Saturday 23rd of September 2017 04:30:52 AM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,জুড়ী  প্রতিনিধিঃ   মৌলভীবাজারের জুড়ী শহরের প্রবেশ পথে এখন জলাবদ্ধতা নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই হাটু থেকে কমর পানিতে পরিণত হয় এ পথ।  এছাড়াও বন্যা ও জুড়ী নদীর পানি ভরাট হয়ে ড্রেন দিয়ে পানি প্রবেশ করে বছরের বেশিরভাগ সময় এ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। দূরের অজানা পথিক এ রাস্তা দিয়ে আসলে হঠাৎ বিড়ম্বনায় পড়তেই হয়। কারণ এ গভীরতা অনেকেরই জানা নেই। জুড়ী পোষ্ট অফিস রোডস্থ কুলাউড়া -শাহবাজপুর রেল লাইনের নিচ দিয়ে জুড়ী-কুলাউড়া-বড়লেখা-মৌলভীবাজার যাওয়ার একমাত্র সড়ক যোগাযোগের মাধ্যমই ওই রাস্তা।

জলাবদ্ধতার কারনে যানবাহন পানিতে আটকে পড়ে চলন্ত গাড়ী বন্ধ হওয়ার কারনে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে করে পথচারীসহ যাত্রীসাধরণের ভোগান্তির অন্ত থাকে না। দীর্ঘদিন থেকে লাতুর ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গেলেও এ সড়ক পথের সমস্যার কোনো সুরাহা হয়নি। বর্তমানে রেল লাইনের  গার্ডার, স্লিপার পড়ে শুধু উপরে রেল লাইনটি ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে।

এমতাবস্থায় যে কোনো মুহুর্তে তা পড়ে দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। তা নিরসনে সচেতন মহল উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন। এব্যাপারে জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্টু চৌধূরী বলেন, আমি ইহা স্বচক্ষে দেখে তা নিরসনের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট রিপোর্ট প্রেরণ করেছি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,বেনপোল প্রতিনিধি: কুমিল্লার লাকসামে রাজস্ব আহরণের অভিযানে গিয়ে লাঞ্ছিত ৯জন শুল্ক কর্মকর্তার ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ও ৬দফা দাবি বাস্তবায়নের জন্য মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন করেছে বেনাপোল কাস্টম হাউসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

শনিবার সকালে বেনাপোল কাস্টম হাউস প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বেনাপোল বন্দরে ২ ঘণ্টা বন্ধ ছিল আমদানি-রফতানি কার্যক্রম।

মানববন্ধন শেষে বেনাপোল কাস্টম হাউসের বাকাএভের বেনাপোল শাখার সভাপতি রাজস্ব কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বাঙালী লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘গত ১২ জুন সোমবার রাতে কুমিল্লার লাকসামে ভারতীয় অবৈধ মসলা মজুদ থাকার খবর পেয়ে অভিযান চালাতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন ২নারীসহ কাস্টমসের ৮ কর্মকর্তা। এই সময় হামলাকারীরা কাস্টমস কর্মকর্তাদের পিটিয়ে গুরুতর জখম করে সাথে থাকা মোবাইল ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৯ কর্মকর্তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে।’

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অবিলম্বে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।’ মানববন্ধন থেকে কাস্টমস কর্মকর্তাদের ৬ দফা বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়।

দাবিগুলো হলো, পদবির নাম বদল, ঝুঁকি ভাতা প্রদান, অস্ত্রসহ গ্রেফতারের ক্ষমতা প্রদান, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সিলেকশন গ্রেড ও টাইম স্কেল প্রদান, চাকরিতে স্থায়ীকরণসহ যথাসমায়ে পদোন্নতি দ্রুত নিয়মিতকরণ এবং কর্মকর্তাদের পোশাক বাধ্যতামূলক করা।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বেনাপোল কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা শহীদুল্লাহ আবু তাহের, আবুল কালাম আজাদসহ কাস্টম হাউসের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ  নওগাঁর আত্রাই উপজেলার জামগ্রাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে বাংলা ভাইয়ের উন্নতম সহযোগী মোঃ শহিদুল ইসলাম (৪৫) নামে তালিকাভুক্ত এক জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
তথ্যঅনুসন্ধানে জানাযায়, জেএমবি সদস্য মোঃ শহিদুল ইসলাম উপজেলার জামগ্রাম গ্রামের সাহাদ আলীর ছেলে। এ তথ্য নিশ্চিত করে আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুদ্দোজা জানান, ২০০৪ সালে জেএমবির উত্থান হয় এলাকায়।সে সময় বাংলা ভাই সর্বহারা নিধন নামে অবৈধ্য হত্যাযজ্ঞ মারপিট , লুটতরাজ, ভাংচুরে মেতে উঠেন।

এ সমস্ত কর্মকান্ডে শহিদুল ইসলাম সক্রিয় অংশ গ্রহন করেন। দীর্ঘদিন ধরে শহিদুল ইসলাম পলাতক ছিলেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আত্রাই থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টার তাকে রেলওয়ে স্টেশন এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে থানায় চাঁদাবাজির ২টি মামলা রয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাইঃ,নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ  নওগাঁর আত্রাই থানা যুবদলের কর্মীসভা ও ঈদ পুনঃর্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার আত্রাই থানা যুবদলের উদ্যোগে এ উপলক্ষে এক র‌্যালী বের করা হয়।

পরে স্থানীয় চৌধুরী মিলে থানা যুবদলের সভাপতি ও আত্রাই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান একরামুলবারী রঞ্জুর সভাপতিত্বে কর্মী সমাবেশ ও ঈদ পুনঃর্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির অন্যতম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন বুলু।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ জেলা যুবদলের সভাপতি বায়েজিদ হোসেন পলাশ, সহসভাপতি সরদার ছাইফুল ইসলাম সাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মো: ফারুক, আত্রাই থানা বিএনপির আহবায়ক এসএম রেজাউল ইসলাম রেজু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, তছলিম উদ্দিন, আব্দুল হাকিম, আব্দুল জলিল চকলেট, আব্দুল মান্নান সরদার, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ ইকবাল, আশরাফুল ইসলাম লিটন, আসাদুজ্জামান বুলেট, আত্রাই থানা যুব নেতা নাসির উদ্দিন চঞ্চল, ছাত্রদল নেতা রায়হান কবির রতন প্রমুখ।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,ডেস্ক নিউজঃ   তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফিকরি ইসিক বলেছেন, চলমান সংকট নিরসন করার ক্ষেত্রে সৌদি আরব ও অন্য আরব দেশগুলোকে কাতারের অধিকারের প্রতি সম্মান দেখাতে হবে। এজন্য তিনি দু পক্ষের মধ্যে আন্তরিক সংলাপ অনুষ্ঠানের আহ্বান জানান।

গতকাল (শুক্রবার) আংকারা সফররত কাতারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খালেদ বিন মুহাম্মাদ আল-আতিয়ার সঙ্গে বৈঠকে ফিকরি এসব কথা বলেছেন। তিনি সমস্যায় জড়িত দু পক্ষকেই ভ্রাতৃপ্রতীম দেশ বলে উল্লেখ করেন। তবে সংকট শুরুর পর থেকে তুরস্ক জোরালোভাবে কাতারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। এ জন্য কাতারে অবস্থিত তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধের জন্য চাপ সৃষ্টি করেছে সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব দেশগুলো।

ফিকরির সঙ্গে বৈঠকের পর আল-আতিয়া জানান, কাতারে তুর্কি সামরিক ঘাঁটির বিষয়টিই আলোচনায় প্রাধান্য পেয়েছে। তিনি বলেন, “কাতার ও তুরস্কের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে এবং তুরস্কের সঙ্গে প্রতিরক্ষা সম্পর্ক জোরদার করার প্রেক্ষাপটে আমার এ সফর অনুষ্ঠিত হচ্ছে।”পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দের এক যৌথ সভা কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের শ্রীগোবিন্দপুর চা বাগানের কোম্পনী বাংলোতে অনুষ্ঠিত হয়। শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপির সিনিয়র নেতা আতাউর রহমান লাল হাজীর সভাপতিত্ব  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় অনুষ্ঠিত এক সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি নেতা ও শ্রীমঙ্গল পৌরসভার মেয়র মহসীন মিয়া মধু।

বিএনপি নেতা সরফরাজ আলী বাবুলের স ালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক এম, ইদ্রিছ আলী, শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপি নেতা ইয়াকুব মিয়া, কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কমলগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সৈয়দ সালেহ আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া শফি, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র হাছিন আফরোজ চৌধুরী, সাবেক পৌর মেয়র আবু ইব্রাহীম জমসেদ, মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু, মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান চৌধুরী, পতনঊষার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সেলিম আহমদ চৌধুরী, হাজী এখলাছুর রহমান, বিএনপি নেতা এড: আব্দুল আহাদ, ইকবাল পারভেজ চৌধুরী শাহীন, আনোয়ার হোসেন বাবু, আলম পারভেজ সোহেল প্রমুখ। সভায় কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা বিএনপির বিবদমান দুই গ্রুপের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বক্তারা কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল নির্বাচনী এলাকা থেকে অতীতে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতাকারী বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীর তীব্র সমালোচনা করে তাকে বয়কট করার ঘোষনা দেন।

বক্তারা বলেন, হাজী মুজিব কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গলে বিএনপির অনেক ক্ষতি করেছেন। দলের নেতাকর্মীদের সাথে দুরত্ব রয়েছে তার। তিনি দলের চেয়ে তার নিজস্ব প্রতিষ্ঠান হাজী মুজিব ফাউন্ডেশনকে ব্যবহার করে সরকারী দলের দালালী করছেন। তিনি অনৈতিকভাবে বিভিন্ন ব্যবসার সাথে জড়িত রয়েছেন। তাই সংগঠনের অস্তিত্ব রক্ষার স্বার্থে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল এলাকা নিয়ে গঠিত মৌলভীবাজার-৪ আসনে হাজী মুজিবকে বাদ দিয়ে একজন যোগ্য ও দলের নিবেদিত ব্যক্তিকে মনোনয়ন প্রদানের জন্য সভা থেকে দলীয় হাইকমান্ডের কাছে জোর দাবী জানান। সভায় হাজী মুজিবের বিরুদ্ধে কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গলে বিএনপির ত্যাগী নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।
সভা সূত্রে জানা যায়, মৌলভীবাজার-৪ (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল) আসনে বিএনপির তৃণমুল পর্যায়ে সভা করে সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে শীঘ্রই দলের মহাসচিবের সাথে দেখা করবেন। সভায় উপস্থিত বিএনপি নেতা কমলগঞ্জের মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু ও বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন বাবু বিএনপির যৌথ সভা ও হাজী মুজিবকে বয়কট করার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে নিশ্চিত করেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীর সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) থেকেঃ কালের বির্বতনে নওগাঁর আত্রাইায়ের হাট-বাজারে আর জৌলুশ নেই নরসুন্দরদের। আগে হাট-বাজারে রাস্তার পাশে বা গাছতলায় বসে খৌরকর্ম করত নরসুন্দর বা নাপিতরা। কোন কোন এলাকায় এদের শীল বলেও অবহিত করা হতো। পেশার ধরন পরিবর্তন হওয়ায় অনেক স্থানে এদের আর দেখা যায় না। তবে যারা আজও আধুনিক সেলুনের ব্যবস্থা করতে পারেনি তারা রয়ে গেছে রাস্তায় বা গাছ তলায়। আবার কেউ কেউ দক্ষতার অভাবে পুরনো নিয়মে পেশাকে আকড়ে ধরে আছেন।

এদের একজন নওগাঁর আত্রাই উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বিমল চন্দ্র শীল কান্দুর। হাটে হাটে বসে পুরোনো দিনের মতো চুল দাড়ি কামানোর প্রথাকে আঁকড়ে ধরে রুটি রুজির সন্ধানে আজও ব্যস্ত সময় পার করছেন। হাটে হাটে প্রতিদিন যা আয় হয় তা দিয়ে চলে তার সংসার। বিমল চন্দ্র শীল কান্দুর বলেন, আজও আমি গাছের নিচ থেকে উঠে এসে বড় আয়না ঝুলানো দোকান দিতে পারিনি। তাই আজও বট বা বড় কোন গাছের নিচে বসে বিভিন্ন হাট-বাজারে আপন মনে এই পেশা আঁকড়ে ধরে আছি।

যুব সম্প্রদায়ের কেউ আর তার কাছে এই পিড়েয় বা ইটে বসে চুল দাড়ি কামাতে আসে না। সেলুনে যেতে যারা টাকার ভয় করে সেই মানুষগুলো চুল দাড়ি কামানোর জন্য তার কাছে আসে।
আলাপচারিতায় উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের র্স্বগীয় রবি শীলের পূত্র গৌতম শীল বলেন, আমি ছোট বেলা থেকেই ক্ষুর, কেচি নিয়ে বাবার হাত ধরে এ পেশায় নেমে পড়েছি। এ পেশায় নিজেকে দক্ষ কারিগর হিসাবে গড়ে তুলতে আর অভাবের সংসারের হাল ধরতেই লেখাপড়া করতে পারিনি। ছোট বেলা থেকে অভাব অনাটন সাথে নিয়ে কোন রকমে এই কাজ করে আজও বেঁচে আছি। এ কাজে অনেকের ভাগ্যের অনেক পরিবর্তন হলেও তার ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয়নি বলেও জানান তিনি। এ প্রজম্নোকে উদ্দেশ্য করে উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বাংলাদেশ রেলওয়ের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল আজিজ জানান, জমিদার আমলে হিন্দু সম্প্রদায়ের শীল পরিবারের সদস্যরা নরসুন্দর বা নাপিতের কাজ করতো।

জমিদার আমলে এ পেশার বৈশিষ্ট্য ছিলো রমরমা। তখন তারা হাট বাজারে দল বেঁধে কাজ করতো। এলাকা ভেদে বিয়ের দিন বা আগের দিন বর ও কনের বাড়িতে নরসুন্দরদের ডাক পড়তো। সামাজিক আচার অনুষ্ঠানে তাদের একটা অংশ গ্রহণ ছিল। কালের বির্বতনে নরসুন্দর পেশার এখন ধরণ বদলেছে। রাস্তা ফুটপাত ও গাছ তলা থেকে উঠে এসেছে চক চকে দোকানের মধ্যে। এ পেশায় আধুনিকতার ছোঁয়া লাগায় এখন আর সেই আগের দিনের মত এ পেশার আর বাদ বিচার নেই। কোন বিশেষ শ্রেণীর মানুষ এখন আর এই পেশায় নেই। বরং সকল সম্প্রদায়ের কেউ না কেই এ পেশায় জড়িয়ে পড়েছে।

আধুনিক সভ্যতার এ যুগে নরসুন্দরা তাদের সেই পুরানো পেশা পরিবর্তন করে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগায় তাদের জীবন ধারা অনেক পাল্টে গেছে। সেই সাথে হাট বাজারে ফিড়েয় বা ইটের ওপর বসে নাপিতদের চুলদাড়ি কামানোর পুরনো দিনের কর্ম প্রায় হারাতে বসেছে।

তবে এখনও কোথাও কোথাও ছড়িয়ে ছিটিয়ে হাট বাজারে তাদের কাজ করতে দেখা যায়। ছোট বেলায় বাবার সাথে হাটে গিয়ে ফিড়েয় বা ইটে বসে চুল কেটেছি। আবার নাপিতরা বাড়ি বা গ্রামের মহল্লায় এসে নির্দিষ্ট স্থানে বসে সবার চুল দাড়ি কামিয়ে দিত।

অনেকে নগদ পয়সা দিতো আবার অনেকে বছর ভিত্তিক ফসল উঠলে তাদের ধান পাট গম ছোলা দিয়ে চুলদাড়ি কামানোর টাকা পয়সা পরিশোধ করার রেওয়াজ ছিল।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) থেকেঃ  চুনারুঘাটে অপহরণ মামলার ভিকটিম সফর চাঁনকে উদ্ধার ও আসামী আমজত মিয়াকে গ্রেফতার করেছে চুনারুঘাট থানা পুলিশ।

জানা যায়, গত শুক্রবার রাত ২টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুনারুঘাট থানার এস.আই জুলহাস উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌপট গ্রামের আব্দুল হাই’র বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২ সন্তানের জননী অপহরণ মামলার ভিকটিম সফর চাঁন (২২) কে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

সেই সাথে অপহরণ মামলার আসামী উপজেলার সাটিয়াজুরী ইউনিয়নের পনারগাঁও গ্রামের নিয়ামত মিয়ার পুত্র আমজত মিয়া (৩৫) কে গ্রেফতার করে চুনারুঘাট থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

চুনারুঘাট থানার মামলা নং- ৩৭/২০০, তারিখ- ২৩/০৬/২০১৭ইং, ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সে/০৩ এর ৭ ধারা।

এদিকে আজ শনিবার সকাল ১১টায় ভিকটিম সফর চাঁনকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয় এবং গ্রেফতারকৃত আসামী আমজত মিয়াকে হবিগঞ্জ জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

“আমার বাবারে আইনা দাও। আমার বাবারে ছাড়া কেমনে দিন কাটব বলে নিহতের মায়ের কান্না”

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের টাংগুয়ার হাওরে পানিতে ডুবে নিহত এমসি কলেজ মেধাবী ছাত্র আশরাফুল ইসলাম হাসানের (২৩) লাশ দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার ১১টার সময় ধর্মপাশা উপজেলার বাদশাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ মাঠে জানাযার নামাজ অনুষ্টিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব খাঁ,তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কারুজ্জামান কামরুল,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুল হক,ধর্মপাশা উপজেলার সেলবরস ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আলী আমজাদ,ধর্মপাশা উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক লুৎফুর রহমান উজ্জল সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্ধ সহ এলাকার সর্বস্থরের মানুষের অংশ গ্রহনে কানায় কানায় পূর্ন হয় মাঠ। জানাযার নামাজ শেষে সেলবরস ইউনিয়নের এলাকাবাসীর সম্মিলত কবর স্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

জানাযায়, বাবা চাঁন মিয়া সুনামগঞ্জ গনর্পূত বিভাগে নিরাপত্তা প্রহরীর চাকরীর সুবাধে সুনামগঞ্জের হাজি পাড়াস্থ সরকারী কোয়াটারে থেকেই স্কুল জীবন শুরু করে। উন্নত লেখা পাড়ার সুবাধে চলে আসে সিলেটে। ভর্তি হয় এমসি কলেজে উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগে। পড়াশুনা ছিল মেধাবী তার জন্য সবার একটু ভাল লাগা ছিল ছিল সবার প্রিয় পাত্র। শেষ মুর্হুতে ৪র্থ বর্ষে ছিল হাসান। ৩বোন এক ভাইয়ের মধ্যে হাসান দ্বিতীয়।

একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে নির্বাক হয়ে তাকিয়ে আছে বাবা চাঁন মিয়া আর মায়ের নাড়িছেড়া ধন হারানো বেদনায় বার বার মূর্চা যাচ্ছে। বার বার শুধু বলছেন আমার বাবারে আইনা দাও। আমার বাবারে ছাড়া কেমনে দিন কাটব। বাবা আমার কেমনে আমরারে ছাইড়া চলইলা গেল। কোন ভাবেই শান্ত করা যাচ্ছে না মায়ের মন। মায়ের আতœ চিৎকারে এলাকার এক হ্নদয় বিধারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। আতœীয় স্বজন ও পাড়া প্রতিবেশীরা নিজেদের চোখের জল ধরে রাখতে পারছে না। একমাত্র সন্তান কে হারিয়ে বাবা চাঁন মিয়া একবারেই হাত পা ছেঁেড় বসেছে। কারন একামাত্র সন্তান কে নিয়ে ছিল তার অনেকে স্বপ্ন সব স্বপ্ন এভাবে এক মূর্হূতে নিঃশ্বেস হয়ে যাবে কোন ভাবেই তা মানতে পারছেন না তিনি। নিহতের বাবা চাঁন মিয়া বলেন,বাবারে নিয়া অনেক স্বপ্ন ছিল আমরার সব শেষ হইয়া গেল। ভাল ছাত্র ছিল কষ্ট করে তাই লেখা পাড়া করার লাগি সিলেটে এমসি কলেজে পড়াইতা ছিলাম কেরে যে বাবা আমার হাওরে গেল না গেলে ত এমন হইত না। আমার বুকটা খালি করই দিয়া গেল। কেমনে বাঁচমো তারে ছাড়া আমরা। নিহতের তিন বোন ভাই হারানো বেদনায় মা,বাবাকে জরিয়ে চিৎকার করে শুধুই চোঁেখর জল ফেলছে। এমসি কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী হাসানের অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে তার নিজ এলাকা সেলবরস ইউনিয়নে সহ উপজেলা জুড়ে। হাসানের মৃত্যু খবর শুনে ছুঠে আসছে তার সহপাটি সহ এলাকাবাসী। সবাই নির্বাক দৃষ্টিতে না ফেরার দেশে চলে যাওয়া হাসানের পরিবারের দিকে তাকিয়ে আছে আর শান্তনা দিচ্ছে পরিবারের সকল সদস্যদের কে। এভাবে অকালে না ফেরার দেশে চলা যাওয়া কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছে না তার র্দীঘ সময়ের সহপাটিরা। হাসানের সহপাটি এহসানুল হক মুন্না,অভি,অপু তালুকদার সহ সবাই ভুকভাড়া র্দীঘশ্বাস আর কান্না জরিত কণ্ঠে জানায়,হাসান আমাদের ছেড়ে এভাবে চলে যাবে তা কোন ভাবেই মানতে পারছি না পারছি না ভাবতে। এখন ও ভুলতে পারছি না আমরা গতকাল এক সাথে ট্যাকেরঘাট,বারেকটিলা,লামকাছড়া ও টাংগুয়ার হাওরে বেড়ানো ও গোসল করার মুর্হুত গুলো। কত আনন্দ করেছি আমরা সবাই মিলে। আজ হাসান আমাদের মাঝে নেই তা মানতে খুব কষ্ট হচ্ছে। নিজের হাতে আমাদের প্রিয় বন্ধু কে এভাবে মাটি দিতে হবে তা কখনোও ভাবি নি। আমরা আর তার সাথে কথা বলতে পার না পারব না আড্ডা দিতে ভাবতেই বুকটা হাহাকার করে উঠে। নিহত হাসানের চাচাত ভাই সিদ্দিকুর রহমান ও মোফাজ্জল হায়দার বলেন,হাসান খুবেই মেধাবী ছাত্র ছিল আমরা সবাই তাকে নিয়ে অনেক স্বপ্নœ দেখে ছিলাম আজ সব শেষ হয়ে গেলে। সে পরিবারের সবার আদরের ছিল। এই ভাবে যে আমাদের ছেড়ে ছলে যাবে ভাবতে পারছিনা। এবার ঈদে বাড়ি আসে নি। এই ত বাড়ি আসল একবারে নিরব নিতর দেহটা। আর তার মুখে বড় ভাই ডাক শুনব না মনে হলে কষ্টে বুকটা ভেঙ্গে যায়। উল্লেখ্য,সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের গত মঙ্গলবার ঈদ উপলক্ষে সকালে সিলেট থেকে হাসান মিয়া (২৩) ও তার কলেজের বন্ধু সহ মোট ২১জনের একটি দল ট্যাকেরঘাট,টাংগুয়ার হাওর সহ বিভিন্ন পর্যটন স্পটে বেড়াতে আসে। রাতে ট্যাকেরঘাট অবস্থান করে আজ বুধবার দুপুরে ইঞ্জিন চালিত ট্রলার যোগে টাংগুয়ার হাওরে বেড়াতে যায়। বেড়ানোর এক প্রর্যায়ে টাংগুয়ার হাওরের ওয়াচ টাওয়ারের পাশে নৌকা রেখে সবাই গোসল করতে নামে। গোসল শেষে সবাই নৌকায় উঠে কাপড় পরিবর্তন করে তাহিরপুরের উদ্যোশে রওনা করে। এক সময় সবাই হাসানের মোবাইল নৌকার উপড়ে দেখতে পায় কিন্তু হাসান কে নৌকার উপরে ও ভিতরে না পেয়ে সবাই নৌকা ঘুড়িয়ে ওয়াচ টাওয়ারে কাছে যায়। সেখানে গিয়ে অনেক খোঁজা খুজির পর তারা ওয়াচ টাওয়ারে পাশেই হাসানের মৃত দেহ ডুবন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। সাথে সাথে তাকে উদ্ধার করে বিকাল সাড়ে ৫টায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তারগন থাকে মৃত ঘোষনা করেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১জুলাই,সদেরা সুজন,সিবিএনএ কানাডা থেকেঃ   গত ২৮ জুন, বুধবার থেকে শুরু হয়েছে মন্ট্রিয়লের সবচে বড় সংগীতের অনুষ্ঠান ফেস্টিভ্যাল ইন্টারন্যাশনাল দ্য জ্যাজ দ্য মরিয়াল ২০১৭। মন্ট্রিয়লের ডাউনটাউনের প্লাস দ্যা আটসে অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক জ্যাজ ফেস্টিভ্যালের ৩৮তম আসর। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে যেমনি নামিদামি সঙ্গীত শিল্পীরা উপস্থিত হয়েছেন গান পরিবেশনের জন্য ঠিক তেমনি বিভিন্ন দেশ ও শহর থেকে সঙ্গীত পিপাষুরাও উপস্থিত হবেন এমন উৎসবে।

চলবে আগামী ৮ জুলাই পর্যন্ত। উৎসব এলাকা বিভিন্ন ধরনের গেইট এবং রকমারি স্টল দিয়ে সাঁজনো হয়েছে, বানানো হয়েছে বিশাল বিশাল মঞ্চ। ‘রিয়ো টিনটো এ্যালকন’ ‘টিডি ব্যাংক’ ‘লটো ক্যুইবেক’ বিভিন্ন নামে বেশ ক’টি বিশাল মঞ্চ থেকে গান পরিবেশনের পাশাপাশি ছোট ছোট মঞ্চ থেকেও গান পরিবেশিত হবে, এছাড়া ইনডোর গানের আসরতো থাকছেই।

দশ দিন ব্যাপি বিশ্বখ্যাত সঙ্গীত শিল্পীর গানের পাশাপাশি রাস্তায় রাস্তায় থাকছে বিভিন্ন রকমের বিনোদন মূলক ম্যাজিক, নৃত্য, শিশু-কিশোরদের জন্য অনুষ্ঠান। জ্যাজের প্রথম দিন থেকেই ওয়েদার গুমুটবেঁধে আছে, প্রথম দিনে মাঝেমধ্যে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হলেও গতকাল ও আজ শনিবার এমনকি আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত ওয়েদার ভালো হবার সম্ভাবনা নেই বলে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে ফলে বৃষ্টির মধ্যেই জ্যাজের অনুষ্ঠান দেখতে হবে বলে মনে হচ্ছে। গত দু’দিনে বৃষ্টির মধ্যেও  আউটডোর শোগুলোতে দর্শক শ্রোতার ঢল নেমেছে।

শৈত্যপ্রবাহ আর তুষারপাতের দেশ বলে খ্যাত কানাডার মন্ট্রিয়লে সামার মানে সম্পূন্ন ভিন্নরকমের অবিশ্বাস্য একটি শহর। সামারে কানাডার বিভিন্ন প্রদেশের শহরে শহরে রকমারি অনুষ্ঠান লেগেই থাকে। সামার মানেই বিভিন্ন উৎসবের শহর, আনন্দের শহর, বিনোদনের শহর। সাউন্ড সিস্টেমে মিউজিকের ঝংকার আর ক্যামেরার ক্লিকে শত শত, হাজার হাজার  পর্যটকের পদভারে মুখরিত শহর।  প্রবল তুষারপাত আর জীবন যুদ্ধের বিরতীহীন ক্লান্ত জীবনে সামার মানেই দুদন্ড বিনোদন আর আনন্দ উপভোগের সময়। পরিবার পরিজন নিয়ে একান্তে কিছুটা ক্ষণ যাপনের সময়। বহুদেশ, বহুজাতি, বহুমুখী  সংস্কৃতি আর বহুমুখি সৌন্দর্যের দেশ কানাডার ক্যুইবেক প্রদেশের সেন্ট লঁরা নদীর পাদদেশে আইল্যান্ডের নাম মন্ট্রিয়ল। মন্ট্রিয়লের পাশে রয়েছে নদী ডেম্প, আর সবুজ বনানীঘেরা বনাঞ্চল।

শীতকালে সাদা তুষারপাতে ঢেকে রাখে সব কিছু যেমনি, সামারেও দেখার মতো সবুজে সবুজ। আবার সামারের শেষান্তে ম্যাফল  লীফের বাহারি রং। কী অদ্ভুত সুন্দর ম্যাফল লীফ। মনে হয় যেনো তাবৎ পৃথিবীটাই রঙ্গীন অদ্ভুত সুন্দর। সামারে ঝাঁকে ঝাঁকে  বিভিন্ন জাতের পাখিরা সারিবব্ধ হয়ে নীলাকাশের নিচ দিয়ে কি সুন্দরভাবে কানাডায় ফিরে আসে খাবারের সন্ধানে, লেইকগুলো ভরে যায় পাখির কলকাকলিতে, আর নদীগুলো ভরে যায় স্পীড বুট আর রকমারী নৌপরিবহনের পর্যটকদের ভীড়ে।

একের পর ফেস্টিভ্যালের জন্য পর্যটকদের আগমনে আর মিউজিকের শব্দে আনন্দ উল্লাসে মেথে উঠে মন্ট্রিয়ল। ফ্রাঙ্কোফলি, আন্তর্জাতিক জ্যাজ ফেস্ট, জাস্ট ফর লাফ্স, ফেস্টিভ্যাল ইন্টারন্যাশনাল নূঁই দাফ্রিকান, গেঁই ফেস্ট, আর্ট ফেস্টিভ্যাল, বিশ্ব চলচ্চিত্র উৎসব, ফায়ার ওয়ার্কস,  ফেন্টাসিয়া, নেটিভ ফ্যাস্টিভ্যালসহ কত রকমারি উৎসবে নান্দনিক সাঁজে আর লাখো মানুষের কলরবে জেগে ওঠে মন্ট্রিয়ল।

মূলত সারা বছরবব্যাপী বিভিন্ন রকমের অনুষ্ঠান থাকলেও মে মাস থেকেই উৎসবগুলোতে মানুষের বহর বেড়ে চলে। জুন মাসের শুরুতে গ্রান্ডপ্রি কিংবা কার রেইস প্রতিযোগিতা শেষ হতে না হতেই ক্যুইবেকবাসীদের প্রিয় সঙ্গীত উৎসব ফ্রাঙ্কোফলি জুন ১১ থেকে জুন ২২ পর্যন্ত চলছিলো। ২৮ জুন থেকে শুরু হবে ৩৮তম আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন জ্যাজ ফেস্টিভ্যাল, চলবে ৮ জুলাই পর্যন্ত ডাউন টাউনের প্লাস দ্যা আর্টসে। ১লা জুলাই ১৫০তম কানাডা দিবস উপলক্ষে সারাদিনব্যাপি চলবে বিশেষ বিশেষ রকমারি অনুষ্ঠান।

সারা কানাডার মতো মন্ট্রিয়লের ওল্ড পোর্টে সকাল থেকে অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হবে, বিশাল নান্দনিক প্যারেডের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন রকমের প্রদর্শনী আর রাতে ওল্ড মন্ট্রিয়লের পোর্টে চলবে ফায়ার ওয়ার্কস। ২৮ জুন থেকে শুরু হবে আন্তর্জাতিক আর্ট ফেস্ট (ফিমা)চলবে ২ জুলাই পর্যন্ত। মন্ট্রিয়ল আন্তর্জাতিক ফায়ার ওয়ারকর্স প্রতিযোগিতা শুরু হবে ১ জুলাই শনিবার থেকে চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এই আতশবাজি উৎসবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ অংশগ্রহণ করবে প্রতিযোগিতার জন্য। জাস্ট ফর লাফস্ কিংবা আন্তর্জাতিক হাসির উৎসব চলবে ১২ জুলাই থেকে ৩১ জুলাই। দম ফাঁটানো হাসির উৎসবেও চলবে রকমারি আয়োজন।

কানাওয়াকি নেটিভ ফেস্ট চলবে ৮ ও ৯ জুলাই। ফেন্টাসিয়া ফিল্ম ফেস্ট চলবে জুলাই ১৩ থেকে ২ অগাস্ট পর্যন্ত। প্রত্যেকটা উৎসবই দেখার মতো। হাজার হাজার মানুষের মিলন মেলায় প্রাণবন্ত হয়ে উঠে উৎসবগুলো। এই পরবাসের কষ্টকঠিন সময়ের মাঝে একটু প্রশান্তির জন্য, একটু বিনোদনের জন্য মন্ট্রিয়লে বসবাসরত প্রবাসীরা পরিবার পরিজন নিয়ে ঘুরে আসুন  উৎসব গুলোতে। নিশ্চিত ভালো লাগবে।

এ সব ক’টি অনুষ্ঠানের নিউজ ও ছবি এবং ভিডিও ফুটেজ কভারেজ করার জন্য বিগত বছরের মতো এবছরও সিবিএনএ’এর নির্বাহী সদেরা সুজন মনোনিত হয়েছেন। নিউজ ও ছবির জন্য চোখ রাখুন সিবিএনএ, বিডি২৪লাইভডটকম, এবং ফেসবুক, টুইটারসহ স্যোশাল মিডিয়াতে।