ফেসবুকে মানহানিকর পোস্ট, ৪ যুবক দুই দিনের রিমান্ড

    0
    9

    নূরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জ থেকে: নবীগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে অশ্লীল লেখালেখির কারণে তথ্য প্রযুক্তি আইনে দায়েরী মামলায় কারাগারে আটককৃত নবীগঞ্জের ৫ যুবকের মধ্যে ১ জনের সিআইডি অফিসে ১ দিন, ৩ জনকে জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বিজ্ঞ আদালত। অপর আসামী শাহ শাহরিয়ার আহমেদ অপ্রাপ্ত হওয়ায় তাকে গাজীপুর কারাগারে প্রেরণ করা হবে বলে জানা গেছে। কারাগারে আটককৃতদের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জের সিআইডি অফিসের তদন্ত কর্মকর্তা ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। গতকাল সোমবার হবিগঞ্জের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামীদের বিরুদ্ধে রিমান্ড শুনানী হয়। শুনানী শেষে বিজ্ঞ বিচারক আসামী এনামুল হোসেন’কে সিআইডি কার্যালয়ে ১ দিনের এবং আসামী ফয়জুল ইসলাম, সাইফুর রহমান ও তাহের আহমদকে জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। অপর আসামী শাহ শাহরিয়ারকে বয়স কম হওয়ায় ঢাকা গাজীপুর কারাগারে প্রেরনের কথা রয়েছে।
    উল্লেখ্য, বিগত ১৫ ফেব্রুয়ারি তথ্য প্রযুক্তি আইনে দায়েরী মামলায় ৭ জন আসামীর মধ্যে ৫ জন হাজির হলে উভয় পক্ষের আইনজীবির দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বেগম তানিয়া কামাল আসামীদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।আসামীদের আদালতে হাজির হয়ে কারাগারে যাওয়ার খবর পেয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হবিগঞ্জের সিআইডির এসআই আসামীদের বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন করেন। গতকাল সোমবার রিমান্ডের শুনানী শেষে আদালত উপরোক্ত সিদ্ধান্ত নেন।
    এদিকে, আসামীদের রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার কারনে এনামের ভাই ইকবাল হোসেন, শাহরিয়ার পিতা হোসেন আলীসহ আসামীদের আত্মীয় স্বজনরা আদালত থেকে আসার পথে মামলার বাদীনি খেলন বেগম ও তার বোনকে প্রাণে হত্যার হুমকী দেয় মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে বাদিনী চরম আতংকের মাঝে রয়েছেন।মামলার আটককৃত আসামীরা হল- নবীগঞ্জের দত্তগ্রাম শেখ পাড়া গ্রামের ছানু মিয়ার ছেলে এনামুল হোসেন (২৫), আলকাছ মিয়ার ছেলে সাইফুর রহমান (২০), কামরুল ইসলামের ছেলে ফয়জুল ইসলাম (২৪), উছমান আলীর ছেলে তাহের আহমেদ (১৮) এবং শাহ হোসেন আলীর ছেলে শাহ শাহরিয়ার আহমেদ (২১)। অপর দু’আসামী পলাতক রয়েছে।