বড়লেখা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান বটল মিয়া’র দাফন সম্পন্ন

0
65
বড়লেখা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান বটল মিয়া'র দাফন সম্পন্ন

এম এম সামছুল ইসলাম, জুড়ী,মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আসাদ উদ্দিন বটলের জানাযা শনিবার (৩০ অক্টোবর ২০২১) জুড়ীর গোয়ালবাড়ী আপ্তাব উদ্দিন আমেনা খাতুন কলেজ মাঠে বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মরহুমের জানাযায় হাজারোও মানুষের শ্রদ্ধা ও অশ্রুসিক্ত ভালবাসায় ও কফিনে বিভিন্ন সংগঠনের ফুলেল শুভেচ্ছায় শেষ বিদায় জানায় গুনগ্রাহীরা।

বড়লেখা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আসাদ উদ্দিন বটলের মৃত দেহে ফুলেল শ্রদ্ধা

জানাযা পূর্বে তাঁর স্মৃতিচারন করে বক্তব্য রাখেন, বিএনপি নেতা ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা এডঃ আবেদ রাজা, ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সাবেক এমপি এম এম শাহীন, মৌলভীবাজার বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান চেয়ারম্যান, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুহেল আহমদ, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন, মৌলভীবাজার-১ (জুড়ী-বড়লেখা) আসনের বিএনপি এমপি পদপ্রার্থী আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন মিঠু, বড়লেখা উপজেলা চেয়ারম্যান শোয়েব আহমদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সুন্দর, জুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ মুঈদ ফারুক, বড়লেখা বিএনপি সভাপতি আব্দুল হাফিজ, জুড়ী বিএনপি সভাপতি দেওয়ান আইনুল হক মিনু, গোয়ালবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আহমদ লেমন, পূর্ব জুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন আহমদ, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সেলিম আহমদ ও শামীম আহমদ প্রমুখ।

জুড়ী উপজেলার পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ধামাই গ্রামের বাসিন্দা আসাদ উদ্দিন বটল ১৯৭৩ সালে বিপুল ভোটে পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

এরপর আরো ২ বার বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। একই বছর বড়লেখা উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।  উন্নয়নের রুপকার এম সাইফুর রহমানের হাত ধরে ১৯৭৮ সালে জাগো দলে যোগ দেন। বড়লেখা  উপজেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি পরে জুড়ী উপজেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষে বহির্বিশ্ব বিএনপি ফোরামের উপদেষ্টা ছিলেন। ১৯৯১ সালে মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা) আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করেন।

শিক্ষানুরাগী বটল মিয়া পিতার নামানুসারে নিজ এলাকায় জামকান্দিতে “মনোহর আলী এম সাইফুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়” প্রতিষ্ঠা করেন।  বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়ন ছাড়াও নয়াবাজার ষোলপনী ঈদগাহ পরিচালনা কমিটির আমৃত্যু সভাপতি ছিলেন। এছাড়া জুড়ী-বড়লেখার অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তা, সেতুসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে তিনি ব্যাপক ভূমিকা রাখেন। রাজনীতি ও সমাজসেবার পাশাপাশি মহালদারী ব্যবসায়ও তিনি ব্যাপক সফলতা অর্জন করেন।

আসাদ উদ্দিন বটল সোমবার (২৫ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় আমেরিকার নিউইয়র্কে একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। তিনি ৮ ছেলে ও ৪ মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। জানাযা শেষে তাঁকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here