Thursday 17th of August 2017 09:22:56 PM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,মিজানুর রহমান সৌদি আরব থেকেঃ বাহরাইনের রাজধানী মানামায় বৈঠকে সৌদি আরব, বাহরাইন, মিসর ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সাফ জানিয়েছেন,

অবরোধ ঠেকাতে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন মধ্যপ্রাচ্যের চারটি দেশ কাতারকে যে ১৩ দফা বাস্তবায়নের শর্ত দিয়েছিল, তাতে কোনো ধরনের ছাড় দেওয়া হবে না।  স্বতঃস্ফূর্তভাবে শর্ত মানলেই কেবল কাতারের সঙ্গে  আলোচনায় বসতে রাজি আছে সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর।
স্থানীয় সময় রোববার বাহরাইনের রাজধানী মানামায় চার দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকের পর এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।
চলতি বছরের ৫ জুন সন্ত্রাসবাদ ও উগ্রবাদে মদদ দেওয়ার অভিযোগ এনে কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করে সৌদি নেতৃত্বাধীন চারটি দেশ। তবে কাতার তাদের অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে।
এর পর গত ২৩ জুন কাতারকে ১৩টি শর্ত দেওয়া হয়। এগুলোর মধ্যে আলজাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা, তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি প্রত্যাহার, মুসলিম ব্রাদারহুড ও ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা ইত্যাদি রয়েছে। কাতার এসব দাবি মানতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।
মানামায় বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে কাতার তাদের দাবিকে অগ্রাহ্য করছে জানিয়ে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবায়ের বলেন, ‘কাতার দাবি মেনে নিলে আমরা তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত, যদি কাতার এ বিষয়ে আগ্রহী হয়। তবে এখন পর্যন্ত এটা পরিষ্কার যে কাতার আমাদের দাবির ব্যাপারে একেবারেই উদাসীন। কিন্তু শর্তের ব্যাপারে কোনো সমঝোতা নয়, এ বিষয়ে আমরা তাদের একটুও ছাড় দেবো না।’
একই সংবাদ সম্মেলনে বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালিদ বিন আহমেদ আল-খালিফা বলেন, ‘কাতার আমাদের দেওয়া ১৩টি শর্তে মানতে রাজি থাকলে আমরা চারটি দেশ তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত। তবে তাদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে ঘোষণা করতে হবে যে তারা আর সন্ত্রাসবাদ ও উগ্রবাদে অর্থায়ন করবে না। অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করার প্রতিজ্ঞাও করতে হবে তাদের।’
এর আগে কাতার সংকট নিরসনে কুয়েত ও পশ্চিমা বিশ্বের মধ্যস্থতা কোনো কাজে আসেনি।
তবে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুলরাহমান আল-থানি সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন চার দেশের বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, ‘এই নিষেধাজ্ঞা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। তাদের উদ্দেশ্য পরিষ্কার নয় (মানামা বৈঠক প্রসঙ্গে)। তারা কেবল একগুঁয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে আসছে। তাদের এ সিদ্ধান্ত যে অবৈধ, তারা এটাও স্বীকার করছে না।’
বৈঠকে কাতারের বিরুদ্ধে নতুন করে আর কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়নি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,জহিরুল ইসলামঃ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় একটি পাইপগান ও এক রাউন্ড গুলিসহ ছিনতাইকারীর অভিযোগে পলাতক আসামী  আল আমীন (২৭) কে আটক করেছে কুলাউড়া থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুলাউড়া উপজেলার মাগুরা গ্রামস্থ রহিমা বেগমের ভাড়াটিয়া বাসা হতে অস্ত্রসহ আটক করে পুলিশ। সে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার ইটাখলা গ্রামের মৃত সিদ্দীক মিয়ার ছেলে।

আটক আল আমীন কুলাউড়া থানায় এজাহারনামীয় পলাতক আসামি।  এডিশনাল এসপি (কুলাউড়া সার্কেল) মো: আবু ইউসুফ আটকের এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,আশরাফ আলী,মৌলভীবাজার:মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের প্রাক্তন মেধাবী ছাত্রী জয়শ্রী রায় তিথিকে তার স্বামী আগারগাঁও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সরকারি কর্মচারী ১০ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করে নির্যাতনে আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারী রাজেশ রায়সহ জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবিতে মৌলভীবাজারে মানববন্ধন করেছে সরকারি কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।
বুধবার  দেড়টায় সরকারি কলেজের প্রশাসনিক ভবনের সামনে জড়ো হয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিরাট মানববন্ধনে অংশ নেয়। মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো: রফির সভাপতিত্বে ও ছাত্র ইউনিয়ন কলেজ সভাপতি সুবিনয় রায় শুভ এর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ ড. ফজলুল আলী, ছাত্র ইউনিয়নের জেলা শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক পিনাক রঞ্জন দেব, মৌসুমী দাস, সাকিব আহমদ প্রমুখ।
পরে মানববন্ধনটি র‌্যালী আকারে মিছিলসহ প্রেসক্লাব সম্মুখে এসে অবস্থান করে শেষ হয়।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,জহিরুল ইসলামঃ  মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভূনবীর ইউনিয়নের ভীমসী গ্রামের গ্রামীনফোন টাওয়ার সংলগ্ন রাস্তা থেকে ২৬ লিটার চোরাই মদ সহ কানু দাস নামে একজনকে আটক করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮ টায় শ্রীমঙ্গল থানার এস আই হাফিজুর রহমান ও সংগীয় ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভূনবীর ইউনিয়নের ভীমসী গ্রামের গ্রামীনফোন টাওয়ার সংলগ্ন রাস্তা থেকে গরুর ঘাস নিয়ে যাওয়ার অভিনয় করে ২৬ লিটার চোরাই মদ নিয়ে যাওয়ার সময় শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভীমসী গ্রামের মৃত নরেশ দাশ এর ছেলে কানু দাশ কে পুলিশ আটক করে।

শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ইসলাম জানান, কানু দাসের নামে মাদক চোরা চালানের মামলা করা হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মাদক বিরোধী অভিযানের সময় এক মাদক ব্যবসায়ীর হাতে চুনারুঘাট থানার এএসআই দেলোয়ার হোসেন ছুরিকাঘাতে গুরুত আহত হয়েছেন। তাকে প্রথমে চুনারুঘাট হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে গুরুতর অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। তার অবস্থার অবনতি ঘটলে জরুরী ভাবে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ৮টায় পৌর শহরের চন্দনা গ্রামে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুনারুঘাট থানার এএসআই দেলোয়ার হোসেন ও এএসআই সাজিদ মিয়ার নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময় চুনারুঘাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ইউনূছ মিয়াসহ একদল মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের উপর হামলা চালায়। হামলায় দেলোয়ার ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়।

এ ঘটনার পর চুনারুঘাটে পুলিশি তৎপড়তা জোরদার করা হয়েছে। পৌর শহরে থমথম অবস্থা বিরাজ করছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়নি। রাত সাড়ে ১০টায় এ.এস.পি রাজু আহমেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

চুনারুঘাট থানার ওসি কে.এম আজমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন এবং মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ মঙ্গলবার (১ আগস্ট) থেকে সপ্তাহে দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলে সাতদিনই ২৪ ঘণ্টা বাণিজ্যিক কার্যক্রম চালু থাকবে। বন্দরের কার্যক্রম চালাতে কাস্টমসও খোলা রাখা হবে সপ্তাহ জুড়ে পুরো সময়।

বাংলাদেশ-ভারত বাণিজ্যে গতিশীলতা আনতে দু’দেশই একই ব্যবস্থা নিয়েছে। বন্দর ও কাস্টমস সবদিন খোলা রাখতে ইতিমধ্যে বাড়ানো হয়েছে শুল্ক বিভাগের জনবল।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন এ কর্যক্রম উদ্বোধন করার কথা ছিল। তবে আপাতত কার্যক্রম চালু রেখে পরবর্তী যে কোনো দিন তা আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

এই কর্মকান্ড যাতে সুষ্ঠুভাবে চলে সে জন্য জেলা প্রশাসন, বন্দর কর্তৃপক্ষ, কাস্টমস ও বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। এর আগে গত ২৩ জুলাই সচিবালয়ে এক আন্ত-মন্ত্রণালয় সভা শেষে নৌ-মন্ত্রী শাজাহান খান আমদানি-রপ্তানির সুবিধার্থে বেনাপোল বন্দর-কাস্টমস ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানান।

বিপুল পণ্য আমদানি-রপ্তানি হওয়ায় ভারতের পেট্রাপোল এবং বাংলাদেশের বেনাপোল বন্দরে ভয়াবহ পণ্য ও যানজট লেগেই থাকে। এ পণ্য ও যানজটের কারণে ভারত এবং বাংলাদেশের উভয় পাশে ব্যবসায়ীরা দ্রুত মালামাল খালাস নিতে পারেন না। দীর্ঘ সময় লাগে মালামাল খালাস করতে। বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার জন্য ইতিমধ্যে বন্দর এবং কাস্টমসের সঙ্গে প্রশাসনের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের  যে  বৈঠক এবং মতবিনিময় সভা হয়েছে তাতে উঠে আসে বন্দরের সার্বিক অব্যবস্থাপনার কথা।

এর ভারত সরকার বেনাপোলের বিপরীতে পেট্রাপোল স্থলবন্দরে ৩০০ বিঘা জমির ওপরে যে নতুন ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট উদ্বোধন করেছিলেন, তা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেছিলেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। সে সময় বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরির উপর গুরুত্ব আরোপ করেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ ও ভারতের স্থলবাণিজ্যের প্রায় ৯০ শতাংশ বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে হয়ে থাকে। এই বন্দর দিয়ে বছরে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার পণ্য আমদানি-রপ্তানি হয়। বেনাপোল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে বছরে যাতায়াত করেন প্রায় ১৩ লাখ যাত্রী।

বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট এবং আমদানি-রপ্তানিকারকরা বলছেন, ২৪ ঘণ্টা বন্দর-কাস্টমস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত ইতিবাচক। সে ক্ষেত্রে প্রতিদিন ভারত থেকে ৮০০ থেকে এক হাজার পণ্যবাহী ট্রাক বেনাপোল বন্দরে ঢুকতে হবে। কিন্তু বেনাপোল বন্দরে অবকাঠামোগত উন্নয়ন না করায় এবং বন্দরের অভ্যন্তরে তিল ধারনের জায়গা না থাকায় পরিস্থিতি কীভাবে মোকাবেলা করা হবে, তা চিন্তার বিষয়। সে ক্ষেত্রে অনতিবিলম্বে বেনাপোল বন্দরের নিজস্ব ট্রাকটারমিনাল, আমদানিকৃত বিভিন্ন কোম্পানির নতুন গাড়ি রাখার জন্য অন্তত ২০০ একর জমির ওপরে ওপেন ইয়ার্ড, ভারি মালামাল, মেশিনারি বা অন্যান্য পণ্যের ক্ষেত্রে নতুন নতুন ইয়ার্ড এবং শেড প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে কমপক্ষে ৫০ একর জমির প্রয়োজন। ভারতীয় ট্রারমিনাল থেকে আমড়াখালী পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার বাইপাস সড়ক জরুরি ভিত্তিতে নির্মাণ প্রয়োজন। বেনাপোল বন্দরের প্রশাসনিক কার্যালয় না থাকায় বহুতল বিশিষ্ট একটি নতুন ভবন নির্মাণ জরুরি।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান স্বজন বন্দরে স্থান সংকট নিরসনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘বন্দরের ধারণ  ক্ষমতা ২০ থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন। কিন্তু  মালামাল রয়েছে  দুই লাখ মেট্রিক টন। যত্রতত্র খোলা আকাশের নিচে পড়ে থেকে রোদ-বৃষ্টিতে নষ্ট হচ্ছে আমদানিকৃত মালামাল। ক্রেন, ফর্কলিফট নষ্ট থাকায় পণ্য লোড-আনলোডে সমস্যা হচ্ছে।’ তিনি বন্দরের এসব অব্যবস্থাপনা দূর করার জোর দাবি জানান।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার মো: শওকাত হোসেন বলেন, ‘২৪ ঘণ্টা কাস্টমস ও বন্দর খুলে রেখে কাজ করার সরকারি নির্দেশ মোতাবেক প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় কর্তৃপক্ষও একইভাবে কাজ করবেন বলে আমাদের জানিয়েছেন। আশা করছি এর সুফল আমদানি-রপ্তানিকারকরা পাবেন। পাশাপাশি পণ্যজটও কমে আসবে।’

“স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে শশুর বাড়িতে স্ত্রীর উপর হামলা”

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে যৌতুকের দাবীতে এক গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গৃহবধূ রোকিয়া বেগম বাদী হয়ে স্বামী কাছন মিয়াকে একক আসামী করে গত রবিবার সকালে হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেন।

আদালতে মামলা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকালে রোকিয়া বেগমের পিতার বাড়িতে গিয়ে প্রকাশ্যে হামলা চালায় কাছন মিয়া। যা বাড়িতে লাগানো সিসি ক্যামেরার ফুটেজে ধরা পড়ে। এসময় তার খুঠিঁর জোর নিয়েও প্রত্যক্ষদর্শী অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। এমনকি সে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা সেবন ও রমরমা ব্যবসা করে আসছে বলেও মামলায় উল্লেখ করেছে তার স্ত্রী।

গৃহবধূ রোকিয়া বেগম উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রামের ধন মিয়ার মেয়ে। মামলার আসামী রোকিয়ার স্বামী কাছন মিয়াও একই গ্রামের মৃত আতিক উল্লার ছেলে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১৬/১৭ বছর পূর্বে রোকিয়ার সাথে কাছন মিয়ার বিয়ে হয়। বর্তমানে তাদের ঔরষজাত ৪ সন্তান রয়েছে। বিয়ের কয়েক বছর পর থেকেই কাছন মিয়া মাদকের নেশায় ঝুকে পড়ে। প্রতিনিয়তই নেশা করে রাতে বাড়িতে গিয়ে কারণে অকারণে স্ত্রীকে মারধর করে। যৌতুকের দাবীতে রোকিয়া বেগমকে একাধীকবার মারপিটের ঘটনা সামাজিকভাবে সমাধান হয়। যা এলাকাবাসী ও সালিশ বিচারকগন জানান।

গৃহবধূ রোকিয়া জানান, একাধীকবার নির্যাতনের শিকার হয়েও ৪ সন্তানের সুখের কথা চিন্তা করে তিনি আমেরিকা প্রবাসী ভাইয়ের নিকট থেকে দুই কিস্তিতে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা এনে দেন। এর কিছু দিন পর থেকে আবারো মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত পা বেধে বেধড়ক মারপিট করে। শরীরের এমন স্থানে আঘাত করে যার চিহ্ন কাউতে দেখানোর মতোও নয়। বেশ কিছুদিন পূর্বেও তাকে মারপিট করে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেয়। পরে বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ এলাকার মুরুব্বিয়ান আপোষে মিমাংসা সমাধান করে দেন। এসময়ও আসামী কাছন মিয়া তার স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য মারপিট করবেননা মর্মে মৌখিক ভাবে অঙ্গীকার করেন। এদিকে গত কয়েক দিন ধরে আবারোও রোকিয়ার আমেরিকা

প্রবাসী ভাইয়ের কাছ থেকে ৫ লক্ষ টাকা এনে দেয়ার জন্য রোহার পাইপ দিয়ে মারপিট করলে দু হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জকমপ্রাপ্ত হয়।  এ ঘটনায় রোকিয়া বেগম বাদী হয়ে স্বামী কাছন মিয়াকে একক আসামী করে গত রবিবার হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেন। মোবাইল ফোনে ধারণ করা চিত্র গুলোই প্রমান করে স্ত্রী কতটা অমানুষিক নির্যাতন করে কাছন। এদিকে আদালতে মামলা করেও যেন বিপাকে পড়েছে অসহায় পরিবারটি। রোকিয়ার পিতা ধন মিয়া মহুরী এলাকার একজন বিশিষ্ট মুরুব্বি, তিনি অসুস্থ অবস্থায় ঘর থেকে বের হতে পারেননা। এ অবস্থায় এলাকার ত্রাস হিসেবে পরিচিত কাছন মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য বাদী পক্ষকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি প্রদান করছে।

এমনকি গতকাল মঙ্গলবার সকালে রোকিয়া বেগমের পিতার বাড়িতে গিয়ে প্রকাশ্যে হামলা চালায় কাছন মিয়া। রোকিয়াকে লক্ষ করে ইট নিক্ষেপ করার দৃশ্য ধরা পড়ে সিসি ক্যামেরায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ‘‘আমরা রাস্তা দিয়ে হেটে যাচ্ছিলাম, হঠাৎ দেখি কাছন মিয়া হাতে একটি ইট নিয়ে দৌড়ে গিয়ে ধন মিয়ার বাড়িতে নিক্ষেপ করেন।” এ সময় ধন মিয়ার পরিবারের লোকজনসহ আশপাশের মানুষের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। ভয়ে মুখ খুলে কথা বলার সাহস পায়নি কেউ। এঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। ৪ সন্তানও কাছন মিয়ার কাছে রয়েছে বর্তমানে। এ ব্যাপারে আসামী কাছন মিয়ার সাথে অনেক চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২আগস্ট,জহিরুল ইসলাম: শ্রীমঙ্গল সিন্দুরখান ইউনিয়নের সাইটুলা বস্তির তিন সন্তানের জননী স্বপ্না আক্তার (২৮) নামে ১ গৃহবধূর রহস্যজনক খুন হয়েছে।
এ ঘটনায় স্বামী গফুর মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শ্রীমঙ্গল থানায় নিয়ে গিয়েছে পুলিশ।
এলাকাবাসীসুত্রে জানা যায়, ০১ আগষ্ট মঙ্গলবার দিবাগত রাত  প্রায় ২টার দিকে গফুর মিয়ার চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন তার বাড়িতে, সেখানে ঘরের ভিতর স্বপ্না আক্তারের মৃত দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়।
স্বপ্না আক্তারের স্বামী গফুর মিয়া জানায়, তাদের ২ রুমের বাসায় স্বামী-স্ত্রী আলাদা ঘুমাতেন। রাতে বাথরুমে যাওয়ার জন্য বের হলে তিনি তার স্ত্রীর রুমে স্ত্রীকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন। সে জানায় কেউ তার স্ত্রী কে বাহিরে খুন করে ঘরের ভিতর ফেলে গেছে।
নিহত স্বপ্না আক্তারের বড় বোন আফিয়া বেগম জানান, তার বোন যে বাড়িতে থাকে সেই জমির মালিক তার বোন স্বপ্না আক্তার। স্বামী গফুর মিয়া সেই জমিটি বিক্রি করার জন্য কয়েকবছর ধরে উঠে পড়ে লেগেছিল। স্ত্রী রাজি না হওয়ায় প্রায়ই মারধর করতো। একবার তাদের ছাড়াছাড়িও হয়ে গিয়েছিল।
এদিকে স্বপ্না আক্তারের মেয়ে ইমা আক্তার (১২) জানায়, কয়েক মাস আগে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে সে দেখে তার মায়ের হাত ভাঙ্গা। তার বাবাই তার মার হাত ভেঙ্গে ছিল।
এব্যাপারে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের স্বামী গফুর মিয়াকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।