সংবাদ প্রকাশের পর জৈন্তাপুর ট্রাফিক পুলিশের প্রচারাভিযান

    0
    13

    রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাফিক পুলিশের অভিযান নিয়ে “ট্রাফিক পুলিশের দুই আইন” শিরোনামে স্থানীয় পত্রিকা সহ অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশের পর ট্রাফিক আইন বাস্তবায়নের জন্য উপজেলার বিভিন্ন বাজারে ট্রাফিক সার্জেটের উপস্থিতিতে চলছে প্রচারাভিযান। আগামী ২-১ দিনের মধ্যে আইন বাস্তাবায়নে এবং টোকনধাারী পরিবহনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ।

    গত শুক্রবার ও শনিবার কয়েকটি অনলাইন সংবাদ মাধ্যম ও স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর ৩ জানুয়ারী রবিবার হতে জৈন্তাপুর ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মোহাম্মদ আলী হোসেনের নেতৃত্ব টিএসআই দিবাংঙ্কর দাস সহ সঙ্গীয়ফৌস নিয়ে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের হরিপুর বাজার, দরবস্ত বাজার এবং জৈন্তাপুর বাজার ট্রাফিক আইন বাস্তবায়ন রাস্তার যানঝট নিরসন, রাস্তা দখল করে বাজার স্থাপন ও নাম্বার বিহীন টোকন চালিত যানবাহনের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করার লক্ষ্যে প্রাথমিক ভাবে মাইকযোগে সর্তকতামূলক প্রচারাভিযান চালু করা হয়েছে। গত রবিবার হরিপুর বাজার হতে প্রচারাভিযান পরিচালনা করেন জৈন্তাপুর ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মোহাম্মদ আলী হোসেন।

    সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের যানঝট নিরসন, বাজার দখল করে যানঝট সৃষ্টিকারী ব্যবসায়ী, দোকান মালিকগন কর্তৃক রাস্তার উপর অবৈধ ভাবে দখল, জনপ্রতিনিধি সহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকর্তৃক ঘন্টার পর ঘন্টা গাড়ী পার্কিং, নাম্বার ও লাইসেন্স বিহীন সিএনজি অটোরিক্সা, ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা, ব্যাটারী চালিত টমটম, এইচ পাওয়ার টমটম, লেগুনা, হিউম্যান হুলার, মটরসাইকেল শুধুমাত্র সিলেট-তামাবিল মহা সড়কে অবৈধ ভাবে চলাচলের কারনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। যারা ট্রাফিক আইন লঙ্গন করে যানবাহন চলাচল, রাস্তা দখল করে অবৈধ দোকান স্থাপন, বাজার এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সম্মুখে বিনা কারনে গাড়ী ও মোটর সাইকেল পার্কিং করে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির করে ট্রাফিক পুলিশ আইন অমান্য করার অপরাধ সংগঠিত করবেন সে সকল যানবাহন ও মালিক ও চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। সংবাদে প্রকাশিত টোকন চালিত ও লাইসেন্স বিহীন সকল প্রকার যানবাহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে প্রচারাভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

    ট্রাফিক সার্জেন্ট মোহাম্মদ আলী হোসেন প্রতিবেদককে জানান, আমরা দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করছি। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ সমুহ আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সেই সাথে আমরা সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের যানঝট নিরসনের লক্ষে এবং ট্রাফিক আইন সুষ্ঠ বাস্তবায়নের জন্য মানবিক দিক বিবেচনায় প্রাথমিক ভাবে প্রচারাভিযান শুরু করেছি। আগামী ২-১ দিনের মধ্যে ট্রাফিক আইন অমান্যকারী লাইসেন্স ও নাম্বার বিহীন টোকন চালিত কিংবা অন্য কোন উপায়ে পরিচালিত পরিবহনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।