মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার আতঙ্কে শ্রমিকরা

    0
    2

    আমারসিলেটটোয়েন্টিফোর.কম ০১ সেপ্টেম্বর  : অবৈধ শ্রমিক গ্রেফতারে রোববার থেকে বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে মালয়েশিয়ায় ।মালয়েশিয়ার সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, সম্প্রতি অপরাধের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারণে নিরাপত্তা বিষয়ে জাতীয় উদ্বেগ দেখা দেয়ায় স্মরণকালের সবচেয়ে বড় এই অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মালয়েশিয়ার অভিবাসন দপ্তরের পরিচালক আলিয়াস আহমাদের উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, রোববার ১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে পরবর্তী তিন মাস এই অভিযান চলবে।

    ধারণা করা হয়, ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ এই দ্বীপ রাষ্ট্রটিতে প্রায় পাঁচ লাখ অবৈধ বিদেশি শ্রমিক কাজ করছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, ভিয়েতনাম, নেপাল, ইন্দোনেশিয়া এবং শ্রীলঙ্কার নাগরিকরা রয়েছে। বাংলাদেশী অবৈধ শ্রমিকদের মাঝে চরম গ্রেফতার আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। মালয়েশিয়ায় পাঁচ লাখের মতো অবৈধ অভিবাসী অবস্থান করছে। এদের বেশিরভাগই অপেক্ষাকৃত কম উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলো থেকে আসা ।

    মালয়েশিয়ার সংবাদ মাধ্যম দ্য স্টার জানায়, অভিবাসন দপ্তর পরিচালিত এই অভিযানে নিরাপত্তা বাহিনীর এক লাখ ৩৫ হাজার সদস্য কাজ করবেন।বিশ্বের অন্য দেশগুলোর তুলনায় অপেক্ষাকৃত শান্ত রাষ্ট্রটিতে সম্প্রতি অপরাধের মাত্রা খানিকটা বেড়ে গেছে। বাংলাদেশ থেকে সাম্প্রতি কালে ট্যুরিস্ট ও স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে আসা লোক ফেরত না যাওয়া। পারমিটের সুযোগ পেয়েও পারমিট না পাওয়া অবৈধ অধিবাসীর সংখ্যা সরকারের কাছে দিন দিন বাড়ছে । আবার এর মধ্যে গুলিবিনিময় ও হতাহতের ঘটনাও বাড়ছে । এ জন্য অবশ্য বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দায়ী করে থাকে প্রশাসন।অপরাধের ক্ষেত্রে অভিবাসীদের প্রধান ভূমিকায় না দেখা গেলেও বিপুল সংখ্যক বৈধ কাগজপত্রহীন শ্রমিকের উপস্থিতি মালয়েশিয়ার নিরাপত্তাজনিত উদ্বেগ বাড়িয়ে দিয়েছে।

    দুই বছর আগে এই শ্রমিকদের ক্ষমা করে বৈধ কাগজপত্র করার সুযোগ দেয়া হলেও তারা সে সুযোগ গ্রহণ করেননি। তাই কর্তৃপক্ষ তাদেরকে নিজ দেশে ফিরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ঘোষণার পর পরই দীর্ঘ এক দুই বছর পর মালয়েশিয়া সরকার অবৈধ শ্রমিকদের ধরপাড়ক শুরু করেছে। ইতিমধ্যে মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশনসহ যৌথবাহিনী অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ভাবে ধরপাড়ক শুরু করেছে।

    এালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন সূত্রে জানা গেছে অবৈধ শ্রমিকদের ধরতে ১ আগস্ট থেকে পুলিশ আর্মফোর্স রেলা ও ইনফোর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্ট এক লাখ ৩৫ হাজার পারসোনাল নিয়ে গঠিত একটি টিম বিশেষ অভিযান পরিচালিত হয়ে আসছে।

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here