Monday 28th of September 2020 07:09:14 AM
Thursday 7th of November 2013 08:26:04 PM

বাঙ্গালী তাঁতীর গায়ে এসিড নিক্ষেপঃজমি বিরোধের জের

অপরাধ জগত ডেস্ক
আমার সিলেট ২৪.কম
বাঙ্গালী তাঁতীর গায়ে এসিড নিক্ষেপঃজমি বিরোধের জের

আমার সিলেট  24 ডটকম,০৭নভেম্বর,শাব্বিরএলাহীজমি নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে এক বাঙ্গালী তাঁতীর গায়ে এসিড নিক্ষেপ করেছে প্রতি পক্ষ। গত বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টায় আদমপুর ইউনিয়নের ভানুবিল গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।বৃহস্পতিবার দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন এসিডদগ্ধ তাঁতী ইয়াছিন মিয়া (৩৭) অভিযোগ করে বলেন, তিনি স্ত্রী সন্তান নিয়ে সরকারী খাস জমিতে ভূমিহীন হিসাবে বসবাস করছেন। ভানুবিল ভূমিহীন গ্রামে বসবাস করে মণিপুরী তাঁতবস্ত্র তৈরী করতেন। একই গ্রামের ওয়াহেদ মিয়া (৫০) ও তার ছেলে রুবেল মিয়া (২২) ভোগ দখলকৃত সরকারী এ ভূমি জবর দখল করতে কয়েকবার হামলা চালিয়েছে। বছর খানেক আগে এ চক্রটি তার স্ত্রী লায়লা বেগমকে মারধর করে আহত করেছিল। এ নিয়ে ওয়াহেদ মিয়াদের সাথে একাধিক মামলা রয়েছে।

মামলাগুলো প্রত্যাহার না করলে প্রাণনাশের হুমকি দেয় প্রতিপক্ষ। গত বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় প্রাকৃতিক কারণে তিনি (ইয়াছিন মিয়া) ঘরের বাইরে বের হলে ওয়াহেদ মিয়া, ছেলে রুবেল মিয়া ও দুই ভাড়াটে আব্দুস সালাম (২৩) ও সালাত মিয়া (৪০) এসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সকালে এসিড দগ্ধ তাঁতী ইয়াছিন মিয়াকে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আদমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাঁতী ইয়াছিনের সাথে ওয়াহেদ মিয়া চক্রের বিরোধ ও মামলা চলছিল। আলোচনাক্রমে এ বিরোধ নিষ্পত্তি করতে চেয়ারম্যান হিসাবে তিনি উভয়পক্ষকে ডেকেছিলেন। তবে ওয়াহেদ মিয়া এ আহ্বানে সাড়া দেয়নি। ইউপি চেয়ারম্যান আরও বলেন, এসিডদগ্ধ ইয়াছিন মিয়া খুবই নিরিহ ও অসহায়। অভিযোগ সম্পর্কে কথা বলতে চেষ্টা করেও অভিযুক্ত ওয়াহেদ মিয়াকে পাওয়া যায়নি। কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডাঃ সাজেদুল করিম বলেন, এসিডদগ্ধ ইয়াছিনের চিকিৎসা চলছে। তবে তার অবস্থা এখন আশঙ্কামুক্ত।

কমলগঞ্জ থানার এসআই আকরাম হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে তিনি কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসিডদগ্ধ ইয়াছিন মিয়াকে দেখতে যান। তবে এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা বলেন, এ ধরনের অভিযোগ তিনি শুনেননি। তবে খতিয়ে দেখে বিহিত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।


সম্পাদনা: News Desk, নিউজরুম এডিটর

আমারসিলেট২৪.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Place for advertisement
Place for advertisement

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc