Saturday 25th of November 2017 09:47:21 AM

মৌলভীবাজারে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,শিমুল তরফদার,নিজস্ব প্রতিনিধি: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, যতদিন বন্যা ও জলাবদ্ধতা থাকবে ততদিন দুর্গতদের ত্রাণ দেয়া হবে। দূর্যোগের সময় আওয়ামীলীগ জনগণের পাশে দাঁড়ায় আর বিএনপি নেতৃবৃন্দ ঢাকায় বসে ফাকা আওয়াজ দেয়।

মঙ্গলবার মৌলভীবাজারের দূর্গোত এলাকায় ত্রান বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। এসময় তিনি আরো বলেন দেশে যতেষ্ট পরিমান খাদ্য মজুদ আছে, বিএনপি আ.লীগের সরকারে উন্নয়ন ভালো চোখে দেখে না। যখন শেখ হাসিনার সুপরিকল্পনায় আওয়ামীলীগ সরকার দেশে মহা উন্নয়ন করছে তখন বিএনপি ঢাকায় বসে ফাঁকা আওয়াজ দেয়।
এসময় মৌলভীবাজার-২ আসনের সাংসদ মো: আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে ও অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ে সচিব শাহ কামাল, যুগ্ম সচিব মো. মহসীন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ে মহা পরিচালক রিয়াজ আহমদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন,কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আজিজুর রহমান, মৌলভীবাজার জেলা আ.লীগের সাধারণ স¤পাদক মো: নেছার আহমদ, জেলা প্রশাসক মো: তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো: শাহ জালাল প্রমূখ।
মন্ত্রী কুলাউড়া উপজেলার দুর্গোত এলাকা পরিদর্শন করে দুটি ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ তেরোশত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরন করেন। এছাড়াও মন্ত্রী তিনশ মেট্রিকটন চাল, ত্রিশ লক্ষ টাকা, এক হাজার বান্ডেল টিন এবং আশ্রয় কেন্দ্রের ২ হাজার অসহায় মানুষদের জন্য শুকনো খাবার বরাদ্ধের ঘোষনা করেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,জহিরুল ইসলামঃ   শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৪ জন শিক্ষকের বিভিন্ন সময়ে মৃত্যুতে তাদের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক সহায়তা  দিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি।
মঙ্গলবার বিকেলে শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে হল রুমে ১লক্ষ ২১ হাজার ৭০০ টাকা শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৪ জন শিক্ষকের মৃত্যুতে তাদের পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দিলেন ।
এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,শ্রীমঙ্গল উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও কাকিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নোমান আহমেদ সিদ্দিকী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলার মাধ্যমিক কর্মকর্তা দীপিল কুমার বর্ধন, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সহ-সভাপিত ইসমাইল মাহমুদ শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অয়ন চৌধুরী প্রমুখ ।
প্রয়াত ৪ শিক্ষকরা হলেন,উদয়ন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো: মোসাদ্দেক আহমেদ মজুমদার, বেগম রাছুলজান আব্দুল বারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন খান ও সহকারী গ্রন্থাগারিক লাকী রানী দেব এবং হাজী রাশিদ মিয়া মেহেরজান উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, মৌলানা মো: মোজাহির উদ্দিন (মৌলভী)।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক,শিক্ষিকা, ও স্থানিয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন ।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার চিকসা গ্রামে শ্রীশ্রী কালি মন্দিরের তালা ও দরজা ভেঙ্গে মন্দিরে প্রবেশ করে ৩টি মুর্তি ভাংচুর করার ঘটনায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলার হিন্দু বৌদ্ধ খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ ও উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপজেলা প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষন শেষে তাহিরপুর সদরের চাল বাজারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন,চিকসা কালি মন্দিরের মুর্তি ভাঙ্গার সাথে জড়িত সন্দহে বাবুল মিয়া (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করলেও আসল সন্ত্রাসীরা রয়েছে ধরাচোয়ার বাহিরে। বক্তারা আরো উল্লেখ্য করেন গত ৩০.০১.১৭ইং সোমবার রাত ১১টায় বাদাঘাট বাজারে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার আগুনে পুরায় কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত বদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ,তার সহযোগী একই গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আলম শেখ (২০) ও বাদাঘাট গ্রামের শহিদুল্লার ছেলে রাজু মিয়া (২১)। এঘটনার প্রেক্ষিতে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ঝুমুর তালুকদার বাদী হয়ে উপরের উল্লেখিত ৩জন সন্ত্রাসীকে আসামী করে গত ০১.০২.১৭ইং বুধবার রাত ৮টায় মামলা নং-৫ দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের ঘটনায় আসামীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পরদিন ০২.০২.১৭ইং শুক্রবার রাত ২টায় বাদাঘাট বাজারের পার্শ্ববর্তী পৈলনপুর গ্রামের কালি মন্দিরের ২টি মূর্তি ভাংচুর করে। এঘটনায় ঝুমুর তালুকদার বাদী হয়ে থানায় আরো ১টি মামলা করেন। পৃথক ২টি মামলা দায়েরের পর পুলিশ রাজু মিয়াকে গ্রেফতার করলে সে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিলে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

এঘটনায় আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ ও আলম শেখ গং। এবং গত ১১.০৩.১৭ইং শনিবার রাত ১২টায় উপজেলার দক্ষিন বড়দল ইউনিয়নের টুকেরগাঁও গ্রামের সার্বজনিন কালি মন্দিরের ১০টি মূর্তি ভাংচুর করে। এঘটনার প্রেক্ষিতে মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবুল বর্মণ বাদী হয়ে গত ১৩.০৩.১৭ইং সোমবার বিকেলে মামলা নং-৮ দায়ের করেন। প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার পুরানো ও মূর্তি ভাংচুরকারী আসামীদের বিরুদ্ধে পরপর ৩টি মামলা দায়ের করার পরও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার না করায় ফুসে উঠে উপজেলার সর্বস্থরের জনসাধারণ। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এলাকার নেতাকর্মীরাসহ সাধারণ জনগন শুরু করে মানববন্ধন। এ

ঘটনার পর পুলিশ প্রশাসন তৎপর হয়ে উঠলে সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ ও আলম শেখ এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। এরপর হাবিব সারোয়ার আজাদ ও তার সহযোগী আলম শেখ দীর্ঘদিন পলাতক থেকে ও রাজু মিয়া জেল খেটে আদালত থেকে জামিন নিয়ে এলাকায় ফিরে আসতে না আসতেই আবারও চিকসা গ্রামের কালি মন্দিরের ৩টি মূর্তি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এঘটনার প্রেক্ষিতে গতকাল ০৩.০৭.১৭ইং সোমবার সকাল ১০টায় চিকসা শ্রীশ্রী কালি মন্দির কমিটির সভাপতি রনদা পুরকায়স্থ বাদী হয়ে মামলা নং-৩ দায়ের করেছেন।

সেই সাথে প্রশাসন তাদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান বক্তরা। উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ পুরকায়স্থ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন-উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল,উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম,উপজেলা আওয়ামীলীগ তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক স্বপন কুমার দাস,উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা সাধারন সম্পাদক হাফিজ উদ্দিন,উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন,উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ আহবায়ক অনুপম রায়,আওয়ামীলীগ নেতা রঞ্জু মুখার্জী,সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি শাহীনুর তালুকদার,উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি সুষেন বর্মন,রায়পাড়া কালি মন্দির পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক মনধীর রায় প্রমুখ।

 

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,চান মিয়া,ছাতক (সুনামগঞ্জ): ছাতকে প্রবাসির বাসার কেয়ারটেকার মহিলা ধর্ষণ ও লক্ষাধিক টাকা লুঠের অভিযোগে ৮জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।  মামলা দায়েরের পর থেকে আসামিরা গাঁ- ঢাকা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

ছাতক থানায় দায়েরি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩ইং) এর ৯(১) তৎসহ দঃবিঃ ১৪৩/৪৪৭/৪৪৮/৩৪১/৩৭৯ ধারায় মামলা নং ৬/১৭৩, তাং ০৩.০৭.২০১৭ইং মূলে অভিযোগ করা হয়, ২জুলাই গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউপির সুহিতপুর গ্রামের লন্ডন প্রবাসি নূরুন নাহারের বাসার কেয়ারটেকার নাজমা আক্তার (৩৫)কে ধর্ষণ ও ১লাখ টাকা লুঠে নেয়া হয়েছে।

সুহিতপুর গ্রামের জনৈক আলিমও ফয়জুল হকসহ ৮জন এঘটনা করেছে বলে মামলায় বলা হয়। ঘটনার পর লোকজন তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি বিভাগে (স্মারক নং ২৪৮, তাং ০২.০৭.২০১৭ইং) ভর্তি করেন।

এঘটনায় চিকিৎসাধিন নাজমা আক্তার সহোদর আব্দুল খালিকের মাধ্যমে ছাতক থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে থানায় এটি এফআইআর করা হয়। এরপর থেকে আসামিরা গাঁ- ঢাকা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ  হবিগঞ্জের চুনারুঘাট-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কে যাত্রীদের নিকট থেকে অতিরিক্ত অটোরিক্সা (সিএনজি) ভাড়া অদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে প্রতিদিনই যাত্রীদের সাথে সিএনজি চালকদের বাকবিতন্ডা সৃিষ্ট হয়। এছাড়াও উপজেলার প্রত্যেক সড়কে এমন অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ রয়েছে।
জানা যায়, চুনারুঘাট থেকে শায়েস্তাগঞ্জে নিয়মিত ভাড়া হচ্ছে ১৫ টাকা। কিন্তু চালকরা ভোর সকাল থেকে ১০টা পর্যন্ত যাত্রীদের নিকট থেকে ২০টাকা আদায় করেন। আবার সকাল ১০টার পরে ১৫টাকা নিচ্ছেন। এদিকে রাত ৮টার পর থেকে উপজেলার প্রত্যেক সড়কের যাত্রীদের কাছ থেকে যেখানে ৫টাকা ভাড়া সেখানে ১০টা নেওয়া হয়। এ নিয়ে যাত্রীদের সাথে সব সময় ঝগড়া বাধে। উপজেলার উল্লেখ্য উত্তর বাজার থেকে রানীগাঁও, গাজীগঞ্জ, সুন্দরপুর, মধ্যবাজার ডাকবাংলা স্ট্যান্ড থেকে নালমুখ, মিরাশী, কালেঙ্গা, ভোরাজুম, বাসুল্লা ও চুনারুঘাটের দক্ষিণ বাজার থেকে বাল্লা রোডের কাচুয়া, রাণীরকোট, রাজার বাজার, শুকদেবপুর, আমুরোড এবং আসামপাড়া সড়কের যাত্রীরা এ ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।
ভোক্তভোগী এক যাত্রী জানান, সিএনজি চালক সন্ধ্যা হলেই ভাড়া রেট বাড়িয়ে দেন। চুনারুঘাট থেকে রাইসমিল ৫টাকার ভাড়া, সেখানে নেওয়া হয় ১০টাকা। আমরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। এ বিষয়ে চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজাম মুনিরা জানান, আমি এ ব্যাপারে লিখিত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে নিশ্চই যথাযত ব্যবস্থা নেব।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,চান মিয়া,ছাতকঃ ছাতকে ৬দিনের ব্যবধানে নদীতে ভাসমান অজ্ঞাতনামা দু’যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গত ২৭জুন উত্তর খুরমা ইউপির কাকুরা খালে ও ৩জুলাই রাতে সিংচাপইড় ইউপির বটেরখাল থেকে পুলিশ এগুলো উদ্ধার করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২৭জুন রাতে কাকুরা খালের রুক্কা এলাকায় অজ্ঞাতনামা একযুবকের ভাসমান লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দেন। একইভাবে ৩জুলাই বিকেলে বটেরখালের সিরাজগঞ্জবাজার এলাকায় অজ্ঞাতনামা অপর এক যুবকের লাশ ভেসে যেতে দেখেন স্থানীয়রা।

পরে পুলিশ পৃথকভাবে এগুলো উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে লাশ দাফন করেছে। পুলিশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এব্যাপারে থানায় পৃথক দু’টি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,মিজানুর রহমান সৌদি আরব থেকেঃ কূটনৈতিক ও বানিজ্য সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সৌদি আরব ও তার তিন মিত্র দেশ কাতারকে যে ১৩ দফা শর্ত দিয়েছিল তার জবাব দিয়েছে দোহা। কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুল রহমান আল থানি সোমবার কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল আহমদ আল সাবাহ’র কাছে কাতারের শেখ তামিমের হাতে লেখা চিঠি হস্তান্তর করেন। তবে চিঠির বিষয়বস্তু প্রকাশ করা হয়নি।

এর আগে সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো তাদের দাবি পূরণের জন্য কাতারকে যে চুড়ান্ত সময়সীমা দিয়ে ছিল, তা ৪৮ ঘন্টা বাড়িয়ে দেয়। কাতারের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্কে উত্তেজনা প্রশমনে মধ্যস্থতা করছে কুয়েত। রোববার কুয়েতই চূড়ান্ত সময়সীমার মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন জানায়।
সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর গত ৫ জুন কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। একই সঙ্গে তারা দেশটির ওপর কঠোর অবরোধ আরোপ করে ।সম্পর্ক স্বাভাবিক ও অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য ২২ জুন চার দেশ কাতারকে ১৩ দফা শর্ত দেয়। শর্ত মেনে নেয়ার জন্য কাতারকে ১০ দিন সময় দেয়া হয়েছিল ।
কাতারকে দেওয়া শর্তের মধ্যে রয়েছে, দোহাকে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার, আল-জাজিরা টিভি নেটওয়ার্ক বন্ধ, ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন এবং তুর্কি সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করে দেওয়া।
কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদের দেয়া প্রথম সময়সীমা শেষ হওয়ার আগে বলেছিলেন, তার দেশ এসব শর্ত প্রত্যাখ্যান করছে। সোমবারই কাতারের নিয়োগ করা একজন ব্রিটিশ আইনজীবীও এসব দাবিকে ‘আন্তর্জাতিক আইন পরিপন্থি’ বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।
এদিকে শর্তের জবাবের বিস্তারিত প্রকাশ করা না হলেও সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দেল আল জুবেইর সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, তিনি আশা করছেন কাতারের জবাব ইতিবাচক হবে।
তিনি বলেছেন, ‘আমরা আশা করছি ইতিবাচক জবাব সমস্যার সমধান করতে সক্ষম হবে।’

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুরে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার আগুনে পুরানো ও পরপর ২টি কালি মন্দিরের মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় দায়েরকৃত পৃথক ২টি মামলার আসামীরা জামিনে বেড়িয়ে আসার এক মাস যেতে না যেতেই আবারো ১টি কালি মন্দিরের মূর্তি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

এঘটনার প্রেক্ষিতে গত রোববার রাত ১২টায় অভিযান চালিয়ে বাবুল মিয়া (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে সন্দেহ জনক ভাবে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত ব্যক্তি উপজেলার চিকসা গ্রামের মৃত নুরুল মিয়ার ছেলে। কিন্তু আসল সন্ত্রাসীরা রয়েছে ধরাচোয়ার বাহিরে।

এলাকাবাসী ও মামলা সূত্রে জানাযায়,গত শনিবার ভোরে সন্ত্রাসীরা উপজেলার তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের চিকসা গ্রামের শ্রীশ্রী কালি মন্দিরের তালা ভেঙ্গে ৩টি মূর্তি ভাংচুর করেছে সন্ত্রাসীরা।

এর আগে গত ৩০.০১.১৭ইং সোমবার রাত ১১টায় বাদাঘাট বাজারে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার আগুনে পুরায় কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত বদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ,তার সহযোগী একই গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আলম শেখ (২০) ও বাদাঘাট গ্রামের শহিদুল্লার ছেলে রাজু মিয়া(২১)। এঘটনার প্রেক্ষিতে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ঝুমুর তালুকদার বাদী হয়ে উপরের উল্লেখিত ৩জন সন্ত্রাসীকে আসামী করে গত ০১.০২.১৭ইং বুধবার রাত ৮টায় মামলা নং-৫ দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের ঘটনায় আসামীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পরদিন ০২.০২.১৭ইং শুক্রবার রাত ২টায় বাদাঘাট বাজারের পার্শ্ববর্তী পৈলনপুর গ্রামের কালি মন্দিরের ২টি মূর্তি ভাংচুর করে। এঘটনায় ঝুমুর তালুকদার বাদী হয়ে থানায় আরো ১টি মামলা করেন। পৃথক ২টি মামলা দায়েরের পর পুলিশ রাজু মিয়াকে গ্রেফতার করলে সে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিলে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

এঘটনায় আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ ও আলম শেখ। তারা গত ১১.০৩.১৭ইং শনিবার রাত ১২টায় উপজেলার দক্ষিন বড়দল ইউনিয়নের টুকেরগাঁও গ্রামের সার্বজনিন কালি মন্দিরের ১০টি মূর্তি ভাংচুর করে।

এঘটনার প্রেক্ষিতে মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবুল বর্মণ বাদী হয়ে গত ১৩.০৩.১৭ইং সোমবার বিকেলে মামলা নং-৮ দায়ের করেন। প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার পুরানো ও মূর্তি ভাংচুরকারী আসামীদের বিরুদ্ধে পরপর ৩টি মামলা দায়ের করার পরও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার না করায় ফুসে উঠে উপজেলার সর্বস্থরের জনসাধারণ। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এলাকার নেতাকর্মীরাসহ সাধারণ জনগন শুরু করে মানববন্ধন। এঘটনার পর পুলিশ প্রশাসন তৎপর হয়ে উঠলে সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ ও আলম শেখ এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এরপর হাবিব সারোয়ার আজাদ ও তার সহযোগী আলম শেখ দীর্ঘদিন পলাতক থেকে ও রাজু মিয়া জেল খেটে আদালত থেকে জামিন নিয়ে এলাকায় ফিরে আসে। আর তারা ৩জন ফিরে আসতে না আসতেই আবারও কালি মন্দিরের মূর্তি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

চিকসা গ্রামের কালি মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় গতকাল ০৩.০৭.১৭ইং সোমবার সকাল ১০টায় চিকসা শ্রীশ্রী কালি মন্দির কমিটির সভাপতি রনদা পুরকায়স্থ বাদী হয়ে মামলা নং-৩ দায়ের করেছেন। তাহিরপুর থানার ওসি তদন্ত আসাদুজ্জামান হাওলাদার মামলা দায়েরর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) থেকে : নওগাঁর আত্রাই প্রতিবন্ধী সাহায্য ও সেবা কেন্দ্রে দীর্ঘদিন থেকে কন্সালটেন্ট ও সহকারী কন্সালটেন্ট না থাকায় এলাকার হাজার হাজার প্রতিবন্ধী চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। একই সাথে সরকারের প্রতিবন্ধী জরিপ ও সেবা কার্যক্রম বিঘিœত হচ্ছে।

জানা যায়, আত্রাই উপজেলার ৮ ইউনিয়নে প্রায় সাড়ে তিন হাজারের অধিক প্রতিবন্ধী রয়েছে। ইতোমধ্যেই উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের আওতায় বেশ কিছু প্রতিবন্ধীর জরিপ সম্পন্ন হয়েছে। তারা সরকারের বিভিন্ন সুবিধা ভোগ করছে। প্রতিবন্ধী জরিপের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সনদ ও আনুসাঙ্গিক কাগজপত্র সম্পাদন করতে হয়। কিন্তু এ উপজেলায় দীর্ঘদিন থেকে কন্সালটেন্ট ও সহকারী কন্সালটেন্টের পদ শূন্য থাকায় একদিকে প্রতিবন্ধী জরিপ কার্যক্রম ও অপর দিকে প্রতিবন্ধীদের প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা চরম ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে।

এলাকার প্রতিবন্ধীদের সেবা নিশ্চিত করতে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতায় বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এ উপজেলায় প্রতিবন্ধী সাহায্য ও সেবা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। কেন্দ্রটি স্থাপনের পর এখানে প্রতিবন্ধী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে একজন কন্সালটেন্ট ও একজন ক্লিনিক্যাল ফিজিউথেরাপিষ্টসহ ৮ জন জনবল নিয়োগ করা হয়। নিয়োগের কয়েক মাসের মধ্যেই কন্সালটেন্ট ও ক্লিনিক্যাল ফিজিউথেরাপিষ্ট এর মত গুরুত্বপূর্ণ দু’টি পদ শূন্য থানায় এখানকার সকল কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে।

উপজেলার দিঘীরপাড় গ্রামের প্রতিবন্ধী শাহনাজ বলেন, আগে আমরা প্রাথমিক চিকিৎসাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা এখানেই পেতাম। এই অফিসের বড় স্যার না থাকায় আমাদের নওগাঁ গিয়ে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। যা আমাদের মত গরীব মানুষের জন্য খুবই কষ্টর।

মধুগুড়নই গ্রামের প্রতিবন্ধী হেলাল উদ্দীন বলেন, আমি এমনিতেই প্রতিবন্ধী হিসেবে চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি হয়। তারপরও আত্রাইয়ে জরিপের ডাক্তার না থাকায় আমার নওগাঁ যেতে হয় জরিপ করানোর জন্য। এতে একদিকে শারীরিক কষ্ট।

অপরদিকে টাকাও অনেক বেশি খরচ হচ্ছে। এলাকার বিপুল সংখ্যক প্রতিবন্ধীদের স্বার্থে অতি দ্রুত আত্রাই আত্রাই প্রতিবন্ধী সাহায্য ও সেবা কেন্দ্রে কন্সালটেন্টসহ সকল শূন্যপদে জনবল নিয়োগ দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকার সচেতন মহল।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,মিজানুর রহমান সৌদি আরব থেকেঃ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন চার আরব দেশের পক্ষ থেকে কাতারকে যে শর্ত বেধে দেয়া হয়েছিল তা চূড়ান্তভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে দোহা। ইতালি সফররত কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুর রহমান আলে সানি শনিবার রাতে এ ঘোষণা দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, রিয়াদ ও তার মিত্রদের পক্ষ থেকে দেয়া একটি শর্তও তার দেশ মানবে না। তিনি স্পষ্ট করে বলেন, ‘শর্তগুলো প্রত্যাখ্যান করা হলো।’গত ৫ জুন সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশর কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার পাশাপাশি জল, স্থল ও আকাশপথে দোহার ওপর কঠোর অবরোধ আরোপ করে। তাদের অভিযোগ, কাতার সন্ত্রাসবাদে মদদ দিচ্ছে। আরোপের প্রায় দু’সপ্তাহ পর অবরোধ তুলে নেয়ার জন্য দোহার কাছে ১৩ দফা শর্ত পাঠায় সৌদি জোট। এ সব শর্ত মেনে নেয়ার জন্য ১০ দিনের  সময়সীমা বেধে দেয়া হয়। সেই সময়সীমা শেষ হওয়ার ৪৮ ঘন্টা আগে তা চূড়ান্তভাবে প্রত্যাখ্যান করলেন কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
শেখ মোহাম্মদ বলেন, ‘প্রত্যেকেই জানেন যে যে, এই চাহিদাগুলোর লক্ষ্য কাতারের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করা, বাক স্বাধীনতা স্তব্ধ করে দেয়া এবং কাতারের কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি স্থাপন করা।’তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি বিশ্ব কোনো আল্টিমেটামের মাধ্যমে পরিচালিত হয় না বরং এটি পরিচালিত হয় আন্তর্জাতিক আইনের মাধ্যমে।
এই পৃথিবী পরিচালিত হয় এমন আইনের মাধ্যমে যা বড় দেশগুলোকে ছোট দেশগুলোর ওপর আধিপত্য বিস্তার করতে বাধা দেয়।’ কাতারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, সৌদি শর্ত প্রত্যাখ্যান করলেও সম্পর্ক স্বাভাবিক করার জন্য তার দেশ আলোচনায় বসতে প্রস্তুত রয়েছে।
এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কোনো সামরিক পদক্ষেপ নেওয়া হলে তাতেও দোহা ভীত নয় বলে জানিয়েছেন তিনি। এদিকে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবায়ের শনিবার বলেছেন, দোহার প্রতি যেসব শর্ত বেধে দেওয়া হয়েছে তা নিয়ে কোনো আলোচনা হবে না।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ কবি ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে বাংলাদেশের যশোর জেলার নোয়াপাড়ায় ঢাকাগামী একটি বাস থেকে উদ্ধার করেছে র‍্যাব।

স্থানীয় পুলিশ এবং র‍্যাব এই উদ্ধারের ঘটনা নিশ্চিত করেছে।যশোরের অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিসুর রহমান জানিয়েছেন, উদ্ধারের পর মি. মজহারকে থানায় নিয়ে আসা হয়।

র‌্যাবের মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান জানান, তাদের কাছে খবর ছিল ফরহাদ মজহার খুলনা এলাকাতেই রয়েছেন। সেই খবর অনুযায়ী তারা খুলনার বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালান।

র‌্যাবের একটি টহলদল নোয়াপাড়ার একটি বাস আটকে তল্লাশি করলে সেই বাস থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব বলছে, এখন তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য খুলনায় নিয়ে যাওয়া হবে।

উদ্ধারের সময় মি. মজহার একাই ছিলেন। তার আচরণেরও কিছু ‘অস্বাভাবিকতা’ দেখা যাচ্ছে বলে জানান অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

মি. মজহারের স্ত্রী ফরিদা আক্তার বিবিসিকে বলেন, তাকেও র্র‍্যাব থেকে তার স্বামীকে উদ্ধারের খবর জানানো হয়েছে। তিনি জানান, তার সাথে মোবাইল ফোনে মি. মজহারের কথাও বলিয়ে দেয়া হয়েছে, কিন্তু গলা শুনে তার স্বামীকে বেশ ক্লান্ত এবং হতচকিত মনে হয়েছে।

ফরহাদ মজহারকে সোমবার ভোর থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছিল তার পরিবার।

ঢাকার শ্যামলীর নিজের বাসা থেকে ভোর পাঁচটার দিকে একটা ফোন পেয়ে বের হয়ে যান ফরহাদ মজহার।

এরপর তার মোবাইল ফোন ব্যবহার করে একাধিকবার মুক্তিপণও দাবী করা হয়েছিল বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়।সুত্রঃ বিবিসি

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,মকিস মনসুর: সকলের অবগতির জন্য জানানো যাইতেছে যে. বাংলাদেশ হাইকমিশন বার্মিংহাম অফিস থেকে আগামী ৯ জুলাই  ২০১৭ সকাল ১১টা হইতে বিকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত   কার্ডিফের গ্রেঞ্জটাউনের দি হাভ.হাভেলক প্লেইস.সি এফ ১১ ৬পি এ. এই টিকানায়  (The Assistant High Commission of Bangladesh in Birmingham has decided to hold a Consular surgery at CARDIFF on Sunday, 9th  july 2017 at Grangetown Hub, Havelock Place, CF11 6PA.) বৃটেনের কার্ডিফে কনসূলার সার্ভিস প্রদান করা হবে।

উক্ত কনসূলার সার্ভিসে বার্মিংহামের সহকারী  হাইকমিশনার হিজএকেলেন্সী মোহাম্মদ  জুলকার নায়েন এর নেতৃত্বে হাইকমিশনের অন্যান্য অফিসারসবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন  বলে বামিংহাম হাইকমিশনের  এডমিনিস্ট্রেটিভ ও কনসূলার অফিসার এস এম গোলাম সরওয়ার এর পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে ।

ইতিমধ্যে টেক্সট মেসেজ,  ইমেইল,  ওয়াটসআপ. ও ফেইসবুক পেইজ সহ নিউপোট সোয়ানসী ও কার্ডিফের বিভিন্ন মসজিদ ও সেন্টারে গত শুক্রবার কমিউনিটির সহযোগীতা কামনা করে এই সু-খবরের ঘোষনা দেওয়া হয়েছে।

 

 

“হাওর,নদী,ছরা,খাল-বিল,জলাধারগুলো ভরাট,অবৈধ দখলের ফলে পানি ধারণ ও প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় বন্যার এমন ভয়াবহ রূপ বলে স্থানীয়দের মতামত”

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলায় তৃতীয় দফা বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি দীর্ঘ স্থায়ী রুপ নিয়েছে। গত কয়েকদিনে উজানে বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কুলাউড়া, জুড়ী ও বড়লেখা উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। এখনও জেলা সদরের সাথে বড়লেখা উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। জেলায় মোট ১৮৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাস্তাঘাট বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অনির্দ্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত খোলা হয়েছে ২৯টি বন্যা কবলিত মানুষের জন্য আশ্রয় কেন্দ্র ।

অপর দিকে নতুনকরে রাজনগর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়ন, মৌলভীবাজার সদর উপজেলার আখাইলকুড়া, নাজিরাবাদ ও গিয়াসনগর ইউনিয়নের বিস্তৃর্ণ এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। এ সব এলাকার রাস্তাঘাট সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

রমজান ও ঈদের টানা ছুটির পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোললেও শিক্ষার্থীরা যেতে পারেনি। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল আলিম জানান, জেলায় মোট ১৪২টি  বিদ্যায়ল ও ৪২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অনির্দ্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অপর দিকে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, হাওর পাড়ের মাধ্যমিক বিদ্যালয় গুলো মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে এবং তলিয়ে যাওয়ায় জেলায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে।

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছেন, কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যেকারণে হাকালুকি হাওরের পানি ভাটির দিকে প্রবাহিত হতে না পেরে উজানে বেড়ে বন্যার সৃষ্টি হচ্ছে। কুশিয়ারা নদীর পানি কিছুটা কমলেও এখনও বিপদ সীমার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। মার্চ ও এপ্রিলে বন্যার পর এটি মৌলভীবাজারে ৩য় দফা দীর্ঘস্থায়ী বন্যা।

এদিকে স্থানীয় মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, হাওর, নদী, খাল-বিল ও জলাধারগুলো ভরাট ও দখল হয়ে যাওয়ায় পানি ধারণ ও প্রবাহ  বাধাগ্রস্ত হওয়ায় বন্যা এমন রূপ নিয়েছে।

 জেলা প্রশাসক  মোঃ তোফায়েল ইসলাম জানিয়েছেন, জেলায় সর্বশেষ ২৯৪ মেট্রিক টন  জিআর চাউল ও নগদ ১০ লক্ষ টাকা এবং ৫৯ হাজার ২০০ ভিজিএফ কার্ডের ্র অনূকূলে ১০ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হয়েছে। সবমিলিয়ে তিন ধাপে ৬৫০ মেট্রিক টন  চাল, ৩০ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা ছাড়াও তিন মাসের জন্য ৫ হাজার ভিজিএফ কার্ডের অনুকূলে প্রতিমাসে  ৩০ কেজি করে চাল এবং ৫০০ টাকা করে দেয়া হচ্ছে।

এদিকে জেলা প্রশাসক মোঃ তোফায়েল ইসলাম রোববার কুলাউড়া ও জুড়ী উপজেলার কয়েকটি আশ্রয় কেন্দ্র  পরিদর্শন করেন বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেন। ত্রাণ সামগ্রহীর  মধ্যে ছিল জিআর চাউল, জিআর ক্যাশ ছাড়াও ৪০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করেন।

অপরদিকে গত রোববার কুলাউড়া, জুড়ী ও বড়লেখা উপজেলার বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ করেছে কেন্দ্রীয়  আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের নেতৃতে ও জেলা আওয়ামীলীগের ১ টি দল এবং কেন্দ্রী ছাত্রলীগের সাধারণ সমপাদক এসএম জাকির হোসাইন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, হুইপ মোঃ শাহাব উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুল শহীদ এমপি, সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ, আব্দুল মতিন এমপি, মৌলভীবাজারের পৌর মেয়র ফজলুর রহমান, জেলা যুবলীগ সভাপতি নাহিদ আহমদ  সহ প্রমুখ ।

জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ইউকের শোক প্রকাশ

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪জুলাই,খায়রুল লিংকন: জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ইউকের কেন্দ্রীয় সভাপতি, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য  ওয়েলস আওয়ামীলীগ লিডার মোহাম্মদ মকিস মনসুর  ও জেনারেল সেক্রেটারি  সাবেক ছাত্রনেতা লিয়াকত আলী এক যুক্ত বিবৃতিতে স্বাধীনতা যুদ্ধে রাজধানীর মিরপুর-মোহাম্মদপুর এলাকার হানাদার-বিহারীদের আতঙ্ক দুর্ধর্ষ গেরিলা গ্রুপ ‘মামা বাহিনী’ প্রধান।

অপরাজেয় বাংলা,র প্রতিষ্ঠাতা এবং  প্রধান উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা গেরিলা কমান্ডার ‘শহিদুল হক মামা’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের আত্তার মাগফেরাত কামনা করেছেন.। শোকবানীতে জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ইউকের কেন্দ্রীয় সভাপতি. যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মকিস মনসুর বলেন যুদ্ধাপরাধী কসাই কাদের মোল্লার যুদ্ধাপরাধ মামলার দ্বিতীয় সাক্ষী ছিলেন, শহীদুল হক মামা।

চরম হুমকি ও প্রলোভনের মুখেও অনড় থেকে কাদের মোল্লার মিথ্যাচার ও বিকৃত তথ্য উপস্থাপনের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে আদালতে হাজির হন তিনি।কাদের মোল্লা যখন নিজেকে প্রকৃত কাদের মোল্লা না, এবং নির্দোষ হিসেবে প্রমাণের চেস্টায় প্রায় সফল হচ্ছিল, ঠিক তখনই শহীদ মামা দ্বিতীয় সাক্ষী হিসেবে আদালতে হাজির হয়ে তাকে কুখ্যাত গোলাম আযমের সহচর, কবি মেহেরুন্নেসা, তার মা ও দুই ভাইকে ২৭ মার্চ , ১৯৭১ সালে সহযোগী হাসিব হাশমী,আব্বাস চেয়ারম্যান, আখতার গুন্ডা, নেহাল ও প্রমুখদের নিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা ও টুকরো টুকরো করার কসাই হিসেবে সনাক্ত করেন।

স্বাধীনতার শত্রু বিহারিদের দখলে থাকা দুর্ভেদ্য ঘাঁটি মিরপুর মুক্ত যুদ্ধে তিনি অসামান্য ভূমিকা রাখেন ৩১ জানুয়ারি ১৯৭২ সালে। মিরপুর-মোহাম্মদপুরকে শত্রুমুক্ত করতে, শহীদুল হক মামার নেতৃত্বে গঠিত হয়েছিল দুর্ধর্ষ গেরিলা গ্রুপ ‘মামা বাহিনী’। হানাদার-বিহারীদের আতঙ্ক এই ‘মামা বাহিনী’র কমান্ডার শহীদুল হক মামা রায়ের বাজার থেকে উদ্ধার করেছিলেন বাজারের ব্যাগভর্তি মানুষের চোখ।

জীবনের প্রতিটি পদে পদে বহু ভয়াবহ হুমকি, আক্রমণ ও প্রলোভনের মুখেও তিনি ছিলেন অকুতোভয় ও নির্ভীক । মাথা নত করেননি কোন প্রলোভনের কাছে। সৎ, নির্মোহ ও পরীক্ষিত আদর্শের এই লড়াকু সৈনিক । অতুলনীয় অতিথিপরায়ন, সদালাপী, বিনয়ী, বন্ধুবৎসল , নিরহংকারী, পরোপকারী মহানুভব মানুষ শহীদুল হক মামা’র মতো আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের নজির সমাজে তুলনাহীন।