সিলেটে থেমে থেমে বিস্ফোরণঃ১৪৪ ধারা জারীঃনিহত-৬

    0
    10

    আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২মার্চ,ডেস্ক নিউজঃ  সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ির সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানা আতিয়া মহলে সেনা অভিযানকালে বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন র‌্যাব-পুলিশের তিন কর্মকর্তাসহ অন্তত ৪৫ জন।

    শনিবার সন্ধ্যা ও রাতে ওই এলাকার পাঠানপাড়ায় দুই দফা বিস্ফোরণে ছয়জন নিহতের কথা নিশ্চিত করেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা।

    নিহত পুলিশ কর্মকর্তারা হলেন- জালালাবাদ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ও আদালত পুলিশের পরিদর্শক চৌধুরী মো. আবু কয়সার। তারা দুজনই ছিলেন পুলিশের বোমা নিস্ক্রিয়কারী দলের সদস্য।

    নিহতদের অপর চারজনের মধ্যে তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা জান্নাতুল ফাহিম, কলেজছাত্র অহিদুল ইসলাম অপু ও নগরীর দাঁড়িয়াপাড়ার বাসিন্দা শহীদুল ইসলাম (৩৮)। নিহত আরেকজনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তার বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

    সিলেটের মদনমোহন কলেজের বিবিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্র অপু বিস্ফোরণস্থলেই মারা যান বলে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার রুকনুদ্দিন জানান। সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাকিদের মৃত্যু হয়।

    শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) কন্ট্রোলরুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. নুরুজ্জামান জানান, বিস্ফোরণের ঘটনায় জালালাবাদ থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জান্নাতুল ফাহিম মারা গেছেন। এরা দুইজনই ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন ছিলেন।

    এদিকে, তাকফিরি সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশ বর্বরোচিত এই হামলার দায় স্বীকার করেছে। সন্ত্রাসীগোষ্ঠীটির মুখপত্র ‘আমাক’-এর বরাত দিয়ে এই খবর জানিয়েছে অনলাইনে জঙ্গিদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।

    প্রায় ৩০ ঘণ্টা ঘিরে রাখার পর শিববাড়ির ওই ‘জঙ্গি আস্তানায়’ শনিবার সকালে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে এবং পুলিশ ও সোয়াটের সহায়তায় চলা ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ নিয়ে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ব্রিফিং করেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান।

    ব্রিফিং শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট পর সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে ব্রিফিংস্থলের কাছে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় সাংবাদিকসহ ৪০ জনের বেশি আহত হন।

    এরপর রাত সাতটা ৫৫ মিনিটের দিকে আগের ঘটনাস্থলের কাছে পূর্ব পাঠানতলা মসজিদ এলাকায় আরেকটি বোমার বিস্ফোরণ হয়। ওই বিস্ফোরণের ঘটনায় ছয় পুলিশ সদস্যসহ আরও ১৫ জন আহত হন।

    ‘আতিয়া মহলে’ গতকাল দিনভর সেনাবাহিনী অভিযান চালিয়ে ৭৮ জনকে নিরাপদে উদ্ধার করে। এর মধ্যে ৩০ জন পুরুষ, ২৭ জন নারী এবং ২১টি শিশু রয়েছে। তবে জঙ্গিরা ওই বাড়িতে এখনো অবস্থান করছে এবং অভিযান এখনো শেষ হয়নি বলে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে ওই বাড়িতে জঙ্গিরা বিস্ফোরক স্থাপন করে রেখেছে বলে ধারণা করছেন অভিযানসংশ্লিষ্টরা

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here