শপথ অনুযায়ী সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখবে সশস্ত্র বাহিনী : তিন বাহিনীর প্রধান

    0
    4
    শপথ অনুযায়ী সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখবে সশস্ত্র বাহিনী : তিন বাহিনীর প্রধান
    শপথ অনুযায়ী সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখবে সশস্ত্র বাহিনী : তিন বাহিনীর প্রধান

    ঢাকা : শপথ অনুযায়ি দেশের চলমান সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখবে সশস্ত্র বাহিনী। সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রধানরা এ প্রত্যয়ের কথা জানান। আজ সংসদ সচিবালয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তারা এ কথা বলেন। কমিটি সভাপতি এম. ইদ্রিস আলী বলেন,সংসদীয় কমিটির বৈঠকে দেশের সার্বিক নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে তিন বাহিনীর প্রধানরা দ্ব্যার্থহীন কণ্ঠে বলেছেন, সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখতে তারা তাদের শপথ অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি বলেন,যে কোনো পরিস্থিতিতে সংবিধান ও সাংবিধানিক ধারা অক্ষুণ্ন রেখে সমস্যার সমাধান করতে। এদিকে বৈঠকে সেনাবাহিনী  নিয়ে বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যও কড়া সমালোচনা করেন এমপিরা। যুদ্ধাপরাধের বিচারের বিরোধিতায় জামায়াত-শিবির কর্মীরা বগুড়ায় তাণ্ডব চালানোর পর গত ২৪ মার্চ সেখানে এক জনসভায় বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া বলেন, আমাদের সেনাবাহিনী বিদেশে শান্তি রক্ষায় কাজ করে। দেশে কোনো বিশৃঙ্খলা হলে তারা বসে থাকবে না। তারা সময়মত দায়িত্ব পালন করবে। কমিটি সভাপতি বলেন, বিরোধী দলীয় নেতা সংবিধান পরিপন্থী কাজ করেছেন। তার এই উস্কানিমূলক বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়। কমিটির সদস্য জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বৈঠকে হেফাজতে ইসলামের কর্মসূচির পক্ষে বললে অন্য সদস্যরা তার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন বলে  ইদ্রিস আলী জানান। তিনি বলেন, ইসলামের হেফাজত করার দায়িত্ব স্বয়ং আল্লাহর। কোন মানুষ এ কাজ করতে পারে না। হেফাজতকে কে দায়িত্ব দিয়েছে? কেউ যদি ইসলাম নিয়ে বিচলিত হয়ে পড়ে তবে বুঝতে হবে তার ঈমানের শক্তি দুর্বল। বৈঠক সূত্র জানিয়েছে, এইচ এম এরশাদ আগামী নির্বাচনের আগে নিরাপত্তা ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে সকল আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যদের নিরাপত্তা জোরদার করার প্রস্তাব রাখেন। এসময় তিনি বলেন, যেকোন মূল্যে সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা সমুন্নত রাখতে দেশের নিরাপত্তারক্ষীদের  সর্তক থাকতে হবে। একই সঙ্গে আগামী দশম সংসদ নির্বাচনের আগে গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌছাতে সংলাপের মাধ্যমে যৌক্তিক উপায় খুঁজে বের করা সম্ভব হবে। এ সময় কমিটির সভাপতিসহ সকল সদস্য মতৈক্যে পৌছানোর ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেন। ওদিকে সংসদীয় কমিটির বৈঠক প্রসঙ্গে সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌঁছানো সম্ভব হবে বলে বৈঠকে আশা প্রকাশ করেছেন সদস্যরা। এছাড়া সরকার উৎখাতের অপচেষ্টায় জড়িত পলাতক ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করার কাজ দ্রুত শেষ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। বৈঠকে কমিটির সদস্য এইচ এম এরশাদ, নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, মঞ্জুর কাদের কোরাইশী এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি এম এ মান্নান অংশ নেন। এছাড়া সেনা প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূইয়া, নৌ প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল মুহাম্মদ ফরিদ হাবিব, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল মোহাম্মদ ইনামুল বারীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here