রানাসহ ৫ গার্মেন্টস মালিক আমিন-মাসুদ-বজলুল-আদনান ও আনিসুরের সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ

    0
    4

    ঢাকা, ৩০ এপ্রিল: সাভারের ধসে পড়া রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা এবং ওই ভবনের গার্মেন্ট কারখানাগুলোর চার মালিকের স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তারা যেন কোনো সম্পত্তি হস্তান্তর না করতে পারেন সে ব্যবস্থা নিতে দেশের সব রাজস্ব কার্যালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ওই পাঁচজনের উপস্থিতিতে বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের বেঞ্চ রাজস্ব বিভাগের মহাপরিদর্শক ও নিবন্ধককে এ নির্দেশ দেয়। এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করে আগামি ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে ঢাকার রেজিস্ট্রার ও পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
    আজ গ্রেপ্তারকৃত ভবন মালিক সোহেল রানা এবং ভবনটিতে অবস্থিত গার্মেন্টস কারখানার ৪ মালিককে হাইকোর্টে তোলার পর এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। ভবন মালিকেরা হচ্ছেন- আমিনুল ইসলাম, মাসুদুর রহমান, বজলুল সামাদ আদনান ও আনিসুর রহমান। হাইকোর্টের এর আগের নির্দেশে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। এছাড়া হাইকোর্টে হাজির হন সাভারের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কবির হোসেন সরকার ও সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান।
    এর আগে আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে ওই ৫ মালিককে বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে তোলা হয়। একই বেঞ্চে সাড়ে ১০টায় হাজির হন ইউএনও কবির হোসেন সরকার ও ওসি আসাদুজ্জামান। এর আগে সকাল ৯টার দিকে রিমান্ডে থাকা ৫ মালিককে হাইকোর্টে আনা হয়।
    গত ২৫ এপ্রিল রানা প্লাজার ভবন মালিক এবং ভবনটিতে অবস্থিত গার্মেন্টস কারখানার মালিকদের ৩০ এপ্রিল আদালতে হাজির করার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্টের একই বেঞ্চ। হাইকোর্টের অপর একটি বেঞ্চের আদেশে হাজির হন সাভারের ইউএনও কবির হোসেন সরকার ও সাভার থানার ওসি আসাদুজ্জামান। ওই দিনই বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বিচারপতি নাঈমা হায়দারের বেঞ্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, ভবন মালিক এবং ভবনটিতে অবস্থিত গার্মেন্টস কারখানার মালিকদের হাজির হতে নির্দেশ দেন। তবে এ আদালতও সবাইকে মির্জা হোসেইন হায়দারের বেঞ্চে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি, বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতি, ড. মো. ইউনূস আলী আকন্দ ও ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়ার রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত সেদিন ৪টি রুলও জারি করেন। রুলে রানা প্লাজা ধসের জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, ভবন কোড অনুযায়ী নীতিমালা তৈরির কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চেয়েছেন আদালত। সরকারসহ সংশ্লিষ্টরা, স্বরাষ্ট্র সচিব, শ্রম সচিব, ঢাকার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, রাজউকের চেয়ারম্যান, সাভারের ইউএনও ও ওসি এবং ভবনের মালিক, গার্মেন্টসগুলোর মালিক বা চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
    রানা প্লাজার ধ্বংসস্তুপের নিচ থেকে আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টা পর্যন্ত সরকারি হিসেবে ৩৯৭ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫২ জনের লাশ স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে। এছাড়া ভবনের ধ্বংসস্তুপ থেকে এ পর্যন্ত মোট জীবিত মানুষ উদ্ধারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৪৭৯ জনে।
    অন্যদিকে ইতিমধ্যেই রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় এ পর্যন্ত ওই ভবনের মালিক, মালিকের বাবা, ভবনে অবস্থিত কারখানাগুলোর মালিক ও সাভার পৌরসভার প্রকৌশলীসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত রবিবার দুপুরে বেনাপোল থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ভবনের মালিক সোহেল রানাকে। আর গতকাল সোমবার দুপুরে রানার বাবা আব্দুল খালেককে গ্রেপ্তার করা হয় রাজধানীর মগবাজার থেকে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here