সংসদ বর্জন রোধে আইন করার সুপারিশ করেছে টিআইবি

    0
    3
    সংসদ বর্জন রোধে আইন করার সুপারিশ করেছে টিআইবি
    সংসদ বর্জন রোধে আইন করার সুপারিশ করেছে টিআইবি

    ঢাকা, ০২ জুন : টিআইবি সংসদ বর্জন রোধে আইন করার সুপারিশ করেছে। আজ রবিবার সকালে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে পার্লামেন্ট ওয়াচ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ সুপারিশ করেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।
    সুপারিশে বলা হয়, আমাদের দেশে সংসদ বর্জনের ব্যতিক্রর্মী চর্চা শুরু হয়েছে এবং তা প্রায় প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। যা দেশের জন্য তো বটেই আন্তর্জাতিকভাবেও বিব্রতকর। পঞ্চম সংসদ থেকে এটা শুরু হয়েছে। নবম সংসদে এসে এটা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। এর কারণ হলো জেতার রাজনীতি। জিতলেই কেবল সংসদ আমাদের নইলে না এ মানসিকতা থেকে বের করে আনার জন্যই আমরা আইন করে সংসদ বর্জন ঠেকাতে বলেছি। সুপারিশে বর্তমানে ৯০ দিন কার্যাদিবস সংসদ অধিবেশনে অনুপস্থিতির যে বিধান রয়েছে তা ৩০ দিন করে আনার সুপারিশ করেছি। সংসদ অধিবেশনে সর্বোচ্চ সময় উপস্থিতি থাকার বিষয়টি জবাবদিহিতার মাধ্যমে নিশ্চিত করার সুপারিশ করেছি।
    সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, আমরা দলীয় বা জোটবদ্ধভাবে সংসদ বর্জনের বিরুদ্ধে। সংসদীয় গণতন্ত্রে সংসদ বর্জনের কোনো সুযোগ নেই। জনগণ সংসদ বর্জনের জন্য কাউকে ভোট দেয় না। পৃথিবীর কোন দেশেই সংসদ বর্জনের সংস্কৃতি নেই। বিশ্বব্যাপী প্রতিবাদের ভাষা হলো ওয়াক-আউট। সংসদ সদস্যরা প্রতিবাদ হিসেবে দিনে ১০ বারও ওয়াক-আউট করতে পারেন। সংসদ বর্জন হলো মাথা ব্যথার জন্য মাথা কাটা।
    এসময় নবম সংসদের প্রথম দিন থেকে সংসদ পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে টিআইবির তৈরি তৃতীয় প্রতিবেদন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপন করা হয়। এ প্রতিবেদনে জানুয়ারি ২০১১ থেকে ডিসেম্বর ২০১২ পর্যন্ত অষ্টম অধিবেশন থেকে পঞ্চদশ অধিবেশন পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করা হয়। এতে বলা হয় বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া গত চার বছরে সর্বমোট আট দিন সংসদ অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন এবং গত দুই বছরে যা মাত্র দুই দিন।
    ইফতেখারুজ্জামান বলেন, জাতীয় সংসদের স্পিকারের বারবার রুলিং সত্ত্বেও অসংসদীয় ভাষার ব্যবহার অব্যাহত আছে। এ ছাড়া, প্রধান বিরোধী দলের সংসদ অধিবেশন বর্জন আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে। এ অবস্থার উন্নতির জন্য টিআইবি বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরেছে। এগুলোর মধ্যে আছে জাতীয় যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে গণভোটের প্রবর্তন এবং সেটা সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে অন্তর্ভুক্ত করা; প্রতিবছর সংসদের অধিবেশন কমপক্ষে ১৩০ কার্যদিবস করা; বিকেলের পরিবর্তে সকালে অধিবেশন শুরু করা; সংসদীয় ক্যালেন্ডার প্রবর্তন করা প্রভৃতি। এ ছাড়া, টিআইবি সংসদ বর্জনের সংস্কৃতি প্রতিহত করতে আইন করে দলগতভাবে সংসদ বর্জন নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করেছে। অধিবেশন চলাকালে সংসদ নেতা ও বিরোধীদলীয় নেতার নিয়মিত উপস্থিতি নিশ্চিত করারও সুপারিশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here