বিরল দৃষ্টান্তঃ প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রী এক মঞ্চে

    0
    4

    আমারসিলেট24ডটকম,০২মার্চঃ আজ রবিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এক বিরল দৃষ্টান্ত সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো সরকার প্রধান এবং বিরোধীদলীয় নেত্রী এক মঞ্চে হাজির হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৩ এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৩ এর বিজয়ীদের পুরস্কার দেন। স্টেডিয়ামের ভিভিআইপি লাউঞ্জে বসে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলাও শেখ হাসিনা ও রওশন এরশাদ একসাথে দেখেন।
    এদিকে পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে স্টেডিয়ামে আসেন। তার আগেই স্টেডিয়ামে উপস্থিত হন রওশন এরশাদ। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণের  আগে মঞ্চে গিয়ে শেখ হাসিনা ও রওশন এরশাদ পাশাপাশি বসেন। প্রধানমন্ত্রীর বামদিকে বসেন বিরোধীদলীয় নেতা এবং ডানদিকে বসেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। মঞ্চেও বিরোধীদলীয় নেতার সাথে প্রধানমন্ত্রীকে বেশ কয়েকবার কথা বলতে দেখা যায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের মধ্যে যখন পুরস্কার বিতরণ করছিলেন তখন নীল পাড়ের সাদা শাড়ি পড়া রওশন এরশাদ তার পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন। অনেক খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার নিয়ে মঞ্চ থেকে নামার আগে রওশনের সাথেও হাত মেলান। তবে পুরো অনুষ্ঠানে থাকলেও রওশন এরশাদ কোনো মন্তব্য করেননি।
    অন্যদিকে ২০১৩ সালের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন  হয়েছে নীলফামারী ছোটাপীর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং রানার্সআপ হয়েছে বরিশালের তিন নম্বর করাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়। আর বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ময়মনসিংহের কালাসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং রানার্সআপ হয়েছে রাঙ্গামাটির মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। নীলফামারীর ছোটাপীর প্রাথমিক বিদ্যালয় বরিশালের তিন নম্বর করাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়কে ফাইনাল খেলায় ট্রাইব্রেকারে ৪-২ গোলে পরাজিত করে। আর ময়মনসিংহের কালাসিন্দুর সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয় রাঙ্গামাটির মঘাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়লকে ৪-১ গোলে পরাজিত করে। নীলফামারীর ছোটাপীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শাহীন এবং ময়মনসিংহের কালাসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তমা বেগম শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড়ের পুরস্কার নেন। দুই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দল একটি সোনার কাপ ও ১ লাখ টাকা এবং রানার্সআপ দল একটি রূপার কাপ ও ৭৫ হাজার টাকা পায়।
    এ দুটি টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয় ইউনিয়ন পর্যায় থেকে শুরু করে জাতীয় পর্যায় পর্যন্ত। ইউনিয়ন পর্যায়ে এবারের খেলা শুরু হয় ২০১৩ সালের জুন মাসে। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে এবার অংশ নিয়েছে ৬২ হাজার ২০৭টি দল। আর বঙ্গমাতা টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছে ৬২ হাজার ২৬১টি দল।
    বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এই খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমাদের ছেলেমেয়েরা আগামীতে আরো উন্নত খেলোয়াড় হতে পারবে। এই প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে খেলোয়াড় বেরিয়ে আসবে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভালো করবে। প্রধানমন্ত্রী আগামীতেও এই ধরনের প্রতিযোগিতা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন বলে জানা যায়।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here