Saturday 26th of September 2020 09:14:59 AM
Wednesday 24th of April 2013 04:38:54 PM

হরতালের দ্বিতীয় দিন রাজধানীসহ সারাদেশে ককটেল বিস্ফোরণ রাস্তায়-রেললাইনে অগ্নিসংযোগ সড়ক অবরোধ

সাধারন ডেস্ক
আমার সিলেট ২৪.কম
হরতালের দ্বিতীয় দিন রাজধানীসহ সারাদেশে ককটেল বিস্ফোরণ রাস্তায়-রেললাইনে অগ্নিসংযোগ সড়ক অবরোধ

ঢাকা,২৪ এপ্রিল : বিএনপিসহ ১৮ দলের টানা ৩৬ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার হরতালে রাজধানীসহ সারাদেশের কয়েকটি স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ, রাস্তায় এবং রেললাইনে অগ্নিসংযোগ করে সড়ক অবরোধ করা হয়েছে। এ সময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ। এর মধ্যে আজ সকালে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ২২টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তিনটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে পিকেটাররা। আর যুবদলের তিন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। রাজশাহী বিএনপির মিছিল পুলিশ টিয়ারশেল ও গ্যাস গ্রেনেড ছুঁড়ে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। খুলনায় টায়ারে অগ্নিসংযোগ ও খণ্ড খণ্ড মিছিল করছে পিকেটাররা। বগুড়ায় ৫টি ককটেলে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে পিকেটাররা। এছাড়াও রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ছাত্রশিবির ও বিএনপির নেতাকর্মীরা। সিরাজগঞ্জে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে পিকেটিং করছে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা। চাঁদপুরে বিভিন্ন সড়ক ও রেললাইন অবরোধ করেন হরতালকারীরা। সিলেট এবং কুমিল্লায় ঢিলেঢালা হরতাল পালিত হচ্ছে। হরতালের কারণে দুরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে না গেলেও রিকশা, ভ্যানসহ বিভিন্ন হালকা যানবাহন ও ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকায় অধিকাংশ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে।
রাজধানী: টানা ৩৬ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন বুধবার সকালে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ২২টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তিনটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে পিকেটাররা। আর যুবদলের তিন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শাহজাদপুরে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে দু’টি ককটেল ছুঁড়েছে পিকেটাররা। এছাড়া মহাখালীতে চারটি ও বিজয় সরণীতে দু’টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তেজগাঁও ও নারিন্দায় মিছিল করেছে জামায়াত-শিবির, যুবদল। রাস্তায় আগুন জ্বালিয়েছে মিরপুরের সাড়ে ১১, বেড়িবাঁধ, মাজার রোডে। তেজগাঁও এর মিছিল থেকে ১৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আল মামুনকে আটক করেছে পুলিশ। গুলশান থেকে আটক করেছে যুবদলের আরো ২ নেতাকে। উত্তর বাড্ডা থেকে একটি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর বাইরে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা হরতালের দ্বিতীয় দিন সকাল আটটা পর্যন্ত রাজধানীর আর সব স্থান ছিলো মোটামুটি শান্ত। প্রথম দিনের চেয়ে আজ দ্বিতীয় দিনে রাস্তায় যান ও জন চলাচল বেশি দেখা গেছে। মোড়ে মোড়ে সতর্ক অবস্থানে আছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। মহাখালী এলাকায় চেয়ারম্যান বাড়ির কাছে স্বেচ্ছাসেবক দলের একটি মিছিল থেকে পরপর চারটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।
সকাল ৯টার পর মহাখালী ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের একটি মিছিল থেকে একটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। আগুন দেয়া হয় দু’টি সিএনজি অটো রিকশায়। বনশ্রীর তিতাস রোডে ছাত্রদলের একটি মিছিল থেকে অন্তত: ১০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পুলিশ এসে ধাওয়া দিলে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয় যায়। মিরপুরে, সকাল ৭টার দিকে পল্লবী থানা স্বেচ্ছাসেবক দল মিরপুর সাড়ে-১১ এলাকায় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। এর আগে মিরপুর বেড়িবাঁধ রাস্তায় পেট্রোল ও কেরোসিন ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। মিরপুর মাজার রোডে শ্রমিকদল রাস্তায় পেট্রোল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছে। এ সময় তারা লেগুনায় টহলরত পুলিশকে লক্ষ করে ইটপাটকেল ছোঁড়ে। সকাল ৮টায় দারুস সালাম থানা শ্রমিকদলের ১৫ থেকে ২০ জন নেতাকর্মী হরতাল সর্মথনে একটি মিছিল বের করে। এ সময় তারা আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে স্লোগান দেয়। এরপর তারা সঙ্গে আনা দুই বোতলে পেট্রোল সড়কে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ও হরতালের সর্মথনে বিভিন্ন স্লোগান দেয়।
বাড্ডা-রামপুরা সড়কের উত্তরবাড্ডা এলাকা থেকে সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে একটি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, গুলশান-২ এর লেকপাড় থেকে পিকেটিংয়ের প্রস্তুতিকালে সুলতান আহমেদ ও নজরুল ইসলাম নামে দুই যুবদল কর্মীকে পুলিশ আটক করে বলে জানিয়েছেন গুলশান থানার ওসি রফিকুল ইসলাম।
সকাল সাড়ে ছ’টার দিকে বিজয় সরণীতে তেজগাঁও থানা ছাত্রদল একটি মিছিল বের করে। মিছিল থেকে দু’টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পুলিশ এসে ধাওয়া দিলে মিছিলকারীরা পালিয়ে যায়। এছাড়া তেজগাঁওয়ের তিব্বত এলাকায় হরতালের সমর্থনে বের হওয়া একটি মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। সকাল ৯টা ১০ মিনিটে বনশ্রীতে খিলগাঁও যুবদলের হরতালের সমর্থনে বের করা মিছিলে তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটেছে। এদিকে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে শাহজাদপুরের বাটার গলির মোড়ে পুলিশের গাড়ি লক্ষ করে দু’টি ককটেল ছোঁড়ে  পিকেটাররা। তবে এ ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। কাউকে আটকও করতে পারেনি পুলিশ। এর আগে ভোর সাড়ে ৬টায় ১৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আল মামুনের নেতৃত্বে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় একটি মিছিল বের করার চেষ্টা করা হয়। এ সময় আল মামুনকে আটক করে। যাত্রাবাড়ী দক্ষিণ দনিয়ার কদমতলীতে ভোর সোয়া ছ’টায় বিক্ষোভ মিছিল বের করে ছাত্রশিবির। মিছিল থেকে একটি পিকআপ ভ্যানে অগ্নিসংযোগ করা হয়। সকাল পৌনে ৭টায় জামায়াত মিছিল করে সূত্রাপুরের নারিন্দা এলাকায়। এদিকে যথারীতি তালাবদ্ধ আছে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়। রাতযাপনের পর বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান ও আবদুল লতিফ জনি ভেতরে অবস্থান করলেও কাউকে নিচে নামতে দেখা যায়নি।
রাজশাহী: রাজশাহীতে হরতালের সমর্থনে বুধবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শফিকুল হক মিলনের নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি মহানগরীর বাটার মোড়ে পৌঁছলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। এ সময় পুলিশ টিয়ারশেল ও গ্যাস গ্রেনেড ছুঁড়ে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে ছাত্রদল কর্মীরা নগরীর ষষ্টিতলা এলাকায় একটি অটোরিকশা ভাংচুর করে। এর আগে মহানগরীর হাদির মোড় থেকে ছাত্রশিবিরের কর্মীরা একটি লাঠি মিছিল বের করে। ঘটনাস্থলে পুলিশ না থাকায় তারা সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছার আগেই তারা পালিয়ে যায়। এছাড়া আজ সকালে ৭টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নেতৃত্বে দড়ি খরবোনা এলাকা থেকে হরতালের সমর্থনে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি মালোপাড়া হয়ে বাটার মোড়ে পৌঁছলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশ রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ক্ষুব্ধ বিএনপি কর্মীরা এ সময় নিউ মার্কেটের সামনে একটি অটোরিকশা ভাঙচুর করে।
এ সময় অটোরিকশা চালক আহত হন। মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল দাবি করেন, পুলিশের হামলায় তাদের তিন কর্মী আহত হয়েছে। মহানগর মডেল থানার ওসি জিয়াউর রহমান বলেন, মিছিল থেকে নাশকতা চালানো হতে পারে এমন খবরের ভিত্তিতে আমরা কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছি। এদিকে মহানগর ছাত্রশিবিরের অফিস সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম মাসুমের সন্ধানের দাবিতে শিবিরের ডাকা ৬০ ঘণ্টার হরতালের শেষ দিনে বুধবার ভোরে সাধুর মোড়ে রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে অবরোধের চেষ্টা করে শিবিরকর্মীরা। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে তারা পালিয়ে যায়।
সিরাজগঞ্জ: টানা ৩৬ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার সিরাজগঞ্জে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে পিকেটিং করছে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা। সকালে সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর আঞ্চলিক সড়কের সমাজকল্যাণ মোড় এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে পিকেটিং করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। শহরের গোশালা রোডে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে ছাত্রদলের কর্মীরা। এ সময় একটি রিকশা ভাঙচুর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। শহরে হরতালের সমর্থনে মিছিল করেছে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। হরতালের কারণে জেলার এম এ মতিন বাস টার্মিনাল থেকে আন্ত:জেলা ও দুরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। বন্ধ রয়েছে জেলা শহরের অধিকাংশ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তবে রিকশা, ভ্যানসহ বিভিন্ন হালকা যানবাহন ও ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। অপরদিকে উপজেলা শহরগুলোতে হরতালে জনজীবনে খুব একটা প্রভাব পড়েনি। সকাল থেকেই অধিকাংশ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। সকাল ৮টায় সিরাজগঞ্জ সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এহসানুল কবির জানান,  টায়ারে অগ্নিসংযোগ ছাড়া এখনো পর্যন্ত হরতাল পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ ও র‌্যাব মোতায়েন রয়েছে।
খুলনা: আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যদের কড়া নিরাপত্তার মধ্যেও হরতালের দ্বিতীয় দিনে খুলনায় টায়ারে অগ্নিসংযোগ ও খণ্ড খণ্ড মিছিল করছে পিকেটাররা। বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় প্রথমে দৌলতপুরে সড়ক অবরোধ করে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে শিবির কর্মীরা। এ সময় এক শিবির কর্মীকে আটক করে পুলিশ। এছাড়া সকাল সাড়ে ৭টায় মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু এমপির নেতৃত্বে শামসুর রহমান রোডে একটি মিছিল বের হয়। এছাড়া মহিলা দল সাউফ সেন্ট্রাল রোডে, যুবদল সেনের বাজার ও সেনহাটিতে সড়ক অবরোধ করে টায়ারে অগ্নি সংযোগ করে বিক্ষোভ মিছিল করে। খুলনা পুলিশ কমিশনার সফিকুর রহমান জানান, নগরীতে দুই হাজার পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি ও র‌্যাব মোতায়েন আছে। অপরদিকে জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন জানান, খুলনা জেলার নয় উপজেলার মধ্যে কয়রা, পাইকগাছা, ডুমুরিয়া ও ফুলতলাতে চার প্লাটুন বিজিবি দায়িত্ব পালন করেছেন।
বগুড়া: টানা ৩৬ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন বুধবার সকালে বগুড়ায় ৫টি ককটেলে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে পিকেটাররা। বগুড়ায় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ছাত্রশিবির ও বিএনপি। অন্যদিকে, শহরের কানছগাড়ী এলাকায় বিএনপি সমর্থিত নেতাকর্মীরা পিকেটিং করাকালে ৫টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বুধবার সকাল সোয়া ৭টার দিকে শহরের স্টেশন রোড এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে বগুড়া শহর ছাত্রশিবির। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের শহর শাখার সেক্রেটারি রেজাউল করিম, সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম তুহিন, সাবেক অফিস সম্পাদক আসগর আলী, এইচ আর ডি সম্পাদক এনামুল হক রানা, প্রচার ও আন্দোলন সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রমুখ। এর আগে সকাল পৌনে ৭ টার দিকে কানুছগাড়ী এলাকায় পরপর ৫ টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলে অল্প কিছু সময়ের শেরপুর রোড জনশূন্য হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে পরিস্থিতি আবার স্বভাবিক হয়ে যায়। অপরদিকে, সকাল ৯ টার দিকে শহরের আলতাফুন্নেসা খেলার মাঠ থেকে হরতালের সমর্থনে বগুড়া জেলা বিএনপিদর সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি মিছিল নিয়ে সাতমাথায় এসে সমাবেশ করে। সভা শেষে মিছিলটি শহর প্রদক্ষিণ করে শহরের নবাববাড়িস্থ দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
চাঁদপুর: চাঁদপুরে ৩৬ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার ভোর থেকে জেলার বিভিন্ন সড়ক ও রেললাইন অবরোধ করেন হরতালকারীরা। চাঁদপুর শহর থেকে শিবিরের দুজন কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ভোর ছয়টার দিকে চাঁদপুর সদর উপজেলার কালিভাংতি এলাকার চাঁদপুর-মতলব-পেন্নাই সড়কে একটি সেতুর ওপর গাছের গুঁড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করেন পিকেটাররা।বাবুরহাট এলাকার চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়কে টায়ারে আগুন জ্বেলে অবরোধ করেন হরতালকারীরা। সকাল সাতটার দিকে শহরের ঘোড়ামারা আশ্রয়ণ প্রকল্পের সামনে চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথে টায়ারে আগুন দেন পিকেটাররা। পরে পুলিশ গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে।
চাঁদপুরের পুলিশ সুপার আমির জাফর জানান, চাঁদপুর শহর থেকে শিবিরের দুজন কর্মীকে আটক করা হয়েছে। জেলার কোথাও তেমন কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
সিলেট: বিরোধীদলীয় জোটের দুই দিনের হরতালের দ্বিতীয় দিন সকালে সিলেটে হরতালের সমর্থনে খণ্ড খণ্ড মিছিল হয়েছে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল করে মহানগর বিএনপি। এরপর সকাল পৌনে ৮টার দিকে নগরীর জিন্দাবাজারে হরতালের সমর্থনে পৃথক দুটি মিছিল বের করে স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদল। সকাল থেকে নগরীতে রিকশা ও অটোরিকশা চলাচল করলেও ভারী যানবাহন চলছে না। সিলেট থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যেতে দেখা যায়নি। তবে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান সিলেট রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ। সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার রেজাউল করিম জানান, নগরীর সব গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে।
কুমিল্লা:  ৩৬ ঘণ্টার হরতালের শেষ দিনে কুমিল্লা জেলায় শান্তিপূর্ণ হরতাল পালিত হচ্ছে। আজ বুধবার সকাল আটটায় নগরীর কান্দিরপাড়ে বিএনপির দুই গ্র“প হরতালের সমর্থনে মিছিল করেছে। নগরীতে কোনো যানবাহন চলাচল করছে না। তবে নগরীর চকবাজার, নুরপুর, কুমিল্লা টাওয়ার, রেইসকোর্স, জিলা স্কুল রোডে পিকেটিং চলছে। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী আমিনুর রশীদ ইয়াছিন সমর্থিত নেতাকর্মীরা কুমিল্লা টাওয়ারের সামনে অবস্থান করছেন। নগরীর চকবাজার, জাঙ্গালিয়া ও শাসনগাছা বাসস্ট্যান্ড থেকে দুরপাল্লার কোনো যানবাহন ছেড়ে যায়নি। এদিকে, মনোহরগঞ্জ উপজেলার বিপুলাসার সড়কে গাছের গুড়ি ফেলে হরতাল করছে পিকেটাররা। দাউদকান্দি উপজেলার হরতালের সমথর্নে মিছিল করেছে জোটের নেতাকর্মীরা। পিকেটাররা বিভিন্ন সড়কে গাছের গুড়ি ফেলে পিকেটিং করছে। চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় সকালে হরতালের সমর্থনে মিছিল করেছে জামায়াত-শিবির ও বিএনপির নেতাকর্মীরা। এখনো কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। 
 

 

 

 

 


সম্পাদনা: News Desk, নিউজরুম এডিটর

আমারসিলেট২৪.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Place for advertisement
Place for advertisement

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc