মানবাধিকার সংস্থা অধিকারের সম্পাদক আদিলুর রহমান গ্রেফতার

    0
    6

    ঢাকা, আগস্ট : মানবাধিকার সংস্থা অধিকারের সম্পাদক ও সাবেক ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আদিলুর রহমান খানকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।শনিবার রাত ১০টার পর গুলশান ১ নম্বরে তার নিজ বাসভবনের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আইসিটি অ্যাক্ট ধারায় তার বিরুদ্ধে একটি মামলা রয়েছে। সে কারণেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।পরবর্তীতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে বলেও তিনি জানান।হেফাজতবিরোধী মতিঝিল অভিযান নিয়ে তথ্য বিকৃতির অভিযোগে ডানপন্থী মানবাধিকার সংগঠন হিসেবে পরিচিত অধিকারের সেক্রেটারি আদিলুর রহমান খান শুভ্রকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

    তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেপ্তার আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ঘনিষ্ঠ শুভ্রকে শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়। চারদলীয় জোট সরকার আমলের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শুভ্রের বিরুদ্ধে জামায়াত সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে।অধিকারের সেক্রেটারিকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে তার মুক্তি দাবি করে বিবৃতি দিয়েছে বিএনপি। অধিকারের পরিচালক নাসির উদ্দিন এলান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, রাত সোয়া ১০টার দিকে গুলশানে বাড়িতে ঢোকার সময় শুভ্রকে গ্রেপ্তার করে একদল গোয়েন্দা পুলিশ।

    ঢাকা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র মাসুদর রহমান বলেন, মতিঝিল অভিযান নিয়ে বিকৃত তথ্য ও ছবি প্রচারের মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তি আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে অধিকারের সেক্রেটারিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।শাপলা চত্বর থেকে হেফাজতে ইসলামের কর্মীদের তুলতে গত ৫ মে রাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যে অভিযান চালায়, তাতে ৬১ জন নিহত হয় বলে অধিকার এনিয়ে তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করে।মতিঝিলে গণহত্যা চালানো হয়েছিল বলে বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর নেতারা দাবি করলেও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই অভিযানে কেউ মারা যাননি। কেউ মারা গেলে তাদের স্বজনরা অন্তত খোঁজ জানতে চাইত।

    অধিকারের ওই প্রতিবেদনের পর সরকারের পক্ষ থেকে অধিকারের কাছে বক্তব্যের সপক্ষে প্রমাণ চেয়ে গত মাসে চিঠি দেয়া হয়। তথ্য মন্ত্রণালয়ের পাঠানো ওই চিঠিতে কথিত নিহত ৬১ জনের পূর্ণাঙ্গ পরিচয়, নাম, ঠিকানা চেয়ে বলা হয়, “৫ মে বিভিন্ন পত্রপত্রিকার কোথাও ১৬ জনের বেশি নিহত হওয়ার খবর পাওয়া না গেলেও প্রতিবেদনে ৬১ জন নিহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে।

    ফলে ওই রাতে হেফাজতের সমাবেশকে কেন্দ্র করে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী ও হেফাজতের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা নিয়ে ভ্রান্ত ধারণার অবতারণা হয়েছে।” এরপর অধিকার মন্ত্রণালয়ে ওই চিঠির জবাব পাঠিয়ে মতিঝিল অভিযান নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিশন গঠনের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানায়।শুভ্রের আগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেপ্তার করা হয় আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে, যিনি বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ছিলেন।

    কাবা শরিফের গিলাপ পরিবর্তনের ছবিতে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মুক্তি দাবিতে ইমামদের মানববন্ধনের ছবি হিসেবে প্রকাশকারী মাহমুদুরকে গ্রেপ্তার সাংবাদিকদের ওপর আক্রমণ হিসেবে দেখে আসছে অধিকার। গত ২৭ জুলাই মাহমুদুরকে রিমান্ডে নেয়ার পর প্রকাশিত মানবাধিকার সংগঠনটির এক প্রতিবেদনেও এর উল্লেখ রয়েছে।

    আদালত অবমাননার এক মামলায় সাজা খেটে ২০১১ সালের ১৭ মার্চ মাহমুদুর রহমান মুক্তি পেলে তাকে শুভেচ্ছা জানাতে কারাফটকে ফরহাদ মজহারের সঙ্গে আদিলুর রহমান শুভ্রও উপস্থিত ছিলেন।

     বিএনপির উদ্বেগ

    অধিকাররের সেক্রটারিকে গ্রেপ্তারে উদ্বেগ প্রকাশ করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক বিবৃতিতে বলেন, এর মাধ্যমে সরকারের স্বৈরাচারী মনোভাব প্রকাশ পেয়েছে।এভাবে একটি মানবাধিকার সংস্থার সম্পাদককে রাতের অন্ধকারে গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা উদ্বেগজনক। আমাদের আশঙ্কা, সরকারের নীল নকশার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে পুলিশ শুভ্রকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে শুভ্রের মুক্তি দাবি করেন বিএনপির মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here