বিএনপি আমাকে যুক্তরাষ্ট্রে অপহরণ করে হত্যার পরিকল্পনা করেঃজয়

    2
    7

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৯মার্চঃ বিএনপি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অপহরণ করে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ছেলে,  তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপষ্টো সজীব ওয়াজেদ জয়।

    আজ (সোমবার) ভোরে জয় তার ফেসবুক পেইজে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি এ অভিযোগ করেন। একই সঙ্গে তিনি ঘোষণা দেন, অপহরণ ও হত্যার পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

    “বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতৃত্ব সিজারকে মাসে ৪০,০০০ মার্কিন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রথম দফায় ৩০,০০০ মার্কিন ডলার ক্যাশ প্রদান করে। তদন্ত চলছে তাই আমি তাদের নাম প্রকাশ করতে পারছি না। বিএনপি আমাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অপহরণের পর হত্যার পরিকল্পনা করেছিলো।

    আবারও বলছি, এগুলো কোনো রাজনৈতিক দলের আচরণ হতে পারে না। এগুলো জঙ্গিদের আচরণ। যে দল নিরীহ মানুষ ও শিশুকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারে, তাদের কাছ থেকে আর কী আশা করা যায়?

    লক্ষ করে দেখুন, যেসব পত্রিকা ও “সুশীল সমাজ” আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলতে কখনো পিছপা হয় না, তারা এ বিষয়ে একেবারে নিশ্চুপ। বিএনপি অপহরণ ও হত্যা করতে পারে, তারপরও তারা কখনোই বিএনপিকে সরাসরি দায়ী করে কিছু বলবে না। তারা সবসময় দুই দলকে দোষী করবে। আমাকে হত্যা করার জন্য বিএনপির এই প্রচেষ্টার সপক্ষে তারা কোন যুক্তি তুলে ধরবে এখন?

    এই একই “সুশীল সমাজ” দাবি করে যে ব্যক্তিগত রেষারেষির জের ধরেই নাকি বিএনপি নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারে। আমাকে যখন কেউ হত্যার চেষ্টা করছে, সেটিও তখন আমি খুবই ব্যক্তিগত ব্যাপার হিসেবে নিচ্ছি। যারা এর জন্য দায়ী, তারা বিএনপির যতো উচ্চ পর্যায়ের নেতৃত্বই হোক না কেন, আমি তাদের হদিশ বের করে বিচারের মুখোমুখি করবো।”

    এর আগে গতকাল জাতীয় সংসদে সরকারি ও বিরোধী দলের সাংসদেরা সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণের চেষ্টার সঙ্গে জড়িত বিএনপির ‘হাইকমান্ডকে’ চিহ্নিত করার দাবি করেছেন। তাঁরা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত রায় দিয়েছেন, সজীব ওয়াজেদকে অপহরণের চেষ্টা হয়েছিল। রায়ে সাজাপ্রাপ্ত রিজভী আহমেদ বলেছেন, এর সঙ্গে বিএনপির হাইকমান্ড জড়িত। তাঁদের পরামর্শে তিনি অপহরণ প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত হন। এর মানে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত।

    গতকাল বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদসংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় এবং তার পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করে বড় ধরনের ক্ষতির ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে একজন এফবিআই এজেন্টকে ঘুষ প্রদানে জড়িত থাকার দায়ে বাংলাদেশীসহ দু’জনকে কারাদণ্ড দিয়েছে। সাজাপ্রাপ্ত বাংলাদেশীর নাম রিজভী আহমেদ সিজার (৩৬)। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাটের ফেয়ারফিল্ড কাউন্টির বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাসাসের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ মামুনের ছেলে।

    খবরে আরো বলা হয়, আদালত সিজারকে ৪২ মাস এবং ঘুষদানে মধ্যস্থতাকারী মার্কিন নাগরিক জোহান থালের (৫১) কে ৩০ মাসের কারাদণ্ড দেয়। মার্কিন বিচার বিভাগ জানায়, জেলা জজ ভিনসেন্ট এল ব্রিকেটি বৃহস্পতিবার এই দণ্ডাদেশ দেন। থালের ও সিজার উভয়েই স্বীকার করে যে, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে শুরু করে ২০১২ সালের মার্চ মাসের মধ্যে সজীব ওয়াজেদ জয়ের সম্পর্কে এফবিআই’র কাছে থাকা তথ্য পাচার করে দেয়ার জন্য এফবিআইয়ের স্পেশাল এজেন্ট রবার্ট লাস্টিকের সঙ্গে তারা ৫ লাখ ডলারে চুক্তিবদ্ধ হন। মামলার প্রধান আসামি এফবিআইয়ের স্পেশাল এজেন্ট রবার্ট লাস্টিকের সাজার বিষয়ে শিগগিরই আদেশ দেয়া হবে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here