বিসিসিবি’র মন্ট্রিয়েল চ্যাপ্টারের গুরুত্বপূর্ণ সভা অনুষ্ঠিত

    0
    4

    আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১১এপ্রিলঃ  সিবিএনএ কানাডা থেকেঃ   বাংলাদেশি কানাডিয়ানদের সংগঠন বিসিসিবি’র মন্ট্রিয়েল চ্যাপ্টারের গুরুত্বপূর্ণ এক সভা অনুষ্টিত হয় গত রোববার সন্ধ্যায় মন্ট্রিয়লের কনকার্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইভি বিল্ডিংয়ে। এতে উপস্থিত ছিলেন চ্যাপ্টারের সাথে সংশ্লিষ্ট ভলান্টিয়ার এবং নতুনভাবে উদ্দীপ্ত বেশ কয়েকজন প্রতিশ্রুতিবান বিসিসিবি-ইয়ান।

    সভায় বিসিসিবির কার্যক্রম তথা ২০১৭ সালের রোড ম্যাপ যেমন বিসিবির নিজস্ব  ইভেন্ট কিডস ডে, গ্যাপ  ডে আয়োজন, নিয়মিত গেট টুগেদার, স্পোর্টস ইভেন্ট আয়োজন, জব সাপোর্ট পোর্টফোলিও কার্যক্রম ও মেন্টরশীপ চালু সহ আরো অনেক বিষয়ে আলোচনা অনুষ্টিত হয়।

    রোডম্যাপ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন চ্যাপ্টারের অন্যতম টিম লীড এম..জে.এফ রূপম। সার্বিক সহায়তায় ছিলেন ওপর টিম লীড শিহাব উদ্দিন, মশিয়র রহমান সোহেল, রাফি মোহাম্মদ আজাদ, রিয়াজ ফারিদ।

    সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আশিক রহমান, হিশাম করিম চৌধুরী, শাহাব কাজী, নাজমুল হাসান, খালেদ আহমেদ প্রমুখ|

    কিডস ডে আয়োজনের জন্য পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি সাব কমিটি গঠিত হয়। কমিটিতে আছেন নাফিসা রহমান, রাকিব সিদ্দিকী, শাহাবুল আলম, এজাজ হান্নাহ ও মোহাম্মদ সুমন। সাব কমিটি অচিরেই কিডস ডে’র তারিখ ঘোষণা করবে।

    সভার এক পর্যায়ে টেলিফোন কল আসে বিসিসিবি সভাপতি রিমন মাহমুদের কাছ থেকে। লাউড স্পিকারে রিমন মাহমুদ মন্ট্রিয়েল চ্যাপ্টারের অগ্রযাত্রা দেখে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথম প্রজন্ম  কানাডায় সংগ্রাম করবো এটাই স্বাভাবিক। আমাদের এই সংগ্রামকে যথা সম্ভব সহজতর করা এবং এ সংগ্রামের আউটপুট যাতে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম কাজে লাগাতে পারে, তার জন্যই আমাদের এই বিসিসিবি করা। আর এজন্যই সকলকে  বাংলাদেশ এবং কানাডাকে বুকে ধারণ করে এক সাথে কাজ করে এগিয়ে যেতে হবে| কানাডার  বুকে  সর্বশ্রষ্ঠ  কমিউনিটি  হবে  আমাদের  বিসিসিবি কমিউনিটি- এটাই আমাদের মোটিভেশন। একটি সুন্দর কানাডা গড়ে  তোলার জন্য এটাই হবে আমাদের কনন্ট্রিবিউশন।’

    রিমন মাহমুদ তার বক্তব্যে বিসিসিবির একাধিক সাফল্যের উদাহরণ দেন। তিনি আরো বলেন, তিনি  বিশ্বাস  করেন  যে ভবিষ্যতে মন্ট্রিয়েল চ্যাপ্টার বিসিসিবি’র নিজস্ব প্যারামিটারের মধ্যে থেকে একটি স্বায়িত্বশাসিত (ইনিপেন্ডেন্ট চ্যাপ্টার ) চ্যাপ্টার হবে। তার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে।

    সভায় প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন পোর্টফলি ও বন্ঠন করা হয়। রিয়াজ ফারিদ “বিসিসি জব সাপোর্ট পোর্টফোলিও গড়ে তোলার দায়িত্ব নেন। এছাড়া রাফি আল আজাদ স্পোর্টস পোর্টফোলিও,  মশিয়র রহমান সোহেল ‘মেন্টরশীপ’, এম.জে.এফ রূপম “Funding  & community outreach” এবং শিহাব উদ্দিন দায়িত্ব নেন “Accommodation and Connection to the new comers” বিষয়গুলি দেখার।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here