২৯ এপ্রিল বিকাল ৪টা জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে ১০ বাম গণতান্ত্রিক দলের বিক্ষোভ সমাবেশ

    0
    2

    ঢাকা, ২৮ এপ্রিল : ১০টি প্রগতিশীল বাম গণতান্ত্রিক দলের এক সভা আজ গণঐক্যের কেন্দ্রীয় অফিসে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে গার্মেন্টস নিহত শ্রমিকদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সভায় রানা প্লাজায় ভয়াবহ ভবন ধ্বসে ৫টি গার্মেন্টসের এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৩৩৭। জীবিত উদ্ধার হয়েছে ২৪০০। যাদের অনেকে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বিভিন্ন হাসপাতালে, প্রায় ৬৩৭ এখানে নিখোঁজ। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে আটকে পড়া শ্রমিক। মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়বে আর তারা ফিরে যেতে পারবে না তাদের প্রিয় জনের কাছে, এমনকি তাদের আপনজনরা ফিরে পাবে না তাদের লাশ। সভায় আলোচনা হয় আগের দিনে সতর্ক করা সত্বেও এই গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীতে শ্রমিকদের জোর করে ঢোকানো হলো। এই ভবনে অবস্থিত গার্মেন্টসগুলোতে ভবনের মালিক, ৫টি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীর মালিক; পরিত্যাক্ত বিল্ডিং কাজের উপযোগী বলে সার্টিফিকেট প্রদানকারী স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার। আইনের প্রতি চরম উন্নাসিকতা ও জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা কতিপয় ব্যক্তির কারণে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটলো। সভা মনে করে এটা কোন দুর্ঘটনা নয়, এটা একটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। সভাতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। এ পর্যন্ত ভয়াবহ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা হয়নি। অভিযোগ উঠেছে ভবনের মালিক সোহেল রানাকে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দিয়ে খোজাখুজি করা হচ্ছে। সভাতে আলোচনায় উঠে আসে এ পর্যন্ত ২৪টি গার্মেন্টসে ছোট্ট বড় অনেক ঘটনা ঘটেছে, কিন্তু কোন ঘটনায় মালিককে বিচারের আওতায় আনা হয়নি। আজ যদি তাজরীন ফ্যাশন গার্মেন্টসের ঘটনায় মালিককে গ্রেফতার ও উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ আদায় করা হত, তা হলে এতবড় ঘটনা আর ঘটতো না।

    ২৯ এপ্রিল বিকাল ৪টা জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে ১০ বাম গণতান্ত্রিক দলের বিক্ষোভ সমাবেশ
    ২৯ এপ্রিল বিকাল ৪টা জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে ১০ বাম গণতান্ত্রিক দলের বিক্ষোভ সমাবেশ

    ভবন ধ্বসের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যে বালখিল্য বক্তব্য দিয়েছে, তাতে তিনি প্রমাণ করেছেন ঐ ধরনের দায়িত্ব পালনে উপযুক্ত না। সরকারকে এ সম্পর্কে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সভায় নিহত প্রতিটি শ্রমিকের যথাযথ ক্ষতিপূরণ, সকল আহত শ্রমিককদের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থার দাবি জানানো হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয় উপরোক্ত দাবির ভিত্তিতে আগামী ২৯ এপ্রিল সোমবার বিকাল ৪টা জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত করবে।
    সভায় উপস্থিত ছিলেন গণঐক্যের আহ্বায়ক পঙ্কজ ভট্টাচার্য, সদস্যসচিব এম এম এ সবুর, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মুনায়েম নেহেরু, গণতন্ত্রী পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ডা. শহিদুল্লাহ সিকদার, কানন আরা, ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক কমল ঘোষ, ন্যাপের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ সরকার, সাম্যবাদী দলের পলিটব্যুরোর সদস্য লুৎফর রহমান, গণআজাদী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস সামাদ, জনসংহতির কেন্দ্রীয় নেতা দিপায়ন খীসা, গণতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের যুগ্ম আহ্বায়ক ডা. অসিত রায় প্রমুখ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here