Thursday 29th of October 2020 05:15:20 PM
Saturday 21st of February 2015 06:03:36 PM

বেনাপোল চেকপোস্টে দু’বাংলার ভাষা প্রেমী মানুষের মিলনমেলা

আন্তর্জাতিক, জেলা সংবাদ, বিশেষ খবর ডেস্ক
আমার সিলেট ২৪.কম
বেনাপোল চেকপোস্টে দু’বাংলার ভাষা প্রেমী মানুষের মিলনমেলা

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২১ফেব্রুয়ারী,এম ওসমান ভৌগোলিক সীমারেখা ভুলে কেবল ভাষার টানে দুই বাংলার মানুষ একই মঞ্চে গাইলেন বাংলার জয়গান। নেতারা হাতে হাত রেখে ঊর্ধ্বে তুলে ধরলেন বাংলাকে। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট নোম্যান্সল্যান্ডে শনিবার এভাবেই কাটালেন দুই বাংলার ‘বাংলা ভাষাভাষী’ মানুষ।

বেনাপোল চেকপোস্ট নোম্যান্সল্যান্ডে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে প্রতিবছরের মতো এবারও ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানানো হল। মিষ্টি বিতরণ, আলোচনা আর গানে গানে মাতোয়ারা হল দুই বাংলার একই আকাশ একই বাতাস।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের খাদ্য ও সরবরাহমন্ত্রী জ্যোতি প্রিয় মল্লিক, রাজ্যসভার বনগাঁ অঞ্চলের বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস, উত্তর ২৪ পরগনার জেলা সভাধীপতি রহিমা খাতুন ও বনগাঁ পৌর মেয়র জোছনা আঢ্যের নেতৃত্বে সকাল ৯টায় ভারত থেকে আসা শত শত বাংলাভাষী মানুষ বাংলাদেশীদের ফুলের পাঁপড়ি ছিটিয়ে ও মিষ্টি দিয়ে বরণ করে নেয় একে অপরকে। নোমান্সল্যান্ডে অস্থায়ী শহীদ বেদীতে প্রথম ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান উভয় দেশের জনপ্রতিনিধিসহ সরকারি কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশের পক্ষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমত-আরা সাদেক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, যশোর জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফুল আলম, বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন তাদের স্বাগত জানান।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক বলেন, ‘৫২-এর ভাষা সংগ্রামের পথ ধরেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা এসেছে। আর এই স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারতের জনগণ ও সরকার আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। সে জন্য আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের খাদ্য ও সরবরাহমন্ত্রী জ্যোতি প্রিয় মল্লিক বলেন, ‘আপনারা ভাষার জন্য জীবন দিয়েছেন। স্বাধীনতার জন্য অকাতরে জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন। ভাষা আর স্বাধীনতার জন্য এত ত্যাগের নজির পৃথিবীতে অন্য কারও নেই। এ জন্য আপনারা গর্বিত জাতি। ভাষার টানে আমরা বাংলাদেশে ছুটে এসেছি একুশ উদযাপন করতে।’

দুপুরে ভারতীয় মন্ত্রী ও একুশ উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশের অতিথিদের সঙ্গে করে নিয়ে যান পেট্রাপোল সীমান্তে নির্মিত একুশ মঞ্চে। সেখানে আলোচনা সভায় দই দেশের মাতৃভাষা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দসহ অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন।

উভয় মঞ্চে একুশের কবিতা আবৃতি, ছড়া, গীতিনাট্য, আলোচনা আর সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী আব্দুল জব্বার, আবৃত্তিশিল্পী ভাস্বর মাহাবুব বন্দ্যোপ্যাধায়, কবি আব্দুল আজিজ সংঙ্গীত আবৃত্তি ও কবিতা পাঠ করেন।

২০০২ সাল থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর চেকপোস্টের জিরো পয়েন্টে মাতৃভাষা দিবস পালন করে আসছে দুই বাংলার মানুষ।


সম্পাদনা: News Desk, নিউজরুম এডিটর

আমারসিলেট২৪.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Place for advertisement
Place for advertisement

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc