ভিন্ন ধর্মাবলম্বিদের ওপর সংঘটিত অপরাধ সংক্রান্ত ট্রাইব্যুনাল

    0
    4

    আমারসিলেট24ডটকম,০৯জানুয়ারীঃ সংখ্যালঘুদের(ভিন্ন ধর্মাবলম্বিদের) ওপর সংঘটিত অপরাধ দমন সংক্রান্ত বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করতে আইন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এছাড়া সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা-নির্যাতনের ঘটনায় করা মামলাগুলো দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের জন্য আরো একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোঃ মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত দুটি চিঠি পাঠানো হয়।
    দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা-নির্যাতন, বাড়িঘরে অগি্নসংযোগ এবং লুটপাট চালায় বিএনপি-জামায়াত জোট। এর পরিপ্রেক্ষিতে এ ধরনের অপরাধের বিচার প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ উদ্যোগ নিয়েছে।
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সুত্র থেকে জানিয়েছে, দ্রুততম সময়ে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার বিচার নিশ্চিত করতে ‘সংখ্যালঘুদের ওপর সংঘটিত অপরাধ দমন সংক্রান্ত বিশেষ ট্রাইব্যুনাল’ গঠন করতে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আইন সচিবকে অনুরোধ করা হয়েছে। এছাড়া সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা, নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণ, বাড়িঘর-ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে আগুন, লুটপাট এবং সম্পত্তি দখলের ঘটনায় করা মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের জন্য মামলাগুলোর তথ্য, এজাহার ও অভিযোগপত্রের সত্যায়িত কপি জরুরিভিত্তিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছে।
    চিঠিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি সাতক্ষীরা, দিনাজপুর এবং রামুসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের(ভিন্ন ধর্মাবলম্বিদের) ওপর হামলা, নির্যাতন, লুটপাটের বিরুদ্ধে করা মামলাগুলোর বিচারের ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়া হবে।
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আইন শাখা এ সংক্রান্ত চিঠির অনুলিপি পুলিশের আইজি, সব বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ কমিশনার, ডিআইজি, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এবং জেলা পুলিশ সুপারকে পাঠানো হয়েছে।
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব (আইন শাখা) স্মৃতি রানী ঘরামী বলেন, ২০০১ সালেও নির্বাচনের পর সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা-নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এবারো নির্বাচনের আগে ও পরে একই ঘটনা ঘটল। এসব অপরাধমূলক ঘটনা প্রতিরোধ করার জন্য এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here