২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত সর্বোচ্চ ২০২৯ জন,মৃত্যু-১৫

    0
    22

    জহিরুল ইসলাম,নিজস্ব প্রতিবেদক:  গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণে আরো ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন শনাক্ত হয়েছেন সারা দেশে প্রথমবারের মত ২ হাজার ২৯ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫৫৯ জনের। আর সব মিলিয়ে শনাক্ত হয়েছেন ৪০ হাজার ৩২১ জন ছাড়লো এদিকে দিনে দিনে বাড়ছে শনাক্তের সংখ্যা দেশে করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইনে প্রেস ব্রিফিংকালে এই তথ্য জানানো হয়।

    এতে বলা হয়, নতুন করে মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে ১১ জনপুরুষ ১১ ও ৪ জন নারী। জানানো হয়, নতুন যে ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁরা ঢাকা বিভাগের ৭ জন এবং চট্টগ্রাম বিভাগের ৮ জন। ঢাকা বিভাগের মধ্যে ঢাকা সিটিতে ছয়জন এবং ঢাকা বিভাগের অন্য জেলা নারায়ণগঞ্জে ১ জন।

    এ ছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম সিটিতে ২ জন, সিটির বাইরে চট্টগ্রাম জেলায় ২ জন, কক্সবাজারে ২ জন এবং কুমিল্লায় ২ জন। আইসোলেশন প্রসঙ্গে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে আরো ২৪৮ জনকে।

    একইসময় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১৩৮ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন চার হাজার ৯৮৪ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৬৩৮ জন। বুলেটিনে জানানো হয়, ঢাকাসহ সারা দেশে মোট আইসোলেশন সংখ্যা ১৩ হাজার ২৮৪টি। এ ছাড়া ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৫০০টি ও ময়মনসিংহ নার্সিং ডরমিটরিতে আরো ২০০টি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুতির কাজ চলছে।

    বর্তমানে ঢাকা মহানগরীতে ৭ হাজার ২৫০টি এবং ঢাকা সিটির বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশন শয্যার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৩৪টিতে। এর আগে বুধবার দেশে করোনায় সংক্রমিত ১ হাজার ৫৪১ জন শনাক্ত হওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। মারা গিয়েছিলেন ২২ জন। দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন মোট ৪০ হাজার ৩২১জন। মারা গেছেন ৫৫৯ জন।

    গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫০০ জন। এ নিয়ে সর্বমোট ৮ হাজার ৪২৫ জন সুস্থ হয়েছেন।

    প্রেস ব্রিফিংয়ের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ হাজার ৩১০ জনের জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়।গতকাল ৮ হাজার ১৫ জনের করোনা পরীক্ষা করার কথা হয়েছিল। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২ লাখ ৭৪ হাজার ৪৭১টি নমুনা। দেশে এখন ৪৯টি ল্যাবে (পরীক্ষাগার) করোনা পরীক্ষা করা হয়। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে।১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। করোনার ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা অনলাইন প্রেসব্রিফিংকালে সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে বাইরে বের হলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার আহ্বান করেন।