যুদ্ধাপরাধের বিচার তরান্বিত করা এবং জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা সহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেবে নাগরিক সমাজ

    0
    4

    যুদ্ধাপরাধের বিচার তরান্বিত করা এবং ‘ধর্মের অপব্যবহারকারী’ সংগঠন জামায়াতকে নিষিদ্ধ করাসহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেবে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা।
    শিক্ষক, সাংবাদিক, সাহিত্যিক ও বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের প্রতিনিধিরা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটশন মিলনায়তনে এই সম্মেলনে অংশ নেন।

    যুদ্ধাপরাধের বিচার তরান্বিত করা এবং জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা সহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেবে নাগরিক সমাজ
    যুদ্ধাপরাধের বিচার তরান্বিত করা এবং জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা সহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেবে নাগরিক সমাজ

    পাঁচ দফা দাবিতে শনিবার ‘সাম্প্রদায়িতা-জঙ্গিবাদ বিরোধী মঞ্চ’ আয়োজিত নাগরিক সমাজের জাতীয় সম্মেলন থেকে এ কর্মসূচি দেয়া হয়।
    যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি ও জামায়াত নিষিদ্ধের দাবিতে দেশজুড়ে গণজাগরণের মধ্যে এটি ছিল নাগরিক সমাজের দ্বিতীয় সম্মেলন। এর আগে ১৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রথম সম্মেলন হয়।
    শনিবারের সম্মেলনে মঞ্চের পক্ষে পাঁচ দফা ঘোষণাপত্র উপস্থাপন করেন এর অন্যতম উদ্যোক্তা মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী।
    এতে বলা হয়, যুদ্ধাপরাধের বিচারকে কেন্দ্র করে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, স্বাধীনতার সপক্ষের শক্তি ও নারীসমাজ একাত্তরের মতো আবারো জামায়াত-শিবির ও অন্যান্য ধর্মান্ধ শক্তির লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।
    ধর্মান্ধ উগ্রবাদীরা দেশকে মধ্যযুগে ফিরিয়ে নেয়ার মতো দাবি উত্থাপন করছে। এ অপশক্তির সঙ্গে জোটবদ্ধভাবে আন্দোলন করছে প্রধান বিরোধী দল।
    শাহবাগের আন্দোলনকারীদের ঢালাওভাবে ‘নাস্তিক ব্লগার’ আখ্যায়িত করে তাদের শাস্তিসহ ১৩ দফা দাবিতে সম্প্রতি মিতিঝিলে সমাবেশ করে হেফাজতে ইসলাম নামের একটি সংগঠন যাদের সঙ্গে জামায়াতের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে।
    হেফাজতের ১৩ দফায় নারী নীতি বাতিল ও নারী-পুরুষের প্রকাশ্যে অবাধ চলাফেরা বন্ধের মতো দাবিও তোলা হয়েছে, যাতে সমর্থন দিয়েছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।
    সারওয়ার আলী বলেন, দেশের এ সংকটকালে প্রয়োজন একাত্তরের মতো মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সর্বসাধারণের জাতীয় ঐক্য, যারা অপশক্তির বিরুদ্ধে রুধে দাঁড়াবে। রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ।
    তরুণদের স্বাগত জানিয়ে সম্মেলনে বলা হয়, শাহবাগসহ দেশের সব জায়গায় গণজাগরণ মঞ্চের তরুণেরা মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে শান্তিপূর্ণ পথে সমুন্নত রাখছে।
    অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, ছায়ানট সভাপতি সনজিদা খাতুন, ঢাবি উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী, রানা দাশগুপ্ত, অধ্যাপক জাফর ইকবাল, সুশান্ত কুমার দাস, শাহদীন মালিক, অধ্যাপক অজয় রায় এমএম আকাশ, আবেদ খান, নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, রামেন্দু মজুমদার, খুশী কবির, সৈয়দ শামসুল হক, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার বক্তব্য দেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here