Saturday 23rd of September 2017 04:37:01 AM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ   ইরাকের পুরোনো মসুলে তাকফিরি দায়েশের নিয়ন্ত্রিত কিছু এলাকায় এখনো ২০,০০০ বেসামরিক ব্যক্তি অবরুদ্ধ হয়ে আছেন বলে জাতিসংঘের একজন শীর্ষ  স্থানীয় কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার ইরাকে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সমন্বয়কারী লিসে গ্রান্ডে বলেন, পুরনো মসুলে দায়েশের সর্বশেষ আস্তানাগুলোতে ১৫,০০০ থেকে ২০,০০০ বেসামরিক ব্যক্তি অবরুদ্ধ হয়ে আছে। এসব ব্যক্তি সেখানে মানবেতর জীবন যাপন করছে এবং তাদের জন্য পর্যাপ্ত খাবার পানি নেই বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, আটকে পড়া ব্যক্তিরা বোমা হামলা এবং গোলাগুলির কবলে  রয়েছে। সেখানে কেউ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে দায়েশ তাদের ওপর সরাসরি গুলি চালাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, টাইগ্রিস নদীর পশ্চিম তীরে দায়েশের একটি আস্তানা পুনরুদ্ধার করার লক্ষ্যে ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী এখন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযান চালাচ্ছে খবর পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার ইরাকের মসুলের ৬৩ কিলোমিটার পশ্চিমে অবস্থিত তাল আফার শহর থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে দায়েশ ২০০ বেসামরিক ব্যক্তিকে হত্যা করে বলে দেশটির আল সুমারিয়া টেলিভিশন চ্যানেল জানিয়েছে।পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিটি রাজনৈতিক দলেরই (যারা ক্ষমতায় যেতে চায়) দেশকে সামনে এগিয়ে নেয়ার জন্য একটি কার্যকর অর্থনৈতিক নীতি থাকা উচিৎ এবং দেশের আমলাতন্ত্রকেও সেভাবে লক্ষ্য অর্জনে আন্তরিকতার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তখনই দেশকে সামনে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হব যখন আপনারা (সরকারি কর্মচারিরা) জনগণের সেবক হিসেবে ঠিকভাবে কাজ করবেন। সরকার হিসেবে আমরা মনে করি, আমাদের একটা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকবে, দেশটাকে আমরা কিভাবে আরো উন্নত সমৃদ্ধ করতে পারি।’
দেশকে বর্তমান বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল আখ্যায়িত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদের কর্মফলই আমাদেরকে মর্যাদার আসনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার সকালে তার কার্যালয়ে সকল মন্ত্রণালয় বিভাগ ও দপ্তরের সচিবদের সঙ্গে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি ২০১৭-১৮ (এনুয়াল পারর্ফমেন্স এগ্রিমেন্ট-এপিএ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে একথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি হচ্ছে সিভিল প্রশাসনের একটি আভ্যন্তরীণ কর্মকৌশল। এটি দেশের জনগণের কল্যাণে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে নিয়ে যেতে সরকারি কর্মচারিদের জন্য একটি দাপ্তরিক দায়বদ্ধতার স্মারক। এটির মাধ্যমে জনগণের কাছে সরকারের স্বচ্ছতা, দায়বদ্ধতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত হয়।
সরকারের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সরকারি সম্পদের সদ্ব্যবহার এবং প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এবং বিভাগের সঙ্গে এই নিয়ে চতুর্থবারের মত বার্ষিক কর্মসম্পাদক চুক্তি স্বাক্ষর করে সরকারের মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ।
প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি হিসেবে মন্ত্রী পরিষদ সচিব এবং মন্ত্রীর প্রতিনিধি হিসেবে ৫১টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবরা এই চুক্তি স্বাক্ষর করেন।
বাজেট পাস হবার পর পরই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এর ফলে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আরো বেশি সময় হাতে পাওয়া যাবে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, মন্ত্রী পরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (নিরাপত্তা বিভাগ) ফরিদ উদ্দীন আহমেদ চৌধুরী এবং মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এনএম জিয়াউল আলম অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানে মন্ত্রী পরিষদ সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ এবং জেষ্ঠ্য সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। “বাসস”

প্রবাসীদের হটিয়ে স্থানীয়দের জন্য কর্মসংস্থান বাড়াতে চায় সৌদি আরব!

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,মিজানুর রহমান সৌদি আরব থেকেঃ প্রবাসী ও তাদের উপর নির্ভরশীল সদস্যদের উপর নতুন ট্যাক্স আরোপ করেছে সৌদি আরব। গলফ নিউজের খবরে বলা হচ্ছে, গত ১ জুলাই থেকে এই ট্যাক্স আদায় শুরু হচ্ছে। গত দুই বছর দাম রেকর্ড কমে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের ব্যবসায় ধরা খায় সৌদি আরব। এক বছরে দেশটির ঘাটতি বাজেট দাঁড়ায় প্রায় ১০ হাজার কোটি ডলার।

এর পরই সৌদি অর্থনৈতিক সংস্কার নিয়ে নড়েচড়ে বসে। ইতিমধ্যে দেশটি ২০৩০ ভিশন নামে একটি রূপকল্প হাতে নিয়েছে; যার আওতায় প্রবাসীদের উপর ট্যাক্স আদায়ের এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। পূর্ব নির্ধারিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রবাসীদের ওপর নির্ভরশীল প্রত্যেক সদস্যকে ২০১৭ সালের জুলাই থেকে মাসিকভিত্তিতে ১০০ রিয়াল করে ফি দিতে হবে।

এটা বছরে বছরে বাড়ানো হবে। ২০১৮ সালের জুলাইতে এই ফি হবে ২০০ রিয়াল, ২০১৯ সালে হবে ৩০০ রিয়াল আর ২০২০ সালে হবে ৪০০ রিয়াল।

প্রবাসীদের হটিয়ে স্থানীয়দের জন্য কর্মসংস্থান বাড়াতে চায় সৌদি আরব। সে পরিকল্পনায় দেশটি প্রবাসীরা কাজ করে এমন কোম্পানির উপরও এক ধরনের কর আরোপ করে; বছরে বছরে এ করও বাড়বে বলে জানানো হয়।
যেসব কোম্পানিতে প্রবাসীর সংখ্যা স্থানীয় নাগরিকদের সমান বা তার কম- তাদের জন্য ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানকে জনপ্রতি ৩০০ রিয়াল করে মাসিক ফি দিতে হবে। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে এটা হবে ৫০০ রিয়াল। আর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে হবে ৭০০ রিয়াল।
স্থানীয়দের চেয়ে কোম্পানিতে প্রবাসী বেশি হলে ওই কোম্পানিকে জন প্রতি ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে দিতে হবে ৪০০ রিয়াল, ২০১৯ সালে দিতে হবে ৬০০ রিয়াল এবং ২০২০ সালে তা হবে ৮০০ রিয়াল।
খবরে বলা হয়, সেসব কোম্পানিতে স্থানীয়দের চেয়ে বিদেশিরা বেশি; সেসব কোম্পানিকে বিদেশি জনপ্রতি ২০০ রিয়াল করে লেভি (এক ধরনের কর) দিতে হয়। এই ফি ২০২০ সাল পর্যন্ত বাড়ানো হবে। তবে প্রবাসীদের রেমিটেন্সের ওপর ট্যাক্স বসানোর যে চিন্তা ছিল তা কার্যকর হচ্ছে না।
এ ধরনের পরিকল্পনা আপাতত সৌদি আরবের নেই বলে দেশটির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।  এ ধরনের পরিকল্পনা আপাতত সৌদি আরবের নেই বলে দেশটির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

তিন নাবালক সন্তানের জীবন ও সম্পত্তি রক্ষার আবেদন বিধবা ভাতৃবধুর

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ    তিন নাবালক সন্তানের জীবন ও স্বামীর রেখে যাওয়া সম্পত্তির রক্ষার আবেদন জানিয়েছেন রিপা আহমেদ চৌধুরী নামের অসহায় এক গৃহবধু।বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনী মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সন্মেলনে এ আবেদন জানান তিনি। আবেদনে বলা হয়, আমার স্বামী মরহুম শামীম আহমেদ চৌধুরী কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান।

তার মৃত্যুর পর সম্পত্তি আত্মসাৎ করার উদ্দেশ্যে স্বামীর বড় ভাই মজিবুর রহমান আমাকে ও আমার সন্তানদের দুনিয়া থেকে চিরতরে সরিয়ে দেয়ার জন্য নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। তার অব্যাহত হুমকির কারনে আমার সন্তানদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে এবং লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। আমার স্বামীর জীবদ্দশায় তার বড় ভাই হাজী মুজিব আমার স্বামীর কাছ থেকে বহু টাকা ধার নেন। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি জেল থেকে বের হওয়ার পর আমি হিসাব চাইতে যাই। তখন তিনি আমাকে প্রাণ নাশের হুমকী দেন। শুধু তাই নয় তিনি আমার স্বামীর সমস্ত সম্পদ আত্মসাৎ করেন।

তিনি আরো বলেন, আমার স্বামী হাজী মুজিবের স্ত্রীর কাছ থেকে সেগুন বাগিচাস্থ ‘ স্কাইভিউ ওসেন’ টাওয়ারে একটি ফ্ল্যাট ক্রয় করেন কিন্ত তখন তার ভাবী কাগজপত্র সম্পাদন করেন নি। আমার স্বামীর মৃত্যুর পর আমি আমার ভাসুর হাজী মুজিবকে কাগজপত্র সম্পাদন করার কথা বলি। তিনি দেই দিচ্ছি বলে টালবাহানা করার এক পর্যায়ে জানতে পারি উনি ওই ফ্ল্যাট ব্যাংকে মর্গেজ রেখে লোন নিয়েছেন।

তিনি আবেদনে আরো উল্লেখ করেন, পিতার অবর্তমানে চাচার কাছে ভাতিজা ভাতিজিরা নিরাপদ থাকে। কিন্তু চাচা নামের কলঙ্ক হাজী মুজিব উল্টো এতিম বাচ্চা ৩ টিসহ আমাকে পথে বসানোর অশুভ তৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। আমি আমার তিন সন্তান নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছি। স্বর্ন চোরাকবারী স্বার্থান্বেষী হাজী মুজিব নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করতে যে কোনো সময় আমাকে ও আমার সন্তানদের হত্যা করতে পারে আমি সন্তানদের আগলে রেখে অনেকটা পালিয়ে বেড়াচ্ছি। এ বিষয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ সেগুনবাগিচ্স্থ কনকর্ড টাওয়ারে বসবাসরত অবস্থায় গত ২০১৫ সালের ১০ এপ্রিল আকিস্মভাবে মারা যান। মৃত্যুকালে ২ মেয়ে সাদিয়া আহমেদ চৌধুরী, সাইদা আহমেদ চৌধুরী ও পূত্র মাহদি আমেদ চৌধুরী-এই তিন নাবালক সন্তান রেখে যান। এমনিতে স্বামীকে হারিয়ে অথৈ সাগরে পড়ার উপক্রম হয়েছে গৃহবধু রিপা আহমেদের। এ অবস্থায় আপন ভাসুর কর্তৃক অনাকাঙ্খিত সম্পদ হরণে তিনি দুচোখে অন্ধকার দেখছেন বলেও সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন।এ ব্যাপারে হাজী মুজিবের ঘনিষ্ঠ এক রাজনৈতিক কর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, এ গুলো বানোয়াট কাহিনী,রাজনৈতিক ভাবে হাজী মুজিবকে কলঙ্কিত করতে  বিরোধীরা এটা সাজিয়েছে।তিনি বলেন সবাই জানেন হাজী মুজিব একজন বড় ব্যবসায়ী সে কেন তার ভাবী ও ভাতিজা ভাতিজীদের  ক্ষতি করবে ? এ ব্যাপারে হাজী মুজিবের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা সম্ভব হয়নি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের মানুষ এবং আইনশৃঙ্খলা ও সশস্ত্র বাহিনী মিলে যেভাবে লড়ছে, তাতে এ দেশে কোনোভাবেই জঙ্গিবাদের স্থান হবে না।

বুধবার ঢাকা সেনানিবাসে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) সদর দপ্তরে বাহিনীর ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এখন বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়লেও বাংলাদেশ সফলভাবে তা মোকাবেলা করছে।

শেখ হাসিনা সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘সকলে মিলেই কিন্তু এই জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে অত্যন্ত সফলতা অর্জন করেছি, যা বিশ্বব্যাপী একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এই ধারাটা আমাদের অব্যাহত রাখতে হবে, যাতে কোনো মতেই বাংলার মাটিতে কোনো রকম জঙ্গিবাদের স্থান না হয়।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা কাজ করে যাব, যাতে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে যে দেশ পেয়েছি, সে দেশ বিশ্বসভায় মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে।

প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের দায়িত্ব ও কাজের কথা উল্লেখ করে  শেখ হাসিনা বলেন, “জাতির পিতার প্রতিষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট কালের আবর্তে আজ স্বমহিমায় উজ্জ্বল ও ঐতিহ্যে ভাস্বর। সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তা দায়িত্ব ও রাষ্ট্রাচার অনুষ্ঠানে আপনাদের ভূমিকা আজ সর্বজন স্বীকৃত ও প্রশংসিত।”

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালের ৫ জুলাই পিজিআর প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৯১ সালে সংসদীয় পদ্ধতির সরকার ব্যবস্থা প্রবর্তনের পর রাষ্ট্রপতির পাশাপাশি সরকার প্রধানের নিরাপত্তার দায়িত্ব এই রেজিমেন্টের উপর বর্তায়।

তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট তার চিরাচরিত সুনাম অক্ষুন্ন রেখে ভবিষ্যতে অধিক সফলতা অর্জনে সক্ষম হোক। আত্মবিশ্বাসী পদভারে তারা আরও সামনে এগিয়ে যাক।

আওয়ামী লীগ সরকার আমলে পিজিআর সদস্যদের সংখ্যা বাড়ানো, ভাতা বাড়ানো, আবাসন সমস্যার সমাধানসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা তুলে ধরেন হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসময় সশস্ত্র বাহিনী আধুনিকায়ন ও যুগোপযোগী করে তুলতে সরকারের পদক্ষেপের কথাও উল্লেখ করেন। তিনি বাহিনীটির সদস্যদের দক্ষতা ও উৎকর্ষ আরও বাড়াতে প্রশিক্ষণের উপরও গুরুত্ব দেন ।

প্রধানমন্ত্রী এই রেজিমেন্টের যেসব সদস্য দায়িত্ব পালনের সময় আত্মত্যাগ করেছেন তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং স্বজনদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন।পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আইন বাস্তবায়ন পিছিয়ে যাওয়ায় সদ্য পাস হওয়া ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে ২০ হাজার কোটি টাকা ঘাটতি হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেছেন, এটা পূরণ করা কঠিন হবে। এ বিষয়ে কী করণীয় তা এখনও ঠিক হয়নি। তবে শিগগিরই এর বিকল্প নির্ধারণ করা হবে। উল্লেখ্য ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ২ লাখ ৮৭ হাজার ৯৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ভ্যাট থেকে ৯১ হাজার ২৫৪ কোটি টাকা আদায়ের লক্ষ্য ছিলো। কিন্তু দুই বছরের জন্য ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন পিছিয়ে দেয়ার ফলে লক্ষ্য হতে ২০ হাজার কোটি টাকা কম আদায় হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, ভ্যাট আইন কার্যকর না হওয়ায় ঘাটতি মেটাতে নতুন করে কী করতে হবে তা এখানো জানি না। বিষয়টি নিয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে খুব শিগগির সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
ভ্যাট আইন স্থগিত হওয়ায় নতুন করে জাতীয় সংসদে পরিকল্পনা নিতে হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, এর প্রয়োজন নাও হতে পারে। ভ্যাট আইন কার্যকারিতা স্থগিত করলেও ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প শুরু হয়েগেছে বলে জানান তিনি। ইত্তেফাক

“স্থানীয় সরকারী কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মারামারির অভিযোগের সঠিক কোন তথ্য না পেয়ে এবং দলীয় আচরনবিধি এবং শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারনে, জেলা নেতৃবৃন্দের  সিদ্ধান্ত  হয় দু’টি  কমিটির কার্যক্রম স্থগিতের”

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,শিমুল তরফদার  ও জহিরুল ইসলামঃ    দলীয় আচরনবিধি এবং শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারনে, শ্রীমঙ্গল উপজেলা ও শ্রীমঙ্গল সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি সাংগঠনিকভাবে স্থগিত ঘোষনা করা হয়েছে। বুধবার প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগ এর সভাপতি মো: আসাদুজ্জামান রনি এবং সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রনি।

লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তারা জানান, শ্রীমঙ্গল উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো: মসুদ আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক রাজু দেব রিটন ও কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুর রহমান সুজাত ও সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কান্তি দাস কে, কেন সংগঠন থেকে স্থায়ী ভাবে বহিস্কার করার জন্য কেন্দ্রীয় কমিটিকে, কেন সুপারিশ করা হবে না তা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে উপজেলা ও কলেজ ছাত্রলীগকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রনি সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি আমার সিলেট প্রতিনিধিকে জানান, “ছাত্রলীগের মারামারির বিষয়টির সঠিক কোন তথ্য পাচ্ছি না বিধায় আমরা স্থগিত করেছি, যাতে সত্য ঘটনা খুঁজে পাওয়া যায়।”

উল্লেখ্য জানা গেছে,মঙ্গলবার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দুগ্রুপে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ৭ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন- ইফতি, ইমন, ছাদিক, মেহরাব, সুজাত,  সম্রাট ও নয়ন। এরা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মসুদ ও সাধারণ সম্পাদক রাজু গ্রুপের অনুসারী। এ ঘটনায় পুলিশ নেওয়াজ ও আশিক নামে দুজনকে আটক করেছে।

ছাত্রলীগের দুটি অংশের কলেজে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় কলেজের সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী ও পথচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। কলেজ ক্যাম্পাস থেকে শুরু হয়ে পরবর্তীতে কলেজ রোডে প্রকাশ্যে উভয় গ্রুপের অস্ত্রসহ মহড়া চলে। এ সময় উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের হাতে রামদা, রড, হকিস্টিক, লাঠিসহ দেশি অস্ত্র থাকতে দেখা যায়।

ঘটনার খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনর্চাজ কেএম নজরুল ইসলাম পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বিশ্বনাথ উপজেলার খাজান্সি ইউনিয়নের মিরের গাঁও গ্রামের আব্দুল নুর নামে এক লন্ডনপ্রবাসী স্থানীয় সন্ত্রাসীদের ভয়ে বাড়ি ছাড়া রয়েছেন এবং তার ২৫ কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার সন্ধ্যায় সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবে এক জরুরী সংবাদ সম্মেলনে মিরের গাঁও গ্রামের মৃত হাজী ইন্তাজ আলীর পুত্র আব্দুল নুর এমন অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল নুর জানান, গত জানুয়ারী মাসে তিনি বৃটেন থেকে দেশে আসেন। এবং বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে নিজেকে জড়ান। কিন্তু গত কিছু দিন থেকে একই গ্রামের আব্দুল বারির ছেলে সাইস্তা মিয়া, মছদ্দর আলীর ছেলে ফারুক আলী, মনির মিয়ার ছেলে আখতার মিয়া, বশির মিয়ার ছেলে লিলু মিয়া সহ কয়েকজন তার কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে সন্ত্রাসীদের ভয়ে আমি গ্রাম ছেড়ে শহরে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।
এ বিষয় নিয়ে তিনি ইতোমধ্যে সিলেট বিচারিক আদালতে মামলা দায়ের করেছে এবং সিলেট কতোয়ালী মডেল থানায় জিডি করেছেন বলে জানান। জিডি নং ২২০৯ তারিখ ২৯ জুন ২০১৭।

সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী আব্দুল নুর পুলিশ প্রশাসন, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগীতা কামনা করেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬জুলাই,জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় সিলেট তামাবিল মহাসড়কের দামড়িতে সড়ক দূ্র্ঘটনায় এক মটর সাইকেল অারোহী নিহত হন৷ মটর সাইকেলে অারোহী জৈন্তাপুর উপজেলার সাবেক দরবস্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মরহুম নজরুল ইসলামের ছেলে ব্যবসায়ী ছয়ফুল ইসলাম (৪৫)৷

স্থানীয় জনতা ছাইফুলকে মারাত্বক অাহতবস্থায় উদ্ধার করে সিলেটে নেওয়ার পথে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন৷

এলাকাবাসী জানায়, দ্রুতগামী কোন পরিবহন ছাইফুলকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে যায়৷ ফলে তিনি ঘটনাস্থলে গুরুত্বর অাহত হন৷ সিলেটে নেওয়ার পথে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন৷ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেনি বলে এলাকাবাসী জানান৷