Saturday 25th of November 2017 04:22:12 AM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ বেনাপোল বন্দরে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে পরিবহন শ্রমিক সংগঠনগুলো। প্রশাসন ও মেয়র সমর্থিত আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনার পর শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ধর্মঘট প্রত্যাহার করে তারা। পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করায় যান চলাচল হয়েছে স্বাভাবিক।
বেনাপোলে ছাত্রলীগের হামলায় গ্রিনলাইন পরিবহনের কাউন্টার ভাঙচুর ও ৪জন পরিবহন শ্রমিককে পিটিয়ে আহত করার ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার সকাল ৭টা থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটে ডাক দেয় শ্রমিক সংগঠনগুলো। সকালের দিকে বেনাপোলের প্রধান সড়কের ওপর গাড়ি আড় করে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেন বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। ফলে বেনাপোল বন্দরে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ভারত ফেরত শত শত পাসপোর্ট যাত্রী আটকা পড়েন বেনাপোল চেকপোস্টে। পরিবহন শ্রমিকরা ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভও করেন।
বেনাপোল সোহাগ পরিবহনের ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম জানান, বেলা ১১টার দিকে বেনাপোলের সকল পরিবহনের ম্যানেজার, পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, পৌরসভার মেয়র সমর্থিত আওয়ামী লীগের নেতারা ও পোর্ট থানার কর্মকর্তারা বৈঠকে বসেন। সেখানে দীর্ঘ আলোচনার পর ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা মুচলেকা দিয়ে এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতে এ রকম কোনো ঘটনা ঘটাবেন না বলে অঙ্গীকার করেন। এরপর ধর্মঘট প্রত্যাহার করে শ্রমিক সংগঠনগুলো।
বেনাপোল পোর্ট থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শামিম আহম্মেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, উভয় পক্ষের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনার পর বিষয়টি সুরাহা হয়েছে। পরিবহন শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ায় তারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন। এরপর বেনাপোলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় এখন নিত্য প্রতিদিনের সঙ্গী যানজট দূর্ভোগ। প্রতিদিনই ঘন্টার পর ঘন্টা যানজট লেগেই থেকে পৌরশহরের মধ্য বাজারে। উপজেলা প্রশাসনের যতা সামান্য উদ্যোগ নেওয়া হলেও সঠিক পদক্ষেপ না নেওয়ায় যানজট দূর্ভোগ বেরেই চলছে। এ যেন ঢাকা শহরের মত যানজট লেগে থেকে। কিন্তু ট্রাফিক পুলিশের কোন ব্যবস্থা নেই।
এদিকে ভুক্তভূগী মানুষেরা জানিয়েছেন, চুনারুঘাট পৌরশহরে বিভিন্ন রাস্তার পয়েন্টে ট্রাফিক পুলিশের ব্যবস্থা থাকলে যানজট অনেকটাই কমে আসতো। বিশেষ করে সড়কে অতিরিক্ত যানবাহন চলাচল।
যানজটের প্রধান কারণ হচ্ছে,  এলোপাতাড়ি সিএনজি, অটোরিক্সা টমটম, মেক্সী, বড় ট্রাক, বালু বোজাই ট্রাক্টর, ও এলোপাতারী মটর চালিত রিক্সা সহ বেপরোয়া মটর সাইকেল
চলাচলের কারণেই তীব্র যানজট সৃষ্টি।
যানজটের আরেকটি কারণ রয়েছে, যেমন এলোপাতাড়ি সিএনজি, অটোরিক্সা টমটম, এলোপাতারী মটর চালিত রিক্সা সহ বেপরোয়া মটর সাইকেল যেখানে -সেখানেই এসব যানবাহন গুলো ঘুরিয়ে পেলে যার কারণেও যানজট দূর্ভোগ বেরে যায়।
৭ জুলাই শনিবার পৌরশহরের মধ্য বাজারে সারাদিনই যানজটের তীব্র দেখা দিয়েছে। শুধু কি তার যানজট দূর্ভোগ চুনারুঘাটে হয়ে গেছে প্রতিদিনের সঙ্গী। যে কারণে প্রতিদিনই
দূর্ভোগ পোহাতে হয় পথচারী, স্কুল
কলেজ পড়ুয়া ছাএছাএীরা। আবার প্রায় সময়েই এসব এলোপাতাড়ি যানবাহন বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে আসার কারণে ছোট – বড় সড়ক দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। এমনকি উপজেলা প্রশাসন যানজট দূর্ভোগ এড়াতে কয়েক বার সিএনজি ষ্টেশন পরিবর্তন করা হয়েছে। কিন্তু কয়েক দিন গেলেই যেই -সেই। ভুক্তভোগীরা আরো জানিয়েছেন, চুনারুঘাট মধ্য বাজার থেকে সিএনজি ষ্টেশন পরিবর্তন করে যানজট মুক্ত করাই এখন অতি জরুরি। এব্যাপারে ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ উপজেলা প্রশাসনের কাছে যানজট নিরসনের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য দাবী জানিয়েছেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাইঃ ইউরোপের অন্যতম সমৃদ্ধ দেশ ইতালির সঙ্গে নানান কারণে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বেশ ভালো। অভিভাসন, পড়াশোনা, ব্যবসা-বাণিজ্য ইত্যাদি কারণে বাংলাদেশের কয়েক লাখ মানুষ ইতালিতে বসবাস করেন। তবে ইতালিতে চলাফেরা, কাজকর্ম, পড়াশোনা ইত্যাদির জন্য ইতালিয়ান ভাষাটা ভালোভাবে জানা অত্যন্ত জরুরি।

তাই বাংলা ভাষাভাষীদের ইতালিয়ান ভাষা শেখার জন্য ডিগবাজার লিমিটেড নিয়ে এসেছে ফ্রি মোবাইল অ্যাপ। আপনার প্রিয় অ্যান্ড্রয়েড কিংবা আইফোন/আইপ্যাডে বিনামূল্যেই পাবেন এই অ্যাপটি। তা হলে আর দেরি কেন! এখনই ডাউনলোড করে নিন বাংলা-ইতালিয়ন মোবাইল (Bangla-Italian Learning App) অ্যাপটি। অ্যান্ড্রয়েডের জন্য গুগল প্লে স্টোরের লিঙ্ক হলো : https://goo.gl/dS5nwC আর অ্যাপস্টোরে পাবেন এই লিঙ্কে : http://apple.co/2tr2w8g

নিউইয়র্কভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ডিগবাজার লিমিটেডের ম্যানেজিং পার্টনার ডেইজি হ্যামিলটন এ প্রসঙ্গে বলেন, এই অ্যাপটিতে গুরুত্বপূর্ণ অভিধানের পাশাপাশি উচ্চারণসহ বর্ণমালা, সংখ্যা গণনা, প্রশ্নবোধক শব্দের ভা-ার, আর্টিকেল ইত্যাদি রয়েছে। সেই সঙ্গে ইতালিয়ান ভাষায় কীভাবে জরুরি কথাবার্তা বলতে হয় সে বিষয়গুলিও পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এছাড়া প্রায় ৭ ঘণ্টার অডিওসহ ৫০টিরও বেশি ভিডিও রয়েছে অ্যাপটিতে।

উদ্যোক্তারা জানান, মাত্র কয়েক মেগাবাইট আকারের Bangla-Italian Learning App-এর সবগুলো পেজই চলবে কোনো ধরনের ইন্টারনেট ছাড়াই, অর্থাৎ এটি অফলাইন একটি অ্যাপ। তাই কেবল ইতালি যাবার জন্য নয়, বরং শখের বশেও আপনি ইতালিয়ানো শিখতে পারেন। কারণ এটি পৃথিবীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি ভাষা।

এখন আমাদের যে যুদ্ধ সেটা হচ্ছে,দারিদ্র্যের বিরুদ্ধেঃতথ্য সচিব মরতুজা আহমদ

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,মামুন আহমেদঃ বর্তমান সরকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ক মহিলা সমাবেশ আজ ৮ জুলাই শনিবার সকালে শ্রীমঙ্গল উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোবাশশেরুল ইসলামের সভাপতিত্ব অনুষ্টিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য সচিব মোঃ মরতুজা আহমদ,বিশেষ অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার জেলার প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম,শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান শ্রী রনধীর কুমার দেব,জেলা তথ্য কর্মকর্তা জনাব ইমরানুল হাসানসহ শ্রীমঙ্গল উপজেলার বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি,মহিলা কর্মকর্তা এনজিও নেতৃবৃন্দ।

শ্রীমঙ্গলে শৈশবে চন্দ্রনাথ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করায় সচিব মহোদয়কে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ।শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাব এর পক্ষ থেকে মাননীয় তথ্য সচিব মহোদয়কে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রেসক্লাব এর নেতৃবৃন্দ।প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য সচিব বলেন বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন,আমার দেশের প্রতিটি মানুষ খাদ্য পাবে,আশ্রয় পাবে,শিক্ষা পাবে,উন্নত জীবনের অধিকারী হবে-এই হচ্ছে আমার স্বপ্ন।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্পষ্টই বলেছেন,আমরা শত্রুকে পরাজিত করে যুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করেছি।এখন আমাদের যে যুদ্ধ সেটা হচ্ছে,দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে।বাংলাদেশকে আমরা দারিদ্রমুক্ত করতে চাই।

তিনি বলেন,প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ ব্রান্ডিংয়ের জন্য নির্ধারিত একটি বাড়ী একটি খামার,আশ্রয়ণ প্রকল্প, ডিজিটাল বাংলাদেশ,শিক্ষা সহায়তা কর্মসূচি,নারীর ক্ষমতায়ন,ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, কমিউনিটি ক্লিনিক,সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, বিনিয়োগ বিকাশ,ও পরিবেশ সুরক্ষা। এই ১০ টি উদ্যোগ যেন দেশের দারিদ্র ও বৈষম্যমুক্ত সমৃদ্ধি এক পথ নকশা।

আরও বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ক্ষুদ্র দেশের সীমিত সম্পদ দিয়ে এত বৃহৎ জনগোষ্ঠী কল্যাণ সাধন ও কাঙ্খিত উন্নয়ন সরকার চালিয়ে যাচ্ছেন।আমাদের সকলের প্রচেষ্টায় বিশেষ উদ্যোগ বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাল্যবিবাহ,যৌতুক,জঙ্গী ও সন্ত্রাসবাদ ও দারিদ্র্যেমুক্ত উন্নত বাংলাদেশ গড়ে উঠবে এই প্রত্যাশা করি।

সভায় জেলা প্রশাসক,উপজেলা চেয়ারম্যান,ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বক্তব্য রাখেন।সভায় একটি লিখিত বক্তব্য প্রদান করেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ   শুধু অর্থের অভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত জীবন-মৃত্যুর মাঝে দাঁড়িয়ে প্রতিভাবান শিক্ষার্থী নওগাঁর আত্রাই উপজেলার জয়সাড়া গ্রামের মানসিক প্রতিবন্ধী মো. শহিদুল ইসলাম (২১)। মেধাবী এই শিক্ষার্থী গত সাড়ে তিন বছর থেকে মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়। বর্তমানে কিডনিসহ আরো জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে। নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা শহিদুল ইসলামের পরিবার দরিদ্র হওয়ায় ব্যয় বহুল চিকিৎসা চালিয়ে যেতেও হিমসিম খাচ্ছে। শহিদুল ইসলাম উপজেলার জয়সাড়া গ্রামের ইসমাইল হোসেন পুত্র।
তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত এই মেধাবী শিক্ষার্থী শহিদুল ইসলাম মাদ্রাসায় ৫ পারা কোরআন শরিফ হেফজ ও কিতাব বিভাগের জামাতে দহম পর্যন্ত পড়ালেখার পর গত প্রায় সাড়ে তিন বছর থেকে মানুষিক রোগে আক্রান্ত হয়। বর্তমানে কিডনিসহ আরও জটিল রোগে সে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে বলে তার পরিবার জানিয়েছে। শহিদুলের অবস্থা দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। এ জন্য যত দ্রুত সম্ভব তার উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।
বর্তমানে সে পাবনা মানসিক হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আলতাফ হোসেনের তত্বাবধানে চিকিৎসা গ্রহন করছে। তার চিকিৎসা ব্যয় অত্যন্ত বেশি হওয়ায় দরিদ্র পরিবারের পক্ষে তার চিকিৎসার যোগান দেওয়া অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে বিছানায় শুয়ে শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুণেই দিন কাটছে এই মেধাবী শিক্ষার্থীর।
বর্তমানে তার উন্নত চিকিৎসা করাতে পারলে তার আরোগ্য লাভের করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। শহিদুল ইসলামকে সুস্থো করতে তাই সমাজের সব হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তির সহযোগিতা করেছেন তার পরিবার। সবার একটু সহযোগিতায় বাঁচতে পারে শহিদুল ইসলাম।
শহিদুলকে সাহায্য পাঠানোর জন্য তার নিজস্ব বিকাশ নং-০১৭৪৫-৮৮৩২২৯ এ সাহায্য পাঠানো যাবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ   কাউন্টার ভাঙচুর ও শ্রমিক মারধরের প্রতিবাদে শনিবার সকাল থেকে বেনাপোলে পরিবহন ধর্মঘট চলছে। পরিবহন শ্রমিক সংগঠনগুলো এ ধর্মঘট পালন করছে। পরিবহন শ্রমিকরা জানান, ১০ জুলাই যশোর জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনকে সফল করার লক্ষ্যে শুক্রবার বিকেলে বেনাপোল পৌর ছাত্রলীগের (মেয়র সমর্থিত) নেতাকর্মীরা বেনাপোল বন্দর এলকায় একটি মিছিল বের করেন।

মিছিলটি বেনাপোল পরিবহন স্ট্যান্ডে পৌঁছানোর সময় গ্রীন লাইন পরিবহনের একটি কোচের বক্সে যাত্রীদের ল্যাগেজ উঠাচ্ছিলেন পরিবহনের অফিস স্টাফ মোহন (৩৫)। এ নিয়ে তাদের সঙ্গে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়। এর পরপরই ছাত্রলীগের কতিপয় কর্মীরা উত্তেজিত হয়ে মোহনকে মারধর করেন। তাকে বাঁচাতে গেলে ওই বাসের চালক জামাল, সুপারভাইজার আলাল ও হেলপার লিয়াকতকে মারধর করে আহত করেন ছাত্রলীগ কর্মীরা। পরে তারা বিজিবি ক্যাম্পের সামনে গ্রীন লাইন পরিবহনের কাউন্টার ভাংচুর করেন।
ঘটনার পরপরই পরিবহন শ্রমিকরা গাড়ি রেখে যশোর-বেনাপোল সড়ক অবরোধ করে। ফলে এ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় বিজিবির একটি প্রতিনিধি দল ভারত থেকে সীমান্ত সম্মেলন শেষ করে দেশে ফিরছিলেন। তাদের অনুরোধে পরিবহন শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নেন এবং শনিবার সকাল থেকে বেনাপোল থেকে সকল পরিবহন বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন।
বেনাপোল গ্রীন লাইন পরিবহনের ম্যানেজার রবিন বাবু বলেন, বিষয়টি ঢাকায় মালিককে জানানো হয়েছে। তারা ওখান থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। বেনাপোলের সব পরিবহন ম্যানেজার ও পরিবহন শ্রমিক সংগঠনগুলো বসে শনিবার সকাল থেকে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আটক না করা পর্যন্ত অবরোধ চলবে বলে জানান তিনি।
বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপূর্ব হাসান বলেন, ‘ঘটনাটি দুঃখজনক। হামলাকারীদের আটকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। শ্রমিক সংগঠন ও পরিবহন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বসে বিষয়টি সুরাহারও চেষ্টা চলছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,মিজানুর রহমান সৌদি আরবঃ সৌদি আরব দাম্মাম প্রদেশ বিএনপির আহব্বায়ক কমিটির আয়োজনে কেন্দ্রিয় বিএনপির সদ্য ঘোষিত সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচী ২০১৭ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে।

বিএনপি নেতা মিশকাত মিশুর সভাপতিত্বে বিছমিল্লা মন্জু ও জাহিদ আল ইসলাম আজাদের যৌত পরিচালনায় উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন দাম্মাম প্রদেশ বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান, কর্মসূচীর শুভ উদ্বোধন করেন সৌদি আরব পূর্বাঞ্চল কেন্দ্রিয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দাম্মাম বিএনপির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা  এম এ কাসেম খাঁন, বিশেষ অতিথি ছিলেন দাম্মাম প্রদেশ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সুমন,আনকিক জেলা বিএনপির সভাপতি গাজী শাহ আলম, যুগ্ন সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়ার হোসেন, সাফুয়া বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মনির, সাবেক ভিপি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল সহ দাম্মাম বিএনপির বিভিন্ন ইউনিট কমিটির নেতৃবৃন্দ।

সভায় উক্ত কর্মসূচীর মাধ্যমে বিএনপির প্রচার ও প্রসার অভিযান একধাপ এগিয়ে যাবে বলে বক্তাগন দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাইঃমাদকবিরোধী সংগঠন-নারকোটিকস এনোনিমাস সিলেটের ঈদ পূণর্মিলনী ৭ই জুলাই শুক্রবার বিকেলে লাক্কাতুরাস্থ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে একে অন্যের সাথে কুশল বিনিময় করেন, পরবর্তীতে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নোমান আহমেদের সভাপতিত্বে ও জাহাঙ্গীর হোসাইন চৌধুরী’র পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, আলী হোসেন মিলু, ইউপি সদস্য শাহিন তালুকদার, মির্জা জাফর, আনোয়ার সিদ্দিকী, আরিফ আহমদ, মহসিন তালুকদার, ইফতি আহমদ সুমীম, এবাদুর রহমান পান্না, মনাফ আহমেদ, ওয়াদুদ হোসেন, শামিম আহমদ, ওয়ালিদুর রহমান সজিব, শাহ রুবেল, আব্দুর রহিম, রাসেল আহমদ, বদরুল ইসলাম, কবির আহমদ, শাহ নেওয়াজ, মাহতাব আহমদ, সুমন আহমদ, গণেশ কর্মকার, আজাদ আহমদ প্রমুখ।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,জহিরুল ইসলামঃ   রমজান মাসের ছুটির পর পাঠদান কার্যক্রম শুরুর দিকে বন্যা কবলিত হয় বিদ্যালয় গুলো।পানিতে তলিয়ে গেছে বিদ্যালয় রাস্তাঘাট,মাঠ-ঘাট,অফিস কক্ষ শ্রেণীকক্ষ সবই পানি বন্ধি। তাই বন্ধ রয়েছে পাঠদান কার্যক্রম।

এখন ওই এলাকার বিদ্যালয় গুলোতে যেমন পানি। তেমনি বানের পানিতে তলিয়ে গেছে বাড়ি ঘর।বন্যার কারনে বিদ্যালয় গুলো বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি বাড়িতেও পড়া লেখা চালিয়ে যেতে পারছেন না এজেলার অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা। ফলে এ বছর চরম ক্ষতিগ্রস্থ তাদের শিক্ষা জীবন। বন্যার পানি দ্রুতগতিতে না কমায় র্তীব্র আকার ধারণ করেছে। এ নিয়ে চরম উদ্বেগ উৎকন্ঠায় শিক্ষক ও অভিভাবকরা।
বিশেষ করে এবছরের পিএসসি,জেএসসি,জেডিসি,দাখিল ও এসএসসি পরীক্ষার্থীরা পড়েছেন মহাবিপাকে। পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ থাকায় তাদের সিলেবাস অনুযায়ী কোর্স শেষ হবে কি না এনিয়ে রয়েছেন দুশ্চিন্তায়।তাই চলমান বছরের চূড়ান্ত পরীক্ষায় আশানুরুপ ফলাফল নিয়েও তাদের ভাবনা। তাদের ফলাফল বির্পযয়ের এমন দুশ্চিন্তা বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক,পরিচালনা কমিটির সদস্য ও অভিভাবকদের।

তাছাড়া গত ৬ জুলাই বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে অর্ধবার্ষিকী পরীক্ষা। কিন্তু ওই ক্ষতিগ্রস্থ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীরা তাতে অংশ নিতে পারছে না। তবে স্কুল ভিত্তিক ভিন্ন প্রশ্নপত্র থাকায় তা পরবর্তিতে নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

প্রায় ২ সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও বন্যার পানি না কমে তা দীর্ঘস্থায়ী রুপ নেওয়ায় তাদের এ দুশ্চিন্তা। তবে সংশ্লিষ্ট বিভাগের জেলা ও উপজেলা কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের দাবী বন্যা কাটিয়ে উঠলে বিদ্যালয়গুলো খোলার পর বাড়তি পাঠদানের মাধ্যমে এ ক্ষতি পোষিয়ে উঠা সম্ভব বলে তারা আশাবাদী।
এ বছর উজানের পাহাড়ী ঢল আর টানা ভারী বর্ষণে জেলার হাওর ও নদী গুলোর পানি উপছে পড়ে দেখা দিয়েছে বন্যা। নদী ভাঙ্গন আর উত্তাল হাওর রাক্ষুসে হয়ে তাদের সবই গিলে খেয়েছে। দফায় দফায় বন্যায় সবই হারিয়ে তারা একেবারেই নি:স্ব। এ বছর জেলার হাওর ও নদীগুলোতে চৈত্রের অকাল বন্যার পর এনিয়ে ৩য় বারের মত দেখা দিয়েছে বন্যা। গেল দু’বারের বন্যা স্থায়ী না হলেও চলমান এ বন্যা স্থায়ী রুপ নিয়েছে। সকালে পানি কমে স্থানীয়দের আশা বৃষ্টির কারনে আবার রাতের দিকে পানি বেড়ে গিয়ে হতাশ করছে তাদের। স্থানীয় বাসিন্দাদের সুত্রে জানা যায় ২০০৪ সালের পর এমন ভয়াবহ বন্যা কবলিত হয়েছেন তারা। ওই বন্যায় এতো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও এবারের বন্যায় নানা ভাবে তারা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।

অনুসন্ধানে জানা যায় চলমান বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন জেলার হাকালুকিও কাউয়া দিঘি হাওর তীরের কুলাউড়া,জুড়ী,বড়লেখা,রাজনগর ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলার বাসিন্ধারা। দফায় দফায় বন্যায় তাদের কৃষি ফসল ও মৎস্যখামার ক্ষতির পাশাপাশি এখন ৩য় দফা বন্যায় ডুবিয়ে দিয়েছে ঘর-বাড়ি, রাস্তাঘাট,বাজার, ধর্মীয় উপসনালয় আর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এদিকে জেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: আব্দুল আলিম জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ থাকায় পাঠদান কর্যক্রম থেকে বঞ্চিত রয়েছেন প্রায় লক্ষাধিক শিক্ষার্থী। বিকেল পর্যন্ত বন্যায় মৌলভীবাজারের হাকালুকি ও কাউয়াদিঘি হাওরের তীরবর্তী ৫টি উপজেলার ১৫২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় তলিয়ে গিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম আপাতত বন্ধ রয়েছে। এর মধ্যে বড়লেখায় ৭০টি, কুলাউড়ায় ৪৪টি, জুড়ীতে ২০টি রাজনগরে ১৪টি ও সদর উপজেলায় ৪টি বিদ্যালয় পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারনে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।
তিনি আরোও জানান, উজানের পাহাড়ী ঢল ও টানা বৃষ্টি না থামলে আরো ক্ষয়ক্ষতির শঙ্কা রয়েছে। এর মধ্যে বড়লেখা, জুড়ী, রাজনগর ও কুলাউড়া উপজেলার ২২ টি স্কুলে আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

বন্যা হলে যেমন বিদ্যালয়ে পাঠদান বিঘ্নিত হয়,তেমনি মানবিক কারনে আশ্রয় কেন্দ্র খোলার জন্য বিদ্যালয় ছেড়ে দিতে হয়। বন্যার কারনে এ পর্যন্ত ব্যাহত হচ্ছে প্রায় ৩১ হাজার শিক্ষার্থীর পাঠদান কার্যক্রম।

মৌলভীবাজর জেলা (মাধ্যমিক) শিক্ষা কর্মকর্তা এ এস এম আব্দুল ওয়াদূদ  আমার সিলেট প্রতিনিধিকে জানান, বন্যায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসা পর্যায়ের মোট ৪৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।জেলার বড়লেখা উপজেলায় ২০টি, কুলাউড়ায় ১২টি ও জুড়ীতে ১৬ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্যা কবলিত হওয়ায় এখন পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। বন্যা কবলিতদের জন্য জুড়ী উপজেলায় ৪টি, বড়লেখায় ২টি ও কুলাউড়ায় ২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে।সব মিলিয়ে প্রায় ১ লক্ষ শিক্ষার্থীর পাঠদান কার্যক্রম বন্যার কারনে ব্যাহত হচ্ছে ।

জেলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা মুঠোফোনে জানিয়েছেন, বন্যায় পানিতে তলিয়ে যাওয়া বিদ্যালগুলোর ভবন ও অফিস কক্ষের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও আসবাবপত্রের ক্ষতি হয়েছে। তাছাড়া অনেক বিদ্যালয় এখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে আর পানি বাড়লে এগুলোও তলিয়ে যাবে।

এছাড়া অনেক বিদ্যালয়ের রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ায় পাঠদান কার্যক্রম চালু হলেও সেখানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুলাই,হাবিবুর রহমান খান,স্টাফ রিপোর্টার:মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের ১২ নং ওয়ার্ডের সদস্য মশিউর রহমান রিপন (৪৫) কে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।
শুক্রবার (৭ জুলাই) বিকালে গোপন সংবাদের ভিতিত্তে অভিযান চালিয়ে মৌলভীবাজার শহরের শ্রীমঙ্গল রোড থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মশিউর রহমান রিপন শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমান এর ছেলে।

মৌলভীবাজারের গোয়েন্দা পুলিশের (এসআই) মো: মুমিন উল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার বিরুদ্ধে শ্রীমঙ্গল থানায় মারামারি ও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে।
শ্রীমঙ্গল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম জানান, গত ২২ মে রাতে শ্রীমঙ্গল শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও মৌলভীবাজার চেম্বার অব কমার্স এর পরিচালক তাজুল ইসলামকে তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে আক্রমন চালিয়ে গুরুতর আহত করে সন্ত্রাসীরা,এই মামলার ওয়ান্টেভুক্ত পলাতক আসামি ছিলেন মশিউর রহমান রিপন।