সংসদের বাজেট অধিবেশনে যোগ দেবে বিএনপি

    0
    3
    সংসদের বাজেট অধিবেশনে যোগ দেবে বিএনপি
    সংসদের বাজেট অধিবেশনে যোগ দেবে বিএনপি

    ঢাকা, ১৭ মে : আগামী ৩ জুন সোমবার থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত এক যুব সমাবেশে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বিএনপি সংসদের আসন্ন বাজেট অধিবেশনে যোগ দেবে। তিনি আরো বলেন, দেশের জনগণের স্বার্থে ও নিজেদের প্রয়োজনে আমরা আসন্ন অধিবেশনে যাব। তবে সেখানে আমরা কত দিন থাকব, তা নির্ভর করবে সরকারি দলের আচরণের ওপর। এ সময় তিনি ক্ষমতাসীনরা গত সাড়ে ৪ বছরে সংসদকে অকার্যকর করে রেখেছে বলেও অভিযোগ করেন।
    নিখোঁজ হওয়ার ১৩ মাসেও বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী সন্ধান না দেয়ার প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে দৈনিক আমার দেশ, দিগন্ত ও ইসলামিক টেলিভিশন খুলে দেয়ার দাবিতে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, অর্থ সম্পাদক আবদুস সালাম, গণশিক্ষা সম্পাদক এডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, নির্বাহী কমিটির সদস্য হেলেন জেরীন খান, এলডিপির যুগ্মমহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. বাকের হোসাইন প্রমুখ।
    মওদুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা সংসদে যাওয়ার কথা বলেছেন। আমরা কারো আহবানে নয়, জনগণের তাগিদে সংসদে যাব। তিনি বলেন, সংসদে বিরোধী দলকে কথা বলতে দেয়া হয় না। আমাদের নেতার বিরুদ্ধে কটাক্ষ করে বক্তব্য রাখা হয়। এবারও যদি এ রকম অবস্থা ঘটে তা হলে আমরা সংসদে কীভাবে থাকব? তাই সরকারি দলের আচরণের ওপর নির্ভর করবে, আমরা কতো দিন সংসদে থাকতে পারব।
    সরকারের উদ্দেশে মওদুদ বলেন, সংসদে আমাদের সদস্য সংখ্যা কম। তাই সংসদে গেলেও যদি আমাদের সময় এবং সুযোগ দেন, বিষোদগার এবং ব্যক্তিগত আক্রমণ না করেন তাহলে আমরা চিন্তা করবো কতদিন সংসদে থাকবো। ‘জনসমর্থন এখন আওয়ামী লীগের পক্ষে’ প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, সমর্থন আপনাদের পক্ষে থাকলে ভয় কেন? নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে আপনার বক্তব্যের যথার্থতা প্রমাণ করুন।
    মওদুদ আহমদ বলেন, সরকার স্ববিরোধী কাজ করছে। একদিকে সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছে আরেক দিকে বিরোধী দলের নেতাদের গ্রেপ্তার করছে। সংলাপ আর সংঘাতের রাজনীতি একত্রে চলতে পারে না এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, চলমান সমস্যার সমাধানে সংলাপের কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু সরকার সংলাপের কথা বললেও তারা এ ব্যাপারে আন্তরিক নয়, তাদের সদিচ্ছা নেই। তাই সরকারকে বলবো, স্ববিরোধীতা বর্জন করে আন্তরিকতা নিয়ে আহ্বান করুন, আমরা সাড়া দেবো। দেশী–বিদেশী চাপে সরকার সংলাপের কথা বলছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
    আগামী ৩ জুন থেকে শুরু হচ্ছে বাজেট অধিবেশন। এটি বর্তমান সরকারের মেয়াদে শেষ বছরের বাজেট অধিবেশন। সংসদের সদস্যপদ টিকিয়ে রাখতে হলে বিএনপির সাংসদদের এ অধিবেশনে যোগ দিতে হবে। প্রধান বিরোধী দল বিএনপির অনুপস্থিতির মধ্যোই গত ৩০ এপ্রিল সংসদের সপ্তদশ অধিবেশন শেষ হয়।
    টানা ৭৭দিন অনুপস্থিতির পর সর্বশেষ গত বছরের ১৮ মার্চ সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনে যোগ দিয়েছিল বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় জোট। নিয়ম অনুযায়ী টানা ৯০ কার্য দিবস অনুপস্থিত থাকলে সদস্যপদ খারিজ হয়ে যায়। আর নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের দাবিতে টানা সংসদ বর্জন করে আসা বিরোধী দলের সদস্যদের অনুস্থিতি ৮৩ কার্যদিবস ছুঁয়েছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here