যদি ইচ্ছা করি, তবে জন্মস্থানকে অনেক এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো। সেচ্ছাশ্রমই কষ্ট দূর করার একমাত্র উপায়। উল্লেখ্য যে, তিনি ইতোমধ্যে উপজেলার ২৫টি ঝুঁকিপূর্ণ রাস্তা সংস্কার কাজ ও তিনটি কাঠের ব্রিজ নির্মাণ সম্পন্ন করে দিয়েছেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জানুয়ারীঃ   বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদীদল বিএনপি বিশ্বনাথ উপজেলার ৩নং অলংকারী ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সদস্য আহমদ মিয়াকে মিথ্যা মামলায় আসামী করা হয়।আহমদ মিয়ার বিরুদ্ধে হয়রানির উদ্দেশ্যে দায়েরকৃত মামলাটি প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন ৩নং অলংকারী ইউনিয়ন বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন,হামলা মামলা করে বিএনপিকে মাঠ ছাড়া করা যাবেনা।৩নং অলংকারী ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সদস্য আহমদ মিয়ার উপর থেকে সকল মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক সকল মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।
আহমদ মিয়ার উপর দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপি নেতা আব্দুর হাসিম,হাজী আব্দুল কুদ্দুছ, সোনা মিয়া, নিহারজিত চন্দ্র দাস, ইসলাম উদ্দিন, বিশ্বনাথ উপজেলা যুবদল নেতা নেতা ইলিয়াস মিয়া, শাওন আহমদ, মিজান মিয়া,খালেদ মিয়া,গোফরান আহমদ,ছাত্রদল নেতা রাসেল আহমদ,সালমান আহমদ, পাভেল আহমদ,জাবেদ আহমদ প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি