সালিশ বৈঠকে মনাফ পরিবারকে সমাজচ্যুত করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

    0
    3

    “চুনারুঘাটে টিকের বাজারে জমি সংক্রান্ত বিরোধ- গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে মনাফ পরিবারকে সমাজচ্যুত করলেন ইউপি চেয়ারম্যান “এলাকায় তোলপাড়”

    আমারসিলেটটোয়েন্টিফোর.কম ০৪ সেপ্টেম্বর  : হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার টিকের বাজারে জমি সংক্রান্ত বিরোধে গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে মনাফ পরিবারকে সমাজচ্যুত করছেন ইউপি চেয়ারম্যান ও সালিশ বৈঠকের সভাপতি সরকার মোহাম্মদ শহীদ। উপজেলার বাসুদেবপুর (টিকের) বাজারে সোমবার বিকেল ৫টায় ইউপি চেয়ারম্যান সরকার মোহাম্মদ শহীদের সভাপতিত্বে ও বিলাল মিয়ার পরিচালনায় এক গ্রাম্য সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট মুরুব্বি আঠালিয়া গ্রামের আঃ রশিদ, শেখ পাড়া গ্রামের জহুর আলী, আলী হোসেন, তরাবত আলী, আঃ সালাম, কাজিরখিল গ্রামের মহিবুর রহমান, শাহপুর গ্রামের কালা মিয়া। বাজার সভাপতি বশির আহম্মেদ টেনু, সেক্রেটারী আরজু মিয়া, ডাঃ মনোরঞ্জন, দুলাল মিয়া, ইউপি সদস্য ফারুক মিয়া, নালমুখ কৃষি ব্যাংকের ক্যাশিয়ার আঃ হামিদ, আবু তাহের, সিদ্দিক আলী, তরফ পরগণার ১২ নেতা দত্ত পাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য মোঃ আফরুজ মিয়া, রুসন আলী, আঃ হাই, জারু মিয়া, আঃ খালেক, নূর আহম্মদ, আঃ মালেক, আঃ জলিল, জালাল উদ্দিন ।

    এ সালিশ বৈঠকে তরফ পরগণার ১২ নেতা দত্ত পাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য মোঃ আফরুজ মিয়া আঃ মনাফের পক্ষ থেকে ২ দিনের সময় দেওয়ার জন্য সালিশের সুযোগ চান। ঐ আফরোজ মেম্বারকে সালিশতার সুযোগ না দিয়ে  সভাপতি বলেন মনাফের দায়ের করা মামলা তুলে আনলে পরে আপনার কথাটি পরে বিবেচনা করব বলে গ্রাম্য সালিশ বৈঠকের সভাপতি সরকার মোহাম্মদ শহীদ আঃ মনাফ পরিবারকে ৪ গ্রামে সমাজচ্যুত করে মৌখিক রায় দেন।

    তিনি বলেন, আঃ মনাফের বাড়িতে আসা যাওয়া, মোবাইল ফোনে কোন কথা বলা ঐ পরিবার সদস্যদের সাথে চলাফেরা, কোন ধরনের যোগাযোগ রক্ষা করা, বাসুদেবপুর (টিকের) বাজারের কোন জিনিসপত্র তাদের নিকট বেচাকেনা, কোন ধরনের লেনদেন, ৪ গ্রামের বিচার বৈঠক, বিয়ে অনুষ্ঠানে দাওয়াত দেওয়া নেওয়া, সমাজ নামাযসহ এক সমাজের চলাফেরা না করার জন্য স্থানীয় সাধারণকে নিষেধ করেছেন চুনারুঘাট উপজেলার ৮নং সাটিয়াজুরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও এ গ্রাম্য সালিশ বৈঠকের সভাপতি সরকার মোহাম্মদ শহীদ।

    ওই সালিশ বৈঠকে মনাফ পরিবারকে ৪ গ্রামে সমাজচ্যুত করায় চুনারুঘাট পূর্বাঞ্চলে সাধারণ মানুষের মাঝে এখন তোলপাড় চলছে। তবে প্রায় ২মাস পূর্বে ঐ মনাফ পরিবারকে গ্রামের লোকজন সমাজচ্যুত করে রেখে ছিল। উল্লেখ্য যে, বাসুদেবপুর গ্রামের মৃত হাজী রেজন উল্লার পুত্র আঃ মনাফ রেকর্ড ও নামজারী এবং ওয়ারীশান সূত্রে টিকের বাজারে কিছু অংশ জমির মালিকানা দাবী করে একই গ্রামের মৃতঃ আলী মোহাম্মদের পুত্র আবু তাহেরের সাথে বিরোধ চলে। আঃ মনাফ বাদী হয়ে আবু তাহেরের বিরুদ্ধে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে ২০০৩ সাল থেকে চুনারুঘাট থানা ও হবিগঞ্জ আদালতে ২/৩ টি মামলা দায়ের করলে মনাফ ও আবু তাহের উভয়ের মাঝে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলতে থাকে। এক পর্যায়ে ইউপি চেয়ারম্যান শহীদ আবু তাহেরের পক্ষপাতিত্ব করে আসছিল বলে মনাফ পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here